×
South Asian Languages:
প্রাক্তন সোভিয়েত দেশ, 2010
কির্গিজিয়ার নতুন প্রধানমন্ত্রী আলমাজবেক আতামবায়েভ রাশিয়ায় কর্মসফরে আসছেন ২৬-২৭শে ডিসেম্বর রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিনের আমন্ত্রণে. রাশিয়ার সরকারের প্রেস সার্ভিসে জানানো হয়েছে, “২৭শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য দুই প্রধানমন্ত্রীর আলাপ-আলোচনার গতিতে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার সমস্ত ক্ষেত্রের জরুরী প্রশ্নাবলি আলোচনার পরিকল্পনা আছে”. নিজের প্রথম সফর রাশিয়াতে করার অভিপ্রায় সম্পর্কে আতামবায়েভ বলেছিলেন গত সপ্তাহে পার্লামেন্টে তাঁর নাম আলোচনার সময়.
মস্কোতে স্বাধীন রাষ্ট্রবর্গের কমনওয়েলথের শীর্ষ বৈঠকে অংশগ্রহনকারী দেশসমূহ নিজেদের মাঝে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ করতে  ঐক্যমতে পোঁছেছে.আগামী ২০১৫ সাল নাগাদ সামরিক সম্পর্ক বিষয়ে একটি প্রস্তাবনা গৃহিত হয়েছে.এছাড়া জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম,আতংকবাদ ও মাদক চোরাচালান প্রতিরোধে প্রকল্প তৈরীতে রাজি হয়েছে.
রাশিয়া, বেলোরুশিয়া ও কাজাখস্তানের একক অর্থনৈতিক এলাকা “নিজের পায়ে দাঁড়াচ্ছে” এবং বিদেশীরা একে বাণিজ্য ও বিনিয়োগের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ শরিক হিসেবে গ্রহণ করছে. এ সম্বন্ধে বলেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ, শুল্ক সঙ্ঘের সর্বোচ্চ অঙ্গের বৈঠকের ফলাফলের ভিত্তিতে. তাঁর কথায়, একক অর্থনৈতিক এলাকা, আর পরবর্তীতে ইউরেশীয় সঙ্ঘ, অন্যান্য দেশের যোগদানের জন্য খোলা থাকবে.
অর্থনৈতিক সহযোগিতার পরিপ্রেক্ষিত, সেই সঙ্গে ভবিষ্যতে এ কমনওয়েলথের ভূভাগে স্বাধীন বাণিজ্য এলাকার গঠন- মস্কোয় আজ অনুষ্ঠিতব্য এ কমনওয়েলথের শীর্ষ সাক্ষাতে মনোযোগের কেন্দ্রস্থলে রয়েছে. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির প্রেস-সার্ভিসে জানানো হয়েছে যে, কমনওয়েলথের কাঠামোতে স্বাধীন বাণিজ্য এলাকা সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষরের উদ্দেশ্য হল স্বাধীন রাষ্ট্রগর্গের এলাকায় বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বাধা উচ্ছেদে এবং তার উদারনৈতিকরণে সহায়তা করা.
রাশিয়া, বেলোরুশিয়া ও কাজাখস্তানের রাষ্ট্রপতিরা আজ মস্কোয় সমবেত হচ্ছেন শুল্ক সঙ্ঘ এবং একক অর্থনৈতিক এলাকার নিয়ম ও বিধানিক বনিয়াদ গঠন সুদৃঢ় করার জন্য. দমিত্রি মেদভেদেভ, আলেক্সান্দর লুকাশেনকো এবং নুরসুলতান নজরবায়েভের এ সাক্ষাত্ হচ্ছে ইউরেশীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা পরিষদের বৈঠকের কাঠামোতে.
তুর্কমেনিস্তান-আফগানিস্তান-পাকিস্তান-ভারত (তাপি) গ্যাস পাইপলাইন নির্মাণ সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে আশখাবাদে ১১ই ডিসেম্বর. চুক্তি স্বাক্ষরের সমারোহে প্রথম তিনটি দেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন রাষ্ট্রপতিরা, আর ভারতীয় পক্ষের- তেল ও গ্যাস সংক্রান্ত মন্ত্রী.
রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন এবং বেলোরুশিয়ার প্রধানমন্ত্রী সের্গেই সিদোরস্কি আজ মস্কোয় একক অর্থনৈতিক এলাকা গঠন সম্পর্কে পক্ষদ্বয়ের স্থিতি আলোচনা করতে চান. কথা হচ্ছে শুল্ক সঙ্ঘে অংশগ্রহণকারী দেশ- রাশিয়া, বেলোরুশিয়া ও কাজাখস্তানের আরও সঙ্গতি সাধনের. একক অর্থনৈতিক এলাকা অনুযায়ী সর্বসম্মত ম্যাক্রো-ইকোনোমিক নীতি অনুসরণ করার কথা, এবং তাছাড়া পণ্য, সার্ভিস, পুঁজি এবং লোকবলের স্বচ্ছন্দ গতি সুনিশ্চিত করার কথা.
ডিসেম্বর মাসে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভের পররাষ্ট্রনৈতিক যোগাযোগের ব্যস্ত কর্মসূচি পরিকল্পিত. মাসের প্রথম দিনগলিতে তিনি থাকবেন আস্তানায়, যেখানে ১১ বছরের বিরতির পরে ইউরোপীয় নিরাপত্তা ও সহযোগিতা সংস্থার প্রথম শীর্ষ বৈঠক হবে. ৭ই ডিসেম্বর ব্রাসেলসে শীর্ষ পর্যায়ে রাশিয়া-ইউরোসঙ্ঘ সাক্ষাত্ হবে.
দুশানবেতে শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার দেশগুলির সরকারের নেতাদের সাক্ষাত্ হচ্ছে. আলাপ-আলোচনার সূচনা করে তাজিকিস্তানের রাষ্ট্রপতি এমোমালি রাহমোন “আশপাশের এলাকাগুলিতে শান্তি এবং সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সংগ্রামের নামে” সহযোগিতা সুদৃঢ় করার আহ্বান জানান. রাশিয়ার প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব করছেন প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন. তিনি তাজিকিস্তানের রাজধানীতে পৌঁছেছেন বুধবার রাতে.
রাশিয়া, বেলোরুশিয়া ও কাজাখস্তানের শুল্ক সঙ্ঘের সংবিধি আজ বলবত্ হয়েছে. তত্সংক্রান্ত ঘোষণাপত্র সোমবার এ তিনটি দেশের রাষ্ট্রপতিরা স্বাক্ষর করেন আস্তানায় ইউরেশীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষ সম্মেলনের ফলাফলের ভিত্তিতে. আগে অনুমিত ছিল যে, একক শুল্ক সংবিধি কার্যকরী হবে ১লা জুলাই থেকে. তবে, ঐ দিন থেকে তা ব্যবহৃত হতে থাকে শুধু রাশিয়া ও কাজাখস্তানের ক্ষেত্রে. বেলোরুশিয়া তা গ্রহণ করে কয়েক দিন পরে.
রাশিয়া, বেলোরুশিয়া ও কাজাখস্তানের রাষ্ট্রপতিরা শুল্ক সঙ্ঘের সংবিধি বলবত্ হওয়া সংক্রান্ত ঘোষণাপত্র স্বাক্ষর করেছেন. এই ত্রিপাক্ষিক সংগঠন কাজ করতে শুরু করবে ৬ই জুলাই, জানিয়েছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ আস্তানায় এক সাংবাদিক সম্মেলনে ইউরেশীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষ সম্মেলনের ফলাফল সম্পর্কে,- এই অর্থনৈতিক সংস্থায় উপরোক্ত তিনটি দেশ ছাড়া অংশগ্রহণ করছে কির্গিজিয়া ও তাজিকিস্তান.
রাশিয়া, কাজাখস্তান, বেলোরুশিয়া, তাজিকিস্তান ও কির্গিজিয়ার রাষ্ট্রপতিরা ইউরেশীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষ সম্মেলনে সমবেত হয়েছেন. কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানায় তাছাড়া উপস্থিত আছেন আর্মেনিয়া ও ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতিরাও. এ দেশগুলি ইউরেশীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থায় পর্যবেক্ষক. শীর্ষ সম্মেলনের “ গৃহকর্তা ” কাজাখস্তানের রাষ্ট্রপতি নুরসুলতান নজরবায়েভ অতিথিদের সম্বর্ধনা জানিয়ে ইউরেশীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থার ১০ম বছরের এ বৈঠককে প্রতীকী বলে অভিহিত করেন.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2010
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2010
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28
29
30
31