×
South Asian Languages:
ঘটনা প্রসঙ্গ, 4 ফেব্রুয়ারী 2012
জাতিসংঘ ২০১১ সালকে আফগানিস্তানের বেসামরিক জনগনের জন্য সবচেয়ে রক্তাক্ত বছর বলে বর্ননা করেছে।আজ শনিবার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে জাতিসংঘের প্রকাশিত
সিরিয়ার হোমস শহরে গোলাগুলির ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২১৭ জনে উন্নীত হয়েছে।সিরিয় নাগরিকদের মানবাধিকার রক্ষা সংক্রান্ত লন্ডনভিত্তিক একটি কেন্দ্রের
ইরানের প্রশাসন সেই সমস্ত দেশের সমর্থন করবে,যারা ইজরায়েলের বিরুদ্ধে যাবে,এই কথা ঘোষণা করেছেন শুক্রবারে ঐস্লামিক প্রজাতন্ত্র ইরানের ধর্মীয় নেতা আয়াতোল্লা আলি খোমেনেই. তাঁর কথা মতো, ইজরায়েল – "এটা ক্যান্সারের টিউমার, যা ভগবানের সহায়তা নিয়ে কেটে বাদ দেওয়া দরকার". খোমেনেই যোগ করেছেন যে, ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক অপারেশন শুরু করার শেষ মার্কিন হুমকি আমেরিকার লোকেদেরই ক্ষতি করবে.
সিরিয়ার জাতীয় সভা নামে বিরোধী গোষ্ঠীর নেতা বুরহান গালিউন সেই দেশের অন্তর্বর্তী কালীণ সময়ে দেশ চালনার শর্ত নিয়ে মস্কো
হাজার দশেকেরও বেশী ইজিপ্টের লোক শুক্রবারের নামাজ পড়ার পরে তিনটি মিছিল করে তহরির চকের দিকে যাচ্ছে বলে রিয়া নোভস্তি সংস্থা খবর দিয়েছে. এই মিছিলের কারণ, যা গতকাল থেকেই শুরু হয়েছে, তা হল পোর্ট সাইদ শহরে ফুটবল খেলা ঘিরে গোলমাল, যার ফলে ৭০ জনেরও বেশী নিহত ও অনেক লোক আহত হওয়া.
ইজিপ্টের সিনাই উপদ্বীপ অঞ্চলে দই মার্কিন মহিলা ট্যুরিস্টকে যারা অপহরণ করেছে, তারা দাবী করেছে জেল থেকে দুই জন ব্যাঙ্ক ডাকাতকে,যারা গত শনিবারে শার্ম এল শেইখ শহরের এক বিদেশী মুদ্রা কেন্দ্র লুঠ করেছিল, তাদের ছেড়ে দেওয়ার.এই বিষয়ে স্থানীয় পুলিশের মুখপাত্র সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছে.
আন্দ্রেস ফন রাসমুসেন ২০১৪ সালে সম্ভাব্য আফগান অপারেশন শেষ হওয়ার পরে সেই দেশের নিরাপত্তা রক্ষী বাহিনীর প্রয়োজনীয় অর্থ সাহায্যের জন্য সারা বিশ্ব সমাজের কাছে আবেদন করেছেন.রাসমুসেন বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন যে, "সারা বিশ্ব সমাজের স্বার্থেই শান্তিপূর্ণ, স্থিতিশীল ও নিরাপদ আফগানিস্তান প্রয়োজনীয়".
ফেব্রুয়ারী 2012
ঘটনার সূচী
ফেব্রুয়ারী 2012