×
South Asian Languages:
ঘটনা প্রসঙ্গ

২০১৩ সালের শেষ বঙ্গোপসাগরে ভারতের একসারি সামরিক কাজকর্ম দিয়ে চিহ্নিত করা হয়েছে. “অগ্নি-৩” রকেটের উড়ান আর জাপান – ভারত সম্মিলিত সামুদ্রিক মহড়া – শুধু এই সবেরই কয়েকটা উদাহরণ হতে পারে. এটা কোন দ্ব্যর্থ না রেখেই বলা যেতে পারে যে, ভারত শুধু এখন সমুদ্র তীরে কোন রকমের আক্রমণ প্রতিহত করতেই সক্ষম নয়, বরং অনেক উচ্চাকাঙ্ক্ষাও পোষণ করেছে, যা তাদের সমুদ্র সীমা থেকে অনেক দূরের এলাকায় বর্তমানে তৈরী হয়েছে. বাস্তবে ভারতের সামরিক –সামুদ্রিক ক্ষমতা বৃদ্ধি করা বহু রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের সেই তত্ত্বকেই প্রমাণ করে দেয় যে, ভারত ও প্রশান্ত মহাসাগর ইতিমধ্যেই একটি সম্পূর্ণ মহাসাগরে পরিণত হতে চলেছে – যাকে বলা যেতে পারে ভারত- প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকা.

সিরিয়া সঙ্কট সমাধানের জন্য “জেনেভা – ২” আন্তর্জাতিক সম্মেলনের শুরু হতে আর এক মাসের কম সময় রয়েছে. কিন্তু এখনও কারা অংশগ্রহণ করবে তা ঠিক হয় নি. বিরোধী পক্ষ ঠিক করে উঠতে পারছে না সুইজারল্যান্ডে কি নিজেদের প্রতিনিধি দল পাঠানো হবে, আর তা যদি হয়, তবে ঠিক কাকে. আর ইরানের যোগদান নিয়ে রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এখনও সমঝোতায় পৌঁছতে পারছে না.

ঠিক দুই বছর আগে বাগদাদে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক পতাকা নামিয়ে নেওয়া হয়েছিল. এটা ছিল একটা প্রতীকী ব্যাপার, যা করা হয়েছিল, স্রেফ দেখানোর জন্যই যে, ইরাক থেকে মার্কিন সেনাবাহিনী চলে যাচ্ছে. আগামী বছরে, সব দেখে শুনে মনে হয়েছে যে, আমেরিকার সেনাবাহিনীর মূল অংশ আফগানিস্তান থেকেও নিয়ে যাওয়া হতে চলেছে.

কিছু লোক মনে করেছেন যে, ওয়াশিংটন রাজনৈতিক দিক থেকেও মধ্য ও নিকট প্রাচ্য থেকে নিজেদের প্রভাব কম করছে – আর এটা বিগত সময়েই বেশী করে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে.

রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান ইরান সফরে গিয়েছিলেন, যেখানে তিনি তাঁর সহকর্মী জাভাদ জারিফের সঙ্গে আলোচনা করেছেন আর তাঁর সঙ্গে ঐস্লামিক প্রজাতন্ত্র ইরানের রাষ্ট্রপতি হাসান রোহানি দেখা করেছেন.

যদিও এই সফরকে আনুষ্ঠানিক ভাবে কার্যকরী বলা হয়েছে, তবুও তার সংজ্ঞা সাধারণ দ্বিপাক্ষিক অনুষ্ঠানের বাইরেই হয়েছে. এই প্রসঙ্গে আমাদের সমীক্ষক ভ্লাদিমির সাঝিন মন্তব্য করেছেন.

যখন হোয়াইট হাউসের থেকে পাঠানো দূতেরা ও আফগানিস্তানের রাষ্ট্রপতি খুবই কড়া ভাষায় একে অপরের সঙ্গে আফগানিস্তানের প্রতিরক্ষা নিয়ে চুক্তির বিষয়ে সময় ও শর্ত নিয়ে আলোচনায় মত্ত, তখনই বিশেষজ্ঞরা অনুমান করতে বসেছেন যে, কি করে এই দরাদরি আফগানিস্তানের অন্যান্য জীবন যাপনের ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলবে.

কাবুলে কিছু বিশেষজ্ঞ ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছেন যে, আফগানিস্তানের লোকদের এই চুক্তির একেবারেই কোন দরকার নেই, কারণ দেখাই যাচ্ছে যে, আমেরিকার লোকরা আফগানিস্তানকে কিছুই দেয় নি, শুধুমাত্র সেই দেশে মাদক দ্রব্য উত্পাদনের বিষয়ে তুমুল পরিমাণে অগ্রগতি ছাড়া. আরও একদল মনে করেছেন যে, এই চুক্তির আবার কিছু ইতিবাচক দিকও রয়েছে, যা ব্যবহার করা দরকার.

আফগানিস্তানের পার্লামেন্ট জির্গা অধিবেশনে অংশ নেওয়া সদস্যরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সামরিক চুক্তি স্বাক্ষর করার স্বপক্ষে মত দিয়েছেন ও তাঁরা আহ্বান করেছেন রাষ্ট্রপতি হামিদ কারজাইকে ২০১৩ সাল শেষ হওয়ার আগেই এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করার জন্য. কারজাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য নিজের পক্ষ থেকে শর্ত দিয়েছেন. তার মধ্যে রয়েছে ২০১৪ সালের এপ্রিল মাসে দেশে উন্মুক্ত নির্বাচন বাস্তবায়নে সহায়তা করা ও আফগানিস্তানের ঘর বাড়ীতে হানা দেওয়া বন্ধ রেখে, তালিবদের সঙ্গে আলোচনায় অগ্রগতি করা.

সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র ভূমিতে নষ্ট করা নিয়ে সহমতে আসা সম্ভব হচ্ছে না. রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থার বিশেষজ্ঞরা এবারে তা সমুদ্রে নষ্ট করার সম্ভাবনা খতিয়ে দেখছেন. নিরপেক্ষ জলসীমা কতখানি বিষাক্ত দ্রব্য নষ্ট করার জন্য উপযুক্ত জায়গা, তা নিয়ে আলোচনা করেছেন “রেডিও রাশিয়ার” বিশেষজ্ঞরা.

ভারত সঙ্কটের দোড়গোড়ায়. আপাততঃ অর্থনীতিবিদরা বিদেশী মূলধন আকর্ষণ করা নিয়ে যখন ব্যস্ত ও রাজনীতিবিদরা এগিয়ে দিচ্ছেন দেশের জন্য খুবই দামী খাদ্য নিরাপত্তা বিল, তখন ভারতের জাতীয় মুদ্রা রুপিয়ার দাম কমে যাওয়ার কারণে খুবই দ্রুত বেড়ে গিয়েছে যেমন জ্বালানী ও শিল্পজাত দ্রব্যের দাম, তেমনই মূল খাদ্যোপোযোগী জিনিষের দামও: আলু, পিঁয়াজ ও নুনের দাম. পরিস্থিতি একেবারে চরমে পৌঁছেছে যখন বিহারে নুনের দাম এক দিনে পনেরো টাকা থেকে দশগুণ বেড়ে দেড়শো টাকা হয়েছিল প্রতি কিলোগ্রামে.

অবশেষে জানা গিয়েছে যে, আমেরিকার সাংবাদিক, ব্লগার ও আইনজীবী গ্লেন গ্রীনওয়াল্ড কোথায় কাজ করতে যাবেন. তিনিই প্রথম বিশ্বকে জানিয়েছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার প্রাক্তন পলাতক কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেনের ফাঁস করে দেওয়া খবরের কথা. গ্রীনওয়াল্ড সাংবাদিকদের তদন্ত করার এক নতুন সাইটের একজন প্রধান হতে চলেছেন.

হোয়াইট হাউসের তরফ থেকে জোর করে ঘোষণা যে, রাষ্ট্রপতি জানতেন না বিশ্বের নেতাদের উপরে আড়িপাতা হচ্ছে, তা অবশেষে সেই জায়গাতেই এসে পৌঁছেছে, যেখানে আগে হোক বা পরেই হোক পৌঁছান হতই. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গুপ্তচরদের সমাজ এবারে একদম সহ্যের শেষ সীমা অবধি বিরক্ত হয়েছে যে, বিশ্বজোড়া গুপ্তচর বৃত্তির দায়ভার চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে যারা এই কাজ করেছে তাদের উপরেই, কিন্তু যারা তার জন্য “আসলে বরাত দিয়েছে”, তাদের উপরে নয়. আর এবারে বারাক ওবামা নিজের বাড়ীতেই “দ্বিতীয় যুদ্ধের ফ্রন্ট” পেয়েছেন, যা ইউরোপের পক্ষ থেকে অসন্তুষ্টির সঙ্গেই যোগ হয়েছে. যদি আমেরিকার খবরের কাগজগুলোকে বিশ্বাস করা হয়, তবে এই ফ্রন্ট দেশের সমস্ত গুপ্তচর সমাজকেই জুড়ে তৈরী হয়েছে.

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরফ থেকে তাদের সবচেয়ে কাছের সহযোগী দেশের রাষ্ট্রপ্রধান অ্যাঞ্জেলা মেরকেল ও ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ফ্রান্সুয়া অল্যান্দের বিরুদ্ধে গুপ্তচর বৃত্তি করা নিয়ে স্ক্যান্ডাল নতুন সমস্ত খুঁটিনাটি যোগ হয়ে আরও পাহাড় প্রমাণ হয়ে উঠছে. এই সপ্তাহের শুরুতে দেখা গেল যে, আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা দপ্তর সেই ২০০২ সাল থেকেই জার্মানীর চ্যানসেলারের টেলিফোনে কথাবার্তার উপরে আড়ি পেতে চলেছে, আর তা এই বছরের গরমেও হয়েছে. তার ওপরে আবার জার্মানীর সংবাদ মাধ্যম থেকে যা খবর দেওয়া হয়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে যে, ওবামা এই সম্বন্ধে খুব ভাল করেই জানতেন. হোয়াইট হাউসের তরফ থেকে এটা অস্বীকার করা হয়েছে. আর তাহলে দেখা যাচ্ছে যে, রাষ্ট্রপতি জানেন না, তাঁর গুপ্তচররা কি করছে.

ওয়াশিংটন ও ইসলামাবাদের মধ্যে সম্পর্ক নতুন করে গুরুতর পরীক্ষার সামনে পড়েছে, যখন আমেরিকার ওয়াশিংটন পোস্ট সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে স্ক্যান্ডাল হওয়া কিছু তথ্য প্রকাশ করেছে যে, আমেরিকার গুপ্তচর বাহিনীর পক্ষ থেকে সেই সমস্ত প্রশাসনের উপরে নজরদারি করা হয়েছে, যারা আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তার হুমকি হয়ে দাঁড়াতে পারে, সেই বিষয়ে.

রাশিয়া যে দুটি প্রাথমিক ধারণা নিয়ে “জি২০” গোষ্ঠীর সভাপতিত্বের সময়ে কাজ করেছে তা হল উপযোগিতা ও সময়মতো জানানি দেওয়া. রাশিয়ার থেকে শেরপা বা প্রতিনিধি যিনি এই জি২০তে প্রতিনিধিত্ব করেছেন, সেই ক্সেনিয়া ইউদায়েভা ব্যাখ্যা করে বলেছেন যে, রাশিয়া কি ধরনের লক্ষ্য নিজেদের সামনে রেখেছে ও “বৃহত্ কুড়ি” অর্থনৈতিক দেশের নেতাদের শীর্ষ সম্মেলনের প্রাক্কালে কি ধরনের ফলাফল পাওয়া সম্ভব হয়েছে. এই শীর্ষ সম্মেলন হবে ৫-৬ সেপ্টেম্বর সেন্ট পিটার্সবার্গে.

ভারতীয় সেনাবাহিনীর উত্স অনুযায়ী, শুধু গত কয়েক মাসেই চিনের সামরিক বাহিনীর লোকরা দেড়শো বার ভারতের সীমান্ত লঙ্ঘণ করেছে প্রহরার সময়ে. প্রসঙ্গতঃ, ভারতের সামরিক বাহিনীও প্রায়ই বিতর্কিত এলাকায় ঘোরাফেরা করেছে, যে জায়গার দাবি করে চিন.

১৯৮৮ সালের ২০শে আগষ্ট, আজ থেকে ২৫ বছর আগে ইরান ও ইরাকের মধ্যে শান্তি চুক্তি বহাল হয়েছিল. আট বছর ধরে চলা রক্তক্ষয়ী এক ভীষণ যুদ্ধের ইতি হয়েছিল, যাকে ইরানে বলা হত “পবিত্র প্রতিরক্ষা” আর ইরাকে “সাদ্দামের কাদিসিয়া” (এল- কাদিসিয়া নামক জায়গায় খ্রীষ্টীয় ষষ্ঠ শতকে ইরাকের মুসলিম বাহিনী পারস্যের সাসানিদদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়লাভ করেছিল) বলে. কিন্তু বিশেষজ্ঞদের মতে, কোন একটি যুদ্ধে রত পক্ষই বিতর্কের উর্দ্ধে থাকার মতো বিজয় এই যুদ্ধে অর্জন করতে পারে নি.

ইজরায়েল সরকার স্থির করেছে ২৬জন প্যালেস্টাইনের নাগরিককে জেল থেকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য. তাদের ছেড়ে দেওয়া সিদ্ধান্ত প্যালেস্টাইনের নেতৃত্বের সঙ্গে আলোচনায় বসার আগে নেওয়া হয়েছে. কিন্তু একই সঙ্গে ঘোষণা করা হয়েছে যে, জর্ডন নদীর পশ্চিম তীরে বসতি নির্মাণের কাজ অব্যাহত থাকবে.

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্বময় বৈদ্যুতিন গুপ্তচর বৃত্তির একাংশ মস্কো শহরেই রয়েছে. এই রকমের চাঞ্চল্যকর এক তথ্য সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছে প্রাক্তন মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেন, যে সাময়িক ভাবে রাজনৈতিক আশ্রয় পেয়েছে রাশিয়াতেই. সে আরও মনে করে যে, আমেরিকার XKeycore নামের অনুসরণ করার সিস্টেমের একটি সার্ভার রাশিয়াতে আমেরিকার দূতাবাসের মধ্যেই রয়েছে. কিন্তু সমস্ত বিশেষজ্ঞরাই এই চাঞ্চল্যকর খবরকে গুরুত্ব দিতে চান নি. তাঁদের সন্দেহ নিয়ে তাঁরা রেডিও রাশিয়ার সঙ্গে কথা বলেছেন.

কাশ্মীরে তথাকথিত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর বিগত দশকের মধ্যে একটি সবচেয়ে গুরুতর ঘটনা ঘটে গিয়েছে, পাঁচজন ভারতীয় জওয়ান প্রাণ হারিয়েছেন আর এই ঘটনা ছিল খুবই ভালো করে ভেবে করা একটা প্ররোচনার মতই, যা অনেক প্রশ্ন রেখে গিয়েছে.

মার্কিনী প্রতিরক্ষামন্ত্রী চাক হেগেল মিশরের সহকর্মীকে আহ্বান জানিয়েছেন প্রতিবাদ মিছিলের প্রতি সেনাবাহিনীর প্রতিক্রিয়া নরম করার, জানিয়েছে পেন্টাগন. মার্কিনী সামরিক বিভাগের খবরে বলা হচ্ছে যে, হেগেল মঙ্গলবার মিশরের প্রতিরক্ষামন্ত্রী আব্দেলফাত্তাহ আস-সিসি-র সাথে টেলিফোনে আলাপ করেছেন. পক্ষদ্বয় মিশরে নিরাপত্তার পরিস্থিতি আলোচনা করেছেন.

শাসন ক্ষমতা থেকে অপসারিত মিশরের রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সি সরকারীভাবে পদত্যাগ করার জন্য ইউরোসঙ্ঘের কূটনীতির প্রধান ক্যাথ্রিন অ্যাশটনের আহ্বান প্রত্যাখান করেছেন. এ সম্বন্ধে তুরস্কের আনাতোলিয়ার সংবাদ এজেন্সিকে জানিয়েছে “ভাই মুসলমান” আন্দোলনের প্রতিনিধি মুহাম্মেদ আল-বেলগাতি. তাঁর কথায়, মুর্সি ক্ষমতাচ্যুত হওয়াকে সামরিক কুদেতা হিসেবে বিবেচনা করেন.

আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
এপ্রিল 2017
ঘটনার সূচী
এপ্রিল 2017
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28
29
30