×
South Asian Languages:
শ্রীলঙ্কা

শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোয় শেষ হয়েছে তিন দিনব্যাপী কমনওয়েলথ শীর্ষ সম্মেলন। শ্রীলংকান প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপাকসে সম্মেলনকে ফলপ্রসু হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন। তবে তাঁর বিরোধী দলের পক্ষ থেকে সম্মেলনকে বিতর্কিত বলে অবিহিত করেছে। সম্মেলন শেষে এক সংবাদ ব্রিফংয়ে রাজাপাকসে বলেন, সম্মেলনে থেকে যে ফলাফল অর্জিত হয়েছে তাতে আমি অত্যন্ত খুশী। তিনি বলেন, কলম্বো সম্মেলনে দেওয়া ঘোষণায় মূল বিষয়বলীকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। এসবের মধ্যে রয়েছে এক কালে যুক্তরাজ্যের উপনিবেশ থাকা দেশগুলোর অর্থনৈতিক সূচক বৃদ্ধি ও কমনওয়েলফভুক্ত রাষ্ট্রগুলোর রাজনৈতিক ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সহায়তা করা।

শুক্রবারে শ্রীলঙ্কার বৃহত্তম শহর কলম্বোতে শুরু হয়েছে কমনওয়েলথ প্রশাসন প্রধানদের অধিবেশন (CHOGM). এই বৈঠকে অনুপস্থিত রয়েছেন তিনজন মন্ত্রীসভার প্রধান, তাঁদের মধ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহও রয়েছেন. তাঁর দেশের ভিতরের তামিল গোষ্ঠীদের ও রাজনৈতিক দলগুলোর চাপে পড়ে এই ভাবে পিছিয়ে আসা, মনে তো হয় না যে, শ্রীলঙ্কায় তামিল সংখ্যালঘুদের অবস্থানকে কোন ভাবে ভাল করবে আর তার ওপরে - ভারতের সঙ্গে সেই দেশের সম্পর্কে বেশী করেই জটিলতা সৃষ্টি হবে, যারা বর্তমানে ভারত মহাসাগরের রাজনীতিতে বেশী করেই ভূমিকা পালন করতে শুরু করেছে বলে “রেডিও রাশিয়াকে” জানিয়েছেন রাশিয়ার স্ট্র্যাটেজিক গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞ বরিস ভলখোনস্কি.

কলম্বো শহরে এই সপ্তাহের শেষে শুরু হতে যাওয়া কমনওয়েলথ সামিট ঘিরে স্ক্যান্ডাল এবারে গতি অর্জন করেছে. কানাডার প্রধানমন্ত্রী স্টিভেন হার্পারের পরে এই ফোরাম বয়কটের সিদ্ধান্ত নিয়ে শ্রীলঙ্কায় যেতে অস্বীকার করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী ডঃ মনমোহন সিংহ. আর ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন ঠিক করেছেন কলম্বোকে তাদের দেশের নেতৃত্বের জন্য অসুবিধা জনক দীর্ঘদিন ব্যাপী যুদ্ধ নিয়ে প্রশ্ন করে অসুবিধায় ফেলবেন.

একটা বহুল প্রচারিত ধারণা থাকা স্বত্ত্বেও যে, বিশ্বের রাজনীতি- এটা শুধু বৃহত্ রাষ্ট্র আর কম করে হলেও বড় আঞ্চলিক রাষ্ট্রগুলোর শুধু আয়ত্বের বিষয়, খুবই উল্লেখযোগ্য ভূমিকা কিন্তু আন্তর্জাতিক ব্যাপারে ছোট দেশরাও নিতে পারে. সবচেয়ে ভাল উদাহরণ এই ক্ষেত্রে শ্রীলঙ্কার ইতিহাস হতে পারে. সেই দেশ স্বাধীনতা পাওয়ার পরে নিজেদের “মহান প্রতিবেশী” ভারতবর্ষের ছায়ায় মোটেও ঢাকা পড়ে যায় নি.

রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার সংক্রান্ত হাই কমিশনার নভি পিল্লাই শ্রীলঙ্কায় এক সপ্তাহ ব্যাপী সফর শেষ করেছেন. তার পরিণাম হয়েছে একটি রাজনৈতিক ঘোষণা- যা এই দেশের প্রশাসনের প্রতি খুবই তীক্ষ্ণ সমালোচনা করে করা হয়েছে. আর সেটাও ঠিক যে, শ্রীলঙ্কার প্রশাসনও তাঁদের ঋণ শোধ করতে দেরী করেন নি, তাঁরা এই কর্মকত্রীকে তাঁর ক্ষমতার বেশী বাড়াবাড়ি করার অভিযোগ করেছেন. বাস্তবে এই পরিস্থিতিকে কোন ব্যক্তি বর্গের মধ্যে বিরোধ এমনকি সংস্থাগুলোর মধ্যে বিরোধ বলে বলা যেতে পারে না – রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার হাই কমিশনারের দপ্তর ও কোন একটা আলাদা করে নেওয়া দেশের প্রশাসনের মধ্যেও নয়. এটা বৃহত্ ভূ-রাজনৈতিক খেলার বহু রকমের প্রকাশের একটা, যার কেন্দ্রে এখন শ্রীলঙ্কা রয়েছে.

বিগত ছুটির দিনগুলোতে কলম্বো শহরে ঘটে যাওয়া এক নাটকীয় ঘটনা পরম্পরা মনে করিয়ে দিয়েছে যে, বহু বছর ধরে হওয়া গৃহযুদ্ধের ক্ষত থেকে এখনও পুরো নিরাময় না হয়ে ওঠা শ্রীলঙ্কায়, শান্তি ও সমঝোতার পরিস্থিতি কতটা ভঙ্গুর.

এ্যাসোশিয়েটেড প্রেস সংবাদসংস্থা জানাচ্ছে, যে শ্রীলঙ্কার পুলিশ রাজধানী কলম্বোয় ধর্মীয় সংঘাতের কারণে কার্ফিউ জারি করেছে.

সোমবারে শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি মাহিন্দা রাজপক্ষে কলম্বো শহরে নতুন তৈরী কন্টেনার পোর্টের প্রথম পর্বের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন. এই বন্দর, যা নিকটপ্রাচ্যের এলাকা ও পূর্ব আফ্রিকার দেশ গুলি থেকে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়াতে যাওয়ার মাঝামাঝি পথে পড়ে, তা ভবিষ্যত সম্ভাবনায় সামুদ্রিক পথে বাণিজ্যের ক্ষেত্রে এক মুখ্য এন্ট্রেপট হতে চলেছে.

শ্রীলঙ্কার বৃহত্তম শহর কলম্বো শহরে আজ বড় গভীর জলের সামুদ্রিক কন্টেনার টার্মিনাল খুলেছে,

ধর্মীয় কট্টর পন্থার ঢেউ ঐস্লামিক বিশ্বে একটা নির্দিষ্ট সময় পরপরই উঠে থাকে – আর তার পরেই তা আবার কমে যায়. এখন স্পষ্টই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে আরও একটি উত্থানের সময়, যাকে ব্যাখ্যা করা যেতে পারে যেমন বাস্তব দিয়ে তেমনই তুলনা মূলক সমস্ত কারণ দিয়েও. কিন্তু এর পরেই আশা করা যেতে পারে একটা পতনের সময়.
ভারত ও শ্রীলঙ্কা এই দ্বীপে জাতীয় শান্তি সমস্যা সমাধানের জন্য বেশী করে তামিল প্রজাতি অধ্যুষিত এলাকা গুলিকে স্বয়ং শাসনের সুবিধা দেওয়ার মাধ্যমে নতুন এক চেষ্টা করে দেখেছে.
রাশিয়ার রসঅ্যাটম সংস্থা ও শ্রীলঙ্কা পারমানবিক শক্তির শান্তিপূর্ণ ব্যবহারের ক্ষেত্রে সহযোগিতা করবে, এই প্রসঙ্গে এক পারস্পরিক ইচ্ছাপত্র স্বাক্ষরিত হয়েছে শনিবারে আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থার সম্মেলনের নেপথ্যে. স্বাক্ষর করেছেন রসঅ্যাটম সংস্থার প্রধান সের্গেই কিরিয়েঙ্কো ও শ্রীলঙ্কার বিজ্ঞান প্রযুক্তি মন্ত্রী পাতালি রানাভাকা.
২০শে জুন বিশ্ব উদ্বাস্তু দিবস পালিত হচ্ছে. রাষ্ট্র সঙ্ঘের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে বর্তমানে নথিভুক্ত রয়েছেন প্রায় ২ কোটি মানুষ, যাঁরা বাধ্য হয়েছেন নিজেদের দেশ ছেড়ে যেতে, আর প্রায় আড়াই কোটি মানুষ নিজেদের দেশের ভিতরেই এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় চলে যেতে বাধ্য হয়েছেন. এটা গত ১৮ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশী সংখ্যা.
শ্রীলঙ্কার উপকূল অঞ্চলে আসা গ্রীষ্মমণ্ডলীয় ঝড়ের ফলে নিহত হয়েছে ৩১ জন, আরও ৩৫ জন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, সোমবার জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিরা. নিহত ও আহতদের মধ্য বেশির ভাগই জেলে, যারা হঠাত্ আসা এ ঝড়ের সময় উপকূলের কাছে মাছ ধরছিল. কিছু সংখ্যক এখনও পর্যন্ত নিখোঁজ. তাদের অনুসন্ধান চালানো হচ্ছে. এ ঝড়ের ফলে দেশের বিভিন্ন এলাকায় প্রায় ১০০টি বাড়ি ধ্বংস হয়েছে.
শ্রীলঙ্কায় গৃহযুদ্ধের সময়ে হওয়া সামরিক অপরাধের তদন্ত, যে বিষয়ে দেশের বর্তমান রাজনীতিবিদরা জড়িত থাকতে পারেন বলে সন্দেহ আছে, তা শুরু হওয়া উচিত্ বর্তমানের পুনর্বাসন উপমন্ত্রী বিনায়কমুর্তি মুরলীথরনকে দিয়ে, যিনি বেশী প্রখ্যাত “লেফটেন্যান্ট করুণা” নামেই. এই ঘোষণা করেছে মানবাধিকার রক্ষা পরিষদ হিউম্যান রাইটস ওয়াচ.
প্রায় এক সপ্তাহ আগে, যখন রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার পরিষদ শ্রীলঙ্কার প্রশাসনকে সমালোচনা করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে, তার পরেও ভারতে এই বিষয়ে উত্তেজনা কিছুতেই কমছে না. নিজের থেকেই এই সিদ্ধান্ত যথেষ্ট কড়া চরিত্রের, কিন্তু, ভারতের নেতৃস্থানীয় তামিল রাজনীতিবিদদের মতে, তা যথেষ্ট কঠোর নয়.
তিলকারত্নের অসাধারণ শতকের সৌজন্যে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের সিরিজে শ্রীলঙ্কা ১-০ তে এগিয়ে গেল।গতকাল মাহিন্দা রাজাপাকসে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে
এই সপ্তাহে জেনেভা শহরের রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার পরিষদের সভায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের খসড়া অনুযায়ী শ্রীলঙ্কায় মানবাধিকার রক্ষা সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে ভোটাভুটির কথা রয়েছে. এখনও না হওয়া ভোটের ফল ইতিমধ্যেই ভারতের আভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে দেখতে পাওয়া গিয়েছে: তামিল দল দ্রাভিড় মুন্নেত্রা কাঝগম (ডিএমকে) ঘোষণা করেছে যে, তারা জোটের সরকার ছেড়ে বেরিয়ে যাচ্ছে.
ভারত বুধবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে যে, জেনেভায় রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানব অধিকার পরিষদে যে শুনানী চলছে তাতে সে কঠোর সিদ্ধান্তের সমর্থন করবে, জানিয়েছে “ফ্রান্স প্রেস” সংবাদ এজেন্সি.
বিশ্বের বাজারে চিনের ড্রাগন নতুন ঝাঁপ দিয়েছে. বিশ্বের বৃহত্তম সমরাস্ত্র সরবরাহকারী প্রথম পাঁচটি দেশের তালিকায় এবারে প্রথম চিনকে দেখতে পাওয়া গিয়েছে. ২০১২ সালের সমরাস্ত্র বাণিজ্য নিয়ে বিশ্ব সমস্যা সম্বন্ধে এক গবেষণার পরিনাম হিসাবে স্টকহোম ইনস্টিটিউট থেকে প্রকাশিত এক প্রবন্ধে বলা হয়েছে. ঠাণ্ডা যুদ্ধ শেষ হওয়ার পর থেকে এটা প্রথম পাঁচের তালিকায় প্রথমবার পরিবর্তন হয়েছে.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
সেপ্টেম্বর 2017
ঘটনার সূচী
সেপ্টেম্বর 2017
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28
29
30