×
South Asian Languages:
অর্থনৈতিক উন্নয়ন, মে 2012
 রাশিয়া ও ভারত শক্তি একত্রিত করছে নতুন বহু লক্ষ্য সাধনে সক্ষম সামরিক পরিবহনের উপযুক্ত বিমানের সৃষ্টি ও নির্মাণের জন্য. ভারতের বাঙ্গালোর শহরে এই মর্মে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে. বিষয় নিয়ে বিশদ করে বলেছেন আমাদের সমীক্ষক গিওর্গি ভানেত্সভ.  ভারতের তরফ থেকে এই প্রকল্পে অংশ নিচ্ছে হিন্দুস্তান অ্যারোনটিকস্ লিমিটেড (হ্যাল), আর রাশিয়ার তরফ থেকে- ঐক্যবদ্ধ বিমান নির্মাণ কর্পোরেশন.
 এই সপ্তাহে দিল্লীতে তিন দিন ব্যাপী এক সেমিনার হয়েছে, যাতে ১৬টি দেশের বিশেষজ্ঞরা অংশ নিয়েছিলেন – যাঁরা আন্তর্জাতিক “উত্তর দক্ষিণ” করিডর নামের পরিবহন পথ সংক্রান্ত প্রকল্পের অংশীদার. বিশেষজ্ঞরা যেমন উল্লেখ করেছেন, এখনই আগামী বছরে এই করিডর দিয়ে প্রথম পরীক্ষা মূলক ভাবে মাল বহনের প্রচেষ্টা করা যেতে পারে – ভারত থেকে ইরান হয়ে রাশিয়া অবধি.
রবিবারে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহের মায়ানমার (প্রাক্তন বর্মা) সফর শুরু হয়েছে – গত ২৫ বছরের মধ্যে ভারতের প্রশাসন প্রধানের এই দেশে কোনও সরকারি সফর. মনোযোগের কেন্দ্রে রয়েছে অর্থনৈতিক প্রশ্ন গুলি, যদিও আসলে এই সফরের উদ্দেশ্য অনেক বেশী প্রসারিত.
 সোমালি ও পশ্চিম আফ্রিকার প্রয়োজনেই এই অর্থ দেওয়া হচ্ছে, ঘোষণা করেছেন রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রী  সের্গেই লাভরভ আফ্রিকা দিবসের অনুষ্ঠানে এক সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় যোগ দিয়ে. আফ্রিকার রাষ্ট্র গুলি খুবই কঠিন কর্মসূচী পালন করছে আভ্যন্তরীণ সংশোধনের জন্য, এই কথা উল্লেখ করেছেন মন্ত্রী.
 ব্লুমবর্গ সংস্থা এই খবর দিয়েছে. এই দেশে মানুষের জীবনের গড় দৈর্ঘ্য প্রায় ৮২ বছর, যা এই সংস্থার বাকী সমস্ত দেশের চেয়ে দুই বছর বেশী. ১৫ থেকে ৬৪ বছর বয়সের শতকরা ৭২ ভাগের বেশী মানুষই অস্ট্রেলিয়াতে কাজে নিযুক্ত, বাকী দেশ গুলিতে গড়ে এই সূচক শতকরা ৬৬ ভাগ.
 ব্যবসা করার জন্য উপযুক্ত দেশের তালিকায় চতুর্থ স্থানে রয়েছে রাশিয়া. এই রকমের একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন বিশ্বের এক বৃহত্তম অডিট কোম্পানী কেপিএমজি র বিশেষজ্ঞরা. তাদের গবেষণায় বিশ্বের ১৪টি নেতৃস্থানীয় অর্থনীতি যুক্ত দেশের লোকরা অংশ নিয়েছেন. উন্নত দেশ গুলির মধ্যে সবচেয়ে ভাল ফল দেখিয়েছে গ্রেট ব্রিটেন, আর সবচেয়ে বাজে ফল জাপানের.
      যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাম্প ডেভিডে সদ্য অনুষ্ঠিত হওয়া জি-৮ সম্মেলনকে সংস্থার ইতিহাসে সবচেয়ে অর্থবহ ও সমস্যাবিহীন সম্মেলন বলে আখ্যাহিত করেছেন রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ. অর্থনীতি যা আট জাতির এ সম্মেলনে প্রধান বিষয় হিসেবে আলোচনায় স্থান পায়.     ইউরোপীয় ইউনিয়নে সর্বশেষ পরিস্থিতি, বিশেষত গ্রীসের পরিস্থিতিকে বিশ্ব নেতারা অধিক গুরুত্ব দেন.
যুক্তরাষ্ট্রে শেষ হল জি-৮ শীর্ষ সম্মেলন. এবারের সম্মেলনে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল অর্থনৈতিক পরিস্থিতি, বিশেষত ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থনীতি. ইউরোপে অর্থনৈতিক মন্দার সূত্রপাত্র ঘটানো গ্রীসকে শুধুমাত্র ইউরোপীয় ইউনিয়নে রাখাই নয় বরং সে দেশে ইউরোতে লেনদেন অব্যহত রাখার বিষয়ে সম্মেলনে অংশগ্রহণকারীরা সবাই একমত প্রকাশ করেছেন.
যুক্তরাষ্ট্রে জি-৮ শীর্ষ সম্মেলন আজ শনিবার শুরু হয়েছে. এবারের সম্মেলনে রাশিয়ার প্রতিনিধিত্ব করছেন রুশ প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ. তিনি ইতিমধ্যে ওয়াশিংটনে পৌঁছেছেন এবং সেখান থেকে হেলিকপ্টার যোগে তিনি মার্কিন রাষ্ট্রপতির শহরতলীর বাসভবন ক্যাম্প ডেভিডে  পৌঁছান.     জি- ৮ সম্মেলনের প্রতিটি বৈঠকই নিজের আলাদা চরিত্র বহন করে থাকে. ঠিক এবারও তার ব্যতিক্রম নয়.
জি- ৮ ভুক্ত দেশগুলির শীর্ষ নেতারা সিরায় সংক্রান্ত কফি আনানের পরিকল্পনাকে পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছেন এবং ইরান বিষয়ে একমত প্রকাশ করেছেন. মার্কিন প্রশাসনের এক মুখপাত্র সাংবাদিকদের এ কথা জানিয়েছেন. যুক্তরাষ্ট্রের কেম দেভিডে অবস্থিত মার্কিন রাষ্ট্রপতির বাসভবনে দেওয়া এক নৈশভোজে অনানুষ্ঠানিকভাবে ইরান, সিরিয়া ও উত্তর কোরিয়া প্রসঙ্গে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়.
 আসন্ন বছর গুলিতে যুদ্ধ বিমানের রপ্তানী কি বাড়বে, কি ধরনের বিমান ও কত গুলি করে রুশ সামরিক বাহিনী পাবে? এই সব ও অন্যান্য প্রশ্ন নিয়ে আলোচনা হয়েছে “রেডিও রাশিয়ার” উদ্যোগে আয়োজিত এক গোল টেবিল বৈঠকে.
রাশিয়ার আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সংস্থায় অন্তর্ভুক্তি আমেরিকার অর্থনীতির জন্য লাভজনক. ওয়েব-সাইট ম্যাকক্ল্যাটচিতে প্রকাশিত তার প্রবন্ধে মার্কিনী চেম্বার অফ কমার্সের সভাপতি টমাস ডোনাহিউ এই মন্তব্য করেছেন. তার মতে, এই পদক্ষেপ আমেরিকার ব্যবসায়ীদের জন্য অধিকতর সুফল আনবে. এর ফলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে রপ্তানীর পরিমান বাড়বে ও দেশে কর্মসংস্থানের সুযোগও বাড়বে.
 বিগত চল্লিশ বছরে বিশ্বের জৈব রসদের পরিমান একের তৃতীয়াংশ কমে গিয়েছে. এই বিষয়ে “জীবন্ত গ্রহ” নামের রিপোর্টে বলা হয়েছে, যা দুই বছরে একবার করে বিশ্ব বন্য প্রকৃতি সংরক্ষণ তহবিল (WWF) তৈরী করে থাকে.
কর্ম সংস্থানের জন্য সবচেয়ে বড় এক ইন্টারনেট পোর্টালের থেকে জনমত সংগ্রহের প্রচেষ্টার পরে দেখা গিয়েছে যে, রাশিয়ার লোকরা সবচেয়ে সম্মানীয় ও সামাজিক ভাবে সংজ্ঞাবহ বলে মনে করেছেন শিক্ষক ও চিকিত্সকদের পেশা. চিকিত্সকদের পক্ষে এই জনমতে যারা অংশ নিয়েছেন, তাঁদের প্রত্যেক তৃতীয় ব্যক্তিই ভোট দিয়েছেন, আর শিক্ষকদের পক্ষে শতকরা ১৩ ভাগ ব্যক্তি ভোট দিয়েছেন.
আজ প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের কাছে নতুন মন্ত্রীসভার কাঠামো ও সদস্যদের নাম প্রস্তাব করেছেন. নতুন মন্ত্রীদের নাম আপাততঃ বলা হয় নি – ভ্লাদিমির পুতিন শুধু ঘোষণা করেছেন যে, কাল থেকে নতুন মন্ত্রীসভার পদ প্রার্থীদের সঙ্গে নিজে পরামর্শ শুরু করবেন.
অর্থনৈতিক বিকাশের মেরু পাল্টাচ্ছে- পশ্চিম থেকে পূর্বে. এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকাতেই বিশ্ব অর্থনীতির পুনর্স্থাপন শুরু হচ্ছে – রাষ্ট্রসঙ্ঘের বিশেষজ্ঞরা ঐকতানে এই কথা বলছেন. এই পরিপ্রেক্ষিতে ২০১২ সালে এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকার অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থায় সভাপতিত্ব ও একই সঙ্গে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় যোগদান রাশিয়ার জন্য নতুন বাজার ও উন্নয়নের পথ খুলে দিয়েছে.
    বিনিয়োগকারীদের বিশ্বাস বর্তমানে প্রধান সঞ্চয়ের মুদ্রায় পরিণত হয়েছে, আর বিনিয়োগের জন্য সুবিধাজনক পরিস্থিতি – এটা দেশ গুলিকে ভবিষ্যতে নেতৃত্ব দেওয়ার পরিস্থিতিতে উপনীত করবে, এটাই মনে করেছেন বিশ্লেষকরা. রাশিয়া বিদেশী বিনিয়োগের ক্ষেত্রে এর মধ্যেই বিশাল সাফল্য পেয়েছে. ২০১১ সালের সামগ্রিক বিনিয়োগের পরিমান ছয় হাজার পাঁচশো কোটি ডলার মূল্যের সমান হয়েছে, যা ২০১০ সালের তুলনায় শতকরা ৫০ ভাগ বেশী.
চীনের কর্তৃপক্ষ বন্ড পেপার নিয়ে ব্যবসা করা চীনা যৌথ প্রতিষ্ঠানে বিদেশী কোম্পানির অংশগ্রহণের মাত্রা ৪৯ শতাংশ পর্যন্ত বাড়াতে সম্মত হয়েছে. তাছাড়া, এ সব যৌথ বিনিয়োগ কোম্পানিগুলিকে পণ্য ও শেয়ার নিয়ে ফিউচার্স লেন-দেন করার সুযোগ দেওয়া হবে. এ সম্বন্ধে বেজিংয়ে উচ্চপদস্থ মার্কিনী প্রতিনিধির উদ্ধৃতি দিয়ে শুক্রবার জানিয়েছে “রয়টার” সংবাদ এজেন্সি.
প্রিয় বন্ধুরা, শুরু করছি আমাদের সাপ্তাহিক অনুষ্ঠাণ – “রাশিয়া-ভারতঃ ঘটনাবলী, মানুষজন, স্মরণীয় দিনগুলি”. আজ আমরা আপনাদের রাশিয়া-ভারতের পারস্পরিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে যে সব ঘটনা ও মহাপুরুয বিশেষ ভূমিকা রেখেছিল ও রেখেছিলেন, সেই সম্পর্কে জানাবো. ‘ডিসকভারি অফ ইন্ডিয়া’ বইয়ে জওহরলাল নেহেরু লিখেছিলেন – “অতীত সর্বদাই আমাদের সঙ্গী.
    সময়ের আগেই জন্ম হওয়া ও সময়ের আগেই জন্মের সময়েই মৃত্যু হওয়া শিশুদের পরিসংখ্যানে ভারত বিশ্বের সবচেয়ে প্রথমে রয়েছে. বিশ্বে প্রতি বছরে সময়ের আগে জন্ম নেওয়া শিশুদের সমগ্র পরিসংখ্যান অনুযায়ী এক কোটি পনেরো লক্ষের মধ্যে ভারতের ভাগ ৩৫ লক্ষ. আর এদের মধ্যে তিন লক্ষের বেশী মারা যায় একেবারেই জন্ম কালে.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
মে 2012
ঘটনার সূচী
মে 2012
1
2
5
6
7
8
9
10
12
13
22
25
26
27
29
30