×
South Asian Languages:
অর্থনৈতিক উন্নয়ন, অক্টোবর 2011
গত সপ্তাহের শেষ – এই সপ্তাহের শুরুতে জাপান – ভারত যোগাযোগের ক্ষেত্রে এক বড় মাপের সক্রিয়তা লক্ষ্য করা গিয়েছে. একই সঙ্গে ভারতের দুই মন্ত্রী – পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান এস. এম. কৃষ্ণ ও প্রতিরক্ষা দপ্তরের প্রধান এ. কে. অ্যান্টনি – টোকিও গিয়েছেন. পররাষ্ট্র মন্ত্রী সেখানে ছিলেন ২৮ – ২৯শে অক্টোবর, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী জাপানে আসছেন ২রা নভেম্বর.
উদ্ভাবনী শিল্পে অর্থ বিনিয়োগে শীর্ষে থাকা ১০টি দেশের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে রাশিয়া।প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ মস্কোর স্কোলকোভা বিজনেস স্কুলে
রাশিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী ইগর শুভোলেভ বলেছেন,ইউরো থেকেও রাশিয়ার মুদ্রা রুবল অনেক স্থিতিশীল, বিশেষকরে অর্থনৈতিক ঝুঁকি রুবলের অনেক কম।রাশিয়ার একটি
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি বিশেষজ্ঞদের আহ্বান করেছেন মস্কো শহরে আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ কেন্দ্র তৈরীর প্রকল্প নিয়ে খোলাখুলি মূল্যায়ণ করতে. “আমার ইচ্ছা হয় যে, আপনারা সত্ভাবে বলেন কোনটা আমরা ঠিক করছি, আর কোনটা তা নয়”, - এই ভাবেই দিমিত্রি মেদভেদেভ আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ কেন্দ্র প্রকল্পের বিষয়ে রুশ রাজধানীতে তাঁদের প্রথম আলোচনা সভাতে আন্তর্জাতিক পরামর্শদাতা পরিষদের প্রতিনিধিদের প্রতি আবেদন করেছেন.
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ এ কথা সমর্থন করেছেন যে, মস্কোয় আন্তর্জাতিক আর্থিক কেন্দ্র গঠিত হবে এবং তিনি বিশেষজ্ঞদের আহ্বান জানিয়েছেন এ প্রকল্পের উপকারিতা ও ত্রুটি সম্বন্ধে কূটনীতি বাদ দিয়ে খোলাখুলি নিজেদের মত প্রকাশ করার. রাষ্ট্রনেতা বলেন, এর বাস্তবায়নের সময় বিশ্ব আর্থিক বাজারে যে সব পরিবর্তন ঘটছে এবং প্রবণতা দেখা দিচ্ছে সে সব কিছু বিবেচনা করা হবে.
চীনের আর্থিক সাহাষ্যের দরুণ ইউরোপের স্বাধীনতা ক্ষুণ্ণ হবে না. চীন ইউরোপীয় ব্যাঙ্কে এবং ইউরোপীয় আর্থিক স্থিতিশীলতা তহবিলে সঙ্গতি নিয়োগ করতে পারে. এ সম্বন্ধে ফরাসী প্রচার মাধ্যমকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে বলেছেন ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি নিকোল্যা সার্কোজি. তিনি বলেন, “প্রয়োজন, যাতে চীন বেশি সহ্গতি নিয়োগ করে বিশ্ব অর্থনীতির পুনরুদ্ধারের জন্য.
ইউরো এলাকার জন্য সঙ্কট প্রতিরোধের পরিকল্পনা গৃহীত হয়েছে. সন্ধ্যার শুরুতে মনে হয়েছিল যে, পরবর্তী ত্রাণ উদ্দেশ্যে করা শীর্ষবৈঠক আবারও নিষ্ফলা হতে চলেছে. কিন্তু সারা রাত ধরে বৈঠকের পরে এই এলাকার দেশ গুলির নেতারা ইউরো এলাকার জন্য নির্দিষ্ট পদক্ষেপের বিষয়ে সহমতে আসতে পেরেছেন.
মঙ্গলবারে ভারতের প্রশাসন এক ভাগ্য নিয়ন্ত্রক সিদ্ধান্ত নিয়েছে: দেশে আগামী দশ বছরের মধ্যে শিল্প ক্ষেত্রে দশ কোটি কর্ম সংস্থানের ব্যবস্থা করার. বেকারত্ব নিয়ে সমস্যার সমাধান ছাড়া প্রশাসনের এটা প্রচেষ্টা হল দেশে শিল্প উত্পাদনের পরিমান সার্বিক জাতীয় আয়ে বর্তমানের ষোল শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৫ শতাংশ করা. আর এই লক্ষ্য পূরণের জন্য সৃষ্টি করা হতে চলেছে সাতটি জাতীয় বিনিয়োগ ও উত্পাদন এলাকা.
রাশিয়া সেই স্থিতি থেকেই মত প্রকাশ করবে, যে স্থিতি থেকে বিগত তিন বছর ধরে মত প্রকাশ করে এসেছে. “জি-২০”-র সমস্ত দেশের সুসমন্বিত নীতি অনুসরণ করা উচিত্, যা বিশ্ব অর্থনীতিতে পরিস্থিতি স্থিতিশীল করতে পারে. পূর্বানুমানযোগ্য ও যুক্তিসঙ্গত কাজ করা উচিত্, অতিরিক্ত সংরক্ষণবাদ এড়ানো উচিত্, আভ্যন্তরীন চাহিদাকে প্রেরণা দেওয়া উচিত্, যাতে কারবারী সক্রিয়তা বজায় রাখা যায়.
রাশিয়া থেকে প্রকাশিত ফোর্বস জার্নালের সংখ্যায় ৫০ জন রুশ মানুষের কথা বলা হয়েছে, যাঁরা "বিশ্ব জয়ী". তাঁদের মধ্যে রয়েছেন ব্যবসায়ী, বিজ্ঞানী, খেলোয়াড় ও সাংস্কৃতিক জগতের বিখ্যাত মানুষ.     দশ জন বড় বিজ্ঞানীদের মধ্যে রয়েছেন – পদার্থবিদ্যায় নোবেল পুরস্কার বিজয়ী আন্দ্রেই গেইম ও কনস্তানতিন নোভোসেলভ ও তাঁদের সহকর্মীরা, যাঁরা বিশ্বের সেরা গবেষণা কেন্দ্র গুলিতে কাজ করছেন.
টিউনিশিয়া 'আরবীয় বসন্তের' জন্ম দিয়েছিল আর এবার আবার নিকট-প্রাচ্যে পথ প্রদর্শকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে. সংকটের উদ্রেক না করেই যে নির্বাচনে জেতা যায়, রক্ষণশীল ঐস্লামিকেরা তা প্রমাণ করছে. প্রাপ্ত প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী, গত রবিবারে অনুষ্ঠিত ঐতিহাসিক নির্বাচনে টিউনিশিয়ার 'আন-নাহদা' নামক পার্টি জয়লাভ করছে. ঐ পার্টি নমুনা স্বরূপ তুরস্কের রেজাপ এর্দোগানের রক্ষণশীল পার্টির মতাদর্শ গ্রহন করেছে.
ইউরোপে অর্থনৈতিক মন্দা মোকাবেলায় ইউরেপীয় ইউনিয়নের(ইইউ) শীর্ষ নেতারা আজ রোববার ব্রাসেলসে ম্যারাথন বৈঠকে মিলিত হয়েছে।আগামী ৪ দিনে ইউরোপীয়
যুক্তরাষ্ট্রের মিলিয়নাররা এবার নিউইয়র্কের ওয়াল স্ট্রিট-বিরোধী আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন।আন্দোলনকারীরা একটি বিশেষ ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে মার্কিনীদের সামাজিক নিরাপত্তার নিশ্চয়তা প্রদানের দাবী জানাচ্ছেন।তারা একই সাথে ধনীদের কর বাড়ানোর প্রতিও সরকারের দৃষ্টি আকর্ষন করছেন।ওয়াল স্ট্রিট-বিরোধী আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার জন্য  একদিনেই অর্ধ মিলিয়ন মার্কিন ডলার জমা পড়েছে।
ইরানের উপকূলীয় এলাকায় তেলবাহী একটি জাহাজ ডুবির ঘটনায় অন্তত ৭ জন নিহত হয়েছে।নিখোঁজ রয়েছে ৬ জন।শুক্রবার রাতে এ দুর্ঘটনা
ইউরো-এশীয় অর্থনৈতিক সংঘ নির্দিষ্ট আকার ধারন করেছে. সংঘের সদস্য দেশ রাশিয়া, বেলোরুশ ও কাজাকস্তানের প্রধানমন্ত্রীরা সংঘ গঠনের খসড়াচুক্তির প্রশ্নে ঐক্যমতে পৌঁছেছেন. সেন্ট-পিটার্সবার্গে প্রাক্তণ সোভিয়েত রাষ্ট্রগুলির প্রধানমন্ত্রীদের দুই দিন ব্যাপী সাক্ষাতকারের শেষে রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন – আমরা আশা রাখি, যে আগামী ডিসেম্বর মাসেই আমাদের রাষ্ট্রপতিরা উক্ত ঘোষণাপত্র স্বাক্ষর করবেন. আলোচনার মুখ্য বিষয় ছিল সোভিয়েতোত্তর ভূখন্ডে অর্থনৈতিক সমন্বয়ের বিকাশ.
ইউরেশীয় অর্থনৈতিক সঙ্ঘ গঠনের ঘোষণাপত্র স্বাক্ষরিত হবে ডিসেম্বরে. এ সম্বন্ধে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন সাঙ্কত-পিতারবুর্গে, আন্তর্রাষ্ট্রীয় ইউরেশীয় অর্থনৈতিক সমিতির পরিষদ এবং শুল্ক সঙ্ঘের সর্বোচ্চ সংস্থার বৈঠকের ফলাফল সংক্রান্ত এক সাংবাদিক সম্মেলনে. তাঁর কথায়, ইউরেশীয় অর্থনৈতিক সঙ্ঘের ধারণা সুনির্দিষ্ট্ অবয়ব গ্রহণ করছে. ঘোষণাপত্র স্বাক্ষর করবেন ভবিষ্যত্ সংগঠনের সদস্য দেশ – রাশিয়া, বেলোরুশিয়া ও কাজাখস্তানের রাষ্ট্রপ্রধানরা.
রাশিয়ার অর্থনীতি চলতি বছরের গত নয় মাসে ৩১০০ কোটি ডলারের সরাসরি বিদেশী পুঁজি বিনিয়োগ পেয়েছে. এই সর্বশেষ তথ্য জানিয়েছে দেশের অর্থনৈতিক বিকাশ মন্ত্রক. বিনিয়োগের বেশিটাই হয়েছে খনিজ পদার্থ নিস্কাষন শিল্পে এবং নির্মাণ শিল্পে. তবে জাতীয় সরকার বিনিয়োগের গড়ন বদল করার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করবে, যাতে ভারী শিল্প ও হাইটেকের পেছনে বিনিয়োগ বাড়ে.
জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া ভবিষ্যতেও উত্তর কোরিয়ার পারমানবিক সমস্যার বিরূদ্ধে হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ. আজ সিওলে বৈঠকের শেষে এ কথা ঘোষণা করেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রপতি লি মেন বাক ও জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইওসিহিকো নোডা. প্রধানমন্ত্রীর পদে আসীন হওয়ার পরে নিডোর এটাই দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রথম রাষ্ট্রীয় সফর. বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার সাথে সম্পর্ক ছিল অন্যতম মুখ্য আলোচ্য বিষয়.
‘ওয়ালস্ট্রীট দখল করো’ আন্দোলনের একমাস পূর্তি হল. এই সময়ের মধ্যে আমেরিকার স্থানীয় আন্দোলন বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে. সারা বিশ্ব জুড়ে বিশেষজ্ঞদের বিতর্ক চলছে – এই প্রতিবাদের পরিণতি কি হবে. ইতালিতে, যেখানে মিছিলকারীরা রাস্তায় ভাঙচুর করেছে, এই ঘটনা প্রমাণ করে, যে সামাজিক ও রাজনৈতিক আন্দোলন শাসক কতৃপক্ষের বিরূদ্ধে পূর্ণমাত্রার আন্দোলনে পরিণত হতে পারে.
রাশিয়ার তিনটি মুখ্য টেলি-চ্যানেলকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন বলেন যে চীন রাশিয়ার নির্ভরযোগ্য শরিক. তিনি বলেন, &ldquo
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
অক্টোবর 2011
ঘটনার সূচী
অক্টোবর 2011
1
2
3
8
9
13
15
17
21
24
29