×
South Asian Languages:
অর্থনৈতিক এলাকা, অক্টোবর 2013

আমেরিকার রাষ্ট্রীয় ঋণ নিয়ে শেষ হয়ে যাওয়া যুদ্ধ ও আরও একবার রাষ্ট্রীয় ঋণের সর্ব্বোচ্চ সীমা বৃদ্ধি করাটা দেখিয়ে দিয়েছে যে, সারা বিশ্বের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা আমেরিকার অর্থনীতি ও ডলারের কাছে কতখানি বাঁধা পড়ে গিয়েছে. এখন এটাই একমাত্র সঞ্চয়ের মুদ্রা, যার উপরে সব সময়েই চাহিদা রয়েছে. বাস্তবে সারা বিশ্বই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ঋণদাতা হয়ে দাঁড়িয়েছে, কিন্তু অনন্তকাল ধরে এটা চলতে পারে না, বিশেষ করে যদি কয়েকদিন আগে হওয়া সেই দেশের বাজেট সঙ্কটের থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়.

ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহের চিন সফরের সময়ে যখন তার চিনের নেতৃত্বের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আর্থ-বাণিজ্য উন্নতির বিষয়ে ও সীমান্ত সংক্রান্ত প্রশ্নের বিষয়ে স্বাভাবিক করার কথা হয়েছে, তখনই প্রায় একই সময়ে ফিলিপাইনসে গিয়েছিলেন ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী সলমন খুরশিদ. দক্ষিণ চিন সাগরের পরিস্থিতি ও বিতর্কিত দ্বীপ গুলি নিয়ে মন্ত্রীর বক্তব্য থেকে ধারণা করা যেতে পারে যে, নয়া দিল্লী বর্তমানে এক জটিল খেলায় নেমেছে. নিজেদের বেজিংয়ের সঙ্গে একেবারেই অসহজ পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এই খেলা শুরু হয়েছে বলেই মনে করেছেন রুশ বিজ্ঞান একাডেমীর সুদূর প্রাচ্য ইনস্টিটিউটের ডেপুটি ডিরেক্টর সের্গেই লুজিয়ানিন.

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাজেট পরিস্থিতি নিয়ে সৃষ্ট সংকট এবার সর্বশেষ পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছেছে। আগামী ১৭ অক্টোবরের আগে ঋণসীমা বাড়ানো না গেলে যুক্তরাষ্ট্র ঋণ খেলাপি হয়ে যাবে। রিপাবলিকান আর ডেমোক্র্যাট আইনপ্রণেতারা একমত না হলে হয়তো যুক্তরাষ্ট্রের জন্য কৌশলগত স্থবিরতা তৈরী হবে অথবা সরকারকে কঠোর অর্থনীতি নীতি প্রণয়ন করতে হবে। আর এই দুই ব্যবস্থাই পুরো বিশ্বের অর্থনীতিতে বিরুপ প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষ সাক্ষাতের অনুষ্ঠানগুলি প্রায়োগিক ফল দিয়েছে. এ সিদ্ধান্তের কথা রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি বলেছেন শীর্ষ সাক্ষাতের ফলাফল সংক্রান্ত সাংবাদিক সম্মেলনে. এ শীর্ষ সাক্ষাত্ অনুষ্ঠিত হয়েছিল ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে ৭-৮ই অক্টোবর.

1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
অক্টোবর 2013
ঘটনার সূচী
অক্টোবর 2013
1
2
3
4
5
6
7
9
10
11
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
25
26
27
29
31