×
South Asian Languages:
সের্গেই লাভরভ, এপ্রিল 2012
    পররাষ্ট্র দপ্তরের সরকারি মুখপাত্র আলেকজান্ডার লুকাশেভিচ সিরিয়া বিরুদ্ধে নতুন এক সারি নিষেধাজ্ঞা গ্রহণ সম্বন্ধে এই মন্তব্য করেছেন. এর মধ্যেই ১৪ বার নিষেধাজ্ঞা নেওয়া হয়েছে.
    তুরস্কের প্রধান মন্ত্রীর এই ঘোষণায় মস্কো উদ্বিগ্ন বলে জানিয়েছেন রুশ পররাষ্ট্র দপ্তরের সরকারি মুখপাত্র আলেকজান্ডার লুকাশেভিচ. তিনি সমস্ত পক্ষকেই সিরিয়ার সমস্যার সমাধানে শক্তি প্রয়োগের ধারণা থেকে বেরিয়ে আসতে আহ্বান করেছেন. বর্তমানের পরিস্থিতিতে সবচেয়ে বেশী স্থৈর্য প্রদর্শনের প্রয়োজন ও সিরিয়া প্রশ্নে শক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে অনুপ্রবেশের অজুহাত খোঁজার দরকার নেই – বলে বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন কূটনীতিবিদ.
    সিরিয়াতে ততদিন পর্যন্ত আভ্যন্তরীণ আলোচনা করা ঠিক করে যাবে না, যতদিন পর্যন্ত দেশের ভিতরের ব্যাপারে বাইরের সামরিক অনুপ্রবেশ চাওয়ার মতো লোকরা আহ্বান করছেন. এই বিষয়ে পরিবর্তন ও স্বাধীনতার পক্ষে সিরিয়ার জাতীয় ফ্রন্টের প্রতিনিধি দলের প্রধান মস্কো সফরে এসে ঘোষণা করেছেন. কাদরি জামিল রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান সের্গেই লাভরভের সঙ্গে বৈঠকের শেষে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই ঘোষণা করেছেন.
    সিরিয়ার পরিবর্তন ও স্বাধীনতার জন্য জাতীয় ফ্রন্টের প্রতিনিধিরা বুধবারে মস্কো এসে পৌঁছেছেন, তাদের পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান সের্গেই লাভরভের সঙ্গে সাক্ষাত্কারের কথা রয়েছে.
রাশিয়ার নাগরিকদের তেহরান থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে. খবর জানিয়েছে রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তর. এই রুশ লোকরা কাজাখস্থান ও ইরানের যৌথ প্রকল্পের কাজে “জার কুখ” কোম্পানীর হয়ে কাজ করতে গিয়েছিলেন চুক্তিবদ্ধ হয়ে. তাদের ৫ই এপ্রিল গ্রেপ্তার করা হয়েছিল.
    ক্ষুদ্র ও মাঝারি মাপের কোম্পানী গুলির ভারত ও রাশিয়ার অর্থনৈতিক সহযোগিতার বিষয়ে বৃহত্ কোম্পানী গুলির চেয়ে কোন অংশে যেন কম গুরুত্বপূর্ণ ভিত্তি না হয়. এই ক্ষুদ্র ও মাঝারি মাপের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান গুলির ভারতীয় বাজারে আত্ম প্রকাশের সুযোগ করে দেওয়ার জন্যই আজ ভারতের মুম্বাই নগরীতে প্রথম যৌথ রাশিয়া- ভারত বাণিজ্য ভবনের দ্বারোদ্ঘাটন করা হয়েছে.
আজ ২৩শে এপ্রিল রাশিয়াতে শুরু হতে চলেছে সেন্ট জর্জ ফিতার উত্সব, যা ফ্যাসিজমের বিরুদ্ধে মহান পিতৃভূমি রক্ষার যুদ্ধকে উত্সর্গ করে করা হয়েছিল. ৯ই মে পর্যন্ত রাশিয়ার রাজধানী ও অন্যান্য জায়গায়, রাশিয়ার কাছের ও অনেক দূরের বিদেশে দেওয়া হতে থাকবে বহু লক্ষ এই ধরনের কমলা- কালো রঙের পট্টি.
সিরিয়ায় মীমাংসা সম্পর্কে আলাপ-আলোচনার জন্য রাশিয়ায় আসছে সিরিয়ার বিরোধীপক্ষের পরবর্তী প্রতিনিধিদল. সিরিয়ার স্বাধীনতা ও পরিবর্তনের জন্য গণ ফ্রন্টের প্রতিনিধিদল মস্কো সফর করবে ২৫শে এপ্রিল, সোমবার “ইতার-তাস” সংবাদ এজেন্সিকে জানিয়েছেন প্রতিনিধিদলের ঘনিষ্ঠ এক উত্স. তাঁর কথায়, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভের সাক্ষাত্ পরিকল্পিত ২৭শে এপ্রিলের জন্য. আগে এ মাসে মস্কো সফর করেছে সিরিয়ার আভ্যন্তরীন বিরোধীপক্ষের অন্য দুটি সংস্থার প্রতিনিধিরা.
        ব্রাসেলসে রাশিয়া ও ন্যাটোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে. দুই পক্ষের জয়ন্তী বৈঠক উপলক্ষ্যে উভয়ই নানা বিষয় ঐক্যমতে পৌঁছার একটি সুযোগ পেয়েছে. বিশেষত রকেট প্রতিরোধ ব্যবস্থা সংক্রান্ত প্রশ্নের সমাধান করা. শিকাগোতে আসন্ন ন্যাটোর সম্মেলনে এ বিষয়টি সত্যিই অনেক বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে.
     সিরিয়ার পরিস্থিতি নিয়ে এ সপ্তাহে মস্কোতে, বেইজিংয়ে, ওয়াশিংটনে ও প্যারিসে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে. জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন বলেছেন, সিরিয়ায় ৩০০ জন সদস্যের একটি সামরিক পর্যবেক্ষক দল অতি শীঘ্রই পাঠানো হবে. এ সংক্রান্ত একটি ঘোষণা জাতিসংঘের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে.
    দাবা আর রাজনীতি অনেক বিষয়েই এক রকমের. আর এটাতে অবাক হওয়ার মতো কিছু নেই – কারণ দাবার ঘুঁটি গুলিকেই ষষ্ঠ শতাব্দীর সেনা বাহিনীর আদলে ভেবে বার করা হয়েছিল. যুগ পাল্টে গিয়েছে, কিন্তু যোগাযোগ, যা এই প্রাচীন খেলাকে সবচেয়ে শক্তিশালী ব্যক্তিত্বদের সঙ্গে এখনও জুড়ে রেখেছে, তা শুধু আরও মজবুত হয়েছে.
    ব্রাসেলস শহরের রাশিয়া – ন্যাটো পরিষদের আলোচনার পরে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রী সের্গেই লাভরভ এই কথা বলেছেন. তিনি উল্লেখ করেছেন যে, রাশিয়ার সঙ্গে ব্যতিক্রমী ভাবেই আমেরিকার অস্ত্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্তের বাইরে রয়েছে ও সেখানে, যে জায়গায় এই গুলি রাখা হয়েছে, তাতে ব্যবহার করার উপযুক্ত পরিকাঠামো রয়েছে.
    বিশ্বাস করো, তবুও পরীক্ষা করো – ঠিক এই ভাবেই রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান সের্গেই লাভরভ ন্যাটো জোটের নেতৃত্বের সেই ঘোষণা যে, ইউরোপীয় রকেট প্রতিরোধ ব্যবস্থা রাশিয়ার স্বার্থের বিরুদ্ধে করা হচ্ছে না, তার সম্বন্ধে মন্তব্য করেছেন. এই ঘোষণা করা হয়েছে রাশিয়া ন্যাটো সভার জয়ন্তী বর্ষপূর্তি সভায়, যেটি বৃহস্পতিবারে ব্রাসেলস শহরে অনুষ্ঠিত হয়েছে.
রাশিয়া-ন্যাটো পরিষদের সমস্ত সদস্য ইউরো-অ্যাটলান্টিক এলাকায় শান্তি ও নিরাপত্তা বজায় রাখার কর্তব্যের প্রতি বিশ্বস্ততার কথা পুনরায় সমর্থন করেছে. এ সম্বন্ধে রাশিয়া-ন্যাটো পরিষদের বৈঠকের ফলাফল সম্বন্ধে বলেছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ. বৃহস্পতিবার ব্রাসেলসে পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের পর্যায়ে অনুষ্ঠিত বৈঠক উত্সর্গীত ছিল আফগানিস্তান সম্পর্কে সহযোগিতার প্রতি, রকেটবিরোধী প্রতিরক্ষার সমস্যা, সিরিয়ার পরিস্থিতি এবং ইরানকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতির প্রতি.
রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুন প্রস্তাব দিয়েছেন যে, সিরিয়ায় আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকদের মিশনের কাজের মেয়াদ যেন তিন মাস হয়, আর পর্যবেক্ষকদের সংখ্যা যেন ৩০০ জন পর্যন্ত বাড়ানো হয়. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে সিরিয়ার পরিস্থিতি সংক্রান্ত রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের কাছে বান কি মুনের লিখিত আবেদনে.
ন্যাটো জোটের বাহিনী শুধু লিবিয়াতেই নয়, গোটা অঞ্চলেই পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করেছে, বিশেষ করে মালি-তে. এ সম্বন্ধে বুধবার বলেছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ, মস্কোয় মরোক্কোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাআদেদ্দিন আল-ওসমানির সাথে আলাপ-আলোচনার শেষে মিলিত সাংবাদিক সম্মেলনে. খাস লিবিয়াতেই হিংসার ঘটনা ঘটে চলেছে, তা ছাড়াও অস্থিতিশীলতা দেখা দিচ্ছে প্রতিবেশী দেশগুলিতেও অস্ত্রের চোরা-চালান এবং জঙ্গীদের অনুপ্রবেশের রূপেও.
মস্কোয় অতি উদ্বেগ প্রকাশিত হচ্ছে তথাকথিত “সিরিয়ার বন্ধু” গোষ্ঠীর দ্বারা “আননের পরিকল্পনার” বাস্তবায়ন মূল্যায়ন করার চেষ্টার জন্য, এ দেশে সঙ্ঘর্ষ মীমাংসার জন্যই এ পরিকল্পনা নির্দেশিত. এ সম্বন্ধে বুধবার মস্কোয় এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ.
হিংসা বর্জন করা এবং বিদেশ থেকে কোনো সামরিক হস্তক্ষেপ নয় – সিরিয়ায় চলতি ঘটনাবলী প্রসঙ্গে এটাই মস্কোর অবস্থান. মস্কোয় সিরিয়ার বিরোধী রাজনীতিকদের সাথে আলোচনাকালে রাশিয়ার সংসদের উচ্চকক্ষে আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির প্রধান মিখাইল মার্গেলভ এই উক্তি করেছেন. অন্যদিক থেকে সিরিয়ার বিরোধীরা তাদের সংকটের ক্ষেত্রে রাশিয়ার ভূমিকার উচ্চ মূল্যায়ন করেছেন ও সিরিয়ার ভবিষ্যত নির্ণয়ের প্রশ্নে মস্কোকে ভাবী সংলাপে গ্যারান্টিধারক হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে.
    শুধু সামরিক প্রযুক্তি ক্ষেত্রেই নয়, বরং অন্যান্য ক্ষেত্র গুলিতেও, এই বিষয়ে মস্কো শহরে জানিয়েছেন সিরিয়ার আভ্যন্তরীণ প্রশাসন বিরোধী দলের পররাষ্ট্র সম্পর্ক বিষয়ক প্রতিনিধি ও কার্যকরী পরিষদের সদস্য আবদুল্লাজিজ আলখাইয়ের. “এই সহযোগিতা হতে পারে শিক্ষা ও সচেতনতা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে, অর্থনৈতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে ও সামাজিক ক্ষেত্রেও”, - এই কথা বলেছেন তিনি.
    বিশ্বে খুবই প্রসারিত ভাবে আলোচনা করা হচ্ছে ইস্তাম্বুলে ইরান ও “ ছয় পক্ষের ” মধ্যস্থতাকারী দলের (রাশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, গ্রেট ব্রিটেন, ফ্রান্স, চিন ও জার্মানী) প্রতিনিধিদের মধ্যে ইরানের পারমানবিক সমস্যার সমাধান সংক্রান্ত আলোচনার ফলাফল নিয়ে.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
এপ্রিল 2012
ঘটনার সূচী
এপ্রিল 2012
1
4
6
8
15
16
24
25
28
29
30