×
South Asian Languages:
আফগানিস্থান, মে 2012
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ভারতের রাষ্ট্রদূত নিরুপমা রাও আফগানিস্তানে ভারতের সঙ্গে সহযোগিতা দৃঢ়তর করার জন্য অতিরিক্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেকে আহ্বান জানিয়েছেন. এই বিষয়ে  বৃহস্পতিবার মার্কিন সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে. নিরুপমা রাও বলেছেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আর ভারত স্থিতিশীল, গণতান্ত্রিক আর সমৃদ্ধ  দেশ হিসেবে আফগানিস্তানকে গড়ে তোলা নিয়ে আলাপ-আলোচনা চালাচ্ছে.
 এই সপ্তাহে দিল্লীতে তিন দিন ব্যাপী এক সেমিনার হয়েছে, যাতে ১৬টি দেশের বিশেষজ্ঞরা অংশ নিয়েছিলেন – যাঁরা আন্তর্জাতিক “উত্তর দক্ষিণ” করিডর নামের পরিবহন পথ সংক্রান্ত প্রকল্পের অংশীদার. বিশেষজ্ঞরা যেমন উল্লেখ করেছেন, এখনই আগামী বছরে এই করিডর দিয়ে প্রথম পরীক্ষা মূলক ভাবে মাল বহনের প্রচেষ্টা করা যেতে পারে – ভারত থেকে ইরান হয়ে রাশিয়া অবধি.
 কম করে হলেও দুই জন জোট সেনা আফগানিস্তানের পূর্বে এক হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছে বলে সোমবারে ন্যাটো জোটের কম্যুনিকে প্রকাশ করা হয়েছে. জোটে এই খবর অস্বীকার করা হয়েছে যে, এই ঘটনার পেছনে “শত্রু পক্ষের কোন সক্রিয় কাজ” আছে বলে. আপাততঃ স্পষ্ট নয় যে, ন্যাটো জোটের সেনারা কোথায় মারা পড়েছে.
আফগানিস্তানে এ পর্যন্ত ৩ হাজার বিদেশী সৈন্য নিহত হয়েছে. সর্বশেষ নিহতদের তালিকায় মার্কিন সৈন্য রাইন উইলসনের নাম যুক্ত হয়েছে. তিনি বাহরাইনের মার্কিন ঘাঁটি মানামা’র হাসপাতালে মারা যান. আহতবস্থায় তাকে আফগানিস্তান থেকে বাহরাইন নিয়ে যাওয়া হয়. তবে কিভাবে তিনি আহত হয়েছিলেন তা খবরে জানানো হয় নি. উল্লেখ্য, আফগানিস্তানে নিহত বিদেশী সৈন্যদের বেশীর ভাগই হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের.
এক বছরের ওপরে সময় গিয়েছে বিশ্বের “এক নম্বর সন্ত্রাসবাদী” নিধনের পর থেকে, আমেরিকার সামুদ্রিক নৌবাহিনীর বিশেষ “কম্যান্ডো” দল ২০১১ সালের ২রা মে ভোর রাতে তাকে হত্যা করেছে. কিন্তু ওসামা বেন লাদেন এখন যদি বিশ্বের রাজনীতির গতি প্রক্রিয়াতে কোন বড় রকমের প্রভাব বিস্তার না করেও, তাহলেও আমেরিকা- পাকিস্তানের সম্পর্কে করেই চলেছে. – এই কথা ধ্রুব সত্য.
ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ফ্রাঁসুয়া ওল্লান্ড শুক্রবার বলেছেন যে, আফগানিস্তান থেকে তাঁর দেশের সেনাবাহিনীর তাড়াতাড়ি অপসারণের প্রক্রিয়া ন্যাটো জোটে মিত্রদেশগুলির সাথে সুসমন্বিত করতে প্রস্তুত. প্যারিসের প্রচার মাধ্যম জানিয়েছে যে, রাষ্ট্রপতি আশ্বাস দিয়েছেন যে ফ্রান্স সৈন্যবাহিনী অপসারণের পরেও আফগান জনগণকে সাহায্য করে যাবে.
 কাস্পিয় সাগরের তীরে এক তুর্কমেনিস্থানের পর্যটন কেন্দ্রে সরকারি কর্পোরেশন তুর্কমেনগাজ তাদের ভারত ও পাকিস্তানের সহকর্মীদের সাথে ভবিষ্যতে এই দেশ গুলিতে গ্যাস সরবরাহের বিষয়ে চুক্তি করেছে. এই চুক্তি গ্যাস পাইপ লাইন তৈরীর প্রকল্প শুরু করার জন্য আনুষ্ঠানিক কারণ হয়েছে, যা এই তিনটি দেশকে জুড়বে, আফগানিস্তানের ভিতর দিয়ে গিয়ে.  তুর্কমেনিয়া- আফগানিস্তান-পাকিস্তান-ভারত (তাপি) প্রকল্প নিয়ে কথা শুরু হয়েছিল সেই ১৯৯৩ সালে.
ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ফ্রাঁসুয়া ওলল্যান্ড কোনোরকম ঘোষণা না করেই কাবুল সফর করতে গিয়েছেন. ফ্রান্স প্রেস সংবাদসংস্থা প্রদত্ত খবর অনুযায়ী, তিনি আফগানিস্তানে আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা ফৌজের অন্তর্ভুক্ত ফরাসী সামরিক কর্মীদের সাথে সাক্ষাত করবেন. এর প্রাক্কালে ওলল্যান্ড ঘোষণা করেছেন, যে এই বছর শেষ হওয়ার আগেই তিনি ফরাসী ফৌজকে আফগানিস্তান থেকে প্রত্যাবর্তন করাতে চান. আপাততঃ আফগানিস্তানে মোটামুটি ৩ হাজার ৬০০ ফরাসী সেনা মোতায়েন আছে.
 পাকিস্তানের চিকিত্সক শাকিল আফ্রিদি, যে আমেরিকার গুপ্তচর সংস্থাকে ওসামা বেন লাদেনকে ধরার ব্যাপারে সাহায্য করেছিল, সে এখন কারাবাস করছে. পাকিস্তানের সরকার তাকে দোষী সাব্যস্ত করেছে দেশের প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করেছে বলে. তাকে জরিমানা করেছে প্রায় সাড়ে তিন হাজার ডলারের মতো ও ৩৩ বছরের জন্য হাজতবাস করতে পাঠিয়েছে.
 এক মানবিক সংস্থার পাঁচ জন কর্মী, যাঁরা আফগানিস্তানের উত্তর পূর্বে বাদাখশান রাজ্যে কাজ করছিলেন, তাঁদের অপহরণ করা হয়েছে বলে স্থানীয় প্রশাসন খবর দিয়েছে. পুলিশে সঠিক ভাবে বলা হয়েছে যে, এখানে কথা হচ্ছে তিন জন আফগানিস্তানের লোক ও দুই জন বিদেশী মহিলার. আপাততঃ সঠিক করে জানান হয় নি যে, তাঁরা কোন দেশের নাগরিক.
ন্যাটো জোটের দেশগুলির নেতারা চিকাগো শীর্ষ সাক্ষাতে আফগানিস্তানে সামরিক অভিযান বন্ধ করা এবং এ দেশ থেকে সৈন্যবাহিনী অপসারণের সময় নির্ঘন্ট সর্বসম্মত করেছেন, জানানো হয়েছে জোটে. বিশেষ করে, ন্যাটো দেশগুলি ২০১৩ সালের মাঝামাঝি নাগাদ আফগানিস্তানের ভূভাগে সামরিক অভিযানে অংশগ্রহণ সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করতে সম্মত. তাছাড়া, ২০১৪ সাল শেষ হওয়ার আগে আফগানিস্তান থেকে জোটের বাহিনী অপসারণের কর্তব্যও বলবত্ থাকবে.
ন্যাটো দেশগুলির প্রতিনিধিরা চিকাগো শীর্ষ সাক্ষাতে আফগানিস্তানে সামরিক উপস্থিতি হ্রাস এবং কাবুলকে বার্ষিক ৪১০ কোটি ডলারের আর্থিক সাহায্য দেওয়া সম্পর্কে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরিকল্পনা সমর্থন করেছে. এ সম্বন্ধে “ফ্রান্স প্রেস” সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে চিকাগো-তে ন্যাটো জোটের শীর্ষ সাক্ষাতের শেষ ঘোষণাপত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে. একই সঙ্গে, এ সাহায্যের বাজেট  আফগানিস্তানের পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে পুনর্বিবেচিত হবে.
 চিকাগো শহরে ন্যাটো জোটের ২৫তম সম্মেলন শেষ হয়েছে. তার দ্বিতীয় দিন আফগানিস্তানের বিষয় সম্বন্ধে সম্পূর্ণ ভাবে নিবেদিত ছিল, আর তার সঙ্গে জোটের অন্যান্য দেশের সঙ্গেও, যারা এই অপারেশনের জন্য সাহায্য করছে.  উত্তর অতলান্তিক জোটে চিকাগো সম্মেলন সন্তোষ জনক হয়েছে এই কথা গোপন করা হয় নি. জোটের সদস্যরা ইউরোপে প্রথম দফায় রকেট প্রতিরোধ ব্যবস্থা তৈরী হয়েছে বলে ঘোষণা করেছেন.
 ন্যাটো জোটে আশা করা হয়েছে যে, খুব শীঘ্রই পাকিস্তান আফগানিস্তানে মাল সরবরাহের জন্য নিজেদের পরিবহন করিডর আবার খুলে দেবে. এই বিষয়ে জোটের সাধারন সম্পাদক আন্দ্রেস ফগ রাসমুসেন ঘোষণা করেছেন. তাঁর কথামতো, এটা চিকাগো শহরে ন্যাটো জোটের শীর্ষবৈঠকের শেষ হওয়ার আগেই হতে পারত. কিন্তু শীর্ষবৈঠক শেষ হয়েছে, আর পথ আগের মতই খোলা নেই.
 চিকাগো শহরের শীর্ষ সম্মেলনে উত্তর অতলান্তিক সংস্থার সদস্য দেশ গুলির নেতারা সমঝোতায় এসেছেন যে, আফগানিস্তানের শক্তিরাই দেশে ২০১৩ সালের মাঝামাঝি থেকে শান্তি রক্ষার কাজ করতে পারে. এই বিষয়ে সোমবারে ইন্টারফ্যাক্স সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে. এই নেতাদের কথামতো, বিদেশী সামরিক বাহিনীর লোকরা ধীরে ধীরে সামরিক অপারেশন করার থেকে আফগানিস্তানের আইন রক্ষা বাহিনীকে সহায়তা করার কাজে অংশ নেবে.
রাশিয়ার আগের মতোই প্রশ্ন জাগায় ২০১৪ সালের পরে আফগানিস্তানে সামরিক উপস্থিতি বজায় রাখা সম্পর্কে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরিকল্পনা. এ সম্বন্ধে মস্কোয় আফগানিস্তান সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বলেছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দ্বিতীয় এশিয়া বিভাগের আফগান দপ্তরের অধিকর্তা অ্যালবের্ত খোরেভ.
 চিকাগো শহরে ন্যাটো জোটের শীর্ষবৈঠকের দ্বিতীয় দিনের কাজকর্ম শুরু হয়েছে. তার আলোচ্য আজ সম্পূর্ণভাবেই আফগানিস্তানকে উদ্দেশ্য করে. প্রথম দিনে এই জোটের প্রধান "বুদ্ধিমান প্রতিরক্ষা" প্রকল্পের বাস্তবায়ন নিয়ে ও রাশিয়ার প্রতিবাদ স্বত্ত্বেও রকেট প্রতিরোধ ব্যবস্থা বিকাশ করার ইচ্ছা প্রসঙ্গে ঘোষণা করেছিলেন.  আমেরিকার রাষ্ট্রপতির জন্য নিজের শহর চিকাগোর বাসিন্দারা – বোধহয় খুব শীঘ্রই ন্যাটোর বর্তমান শীর্ষবৈঠকের অভিজ্ঞতা ভুলে যাবেন না.
ন্যাটো জোটের প্রধান সচিব অ্যান্ডের্স ফগ রাসমুসেন আশ্বাস দেন যে, জোট আফগানিস্তান থেকে নিজের বাহিনীর অপসারণে তাড়াতাড়ি করবে না. চিকাগো-তে ন্যাটো জোটের শীর্ষ সাক্ষাত্ শুরু হওয়ার সামান্য আগে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা তাড়াতাড়ি করে আফগানিস্তান ছেড়ে যেতে চাই না.
আফগানিস্তানের দক্ষিনাঞ্চলীয় উরুজগান প্রদেশের রাজধানী তারিন কৌত শহরে আজ রোববার বোমা বিস্ফোরণ ঘটেছে. আফগান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের মূখপাত্র এ খবর জানিয়েছে. প্রাথমিক সংবাদে বলা হয়, আত্বাঘাতী ওই বোমা হামলায় ২ জন মার্কিন সেনা ও আরও ৪ জন ব্যক্তি নিহত হয়েছে. এছাড়া এ ঘটনায় ২ জন বেসামরিক আফগান আহত হয়েছে.
আফগানিস্তানের প্রয়োজন হবে অন্যান্য দেশের সাহায্য আরও অন্ততঃ ১০ বছর. এই রকম পূর্বাভাস দিয়েছেন গতকাল রাষ্ট্রপতি হামিদ কারজাই. জার্মানীর বেসরকারী টেলি চ্যানেল আর.টি.এল.কে প্রদত্ত সাক্ষাত্কারে তিনি উল্লেখ করেছেন – সন্ত্রাসের বিরূদ্ধে সংগ্রাম ততখানি সার্থক হয়নি, যতখানি আমরা ও বিশ্ব জনসমাজ আশা করেছিল. কারজাই স্বীকার করেছেন, যে সন্ত্রাসবাদীদের প্রস্তুতির ঘাঁটিগুলি পুরোপুরি বন্ধ করা এখনো সম্ভব হয়নি.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
মে 2012
ঘটনার সূচী
মে 2012
3
6
10
13
15
23
26
28
30