×
South Asian Languages:
জ্বালানী, নভেম্বর 2013

রবিবারে ইরান ও “ছয় মধ্যস্থতাকারী পক্ষের” মধ্যে সমঝোতা, যা অর্জন করা হয়েছে, তা শুধু ইরানকেই স্পর্শ করে নি. এর বিশাল এক অর্থ রয়েছে ভারতের জন্যেও, যে দেশ ইরানের উপরে নিষেধাজ্ঞা থেকে নিজেদের জন্য দুর্দশার যথেষ্ট কারণ দেখতে পেয়েছে. ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম যেমন উল্লেখ করেছে যে, এই সমঝোতা ইরানের সঙ্গে জ্বালানী শক্তি ক্ষেত্রে আবার করে সহযোগিতার পথকে অনেক বেশী প্রশস্ত করে দিয়েছে. কিন্তু যেমন মনে করা হয়েছে যে, শুধু জ্বালানী শক্তি ক্ষেত্রেই সহযোগিতা আবদ্ধ হয়ে থাকবে না, আর সমগ্র পূর্ব ইউরো-এশিয়া এলাকার জন্যেই এই ভবিষ্যত সম্ভাবনা অনেক বেশী রকম ভাবেই প্রসারিত হয়েছে. এই প্রসঙ্গে রাশিয়ার স্ট্র্যাটেজিক গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞ বরিস ভলখোনস্কি মন্তব্য করে বলেছেন:

রাষ্ট্রসঙ্ঘ আয়োজিত আবহাওয়া সংক্রান্ত সম্মেলন, যা ওয়ারশ শহরে ১১ থেকে ২৩শে নভেম্বর পর্যন্ত হয়েছে, তাতে কোন নতুন উন্নতি দেখতে পাওয়া যায় নি. এই আলোচনার লক্ষ্য ছিল আবহাওয়া নিয়ে নতুন করে চুক্তির বয়ান তৈরী করা, যা ২০২০ সালে কিয়োটো প্রোটোকলের জায়গা নেবে. কিন্তু এই প্রশ্ন নিয়ে প্রতিনিধি দলেরা এমনকি আলোচনার সূত্রপাত পর্যন্ত করেন নি.

এই সম্মেলনে যাঁরা অংশ নিয়েছেন, তাঁরা সহমতে এসেছেন যে, আগামী বছরে এই বিষয়ে আলোচনা চালিয়ে যাবেন. আর এটাই প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে ১৯০টি দেশ থেকে আসা প্রতিনিধি দলের কাজের মূল পরিণাম. তাও একেবারে শেষ মুহূর্তে সর্বসম্মতি ক্রমে সিদ্ধান্ত করা সম্ভব হয়েছে মাত্র কয়েকটি দলিল নিয়েই, এই কথা উল্লেখ করে রাশিয়ার প্রতিনিধি দলের প্রধান আলেকজান্ডার বেদরিত্শকি বলেছেন:

ভারত সঙ্কটের দোড়গোড়ায়. আপাততঃ অর্থনীতিবিদরা বিদেশী মূলধন আকর্ষণ করা নিয়ে যখন ব্যস্ত ও রাজনীতিবিদরা এগিয়ে দিচ্ছেন দেশের জন্য খুবই দামী খাদ্য নিরাপত্তা বিল, তখন ভারতের জাতীয় মুদ্রা রুপিয়ার দাম কমে যাওয়ার কারণে খুবই দ্রুত বেড়ে গিয়েছে যেমন জ্বালানী ও শিল্পজাত দ্রব্যের দাম, তেমনই মূল খাদ্যোপোযোগী জিনিষের দামও: আলু, পিঁয়াজ ও নুনের দাম. পরিস্থিতি একেবারে চরমে পৌঁছেছে যখন বিহারে নুনের দাম এক দিনে পনেরো টাকা থেকে দশগুণ বেড়ে দেড়শো টাকা হয়েছিল প্রতি কিলোগ্রামে.

রাশিয়াতে পরিবহন করের জায়গায় পরিবেশ সংরক্ষণ কর বসানো হতে পারে. গাড়ীর বয়স যত পুরনো হবে, ততই সেটা বেশী করে পরিবেশে দূষিত বস্তু ছড়াবে, তাই চালকের জন্যও সেই গাড়ী পোষার খরচ বাড়বে. এই ধারণা ইতিমধ্যেই দেশের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আর অর্থ মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সহমতে আনা হয়েছে. এই ভাবেই সরকার আশা করছে গাড়ীর চালকদের আরও আধুনিক গাড়ীতে বসানোর, আর তা দিয়েই মানুষের তরফ থেকে পরিবেশের উপরে খারাপ প্রভাব কমানোর.

ইরাকী কুর্দিস্তান আগামী ১৮-২৪ মাসের মধ্যে বাগদাদ থেকে নিজের স্বাতন্ত্র্য বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে প্রতিবেশী তুরস্কে রপ্তানির দ্বিতীয় তেলের পাইপলাইন নির্মাণ শেষ করতে চায়. 

1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
নভেম্বর 2013
ঘটনার সূচী
নভেম্বর 2013
2
3
4
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
22
23
24
27
28
29
30