×
South Asian Languages:
জ্বালানী

মেক্সিকো-র রাষ্ট্রপতি এনরিকে পেনিয়া নিয়েতো অতি বিতর্ক সৃষ্টি করা এক আইন স্বাক্ষর করেছেন, যা বিদেশী কোম্পানিগুলিকে দেশের ভূভাগে রাষ্ট্রীয় “পেমেক্স” কোম্পানির মতোই তেল ও গ্যাস নিষ্কাশনের সুযোগ দেয়.

মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়াতে ঐক্যবদ্ধ বিদ্যুতশক্তি সরবরাহ ব্যবস্থায় আরও একজন বিনিয়োগকারী উদয় হয়েছে. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ঘোষণা করেছে CASA-1000 প্রকল্পে এক কোটি পঞ্চাশ লক্ষ ডলার বিনিয়োগ করার বিষয়ে আগ্রহের কথা. রাশিয়া এই প্রকল্পের জন্য প্রায় ৫০ কোটি ডলার পর্যন্ত দিতে তৈরী আছে.

২০০৭ সালেই প্রথম CASA-1000 প্রকল্প নিয়ে বলা হয়েছিল. এই ধারণার মূল কথা হল যে, আফগানিস্তান ও পাকিস্তানকে উন্নয়নে সহায়তা করা. দুই দেশেই খুব বেশী করে বিদ্যুত শক্তির অভাব টের পাওয়া যায়. তাদের দিকে প্রাক্তন সোভিয়েত মধ্য এশিয়ার দেশগুলো থেকে কিছু বাড়তি বিদ্যুত সরবরাহ করার কথা হয়েছে, যে সমস্ত দেশে অনেক বেশী পরিমানে বিদ্যুত শক্তি উত্পাদনের সুযোগ রয়েছে.

পাকিস্তান ও ইরানের সরকার ইরানের দক্ষিণ পার্স খনি থেকে পাকিস্তানে গ্যাসের পাইপলাইন পাতার প্রকল্পের বাস্তবায়ন তাড়াতাড়ি করার ব্যাপারে সমঝোতায় এসেছে.

মিশর একসারি বিদেশী তেল ও গ্যাস কোম্পানির সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে দেশে অনুসন্ধান কাজ চালানোর জন্য, জানিয়েছে “রয়টার” সংবাদ এজেন্সি.

আর্মেনিয়ার গ্যুমরি নামের জায়গায় রাজদান তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের পঞ্চম শক্তি উত্পাদনের ব্লক ভ্লাদিমির পুতিন ও সের্ঝ সার্গসিয়ানের উপস্থিতিতে চালু করা হয়েছে. গাজপ্রম সংস্থার প্রধান আলেক্সেই মিলার এই কেন্দ্রে উপস্থিত থেকে ভিডিও কনফারেনসের মাধ্যমে জানান যে, তাঁর সংস্থার বিনিয়োগে এই ব্লক ৪৮০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন ও তিনশ তিরিশ কোটি কিলোওয়াট ঘন্টা বিদ্যুত উত্পাদন করবে.

রবিবারে ইরান ও “ছয় মধ্যস্থতাকারী পক্ষের” মধ্যে সমঝোতা, যা অর্জন করা হয়েছে, তা শুধু ইরানকেই স্পর্শ করে নি. এর বিশাল এক অর্থ রয়েছে ভারতের জন্যেও, যে দেশ ইরানের উপরে নিষেধাজ্ঞা থেকে নিজেদের জন্য দুর্দশার যথেষ্ট কারণ দেখতে পেয়েছে. ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম যেমন উল্লেখ করেছে যে, এই সমঝোতা ইরানের সঙ্গে জ্বালানী শক্তি ক্ষেত্রে আবার করে সহযোগিতার পথকে অনেক বেশী প্রশস্ত করে দিয়েছে. কিন্তু যেমন মনে করা হয়েছে যে, শুধু জ্বালানী শক্তি ক্ষেত্রেই সহযোগিতা আবদ্ধ হয়ে থাকবে না, আর সমগ্র পূর্ব ইউরো-এশিয়া এলাকার জন্যেই এই ভবিষ্যত সম্ভাবনা অনেক বেশী রকম ভাবেই প্রসারিত হয়েছে. এই প্রসঙ্গে রাশিয়ার স্ট্র্যাটেজিক গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞ বরিস ভলখোনস্কি মন্তব্য করে বলেছেন:

রাষ্ট্রসঙ্ঘ আয়োজিত আবহাওয়া সংক্রান্ত সম্মেলন, যা ওয়ারশ শহরে ১১ থেকে ২৩শে নভেম্বর পর্যন্ত হয়েছে, তাতে কোন নতুন উন্নতি দেখতে পাওয়া যায় নি. এই আলোচনার লক্ষ্য ছিল আবহাওয়া নিয়ে নতুন করে চুক্তির বয়ান তৈরী করা, যা ২০২০ সালে কিয়োটো প্রোটোকলের জায়গা নেবে. কিন্তু এই প্রশ্ন নিয়ে প্রতিনিধি দলেরা এমনকি আলোচনার সূত্রপাত পর্যন্ত করেন নি.

এই সম্মেলনে যাঁরা অংশ নিয়েছেন, তাঁরা সহমতে এসেছেন যে, আগামী বছরে এই বিষয়ে আলোচনা চালিয়ে যাবেন. আর এটাই প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে ১৯০টি দেশ থেকে আসা প্রতিনিধি দলের কাজের মূল পরিণাম. তাও একেবারে শেষ মুহূর্তে সর্বসম্মতি ক্রমে সিদ্ধান্ত করা সম্ভব হয়েছে মাত্র কয়েকটি দলিল নিয়েই, এই কথা উল্লেখ করে রাশিয়ার প্রতিনিধি দলের প্রধান আলেকজান্ডার বেদরিত্শকি বলেছেন:

ভারত সঙ্কটের দোড়গোড়ায়. আপাততঃ অর্থনীতিবিদরা বিদেশী মূলধন আকর্ষণ করা নিয়ে যখন ব্যস্ত ও রাজনীতিবিদরা এগিয়ে দিচ্ছেন দেশের জন্য খুবই দামী খাদ্য নিরাপত্তা বিল, তখন ভারতের জাতীয় মুদ্রা রুপিয়ার দাম কমে যাওয়ার কারণে খুবই দ্রুত বেড়ে গিয়েছে যেমন জ্বালানী ও শিল্পজাত দ্রব্যের দাম, তেমনই মূল খাদ্যোপোযোগী জিনিষের দামও: আলু, পিঁয়াজ ও নুনের দাম. পরিস্থিতি একেবারে চরমে পৌঁছেছে যখন বিহারে নুনের দাম এক দিনে পনেরো টাকা থেকে দশগুণ বেড়ে দেড়শো টাকা হয়েছিল প্রতি কিলোগ্রামে.

রাশিয়াতে পরিবহন করের জায়গায় পরিবেশ সংরক্ষণ কর বসানো হতে পারে. গাড়ীর বয়স যত পুরনো হবে, ততই সেটা বেশী করে পরিবেশে দূষিত বস্তু ছড়াবে, তাই চালকের জন্যও সেই গাড়ী পোষার খরচ বাড়বে. এই ধারণা ইতিমধ্যেই দেশের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আর অর্থ মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সহমতে আনা হয়েছে. এই ভাবেই সরকার আশা করছে গাড়ীর চালকদের আরও আধুনিক গাড়ীতে বসানোর, আর তা দিয়েই মানুষের তরফ থেকে পরিবেশের উপরে খারাপ প্রভাব কমানোর.

ইরাকী কুর্দিস্তান আগামী ১৮-২৪ মাসের মধ্যে বাগদাদ থেকে নিজের স্বাতন্ত্র্য বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে প্রতিবেশী তুরস্কে রপ্তানির দ্বিতীয় তেলের পাইপলাইন নির্মাণ শেষ করতে চায়. 

খনিজ তেলের সবচেয়ে বড় সঞ্চয় বিগত কুড়ি বছরের মধ্যে এই প্রথম আলজিরিয়াতে পাওয়া গিয়েছে. এই সঞ্চয়ের পরিমাণ মূল্যায়ণ করে দেখা হয়েছে প্রায় একশ কোটি ব্যারেলের বেশী. এই খবর উদয় হয়েছে প্রায় একই সঙ্গে, যখন ওপেক সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, ২০২০ সালে বিশ্বে জ্বালানীর চাহিদা বর্তমানের প্রায় দ্বিগুণ হতে চলেছে. এই ধরনের পরিস্থিতিতে আলজিরিয়ার খনিজ গ্যাস ও তেলের সঞ্চয় একটা খুবই লোভনীয় খণ্ড হতে চলেছে. তাহলে এই দেশে কি এখন “রঙীণ বিপ্লবের” আশা করা যেতে পারে কি, যা বিশ্বের “গণতান্ত্রিকীকরণের” ধ্বজাধারীরা সমর্থন করবেন?

ইরান পাইপলাইনের মাধ্যমে পাকিস্তানে প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহের বহু কোটি ডলারের প্রকল্পের বাস্তবায়ন প্রত্যাখান করতে পারে.

রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দমিত্রি মেদভেদেভ রাশিয়ার গ্যাসের রপ্তানি বাড়ানোর জন্য পরিবেশ সৃষ্টি করা এবং বিশ্বের গ্যাসের বাজারে রাশিয়ার অংশ বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তার কথা বলেছেন. 

ইরানে কাজ করার অধিকার পেয়েছে রাশিয়ার বিদেশী খনিজ তেল উত্পাদনের কোম্পানী “জারুবেঝনেফ্ত”. এই কোম্পানী এবারে খৈয়াম খনিজ তেল ক্ষেত্রে কাজ করবে- যেটাকে মনে করা হয় এই দেশের একটি বৃহত্তম ঘনীভূত গ্যাস উত্পাদন ক্ষেত্র. সেখানে শুধু প্রাকৃতিক গ্যাসের সঞ্চয় মূল্যায়ণ করা হয়েছে দুশো ষাট বিলিয়ন কিউবিক মিটার.

রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনের শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে এক প্রশ্নের উত্তরে বলেছেন যে, রাশিয়া সিরিয়াকে সামরিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সহায়তা করে চলেছে ও তা আরও করা চালিয়ে যাবে, বিশেষত বাইরের থেকে সামরিক হস্তক্ষেপ করা হলে আর মানবিক সাহায্যের পরিমাণও বাড়িয়ে দেওয়া হবে, সেই সমস্ত মানুষদেরই জন্য যারা এই পরিস্থিতিতে সিরিয়াতে কষ্ট পাচ্ছেন.

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রকেট লক্ষ্য করায় বিশ্বের খনিজ তেলের বাজার খুবই স্পর্শকাতর ভাবে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে. শুধু সিরিয়াতে বোমা পড়ার ভয়েই গত চার মাসের মধ্যে তেলের দামের বিষয়ে সবচেয়ে বেশী হয়েছে. খনিজ তেল দু’দিনে শতকরা পাঁচ শতাংশ বেড়ে ব্যারেল পিছু ১১৭ ডলার হয়েছে. এটা বিশ্বের বাজারকে দেওয়া খুবই শক্তিশালী সাবধান বার্তা – আগামী দিনগুলোতে খনিজ তেলের দামে খুবই দ্রুত ওঠানামা আসতে পারে.

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের জোট সঙ্গী হারাচ্ছে. ওয়াশিংটনের মুখ্য সামরিক সহচর – লন্ডন – সিরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক অপারেশনের সহযোগিতায় অস্বীকার করেছে. এর পরেই আরও এক গুচ্ছ ন্যাটোর দেশ বাশার আসাদের প্রশাসনের উপরে সামরিক চিত্রনাট্য অনুযায়ী কাজ করার বিষয়ে ধারণাকে বাতিল করেছে. ওয়াশিংটন বর্তমানে অন্য সহযোগী খুঁজছে, কিন্তু ঘোষণা করেছে যে, নিজেরাই একলা আঘাত হানতে পারে.

ইরানে ইস্লামিক বিপ্লবের রক্ষী বাহিনী পারস্য উপসাগরে ভারতীয় জাহাজ আটক করেছে,

 

কয়েক সপ্তাহ পরেই বুশের পারমাণবিক বিদ্যুতকেন্দ্রের প্রথম এনার্জী ব্লক সরকারি ভাবে রাশিয়ার তরফ থেকে ইরানের পক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হবে. এই বিষয়ে আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনে জানিয়েছেন ঐস্লামিক প্রজাতন্ত্র ইরানের পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রতিনিধি সাঈদ আব্বাস আরাকচি. ইরানের কূটনীতিবিদ একই সঙ্গে উল্লেখ করেছেন যে, বর্তমানে দ্বিপাক্ষিক ইরান- রুশ আলোচনা করা হচ্ছে পারমাণবিক জ্বালানী ও শক্তি সংক্রান্ত নানা ক্ষেত্রের বিষয় নিয়ে.

জাপানের পারমাণবিক বিদ্যুত্শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত রাষ্ট্রীয় কমিটি বুধবার “ফুকুসিমা-১” পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্রে দুর্ঘটনার কুপরিণতি দূর করার নবীকৃত পরিকল্পনা অনুমোদন করেছে,

আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
ডিসেম্বর 2017
ঘটনার সূচী
ডিসেম্বর 2017
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28
29
30
31