×
South Asian Languages:
মিশর, জানুয়ারী 2013
রাষ্ট্রপতি মুহাম্মদ মুর্সির আদেশে জারি করা কার্ফিউয়ের মেয়াদ কমিয়ে ৯ ঘন্টার পরিবর্তে ৪ ঘন্টা করা হয়েছে মিশরের পোর্ট-সঈদ, সুয়েজ ও ইসমালিয়া শহরে. বৃহস্পতিবার স্থানীয় দূরদর্শন এই খবর প্রচার করেছে. অন্যদিকে রাজধানী কায়রোর কেন্দ্রস্থলে চরমপন্থী যুবকদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ অব্যাহত রয়েছে. গত ২৪ ঘন্টায় হাঙ্গামায় ৪ জন প্রাণ হারিয়েছে.
মিশরের রাষ্ট্রপতি মুহম্মদ মুর্সি মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পোর্ট-সঈদ, সুয়েজ ও ইসমাইলিয়ার প্রশাসকদের অধিকার দিয়েছেন নিজেদের বোধবুদ্ধি মতো কার্ফিউ- এর মেয়াদ কমানোর বা প্রত্যাহার করার. ‘মুসলমান ভ্রাতৃত্ব’ পার্টির সূত্র ধরে ‘সিএনএন’ এই খবর দিয়েছে. মিশরের তিনটি শহরে গণআন্দোলন প্রতিহত করার জন্য ২৮শে জানুয়ারী থেকে কার্ফিউ জারি করা হয়েছে.
মিশরের রাষ্ট্রপতি মুহম্মদ মুর্সি এই সপ্তাহের জন্য পরিকল্পিত তার ফ্রান্স সফর স্থগিত রেখেছেন, বলে রাষ্ট্রপ্রধানের প্রশাসন জানিয়েছে. মুর্সি শুক্রবার ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতির সঙ্গে মালিতে ইসলামিদের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযানের বিষয়ে আলোচনা করতে চেয়েছিলেন. কিন্তু বুধবারের জন্য নির্ধারিত মুর্সির জার্মানী সফর বাতিল করা হয়নি, তবে তার মেয়াদ কমিয়ে দুইদিনের পরিবর্তে কয়েকঘন্টার করা হয়েছে.
কায়রোর কেন্দ্রস্থলে সেমিরামিস হোটেলের লবিতে ছোঁড়া একটি বোতল বোমায় আগুন দাউ দাউ করে জ্বলে উঠেছে. হতাহতের সংখ্যা এখনো জানা যায়নি. পাঁচতারা হোটেলটি নীল নদীর তীরে, যেখানে সমাবেশকারীদের সাথে পুলিশদের সংঘর্ষ চলছে. এর প্রাক্কালে চরমপন্থী যুবকরা জোর করে ঐ হোটেলে ঢোকার চেষ্টা করেছিল. পার্শ্ববর্তী শেফার্ড হোটেল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে.
মিশরে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫২ জনে উন্নীত হয়েছে. সর্বশেষ গতকালকের সংঘর্ষে অন্তত তিনজন নিহত হয়েছে. মিশরীয় চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে বার্তাসংস্থা ফ্রান্স প্রেস এ খবর জানিয়েছে. গতকাল পোর্ট সৈয়দ শহরে পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের সাথে সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছে. বিক্ষোভকারীরা শহরের পুলিশ দপ্তরে হামলা চালায়.
ইজিপ্টের তিনটি শহর – পোর্ট সঈদ, সুয়েজ ও ইসমাইলিতে ২৮শে জানুয়ারী সোমবার থেকে জরুরী অবস্থা ঘোষণা করে হয়েছে. এই সব প্রদেশের তিন দিন ধরে চলা বিশৃঙ্খল অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সি এই ভাবেই তাঁর প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন. এই ব্যবস্থা এর পরে স্রেফ অসন্তোষের আরও একটা কারণ হয়েছে.
ইজিপ্টে পরিস্থিতি আরও গুরুতর হয়েছে. সেখানে মুসলমান ভাইদের প্রশাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ এবারে বিশাল আকার ধারণ করেছে. পরিস্থিতি এতই গুরুতর যে, রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সি আজ ২৭শে জানুয়ারী তাঁর ইথিওপিয়ার রাজধানী আদ্দিস আবাবা শহরে আফ্রিকা সঙ্ঘের শীর্ষ সম্মেলনে যাওয়া বাতিল করতে বাধ্য হয়েছেন. মুর্সি একই সঙ্গে দাভোস শহর থেকে অবিলম্বে প্রধানমন্ত্রী হিশাম কান্ডিলকে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরাম ছেড়ে চলে আসতে নির্দেশ দিয়েছেন.
হোসনি মুবারকের প্রশাসনের পতন সম্ভব করে দেওয়া রাষ্ট্র বিপ্লবের দ্বিতীয় বার্ষিকীর উত্সবের পরে শুক্রবারে সারা দেশ জুড়ে এক নতুন হিংসা ও উত্তেজনার ঢেউ ডেকে এনেছে পোর্ট সঈদের ট্র্যাজেডির সঙ্গে যুক্ত ২১ জন অভিযুক্তের সম্বন্ধে আদালতের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ. এর আগে পোর্ট সঈদে স্থানীয় অধিবাসীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ বেঁধে ছিল, যেখানে উভয় পক্ষ থেকেই গুলি চালনা করা হয়েছে স্বয়ংক্রিয় আগ্নেয়াস্ত্র থেকে.
মিশরের বড় বন্দর নগরী সুয়েজে সংঘর্ষে সাতজন আন্দোলনকারী ও একজন পুলিশ নিহত হয়েছে. স্থানীয় প্রশাসন ভবনের সামনে বিশৃঙ্খলা চলাকালে নিহত সকলেই গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছে. চিকিত্সকদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী মিশরের বিভিন্ন শহরে বিশৃঙ্খলায় সবমিলিয়ে ২৫২ জন জখম হয়েছে. দেশে পরিস্থিতি এখনো অত্যন্ত উত্তেজনাপূর্ণ.
বৃহস্পতিবার সকালে কায়রোর কেন্দ্রীয় চক তাহরিরের কাছে সরকার বিরোধীদের সাথে সংঘর্ষে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করেছে. ‘আল-ইওউম আস সাবিয়া’ পোর্টাল জানিয়েছে, যে কিছু বিরোধী সরকারের পদত্যাগের দাবী জানানোর সময় পুলিশের দিকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ও বোতল বোমা ছুঁড়তে শুরু করেছিল. পুলিশরা ব্যারিকেডের আড়ালে ছিল নিকটবর্তী কাসর-আল-আইনি সরনীতে. সংঘর্ষ শুরু হয় তখন, যখন বিরোধীরা ব্যারিকেডের কয়েকটি ব্লক ভেঙে ফেলে.
পাকিস্তানে বিপ্লবের সম্ভাবনা, যে বিষয় নিয়ে ঐস্লামিক ধর্মীয় নেতা তাহির কাদরির নেতৃত্বে “লক্ষ লোকের মিছিলে” বেরিয়ে আসা মানুষরা আওয়াজ তুলেছিল, তা আপাততঃ বাতিল হয়েছে. অথবা, বলা যেতে পারে, কম করে হলেও স্থগিত রাখা হয়েছে সাময়িক ভাবে.
এই সপ্তাহে ইসলামাবাদে ছিল প্রবল উত্তেজনা, যেখানে লক্ষ লক্ষ মানুষের মার্চের সাথে মাঝে মধ্যেই পুলিশের সংঘর্ষ হচ্ছিল. আরব্য বসন্তের সূচনা হওয়ার রটনাও ছড়াচ্ছিল. কিন্তু শুক্রবার আন্দোলনকারীদের প্রধান নেতা তাহির কাদ্রি ঘোষনা করেছেন, যে দেশের শাসকরা তাদের সব দাবীদাওয়া মেনে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে. পাকিস্তানে লক্ষ লক্ষ মানুষ আন্দোলনে সামিল হয়েছিল.
‘আলট্রাস’ নামধারী হাজার হাজার ফুটবলপ্রেমী কায়রোর কেন্দ্রে তাহরির চকে পোর্ট-সঈদে বিয়োগান্তক ঘটনার বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে সমবেত হয়েছিল. গত বছরে মিশরের দুটি ফুটবল দলের ম্যাচ শেষ হওয়ার পরে মারামারি ও ভীড়ের চাপে স্টেডিয়ামে ৭৪ জন প্রাণ হারায় ও আরও প্রায় ৩০০ লোক জখম হয়. আদালতের কাঠগড়ায় আসামী হিসাবে ৭৩ জনকে দাঁড় করানো হয়েছে, যাদের মধ্যে ৯ জন পুলিশ অফিসার.
মিশরে সেনাবাহিনীর নতুন সদস্যদের বহনকারী একটি ট্রেন মারাত্মক দুর্ঘটনার শিকার হয়ে কমপক্ষে ১৯ জন নিহত এবং আহত হয়েছেন আরো
মিশরের রাষ্ট্রপতি মুহম্মদে মুর্সির উপদেষ্টা ইস্সাম আল-হাদ্দাদ ইস্লামিক বিপ্লবের রক্ষী বাহিনীর আল-কুদস বিশেষ বাহিনীর অধিনায়ক কাসেম সুলেইমানি-র সাথে এক গোপন সাক্ষাতে মিলিত হন. এ সম্বন্ধে জানিয়েছে মিশরের পত্রিকা “আল-মাস্রি আল-ইয়াউম”, মিশরের নিরাপত্তা বিভাগের এক উত্সকে উদ্ধৃত করে.
কাতার মিশরকে আর্থিক সাহায্যের পরিমান ২৫০ কোটি ডলার বাড়াবে, যাতে সে দেশে বৈপ্লবিক ঘটনাবলী ঘটার পরে অর্থনীতিকে চাঙ্গা করে তোলা যায়.
মিশরকে অর্থনৈতিক সাহায্য প্রদানের পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ)একটি প্রতিনিধি দল ৭ জানুয়ারি কায়রো সফর করবে. সংস্থাটির প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়. সূত্র জানায়, মিশরীয় সরকারের আমন্ত্রনে এ সফর অনুষ্ঠিত হবে এবং প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিবেন মধ্যপ্রাচ্য ও মধ্য এশিয়ার আইএমএফের পরিচালক মাসুদ আহমেদ.
যুদ্ধপীড়িত সিরিয়ার বিভিন্ন অংশে দেশ-বিভাজনের পরিকল্পনার বিপদ রয়েছে, বলেছেন লেবাননের রাডিক্যাল শিয়া “হেজবোল্লা” আন্দোলনের নেতা হাসান নাস্রাল্লা. তিনি বলেন, “আমরা মতাদর্শভাবে কোনো আরব অথবা মুসলমান দেশের যেকোনো রূপের বিভাজন অস্বীকার করি এবং তাদের ঐক্য বজায় রাখার আহ্বান জানাই”. তাঁর কথায়, ইয়েমেন, ইরাক, সিরিয়া এবং এমনকি মিশর ও সৌদি আরবের বিভাজনের বিপদ রয়েছে.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2013
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2013
1
2
3
5
7
8
11
12
13
14
16
17
18
20
22
23
25