×
South Asian Languages:
মিশর, নভেম্বর 2012
মিশরে দেশের মুখ্য আইন প্রণয়নকারী সাংবিধানিক কমিশন শুক্রবার নতুন সংবিধানের খসড়া অনুমোদন করেছে. ২৩৪টি ধারা সম্বলিত সংবিধানের অনুমোদিত খসড়া রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সির অনুমোদনের জন্য পেশ করা হয়েছে, আর তারপর তা সার্বজনীন গণভোটের জন্য উত্থাপিত হবে. তার পরে, বেশির ভাগ মিশরবাসীর দ্বারা নতুন সংবিধান সমর্থনের ক্ষেত্রে দেশে সাধারণ পার্লামেন্টারী নির্বাচন হবে. মিশরের বিরোধীপক্ষ সংবিধানের খসড়া নিয়ে ভোটদান উপেক্ষা করেছে.
দেশের আইনের ভিত্তি হিসাবে শরিয়তের আইনকেই স্বীকৃতি দিতে চেয়েছে মিশরের সংবিধান পরিষদ. বৃহস্পতিবারে এই বিষয়ে জানিয়েছে কায়রো থেকে রয়টার সংবাদ সংস্থা. এই পরিষদের বেশীর ভাগ সদস্যই ঐস্লামিকদের পক্ষে. খ্রীষ্টান গির্জা ও লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির থেকে মোট ২১ জন সদস্য এই পরিষদে কাজ করতে অস্বীকার করেছেন.
দুবাই ও কায়রো থেকে যাত্রীবাহী বিমান চলাচল বন্ধ করেছে সংযুক্ত আরব আমীরশাহী ও মিশরের বিমান কোম্পানী গুলি, কোন রকমের কারণ না দেখিয়ে. যাত্রীদের অসুবিধার জন্য বলা হয়েছে কোম্পানী গুলি অনুতপ্ত. আরও বলা হয়েছে যে, দামাস্কাসের বিমান বন্দরের কাছের এলাকায় বিমান ওঠা নামার সময়ে যাত্রী ও বিমানের চালক সহ কর্মীদের নিরাপত্তা রক্ষা কঠিন হয়ে পড়ছে.
মিশরের ইস্লামিস্টরা শনিবার কায়রোর কেন্দ্রীয় স্কোয়ারে রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সি-র সমর্থনে “লক্ষ লক্ষের মিছিল” আয়োজন করতে চায়. তারা বিরোধীদের তখরীর স্কোয়ার ছেড়ে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে. মঙ্গলবার রাজধানীতে এবং দেশের বহু শহরে বিরোধীরা নিজেদের মিছিল আয়োজন করেছিল. তারা বাতিল করার দাবি করছে সাংবিধানিক ঘোষণাপত্রের, যাতে রাষ্ট্রপতির অধিকার যথেষ্ট বাড়ানো হয়েছে.
দেশের হাই কোর্ট ও সুপ্রীম কোর্ট মিশরের নতুন রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সির ক্ষমতার প্রসার সংক্রান্ত ডিক্রি প্রত্যাহার করা হবে এই আশা নিয়ে নিজেদের কাজ স্থগিত রেখেছে. হাই কোর্টের উপ সভাপতি আবু আল- বাফা বুধবারে এই কবর দিয়েছেন. সুপ্রীম কোর্টের এক বিচারপতি খালেদ আবদেল জানিয়েছেন যে, কোর্ট শুধু দুর্নীতি ও ব্যক্তিগত কোন বিষয় নিয়ে কাজ চালিয়ে যাবে.
মিশরের উত্তরাঞ্চলে বিশৃঙ্খলার ফলে প্রায় ৪০০ জন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে. স্থানীয় প্রচার মাধ্যম আজ জানিয়েছে যে, রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সির বিরোধী এবং পক্ষসমর্থকদের মাঝে সবচেয়ে গুরুতর সঙ্ঘর্ষ হয়েছে মঙ্গলবার এল-মাহাল্লে এল-কুবরে শহরে. গোটা একদিন ধরে এখানে বন্ধ হয় নি মারামারি, যা সন্ধ্যার দিকে পরিণত হয় আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার সহ রাস্তার লড়াইয়ে.
মিশরের রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সি, তাঁর প্রণীত এক অধ্যাদেশের সমর্থনে, যেখানে তিনি সমন জারী করেছেন যে, তাঁর নির্দেশের বিরুদ্ধে দেশের কোন আদালতেই কোন মামলা দায়ের করা যাবে না, বলেছেন যে, তিনি দেশের সংবিধান নতুন করে তৈরী করার প্রসঙ্গে যে কোনও রাজনৈতিক শক্তির সঙ্গেই আলোচনা করতে প্রস্তুত এবং তাঁর বর্তমানের অধ্যাদেশ সাময়িক ঘটনা মাত্র.
বিচার বিভাগের উপর রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ মুরসির `অবৈধ` হস্তক্ষেপের অভিযোগ তুলে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে যোগ দেওয়ার জন্য সাধারণ নাগরিকদের আহবান জানিয়েছেন
মিশরের রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ মুরসির সর্বময় ক্ষমতা গ্রহণের ঘোষণার প্রতিবাদে মুরসি বিরোধী আন্দোলন চলছে মিশরে। রাজধানী কায়রোর তাহরির স্কায়ারে শুক্রবার
রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে সিরিয়ার প্রতিনিধি এই দেশে নিহত হওয়া ১৪৩ জন বিদেশীর তালিকা দিয়েছে, যারা বিরোধী পক্ষের হয়ে লড়াই করছিল. তালিকায় রয়েছে – কাতার, সৌদি আরব, লিবিয়া, আফগানিস্তান, তুরস্ক ও অন্যান্য রাষ্ট্রের নাগরিক. গত মাসে সিরিয়া নিরাপত্তা পরিষদকে ১০৮ জন নিহত হওয়া ভাড়াটে সেনার তালিকা দিয়েছিল, যারা বিরোধী পক্ষের হয়ে যুদ্ধ করছিল.
হোসনি মুবারকের ছেলে আলিয়া এই কাজ করেছে বলে বৃহস্পতিবারে আল-ওয়তন নামের খবরের কাগজে প্রকাশিত হয়েছে. তাকে আটকে রাখা হয়েছে দুর্নীতির ও আর্থিক কারবারে জুয়াচুরি করার অভিযোগে.
গাজা সেক্টর ও সিরিয়া – সবচেয়ে টাটকা উদাহরণ, যেখানে নিয়মিত বাহিনীকে প্রতিরোধ করছে কালো বাজারে অস্ত্র যোগাড় করতে পারা গোষ্ঠীরা, এই ধরনের আঞ্চলিক যুদ্ধ বন্ধ করা অথবা অন্তত তা উদ্ভব হওয়া কিছুটা কম করতে পারা অংশতঃ বোধহয় সম্ভব হত, যদি আন্তর্জাতিক ভাবে অস্ত্র ব্যবসায় সংক্রান্ত একটা চুক্তি করতে পারা যেত.
তুরস্ক ন্যাটো জোটের কাছে আবেদন পাঠিয়েছে তার ভূভাগে “প্যাট্রিয়ট” মার্কা রকেট স্থাপনের, যাতে সম্ভাব্য আক্রমণের ক্ষেত্রে তার প্রতিরক্ষা ক্ষমতা সুদৃঢ় থাকে. এ সম্বন্ধে ইসলামাবাদে সাংবাদিকদের বলেছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী রেজেপ তাইইপ এর্দোগান. তিনি বলেন, এটি প্রতিরক্ষাত্মক ব্যবস্থা, ন্যাটো জোটের সংবিধির সাথে যার সম্পূর্ণ মিল আছে.
বুধ থেকে বৃহস্পতিবারের রাত জুড়ে পাকিস্তানের বেশ কিছু বড় শহরে এক সারি অন্তর্ঘাত হয়েছে, যা করেছে শিয়া মুসলিমদের বিরুদ্ধে সুন্নী চরমপন্থীরা. এই সন্ত্রাসবাদ কাণ্ডে কম করে হলেও ২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে. সুন্নী মুসলিমদের শিয়াদের উপরে আক্রমণ বিগত সময়ে পাকিস্তানের জন্য সাধারন ঘটনায় পর্যবসিত হয়েছে.
ইজরায়েল ও প্যালেস্টাইনের হামাস আন্দোলনের মধ্যে এক ভঙ্গুর আপাতঃ শান্তি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে. তা দিয়ে ইজরায়েলের “ধূম স্তম্ভ” অপারেশন, যা ১৪ই নভেম্বর থেকে ইজরায়েলের এলাকায় গাজা সেক্টরের ছোঁড়া রকেটের উত্তরে শুরু হয়েছিল, তা থামিয়েছে. বুধবার সন্ধ্যাবেলায় এই শান্তির বিষয়ে ইজিপ্ট ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতার ফলে সমঝোতা হয়েছে.
প্যালেস্টাইনী “হামাস” আন্দোলনের নেতা খালেদ মাশাল ইস্রাইলের সাথে বুধবার অর্জিত সাময়িক অগ্নি সংবরণের চুক্তিকে প্যালেস্টাইনের মুক্তির দিকে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ বলে অভিহিত করেছেন. আপোষের শর্ত দেখিয়েছে যে, “প্রতিরোধ ছিল সঠিক নির্বাচন”, বলেন তিনি কায়রো-তে এক সাংবাদিক সম্মেলনে, মাশাল বলেন, “এটা গাজা অঞ্চলের অবরোধ দূর করার ব্যাপক সূচনা.
স্বল্পকালীন শান্তির পর কায়রোর কেন্দ্রস্থলে নতুন বিশৃঙ্খলা শুরু হয়েছে. প্রতিবাদকারীদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য নিরাপত্তা বাহিনী কাঁদুনে গ্যাস ব্যবহার করেছে, তখরীর স্কোয়ারের পাশে অবস্থিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ভবনের কাছে সাঁজোয়া গাড়ি মোতায়েন করা হয়েছে. গত সোমবার শুরু হওয়া সঙ্ঘর্ষ আজ চতুর্থ দিন চলছে. দিনের পর দিন তখরীর স্কোয়ারে ক্রমেই বেশি মিশরবাসী সমবেত হচ্ছে. প্রতিবাদকারীদের আলাদা আলাদা দল অতি ভিন্ন ভিন্ন দাবি তুলছে.
ইস্রাইল ও “হামাস” আন্দোলনের মাঝে অগ্নি সংবরণের প্রশ্নের মীমাংসা স্থগিত রাখা হয়েছে. এ সম্বন্ধে “আল-আরাবিয়া” টেলি-চ্যানেল জানিয়েছে “হামাস” আন্দোলনের নেতৃবৃন্দের প্রতিনিধির উদ্ধৃতি দিয়ে. ইস্রাইলও অগ্নি সংবরণ সম্বন্ধে চুক্তির কথা সমর্থন করে নি.
রয়টার সংবাদ সংস্থা গাজা অঞ্চলের প্রশাসক হামাস আন্দোলনের কায়রো শহের উপস্থিত আইমান তাহু নামক এক আলোচনা প্রতিনিধির কাছ থেকে পাওয়া খবর হিসাবে জানিয়েছে যে, ইজরায়েলের সামরিক বাহিনী ও প্যালেস্তিনীয় গোষ্ঠী গুলির মধ্যে মঙ্গলবার মস্কো সময় রাত এগারোটার (ভারতীয় সময় রাত সাড়ে বারোটা) সময়ে শান্তি চুক্তির বিষয়ে ঘোষণা করা হবে, সেই চুক্তি কার্যকরী হবে এই ঘোষণার তিন ঘন্টা পর থেকে.
ইজরায়েল ও প্যালেস্টাইনের হামাস গোষ্ঠীর লোকরা এখনও শান্তি স্থাপন নিয়ে কোনও চুক্তিতে আসতে পারছে না. আরও বেশী করেই তারা বাইরের খেলোয়াড় দলে টানছে. প্যালেস্টাইনের লোকদের স্বার্থ দেখছে ইজরায়েল ও টিউনিশিয়া. আর কাতারের আমীর ঘোষণা করেছে যে, আরব বসন্তের পরে জোট বদ্ধ মুসলিম বিশ্বের উচিত্ এবারে ইজরায়েলকে কড়া জবাব দেওয়া. কিন্তু গাজা সেক্টরে বিরোধের থেকে প্রধানতঃ লাভবান হতে চলেছে ইরান.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
নভেম্বর 2012
ঘটনার সূচী
নভেম্বর 2012
1
3
5
6
7
8
9
10
11
27