×
South Asian Languages:
অর্থনৈতিক সঙ্কট, আগষ্ট 2013

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রকেট লক্ষ্য করায় বিশ্বের খনিজ তেলের বাজার খুবই স্পর্শকাতর ভাবে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে. শুধু সিরিয়াতে বোমা পড়ার ভয়েই গত চার মাসের মধ্যে তেলের দামের বিষয়ে সবচেয়ে বেশী হয়েছে. খনিজ তেল দু’দিনে শতকরা পাঁচ শতাংশ বেড়ে ব্যারেল পিছু ১১৭ ডলার হয়েছে. এটা বিশ্বের বাজারকে দেওয়া খুবই শক্তিশালী সাবধান বার্তা – আগামী দিনগুলোতে খনিজ তেলের দামে খুবই দ্রুত ওঠানামা আসতে পারে.

মার্কিনী ডলারের অনুপাতে এক দিনের মধ্যে ভারতীয় টাকার বিনিময় মূল্য ৩,৪ শতাংশ বেড়ে ১৯৮৬ সালের পর থেকে নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করেছে. একলাফে টাকার এরকম দরবৃদ্ধি অভূতপূর্ব. এটা সম্ভব হয়েছে ভারত সরকার তিনটি পেট্রোলিয়াম কোম্পানির সাথে হার্ড কারেন্সী swap (বার্টার) করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরেপরেই.

এই বছরে ভারতের লোকসভা এক গুরুত্বপূর্ণতম আইন গ্রহণ করেছে, যা দেশের দরিদ্রতম স্তরের মানুষদের জন্য খাদ্য সংক্রান্ত সাবসিডি দেওয়ার রাষ্ট্রীয় প্রকল্পকে আরও প্রসারিত করেছে. তাছাড়া, বৃহস্পতিবারে মন্ত্রীসভা লোকসভায় আলোচনার জন্য আরও একটি আইন প্রস্তাব করেছে, যা দেশের বৃহত্ পরিকাঠামো সংক্রান্ত প্রকল্প তৈরীর জন্য ব্যক্তিগত মালিকানায় থাকা জমি নিয়ে নেওয়ার বিষয়ে রাষ্ট্রের ক্ষমতা কম করে দিয়েছে. মনে হতে পারে যে, এই আইনগুলো দেশের বেশীরভাগ মানুষের জীবনকে সহজ করার জন্য করা হয়েছে. কিন্তু অনেক ভিত্তি রয়েছে বোঝার যে, এই সব ব্যবস্থাই শুধু ততটা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতিকে সহজ করার জন্য করা হয় নি, যত না করা হয়েছে ক্ষমতাসীন দলের পক্ষ থেকে আগামী বছরে সর্বজনীন নির্বাচনে নিজেদের বিজয়কে সুনিশ্চিত করার জন্যে.

আসন্ন জি২০-র সামিটে অন্যতম প্রধান চত্বর হবে কনস্তানতিনোভ প্রাসাদ বা যার এখন নাম দেওয়া হয়েছে কংগ্রেস প্যালেস. প্রাসাদটি সেন্ট-পিটার্সবার্গ নগরী থেকে ১৯ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত. নগরী থেকে দূরত্ব, চোখজুড়ানো স্থাপত্য, মনমাতানো প্রাকৃতিক পরিবেশ – এই সব কিছুই উচ্চ পর্যায়ে মত বিনিময় করার জন্য আদর্শ প্রেক্ষাপট.

বিশ্বের বিনিয়োগ বাজারে নতুন করে দ্রুত ওঠানামার বিরুদ্ধে ব্রিকস দেশগুলো সম্মিলিত ভাবে একটা প্রতিরক্ষা করার ব্যবস্থা করছে. ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চিন ও দক্ষিণ আফ্রিকার নেতারা জি২০ সম্মেলনের সময়ে দশ হাজার কোটি ডলারের সমান অর্থের এক সঞ্চয় তহবিলের কথা ঘোষণা করতে পারেন.

ভারতের জাতীয় মুদ্রার বিনিময় মূল্য খুবই দ্রুত কমে যেতে শুরু করেছে ও একের পরে ঐতিহাসিক ভাবে অধঃপতনের রেকর্ড ভাঙতে শুরু করেছে. কেন এই সবই সেই সময়ে হচ্ছে, যখন দেশের নেতৃত্বে ভারতীয় অর্থনীতির আধুনিকীকরণের জনক মনমোহন সিংহ রয়েছেন, এই প্রশ্নের অবতরণ করেছেন আমাদের সমীক্ষক সের্গেই তোমিন. তিনি এই প্রসঙ্গে বলেছেন:

আগামী ৫-৬ই সেপ্টেম্বর সেন্ট-পিটার্সবার্গে অনুষ্ঠিতব্য জি২০ সামিটে অন্যতম মুখ্য উত্তপ্ত আলোচনার বিষয় হবে আমদানী শুল্ক বাড়িয়ে দেশীয় পণ্যের চাহিদা বাড়ানোর প্রবণতা (প্রোকেটশনিজম). এই প্রসঙ্গে বলেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির বিশেষজ্ঞদলের নেত্রী ক্সেনিয়া ইউদায়েভা. বিশেষজ্ঞরা এরকম আলোচ্যসূচির সাথে একমত, যদিও তার সফল কার্যকারিতা সম্পর্কে সন্দিহান.

ভারতীয় টাকার বিনিময় মূল্যের দ্রুত পতন, যা তার ঐতিহাসিক ভাবেই সবচেয়ে কম দামের ক্ষেত্রে হয়েছে, তা ভারতীয় অর্থনীতির বেহাল অবস্থা নিয়ে বিচারের শুরু করেছে, যেটাকে মনে করা হয়েছে, মনমোহন সিংহের মন্ত্রীসভার হিসাবের ভুলের কারণে হয়েছে বলে. কিন্তু ভারতীয় জাতীয় মুদ্রার জন্য কালো আগষ্ট মাস - এটা শুধু মন্ত্রীসভার ভুলের ফলই নয়, বরং একটা সর্বজনীন প্রবণতার পরিচয়, এই রকম মনে করে আমাদের সমীক্ষক সের্গেই তোমিন বলেছেন:

ইজিপ্ট বিনিয়োগ ও আর্থিক সাহায্যের ক্ষেত্রে ইউরোপীয় সঙ্ঘ বা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের থেকে বাতিল হয়ে যাওয়ার ভয় না পেলেও পারে. সৌদী আরব ও পারস্য উপসাগরীয় কিছু রাজতন্ত্র সমস্ত ঘাটতি পূরণ করে দেবে বলে আশ্বাস দিয়েছে. ওয়াশিংটন থেকে বিগত সময়ের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ইজিপ্টকে সহায়তার বিষয়ে পরিকল্পনাকে আবার করে দেখার কথা ঘোষণা করা হয়েছে. ইউরোপীয় সঙ্ঘ তাদের জোটের পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের এই প্রসঙ্গে জরুরী অধিবেশন করার জন্য আহ্বান করেছে. ওয়াশিংটন আর ব্রাসেলস ইজিপ্টের সামরিক বাহিনীকে ১৬ থেকে ১৮ই আগষ্ট “মুসলমান ভাইদের” সমর্থকদের মিছিল ছত্রভঙ্গ করে দেওয়ার সময়ে অতিরিক্ত রকমের শক্তি প্রয়োগ নিয়ে অভিযোগ করেছে.

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মারকেল বলেছেন, ইউরোপীয় অঞ্চলে দীর্ঘ সময়ে ধরা চলমান অর্থনৈতিক মন্দা থেকে আগামী শীঘ্রই বেরিয়ে আসা সম্ভব হবে না, তবে ইতিবাচক সংকেত আমরা দেখতে পাচ্ছি। বিশেষত বিনিয়োগকারীরা বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করেছেন। 

মার্কিনী ডলারের অনুপাতে ভারতীয় টাকার হার মঙ্গলবার কমেছে ১ শতাংশ – ডলার পিছু ৬৩.৭৫৫০ টাকা পর্যন্ত,

চলতি মাসের শেষে এবং আগামী শরৎকালে মিশরে অবকাশ যাপনের জন্য যারা ইতিমধ্যে ট্যুর প্যাকেজ কিনেছেন তাদের নির্ধারিত সফর এখন অনিশ্চিয়তার মুখে পড়েছে। মিশরের চলমান রাজনৈতিক সহিংসতার কারণে যাত্রীদের ভ্রমণ বাতিল হলে রাশিয়ার পর্যটন কোম্পানীগুলোর ৩৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার লোকসান হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

রাশিয়াতে ক্ষুদ্র উদ্যোগের সহায়তা করার জন্য রাস্তা খোঁজা হচ্ছে. রুশ প্রজাতন্ত্রের অর্থনৈতিক উন্নয়ন মন্ত্রণালয় প্রস্তাব করেছে ব্যক্তিগত উদ্যোগে যারা ব্যবসা করবেন, তাদের দু’বছরের জন্য করের ভার কমিয়ে দেওয়ার. দপ্তরের মূল্যায়ণ অনুযায়ী নতুন ছাড় রাশিয়ার বিশ লক্ষ নাগরিককে নিজেদের ব্যবসা শুরু করতে উত্সাহিত করতে পারে.

1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
আগষ্ট 2013
ঘটনার সূচী
আগষ্ট 2013
1
2
3
4
5
7
8
9
10
11
12
13
14
15
17
18
19
21
22
23
24
25
31