×
South Asian Languages:
ব্রিক্স, 2012
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন ২৪শে ডিসেম্বর সরকারি সফরে ভারত যাচ্ছেন. এই বিষয়ে ক্রেমলিনের তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রণালয় থেকে খবর দেওয়া হয়েছে. বিষয় নিয়ে কিছু বিশদ মন্তব্য করেছেন আমাদের সমীক্ষক গিওর্গি ভানেত্সভ.
রাশিয়ার সংবাদ মাধ্যমের এক্তিয়ারে “রাশিয়ার বৈদেশিক নীতি সংক্রান্ত ধারণা” নামে একটি প্রকল্প এসেছে, যা প্রস্তুত করা হয়েছে রাষ্ট্রপতি পুতিনের নির্দেশে. বাস্তবে এই দলিল – দেশের বৈদেশিক রাজনীতির একটি সোপান, যার উপরে নির্ভর করে ২০১৮ সালের আগামী রাষ্ট্রপতি নির্বাচন পর্যন্ত দেশে কাজকর্ম করা হবে.
২০৩০ সালের মধ্যে এশিয়া পশ্চিমকে পিছনে ফেলে এগিয়ে যাবে বার্ষিক আভ্যন্তরীণ উত্পাদনে, সামরিক ক্ষেত্রে ব্যয় বরাদ্দে, বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ও নতুন প্রযুক্তির বিষয়ে. এই বিষয়ে বলা হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গুপ্তচর বিভাগের রিপোর্টে. বিশ্বের শক্তি কেন্দ্র সরে যাওয়া নিয়ে লিখেছেন আমাদের সমীক্ষক গিওর্গি ভানেত্সভ.
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন সোমবারে তাঁর অছিমণ্ডলীর সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেছেন. ক্রেমলিনের তথ্য সম্প্রচার দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে যে, এই ব্যক্তিরা সকলেই তাঁকে সক্রিয়ভাবে গত রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সময়ে সমর্থন করেছেন. এই আস্থাভাজন ব্যক্তিদের তালিকায় প্রায় ৫৫০ জন ব্যক্তি দেশের নানা এলাকা থেকে রয়েছেন.
রাশিয়া ও চিন সাংহাই সহযোগিতা সংস্থা ও ব্রিকস সংস্থার ব্যাঙ্ক ব্যবস্থা নিয়ে আর্থ- বাণিজ্য বিষয়ে ভিত্তি তৈরীর কাজকর্ম ত্বরাণ্বিত করতে আহ্বান করেছে. এই প্রকল্প গুলি সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার সদস্য দেশ গুলির মন্ত্রীসভার প্রধানদের বিশকেক শহরে ৫ই ডিসেম্বরের আলোচনা সভায় ও প্রিটোরিয়া শহরে মার্চ মাসের সভায় প্রাথমিক আলোচ্যের তালিকায় রয়েছে.
ব্রিকস সংস্থার ও সাংহাই সংস্থার ব্যাঙ্ক তৈরীর জন্য আর্থ বিনিয়োগ সংক্রান্ত ভিত্তি ২০১৩ সালের প্রথম ত্রৈমাসিকেই তৈরী হয়ে যাবে, এই বিষয়ে চিনের অর্থ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনার পরে ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার অর্থ মন্ত্রী আন্তন সিলুয়ানভ.
ব্রিক্স দেশগুলির ( ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন, দক্ষিণ আফ্রিকা) রাষ্ট্রনেতাদের পঞ্চম সাক্ষাত্ অনুষ্ঠিত হবে ২০১৩ সালের মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান শহরে. এ সম্বন্ধে জানানো হয়েছে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ এবং দক্ষিণ আফ্রিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইতে ন্কোয়ান-মাশাবানে-র সাক্ষাতের ফলাফলের ভিত্তিতে. আসন্ন ব্রিক্স শীর্ষ সাক্ষাতের আলোকে দু দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা এ সঙ্ঘে রাশিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার শরিকানা বৃদ্ধির কথা উল্লেখ করেছেন.
ব্রিক্স দেশগুলির (ব্রাজিল, ভারত, চীন, রাশিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকা)মাঝে জাতীয় মুদ্রায় হিসেব এবং অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিকাশ বিশ্ব অর্থনীতির সমস্যা অতিক্রমে সহায়তা করে. তা মনে করেন বুধবার সাংহাইয়ে শুরু হওয়া ব্যবসায়িক সম্মেলনের অংশগ্রহণকারীরা. এ সম্মেলনে সমবেত হন চীনে কাজ করা ব্রিক্স দেশগুলির বড় বড় কোম্পানির প্রতিনিধিরা. রাশিয়ার “ভে.তে.
দক্ষিণ আফ্রিকা প্রজাতন্ত্রের অর্থনৈতিক বৃদ্ধি ক্রমেই বেশি করে নির্ভরশীল হয়ে উঠছে ব্রিক্স গ্রুপের (ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন) দেশগুলির উপর, সেই সঙ্গে ইউরোসঙ্ঘের দেশগুলির সাথে পণ্য-আবর্তন কমছে, ইউরোপে অর্থনৈতিক ও আর্থিক সমস্যার জন্য. এ সম্বন্ধে শুক্রবার বলেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রী রব ডেভিস.
বিশ্ব অর্থনীতির গতিময় আরোগ্য আশা করা হচ্ছে না. আনন্দের সম্ভাবনা অনির্দিষ্টতা দিয়ে চাপা দেওয়া রয়েছে. এটা, বাস্তবে, সেই মুখ্য বিষয়, যা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের কার্যকরী ডিরেক্টর ক্রিস্টিন লাগার্ড টোকিও শহরে আসন্ন আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল ও বিশ্ব ব্যাঙ্কের বাত্সরিক সম্মেলনের আগে বলেছেন.
আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের পরিচালকমণ্ডলী পরিষদ টোকিও-তে পরবর্তী বার্ষিক অধিবেশনে বিশ্ব অর্থনীতির সমস্যা এবং কোটা-র হিসেবের সূত্র পরিবর্তনের প্রতি মনোযোগ নিবদ্ধ করবে. তবে শেষ প্রশ্ন নিয়ে আলোচনায় বিশেষ অগ্রগতির আশা করা হচ্ছে না, সাংবাদিকদের জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রতিনিধিদলের এক উত্স. আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের পরিচালকমণ্ডলী পরিষদের বার্ষিক অধিবেশন হবে টোকিও-তে ১২-১৪ই অক্টোবর.
আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল বিশ্ব অর্থনীতির বর্তমান ও নিকট ভবিষ্যতের অবস্থার নিরাশাবাদী মূল্যায়ন করেছে. বিকাশের পূর্বাভাসের মাত্রা কমানো হয়েছে, পরিস্থিতির আরও অবনতির ঝুঁকি বাড়ছে. এই সতর্ক-বার্তা দিয়েই শুরু হয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের বিশ্বব্যাপী পূর্বাভাস ও বিশ্লেষণাত্মক রিপোর্ট, যা মঙ্গলবার ওয়াশিংটনে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল ও বিশ্ব ব্যাঙ্কের পরিচালকমণ্ডলী সংস্থার পরবর্তী বার্ষিক বৈঠকের প্রাক্কালে প্রচারিত হয়েছিল. এ বছরে এ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হচ্ছে টোকিও-তে.
ব্রিক্স দেশগুলি – ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র – সিরিয়ায় একই সঙ্গে অগ্নি সংবরণের আহ্বান জানিয়েছে. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে নিউ-ইয়র্কে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ অ্যাসেম্বলির ৬৭তম অধিবেশনের নেপথ্যে এ গ্রুপের মন্ত্রীদের বুধবারের সাক্ষাতে গৃহীত ঘোষণাপত্রে.
সিরিয়া সংক্রান্ত বিষয়ে জেনেভা সম্মেলনের চুক্তি না মানা রাষ্ট্রসঙ্ঘের ভিত্তিমূলক নীতিকেই প্রশ্নের সম্মুখীণ করেছে. এই ধরনের দৃষ্টিকোণ নিউইয়র্কে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারন সভায় যোগ দিতে এসে রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান প্রকাশ করেছেন. সের্গেই লাভরভ এখানে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের নিকট প্রাচ্য নিয়ে মন্ত্রী পর্যায়ের অধিবেশনে যোগ দিয়েছেন. এই বৈঠকে সিরিয়ার পরিস্থিতি নিয়ে আবারও নানা ধরনের মত প্রকাশ করা হয়েছে.
ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে ঐক্যবদ্ধ করা ব্রিক্স গ্রুপের শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে ২০১৩ সালের মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান শহরে ভারত মহাসাগরের উপকূলে. এ সম্বন্ধে বুধবার জানিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার কোয়াজুলু-নাতাল প্রদেশের গভর্নর জ্ভেলি ম্খিজে. শীর্ষ সম্মেলনের সঠিক তারিখ এখনও নির্ধারিত হয় নি. ডারবান – দক্ষিণ আফ্রিকার তৃতীয় বড় শহর এবং আফ্রিকার বৃহত্তম বন্দর.
ভারতের মত বিশ্বের আর কোনও দেশের সঙ্গেই রাশিয়ার এত বহুল প্রসারিত পারমানবিক শক্তি বিষয়ে সহযোগিতা নেই, - এই রকমই মন্তব্য করেছেন ভারতে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার কাদাকিন. - ভারতের স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে “রেডিও রাশিয়াকে” দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে রাষ্ট্রদূত বর্তমানের ভারত- রাশিয়া সম্পর্ক নিয়ে বলেছেন ও তিনি এর ভবিষ্যত সম্বন্ধেও পূর্বাভাস দিয়েছেন.
রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ অ্যাসেম্বলিতে ব্রিক্স দেশগুলির প্রতিনিধিদল সিরিয়া সংক্রান্ত খসড়া সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ভোট দিতে চায়, যে খসড়া প্রস্তুত করেছে সৌদি আরব একসারি পশ্চিমী দেশের সাথে একত্রে. এ সম্বন্ধে জানিয়েছে ব্রিক্স গ্রুপের দেশগুলির (ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন, দক্ষিণ আফ্রিকা) প্রতিনিধিদলের উত্সরা. এ দলিল সাধারণ অ্যাসেম্বলির বিবেচনার জন্য পেশ করা হয়েছিল মঙ্গলবার.
ব্রিক্স দেশগুলির – রাশিয়া, ব্রাজিল, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকার নেতারা মেক্সিকোর লস-কাবোসে “জি-২০” শীর্ষ সম্মেলনের কাজ শুরু হওয়ার আগে এক সাক্ষাতে মিলিত হবেন. এ সাক্ষাতে তাঁরা আসন্ন “জি-২০” শীর্ষ সম্মেলনের আলোচ্য সূচির প্রধান প্রধান প্রশ্নে নিজেদের স্থিতি আলোচনা করবেন.
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন ১৮-১৯শে জুন মেক্সিকোর লস-কাবোসে “জি-২০” শীর্ষ সাক্ষাতে অংশগ্রহণ করছেন. এই “জি-২০” শীর্ষ সাক্ষাতে অংশগ্রহণের বিশেষ গুরুত্ব আছে, কারণ ১লা ডিসেম্বর থেকে এক বছরের জন্য এই গুরুত্বপূর্ণ বহুপাক্ষিক সম্মেলনে সভাপতিত্বের দায়িত্ব পাবে রাশিয়া. পরবর্তী শীর্ষ সাক্ষাত্ অনুষ্ঠিত হবে ৫-৬ই সেপ্টেম্বর পিতারবুর্গে.
ব্রিক্সের অন্তর্ভূক্ত দেশগুলি – ব্রাজিল, রাশিয়া, ইন্ডিয়া, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকা – বিশ্বের আর্থিক বাজারে তাদের নিজস্ব আইন অনুযায়ী খেলতে চায়. নয়াদিল্লীতে তাদের শীর্ষবৈঠকের শেষে গৃহীত সম্মিলিত ঘোষণাপত্রে এই উক্তি করা হয়েছে.    পাঁচ দেশের নেতৃবৃন্দ আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সংস্কারের মন্থর গতিতে  অসন্তুষ্ট. তারা চলতি বছরেই ঐ তহবিলে ব্রিক্সের সদস্য দেশগুলিকে আরও বেশি ভোটাধিকার দেওয়ার দাবী করেছেন.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2012
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2012
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28
29
30
31