×
South Asian Languages:
ব্রিক্স

২০১৪ সালে ব্রিকস দেশগুলো অর্থনৈতিক সহযোগিতা বিষয়ে উন্নয়নের স্ট্র্যাটেজি গ্রহণ করতে চলেছে, যা নির্দেশ করবে যে, কোন দিকে এর পরে চলা হবে. ব্রিকস সংস্থার ভূ-রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা সবসময়েই চেষ্টা করে চলেছে এই জোটকে “কবর দিতে” ও সব সময়েই বলে চলেছে যে, এই জোট আভ্যন্তরীণ বিবাদের কারণে অবশ্যম্ভাবী ভাবেই বিচ্ছিন্ন হতে চলেছে. কিন্তু যারা এই জোটে রয়েছেন, তাঁরা বরং উল্টো দেখতে পাচ্ছেন যে, সহযোগিতার এক বৃহত্ ভবিষ্যতই রয়েছে.

ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং বলেছেন, ব্রিক্স জোটে (ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকা) আপাতত নতুন কোন রাষ্ট্র যোগ দিচ্ছে না। বহুমেরুর পৃথিবীতে ব্রিক্স হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ একটি সহায়ক সংস্থা। রাশিয়ায় সফরে আসার আগে রুশ সাংবাদিকদের দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি এসব কথা বলেন।

পরিকল্পনা থেকে নির্দিষ্ট কাজের তালিকা তৈরী করা হয়েছে. ব্রিকস দেশগুলি পারস্পরিক ভাবে বিনিয়োগ সহযোগিতা নিয়ে সমঝোতা করেছে. বৃহস্পতিবারে জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনের নেপথ্যে ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা ও চিনের নেতারা সাক্ষাত্কার করেছেন. অংশগ্রহণকারীরা সম্মিলিত ভাবে পাঁচ হাজার কোটি ডলার সনদ মূলধন অনুমোদন করে উন্নয়ন ব্যাঙ্ক সৃষ্টির কথা ঘোষণা করেছেন. এই অর্থ উন্নতিশীল দেশ গুলির পরিকাঠামো সংক্রান্ত প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য বিনিয়োগ করা হবে. আর ব্রিকস গোষ্ঠীর ম্যাক্রো ইকনমিক সূচক ভাল করার জন্য তৈরী করা হচ্ছে বিনিময় যোগ্য মুদ্রার একটি তহবিল, যাতে দশ হাজার কোটি ডলার রাখা হবে.

বিশ্বের বিনিয়োগ বাজারে নতুন করে দ্রুত ওঠানামার বিরুদ্ধে ব্রিকস দেশগুলো সম্মিলিত ভাবে একটা প্রতিরক্ষা করার ব্যবস্থা করছে. ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চিন ও দক্ষিণ আফ্রিকার নেতারা জি২০ সম্মেলনের সময়ে দশ হাজার কোটি ডলারের সমান অর্থের এক সঞ্চয় তহবিলের কথা ঘোষণা করতে পারেন.

ভারতীয় টাকার বিনিময় মূল্যের দ্রুত পতন, যা তার ঐতিহাসিক ভাবেই সবচেয়ে কম দামের ক্ষেত্রে হয়েছে, তা ভারতীয় অর্থনীতির বেহাল অবস্থা নিয়ে বিচারের শুরু করেছে, যেটাকে মনে করা হয়েছে, মনমোহন সিংহের মন্ত্রীসভার হিসাবের ভুলের কারণে হয়েছে বলে. কিন্তু ভারতীয় জাতীয় মুদ্রার জন্য কালো আগষ্ট মাস - এটা শুধু মন্ত্রীসভার ভুলের ফলই নয়, বরং একটা সর্বজনীন প্রবণতার পরিচয়, এই রকম মনে করে আমাদের সমীক্ষক সের্গেই তোমিন বলেছেন:

নয়বছরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং বিমান ভাড়া বাবদ ৬৪২ কোটি রুপি রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে খরচ করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর হিসেবে দায়িত্ব
রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই ল্যাভরোভ সংক্ষিপ্ত সফরে দক্ষিণ আমেরিকার উদ্দ্যেশ্যে আজ রোববার মস্কো ছেড়েছেন। দুইদিনের এ সফরে তিনি আর্জেন্টিনা ও
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন ইকাতেরিনবুর্গে রাশিয়া ইউরোপীয় সঙ্ঘ শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে এসেছেন, তিনি সান্ধ্য ভোজের সময়ে ইউরোপীয় সঙ্ঘের সভাপতি হেরম্যান ভন রম্পেই ও ইউরোপীয় কমিশনের সভাপতি ঝোজে ম্যানুয়েল বারোজু এবং ঐক্যবদ্ধ ইউরোপের পররাষ্ট্র নীতির প্রতিনিধি ক্যাথরিন অ্যাস্টনের সঙ্গে নিজের আবাসে দেখা করেছেন, তারপরে তাঁরা এক অনানুষ্ঠানিক ভোজে যোগ দিয়েছেন.
রাশিয়া ও ভারতের ঐতিহাসিক ভাবেই খুবই ইতিবাচক দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে অভিজ্ঞতা থাকা স্বত্ত্বেও, আজ এই দুটি দেশের সম্পর্ক বহু ক্ষেত্রেই শুধু বিগত সময়ের জাড্যে বহমান রয়েছে. একই সময়ে নতুন কালের উদ্ভব ও সম্ভাবনাময় প্রবণতা গুলি এতটা দ্রুত সমর্থন আদায় করতে পারছে না. এই বিষয়ে আলোচনা করেছেন মস্কো শহরে অনুষ্ঠিত যৌথ “মগজ আক্রমণে” অংশ নেওয়া রুশ ও ভারতীয় বিশেষজ্ঞরা.
ভারত ও চিনের মধ্যে সীমান্ত সংক্রান্ত বিরোধ – পুরনো সমস্যা, এশিয়ার দুটি দৈত্যাকার দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সহযোগিতাকে নিগড়ে বেঁধে রেখেছে, আর তা সমাধান হওয়া অবশ্যই উচিত্. এই বিষয়ে দিল্লী ও বেজিং ভারতের রাজধানীতে ১৯-২০শে মে চিনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াংয়ের সফরের সময়ে সমঝোতা করেছে. একদিকে সহযোগিতা করে, ভারত ও চিন অন্য দিকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে.
ভারত ও রাশিয়া পারস্পরিক বাণিজ্য বিনিময়ে সন্তুষ্ট নয় – গত বছরে তা হয়েছে এক হাজার কোটি ডলারের সমান – আর ঠিক করেছে তা অনেক গুণ বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য সক্রিয়ভাবে সহযোগিতা করার. এই কাজ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে মস্কো শহরে রাশিয়া- ভারত আন্তর্প্রশাসনিক সহযোগিতা পরিষদের সহসভাপতি পর্যায়ের বৈঠকে. ভারতের পক্ষ থেকে এই পরিষদের নেতৃত্ব দিয়েছেন – পররাষ্ট্র মন্ত্রী সলমন খুরশিদ.
ডারবান শহরে এ সপ্তাহে শেষ হলো ব্রিকস জোটের পঞ্চম শীর্ষ সম্মেলন। দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্রিকসভুক্ত দেশগুলোর নেতারা মন্দাবিরোধী তহবিল, ব্রিকস
২০১৪ সালে পরবর্তী ব্রিকস গোষ্ঠীর শীর্ষ সম্মেলন হতে চলেছে ব্রাজিলে, আর তারপরে ২০১৫ সালে রাশিয়াতে. এই ধরনের সমঝোতা গৃহীত হয়েছে বুধবারে দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান শহরে এই গোষ্ঠীর শীর্ষ সম্মেলনের পরে, যেখানে ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চিন ও দক্ষিণ আফ্রিকা রাষ্ট্র যুক্ত রয়েছে. ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলন বছরে একবার করে হয়ে থাকে.
চীনের রাষ্ট্রীয় কর্পোরেশন সিনোপেক এবং দক্ষিণ আফ্রিকার জাতীয় পেট্রোল কোম্পানী পেট্রোএসএ সহযোগিতা বিষয়ক সম্মতিপত্র স্বাক্ষর করেছে. ঐ দলিলটিতে লিপিবদ্ধ শর্ত অনুযায়ী, সিনোপেক পূর্ব কেপে অবস্থিত কুখ শিল্পোন্নয়ন এলাকায় তৈল শোধনাগার নির্মাণের কাজে অংশ নেবে. ঐ কারখানাটি নির্মাণের সময় ধার্য করা হয়েছে ২০১৮-২০২০ সালে. ওটি হবে দেশের বৃহত্তম শিল্প-প্রতিষ্ঠান.
মঙ্গলবার ব্রিক্সের শীর্ষবৈঠকের আঙিনায় রাশিয়ার অর্থমন্ত্রী আন্তন সিলুয়ানভ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, যে রাশিয়া উক্ত তহবিলের জন্য ১৮০০ কোটি ডলার অঙ্কের মজুত অর্থ সরিয়ে রাখতে তৈরী. তিনি বিষদে জানিয়েছেন, যে শীর্ষবৈঠকে বীমাব্যবস্থা সৃষ্টি করার বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে, যাতে সোয়াপ বা প্রয়োজনে মুদ্রা বিনিময় করা সহজ হয়. কথা হচ্ছে ১০ হাজার কোটি ডলার নিয়ে.
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান শহরে ব্রিক্সের মঞ্চে ভারতের প্রধানমন্ত্রী ডঃ মনমোহন সিংয়ের সাথে সাক্ষাত করেছেন. পক্ষদ্বয় দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে বাস্তব সমস্যাবলী নিয়ে মতবিনিময় করেছেন ও পাশাপাশি বিশ্বের পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেছেন, বলে রাশিয়ার সংবাদ মাধ্যমগুলি জানিয়েছে. সাক্ষাত্কারের উদ্বোধন করে পুতিন স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন, যে রাশিয়া ও ভারতের মধ্যে সাক্ষাত্কার ঘটে নিয়মিতভাবে.
ব্রিকস গোষ্ঠী – ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চিন ও দক্ষিণ আফ্রিকা - বণিক সমাজের সঙ্গে সরাসরি আলোচনা শুরু করছে. ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলনের মধ্যেই দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান শহরে ঘোষণা করা হতে চলেছে বণিক সভা গঠনের কথা. তার মুখ্য কাজ হবে বহু পাক্ষিক বিনিয়োগ প্রকল্প গুলিকে বাস্তবায়িত করা, এই কথা ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির সহকারী ইউরি উশাকভ.
ব্রিক্সের দেশগুলি বিনিময় ব্যবস্থা প্রয়োগ করে পারস্পরিক সাহায্যের প্রক্রিয়া গঠন করেছে. এই প্রক্রিয়া কার্যকরী করার জন্য ১০ হাজার কোটি ডলারের প্রয়োজন হতে পারে, বলে রুশ ফেডারেশনের অর্থমন্ত্রী আন্তন সেলুয়ানভের উদ্ধৃতি দিয়েছে ‘প্রাইম’ সংবাদসংস্থা.
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন মঙ্গলবার কর্মসফরে দক্ষিণ আফ্রিকায় পৌঁছাচ্ছেন, যেখানে বিশ্বে সবচেয়ে দ্রুত উন্নয়নশীল অর্থনীতির পাঁচ দেশ – ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ কোরিয়াকে ঐক্যবদ্ধকারী ব্রিক্স সংস্থার শীর্ষবৈঠক অনুষ্ঠিত হবে. মঙ্গলবার পুতিন দক্ষিণ আ্ফ্রিকার রাষ্ট্রপতি জ্যাকব জুমার সাথে সাক্ষাত করবেন. আশা করা হচ্ছে, যে পক্ষদ্বয় সামরিক-প্রযুক্তিগত ক্ষেত্রে, শিক্ষা, বিজ্ঞান, জ্বালানী শক্তি ও পরিবহনের ক্ষেত্রগুলিতে স্ট্র্যাটেজিক সহযোগিতার ঘোষনাপত্র স্বাক্ষর করবেন.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
জুন 2017
ঘটনার সূচী
জুন 2017
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28
29
30