×
South Asian Languages:
প্যালেস্টাইন, 2012
মালি রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী দিয়াঙ্গো সিসোকো প্রতিবেশী আফ্রিকার দেশ গুলিকে ও রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছে তাঁর দেশে শান্তি রক্ষী বাহিনীর প্রবেশের প্রক্রিয়াকে দ্রুত করতে আহ্বান করেছেন. ১০ দিন আগে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ সিদ্ধান্ত নিয়েছে মালিতে আন্তর্জাতিক বাহিনী পাঠানোর, কিন্তু তার জন্য নির্দিষ্ট কোন দিন এখনও ঠিক করা হয় নি.
আরব রাষ্ট্র লীগের প্রধান সচিব নাবিল আল-আরাবির নেতৃত্বে আরব দেশগুলির পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের প্রতিনিধিদল আগামী শনিবার রামাল্লা সফর করবে, জানিয়েছে আরব রাষ্ট্র লীগের প্রতিনিধি. আরব প্রতিনিধিদলের সফরের কাঠামোতে বিভিন্ন প্রশ্ন আলোচিত হবে, যার মধ্য মুখ্য হল – প্যালেস্টাইনী জাতীয় প্রশাসনকে আর্থিক সাহায্য দান ইস্রাইলের দ্বারা মাসিক অর্থ প্রদান অস্বীকারের আলোকে.
রাশিয়ার বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের বিমান মিশরে মানবতাবাদী সাহায্য পৌঁছে দেবে, মন্ত্রণালয়ের তথ্য বিভাগে এ সম্বন্ধে জানানো হয়েছে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ এজেন্সিকে. মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, তার বিমান মস্কো উপকণ্ঠের বিমানবন্দর থেকে মিশরে রওনা হয়েছে শুক্রবার সকালে. এ বিমানে পাঠানো হয়েছে ৪১ টনেরও বেশি জিনিস – তাঁবু, কম্বল, এবং নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র. তাছাড়া, মানবতাবাদী সাহায্যের একাংশ পাঠানো হবে প্যালেস্টাইনে.
হাজার হাজার প্যালেস্টাইনী শরণার্থী দামাস্কাসের উপকণ্ঠে ইয়ারমুক শিবিরে ফিরে আসতে শুরু করেছে জঙ্গী ও সিরিয়ার কর্তৃপক্ষের মাঝে সমঝোতার পরে. ইয়ারমুক শিবিরকে “নিরপেক্ষ এলাকা” বলে ঘোষণা করা হয়েছে, আর সেখানে নিরাপত্তা বজায় রাখবে স্থানীয় প্যালেস্টাইনী প্রশাসন.
প্রায় এক লক্ষ লোক দামাস্কাসের উপকণ্ঠে অবস্থিত প্যালেস্টাইনী শরণার্থীদের “ইয়ারমুক” শিবির ত্যাগ করে গেছে সিরিয়ার সরকারের পক্ষসমর্থক ও বিরোধীপক্ষের মাঝে সঙ্ঘর্ষের দরুণ. সঙ্ঘর্ষের ফলে বহু সংখ্যক শরণার্থী নিহত হয়েছে, “ভয়েস অফ প্যালেস্টাইন” বেতারকেন্দ্রকে বলেছেন সিরিয়ায় "ফাথ" আন্দোলনের প্রতিনিধি সামির আর-রিফাই.
পূর্ব জেরুসেলামে ব্যাপক বসতি নির্মাণ সম্পর্কে ইস্রাইলের পরিকল্পনায় মস্কো উদ্বিগ্ন, - তা স্বাধীন প্যালেস্টাইনী রাষ্ট্র গঠনের পরিপ্রেক্ষিত বানচাল করতে পারে, এ সম্বন্ধে বুধবার ঘোষণা করেছে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও মুদ্রণ বিভাগ. আগে ইস্রাইল পূর্ব জেরুসেলামে দেড় হাজার একক নতুন বসতি নির্মাণের পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেছিল.
ইয়ার্মুক ক্যাম্পে এক দল সেনা মোতায়েন করা হয়েছে, এই খবর দিয়েছে সোমবার পশ্চিমের সংবাদ মাধ্যম. এই ক্যাম্পের মধ্যেই এখন সিরিয়ার প্রশাসনের সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে লড়াই চলছে. তার মধ্যে আবার কিছু প্যালেস্তিনীয় লোক বিরোধীদের পক্ষও নিয়েছে.
চরমপন্থী ঐস্লামিক গোষ্ঠী হামাজের শীর্ষনেতারা প্যালেস্টাইনের অন্য গোষ্ঠী পি.এল.ও.র সাথে মতদ্বন্দের অবসান ঘটানোর জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করবে. হামাজের পলিটব্যুরোর শীর্ষনেতা খালেদ মাশাল এই কথা ঘোষনা করেছেন. তিনি বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন, যে গাজা সেক্টর ও জর্ডান নদীর পশ্চিম উপকূল প্যালেস্টাইনের ঐতিহাসিক ভুমি ও একের অপরকে প্রয়োজন.
রাষ্ট্রসঙ্ঘের প্যালেস্টাইনী শরণার্থীদের সাহায্য এবং কাজের সংগঠন সংক্রান্ত নিকট প্রাচ্য এজেন্সির প্রধান ফিলিপ্পো গ্রান্ডি বলেছেন যে, সিরিয়ায় প্যালেস্টাইনী শরণার্থীদের সামরিক ক্রিয়াকলাপ থেকে পাশে সরে থাকা উচিত্. এ সম্বন্ধে শুক্রবার জানিয়েছে আন্তঃআরব টেলি-চ্যানেল “আল-আরাবিয়া”. সিরিয়ায় বর্তমানে বাস করছে প্রায় ৫ লক্ষ ২০ হাজার প্যালেস্টাইনী শরণার্থী, তাদের মধ্যে ৪ লক্ষ – বাস করে কেন্দ্রীয় দামাস্কাস প্রদেশে.
গাজা অঞ্চল নিয়ন্ত্রণকারী “হামাস” আন্দোলন প্রথম প্যালেস্টাইনী প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় গঠনের পরিকল্পনা করছে. এ সম্বন্ধে বলেছেন “হামাস” সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ফাথি হামাদ. তাঁর কথায়, এ পদক্ষেপের হওয়া উচিত্ ইস্রাইলের “ধূম্র স্তম্ভ” অভিযানের উত্তর, যে অভিযানের ফলে ১৪০ জনেরও বেশি প্যালেস্টাইনী প্রাণ হারিয়েছে.
“জবরদখল করা প্যালেস্টিনীয় ভুখন্ডে ইস্রায়েল নতুন জনবসতি গড়লে, সেটা হবে শান্তি প্রক্রিয়ায় ইতি টানা – বলেছেন প্যালেস্টিনীয় জাতীয় স্বায়ত্তশাসিত পরিষদের অন্যতম নেতা সঈদ আরিকাত. তিনি আরও যোগ করেছেন, যে সেক্ষেত্রে দুই রাষ্ট্রের সহাবস্থানকে ভিত্তি করে সমস্যার শান্তিপূর্ণ মিটমাট কোনোমতেই সম্ভব হবে না.
নিকট-প্রাচ্য মীমাংসার প্রক্রিয়ায় মধ্যস্থ "চতুষ্টয়ের" (রাশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় সঙ্ঘ)সাক্ষাত্ আগামী সপ্তাহে আয়োজন করার পরিকল্পনা আছে. এ সম্বন্ধে জানিয়েছেন মার্কিনী পররাষ্ট্র দপ্তরের সরকারী প্রতিনিধি মার্ক টোনার. তিনি সঠিক করে বলেন নি, কোথায় এ আলাপ-আলোচনা হবে. শনিবার রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী মিখাইল বগদানোভ “রুসিয়া আল-ইয়ায়ুম” টেলি-চ্যানেলকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে বলেন যে, মস্কো তাড়াতাড়ি এ সাক্ষাত্ আয়োজনের আহ্বান জানাচ্ছে.
রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুন ইস্রাইল-কে আহ্বান জানিয়েছেন নতুন বসতি নির্মাণ সম্পর্কে নিজের পরিকল্পনা বাতিল করার, জানিয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের প্রেস-সার্ভিস. বান কি মুন বলেছেন যে, দখলিত প্যালেস্টাইনী ভূভাগে ইস্রাইলের নতুন বসতির নির্মাণ নিকট প্রাচ্য সমস্যার মীমাংসা বানচালের বিপদ সৃষ্টি করছে.
প্যালেস্টাইনের অধিকৃত অংশে ইজরায়েলের সরকার এই রকমের বাস্তু নির্মাণের কাজ চালিয়ে যেতে চায় বলে শুক্রবারে স্থানীয় সংবাদ সংস্থা গুলি জানিয়েছে. আরও খবর পাওয়া যাচ্ছে যে, নতুন বসতি তৈরী করা হবে পূর্ব জেরুজালেম ও জর্ডন নদীর পশ্চিম পারেই. দেশের মন্ত্রীসভার নটি প্রধান বিষয়ের মন্ত্রীদের এক সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে ইজরায়েল থেকে জানানো হয়েছে.
রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারন সভার সংখ্যা গরিষ্ঠ সদস্য দেশ প্যালেস্টাইনের স্বয়ং শাসিত এলাকাকে পর্যবেক্ষক দেশের মর্যাদা দিতে স্বীকৃতি দিয়েছে. এই সিদ্ধান্তের পক্ষে সায় দিয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের ১৯৩টি সদস্য দেশের মধ্যে ১৩৮টি দেশ, বিরুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইজরায়েল সহ নয়টি দেশ এবং ভোট দিতে চায় নি ৪১টি দেশ, ৫টি দেশ ছিল অনুপস্থিত.
রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ অ্যাসেম্বলি প্যালেস্টাইনী স্বায়ত্ত্ব শাসনকে এ সংস্থার পর্যবেক্ষক রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে. প্যালেস্টাইনীরা এ সিদ্ধান্তকে গ্রহণ করেছে জাতীয় বিজয় হিসেবে. হাজার হাজার লোকে বৈঠকের প্রত্যক্ষ সম্প্রচার দেখেছে যেমন গাজা অঞ্চলে তেমনই জর্ডান নদীর পশ্চিম তীরে. রাষ্ট্রসঙ্ঘের ১৯৩টি সদস্য রাষ্ট্রের মধ্যে ১৩৮টি রাষ্ট্র, সেই সঙ্গে রাশিয়া, প্যালেস্টাইনী স্বায়ত্ত শাসনকে রাষ্ট্রসঙ্ঘের পর্যবেক্ষক রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকার করার পক্ষে মত প্রকাশ করেছে.
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনেট বর্তমানে ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা নেওয়া নিয়ে এক নতুন আইন প্রণয়নের চেষ্টা করছে. তেহরানের উপরে চাপ বাড়ছে. তারই মধ্যে বিশেষজ্ঞরা কল্পনা করতে বসেছেন – এই চাপ এবারে কি ধরনের আকার নেবে – আর পরিনামে আমেরিকার লোকরা কি পেতে চলেছে.
বৃহস্পতিবারে হামাস, ঐস্লামিক জেহাদ সহ আরও অনেক প্যালেস্টাইনের সংগঠন গাজা এলাকায় সম্মিলিত ভাবে মিছিল করবে প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশনের নেতা ও প্যালেস্টাইন ন্যাশনাল অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের প্রধান মাখমুদ আব্বাসের সমর্থনে. এই বিষয়ে বুধবারে আন্তর্আরবীয় টেলিভিশন চ্যানেল আল- জাজিরা জানিয়েছে.
বৃহস্পতিবারে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারন সভায় প্যালেস্টাইনকে পর্যবেক্ষক রাষ্ট্রের মর্যাদা দেওয়া নিয়ে ভোট গ্রহণের ফলে সেই দেশ এই মর্যাদা পেতেই পারে. প্যালেস্টাইনের এই নতুন মর্যাদা পাওয়ার জন্য রাষ্ট্রসঙ্ঘের বেশীর ভাগ সদস্য দেশের সমর্থন পাওয়ার দরকার হবে. আর এটা হওয়ার সম্ভাবনা খুব বেশী রকমই রয়েছে.
এই সম্বন্ধে হামাস গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে গাজা এলাকায় করা এক ঘোষণায় বলা হয়েছে যে, দলের নেতা খালেদ মাশাল প্যালেস্টাইনের রাষ্ট্রপতি মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে টেলিফোন আলোচনার সময়ে সমর্থনের কথা বলেছেন. এই দলিল প্রকাশ করা হয়েছে আগামী ২৯শে নভেম্বর বৃহস্পতিবারে প্যালেস্তিনীয় নেতা মাহমুদ আব্বাস রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারন সভায় পর্যবেক্ষক রাষ্ট্রের মর্যাদা পাওয়ার জন্য যে আবেদন পেশ করতে যাচ্ছেন, তার তিন দিন আগে.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2012
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2012
1
3
4
6
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
22
24
25
26
27
28
29
30
31