×
South Asian Languages:
লিবিয়া, 26 জুলাই 2011
লিবিয়ার সরকারী বাহিনী রকেট আঘাতের দ্বারা মিসুরাতের বড় একটি পেট্রলের গুদাম পুড়িয়ে দিয়েছে. এ শহর এখন বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণাধীনে রয়েছে, আর গদ্দাফির বিশ্বস্ত বাহিনী কয়েক মাস ধরে তার অবরোধ করছে. ত্রিপোলির ২০০ কিলোমিটার পুবে অবস্থিত লিবিয়ার তৃতীয় বড় বন্দর-শহর মিসুরাত সঙ্ঘর্ষরত উভয় পক্ষের জন্যই রণনৈতিক গুরুত্ব ধারণ করে.
ফ্রান্সের পরে গ্রেট-বৃটেনও ঘোষণা করেছে যে, লিবিয়ার নেতা মুয়ম্মর গদ্দাফি দেশে থাকতে পারে, যদি শাসন ক্ষমতা ত্যাগ করে. বৃটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী উইলিয়াম হেগের কথায়, তাঁর পক্ষে বাঞ্ছনীয় হত, যদি গদ্দাফি লিবিয়া ছেড়ে যেতেন. তবে, লিবিয়াবাসীদের নিজেদেরই এ সম্বন্ধে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা উচিত্. হেগ এ বিবৃতি দেন লন্ডনে ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলেন ঝুপ্পে-র সাথে আলাপ-আলোচনার পরে.
ন্যাটো জোটের বিমানবাহিনী লিবিয়ার পশ্চিমাঞ্চলে হাসপাতালে বোমা বর্ষণ করেছে, জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধি. শেষ প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, নিহত হয়েছে ৮ জন, তাদের মধ্যে তিনজন ডাক্তার. বিমান আঘাতের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে খাদ্যদ্রব্য ও ওষুধের ভাণ্ডার. ঐ জায়গায় কাজ করছে পুলিশ এবং উদ্ধারকর্মীদের দল. এদিকে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার ত্রিপোলিতে পৌঁছোবে রাশিয়ার মানবতাবাদী সাহায্যের পরবর্তী ক্ষেপ.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জুলাই 2011
ঘটনার সূচী
জুলাই 2011
10
22
23
25
30
31