×
South Asian Languages:
সামরিক, 8 জুলাই 2013
ইরানের নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি হাসান রোহানি এক চাঞ্চল্যকর ঘোষণা নিয়ে ভাষণ দিয়েছেন, তিনি বলেছেন দেশের মানুষের জীবনকে এই ঐস্লামিক প্রজাতন্ত্রে আরও মুক্ত করার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে, বাধা নিষেধ শিথিল করার জন্য ও ইরানের মানুষদের প্রত্যহের জীবনের উপরে কড়া নিয়ন্ত্রণ তুলে নেওয়ার জন্য. রোহানি বলেছেন, - “আমাদের প্রয়োজন শক্তিশালী সমাজের. আমাদের দেশের লোকদের সঙ্গে কথা বলা দরকার.
মিশরের শাসন ক্ষমতা থেকে অপসারিত রাষ্ট্রপতি, ইস্লামপন্থী মুহাম্মেদ মুর্সি কায়রো-তে প্রজাতান্ত্রিক গার্ড ঘাঁটিতে নেই, যেখানে গত রাতে সশস্ত্র আক্রমণ চালানো হয়েছিল. এ সম্বন্ধে মিশরের “আল-আখ্রাম” পত্রিকার ইন্টারনেট সাইটে বলেছেন মিশরের সেনাবাহিনীর জেনারেল হামদি বাহিত.একদল সশস্ত্র ব্যক্তি সোমবার ভোর বেলায় কায়রো-তে প্রজাতান্ত্রিক গার্ডের সদর ঘাঁটি আক্রমণ করে. উত্তরে সৈনিকরা অস্ত্র ব্যবহার করে.
চিন দেশে সোমবারে শেষ হওয়া ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী এ. কে. অ্যান্টনির সফর একটা দ্বিধা জড়িত ধারণা রেখে গিয়েছে. একদিকে, সরকারি স্তরে দুই পক্ষই সমঝোতা করেছেন সীমান্ত এলাকায় পারস্পরিক ভরসার মাত্রা বৃদ্ধি করার, সব রকম ভাবে উত্তেজনা কমানোর ও এমনকি যৌথভাবে সামরিক মহড়া করার.
ইজিপ্টের সেনাবাহিনী সোমবারে দেশের রাজধানীতে নিজেদের উপস্থিতি বাড়িয়েছে. কড়া সামরিক প্রহরায় রাখা হয়েছে সমস্ত সরকারি ভবন. এটা কায়রোতে প্রজাতান্ত্রিক প্রহরীদের সদর দপ্তর মুর্সি সমর্থকরা আক্রমণ করে দখলের চেষ্টার পরে করা হয়েছে. সেখানেই কানাঘুষো অনুযায়ী এখন মুহাম্মেদ মুর্সি রয়েছেন. গুলি চালাচালির ফলে প্রায় চল্লিশ জন নিহত হয়েছে. তারই মধ্যে ইজিপ্টের মুসলমান ভাইদের শাখা আজ নিজেদের সমস্ত সমর্থকদের অভ্যুত্থানের ডাক দিয়েছে.
মিশরের উত্খাত রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সির অনুগত ব্যক্তিরা কায়রোর আইন-শামস পাড়ায় দুজন সৈনিককে অপহরণ করেছে, সোমবার জানিয়েছে আন্তঃআরব টেলি-চ্যানেল "আল-আরাবিয়া". আগে মুর্সি-কে সমর্থনকারী "ভাই মুসলমান" আন্দোলন নিজের পক্ষসমর্থকদের বিদ্রোহ করার আহ্বান জানায় এবং আন্তর্জাতিক জনসমাজের কাছে আবেদন করে মিশরের ঘটনাবলিতে হস্তক্ষেপ করার. জানানো হয়েছে যে, গত রাতে কায়রো-তে প্রজাতান্ত্রিক গার্ড ঘাঁটির কাছে সঙ্ঘর্ষ ঘটেছিল, যাতে ৪২ জন নিহত হয়েছে.
মিশরের অভিশংসক দপ্তর সিরিয়ার বিরোধীপক্ষের ২০০জনেরও বেশি সক্রিয় কর্মীকে গ্রেপ্তারের পরোয়ানা জারি করেছে, যাদের বিরুদ্ধে বিশৃঙ্খলা প্ররোচনা করার অভিযোগ তোলা হয়েছে. আজকের “আল-মাস্রি আল-ইয়াউম” পত্রিকা জানিয়েছে যে তারা সকলেই মিশরের “ভাই মুসলমান” আন্দোলনের সাথে জড়িত এবং তাদের ভাড়া করা হয়েছিল কায়রো, আলেক্সান্দ্রিয়া এবং অন্যান্য শহরে রাষ্ট্রপতি মুর্সির শাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানো মিছিলকারীদের উপর আক্রমণ করার জন্য.
সিরিয়ার বিপ্লবী ও বিরোধী শক্তিগুলিরজাতীয় কোয়ালিশনের নিকট ভবিষ্যতে এক ক্ষেপ আধুনিক অস্ত্র পাওয়ার কথা, বলেছেন বিরোধীপক্ষের নতুন নেতা আহমদ জারবা. তিনি জানান যে, অস্ত্র আসবে সৌদি আরব থেকে, যার সাথে জারবা নিজে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রাখছেন. তিনি আরও বলেন যে, বর্তমান পরিস্থিতিতে জাতীয় কোয়ালিশন জেনেভা সম্মেলনে অংশগ্রহণ করতে পারে না.
কায়রো-তে প্রজাতান্ত্রিক গার্ড বাহিনীর সদর ঘাঁটির কাছে গত রাতে মিশরের “ভাই মুসলমান” আন্দোলনের ৩৪ জন পক্ষসমর্থকের নিহত হওয়ার কথা জানিয়েছেন আন্দোলনের প্রতিনিধি মুরাদ আলি. তাঁর কথায়, লোকেদের উপর গুলিবর্ষণ করেছে সেনাবাহিনী. অনুমান করা হচ্ছে যে, প্রজাতান্ত্রিক গার্ড ভবনে রয়েছেন গত সপ্তাহে উত্খাত দেশের রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সি. এদিকে স্থানীয় চিকিত্সকরা ১৫ জনের নিহত হওয়ার কথা জানিয়েছে.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জুলাই 2013
ঘটনার সূচী
জুলাই 2013
20