×
South Asian Languages:
সামরিক, 24 জানুয়ারী 2012
ওয়াশিংটনের ইরান বিরোধী রাজনীতি, যার প্রয়োগে সম্ভব হয়েছে ইরানের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক ও বিনিয়োগ সংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞা গ্রহণ করা, তা এই দেশ ও তার খনিজ তেলের গ্রাহক দেশ গুলিকে এড়িয়ে যাওয়ার পথ খুঁজতে বাধ্য হতে. বিশদ করে লিখেছেন আমাদের সমীক্ষক গিওর্গি ভানেত্সভ.     ইরান বর্তমানে ২৫ লক্ষ ব্যারেলের বেশী খনিজ তেল রপ্তানী করে.
ওয়াশিংটনের মতে, সিরিয়াকে সরবরাহ করা বিদেশী অস্ত্রশস্ত্র নিরীহ নাগরিকদের দমন করার কাজে ব্যবহার করা হয়. রাশিয়ার সিরিয়াকে পরিকল্পিত ইয়াক-১৩০ মার্কা বিমান সরবরাহ করার প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে বিদেশদপ্তরের মুখপাত্র ভিক্টোরিয়া নিউল্যান্ড এই উক্তি করেছেন.      নিউল্যান্ড বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন, যে পরিকল্পিত বিমান সরবরাহ দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে.
গত সন্ধ্যায় প্রয়াত কর্ণেল গদ্দাফির সমর্থকরা বানি-ওয়ালিদ শহর দখল করেছে. শহরটি লিবিয়ার উত্তরাঞ্চলে ত্রিপোলির অনতিদূরে অবস্থিত. লিবিয়ার এখনকার শীর্ষনেতার নিরাপত্তা বাহিনী গদ্দাফির কয়েকজন সমর্থককে গ্রেপ্তার করার পরেই সংঘর্ষ শুরু হয়. এই ঘটনা গদ্দাফির সমর্থকদের বিপুল অসন্তোষের কারণ হয়, এবং তারা অন্তর্বর্তীকালীন জাতীয় পরিষদের অধীনস্থ সামরিক চৌকী আক্রমণ করে.
৪জন নিহত ও ২০ জন আহত হয়েছে লিবিয়ার পশ্চিমে বানি ওয়ালিদ শহরে নিহত মুহম্মর গাদ্দাফির সমর্থক বাহিনী ও বর্তমানের প্রশাসক বাহিনীর মধ্যে যুদ্ধে. ফ্রান্স প্রেস সংস্থা সোমবারে এই খবর দিয়েছে. আগে জানানো হয়েছিল য়ে, প্রাক্তন নেতার অনুগামীরা আগের জঙ্গী ও বর্তমানে প্রশাসক দলের লোকেদের সামরিক ঘাঁটিতে হানা দিয়েছিল ও তা সম্পূর্ণ ভাবে ঘিরে ফেলেছিল. সেখানে প্রবল গুলি চালনা হয়েছে.
এন. পিল্লাই, যিনি বর্তমানে রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার কমিশনের প্রধান, তিনি সোমবারে এই ঘোষণা করেছেন. এখনও সেখানে ১৭১ জনকে বন্দী করে রাখা হয়েছে, তাদের মধ্যে ৪৬ জনের নামে কোন অভিযোগ প্রমাণিত নেই. তাদের অনির্দিষ্ট কালের জন্য ধরে রাখা হয়েছে, যদিও ওবামা এই জেল বন্ধ করার আশ্বাস দিয়েছিলেন.
দেশের বিশেষ সামরিক বাহিনী, যারা বাশার আসাদের প্রশাসনকে সমর্থন করেছে ও জঙ্গী বিদ্রোহীদের সংঘর্ষ বেড়েই চলেছে. ইদলিব, হোমস্ ও হামা প্রদেশে যুদ্ধ চলছে বলে সানা সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে. সিরিয়া লেবানন সীমান্তের কাছে এল- কুসেইর শহরে সামরিক চৌকীতে জঙ্গীরা হানা দিয়েছে. তিনজন সৈন্য নিহত ও ১৪ জন আহত.
পররাষ্ট্র নীতি সংক্রান্ত ইউরোপীয় সঙ্ঘের পরিষদ সোমবার সিরিয়ার প্রতি নিষেধাজ্ঞা আরও কঠোর করেছে. ইউরোপীয় সঙ্ঘের তথ্য সম্প্রচার দপ্তর জানিয়েছে যে, বর্তমানে সিরিয়ার সেই সমস্ত কোম্পানীর সংখ্যা যাদের হোল্ডিং ইউরোপে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে, এখন থেকে ৩৮টিরও বেশী, আর প্রশাসনের প্রতিনিধি, যাদের "কালো তালিকা" ভুক্ত করা হয়েছে – তাদের সংখ্যা ১০৮.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2012
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2012
1
2
3