×
South Asian Languages:
নিকট প্রাচ্য

২০১০ সালের ২৪শে ডিসেম্বর টিউনিশিয়ার সিদি-বুজিদে প্রথম বেন আলির প্রশাসনের বিরুদ্ধে গণ অভ্যুত্থান ঘটেছিল, যা “আরব বসন্তের” শুরু করেছিল. হাতে গোনা কয়েক সপ্তাহের মধ্যে উত্তর আফ্রিকায় দুটি প্রশাসনকে জনতার ঝড় ধুয়ে দিয়েছিল, যে দুটিই বহুদিন ধরে পশ্চিমের খুবই ভরসার জোটসঙ্গী হয়ে ছিল.

তারপরে ঘটনাচক্র দিক পরিবর্তন করেছে, আর ছড়িয়ে পড়েছে সেই সমস্ত দেশের উপরে, যাদের বেন আলির টিউনিশিয়া বা হোসনি মুবারকের ইজিপ্টের সঙ্গে খুব কমই অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক দিক থেকে মিল ছিল. “আরব বসন্ত” তারপরে ১৮০ ডিগ্রী দিক পরিবর্তন করেছে.

ঠিক দুই বছর আগে বাগদাদে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক পতাকা নামিয়ে নেওয়া হয়েছিল. এটা ছিল একটা প্রতীকী ব্যাপার, যা করা হয়েছিল, স্রেফ দেখানোর জন্যই যে, ইরাক থেকে মার্কিন সেনাবাহিনী চলে যাচ্ছে. আগামী বছরে, সব দেখে শুনে মনে হয়েছে যে, আমেরিকার সেনাবাহিনীর মূল অংশ আফগানিস্তান থেকেও নিয়ে যাওয়া হতে চলেছে.

কিছু লোক মনে করেছেন যে, ওয়াশিংটন রাজনৈতিক দিক থেকেও মধ্য ও নিকট প্রাচ্য থেকে নিজেদের প্রভাব কম করছে – আর এটা বিগত সময়েই বেশী করে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে.

রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান ইরান সফরে গিয়েছিলেন, যেখানে তিনি তাঁর সহকর্মী জাভাদ জারিফের সঙ্গে আলোচনা করেছেন আর তাঁর সঙ্গে ঐস্লামিক প্রজাতন্ত্র ইরানের রাষ্ট্রপতি হাসান রোহানি দেখা করেছেন.

যদিও এই সফরকে আনুষ্ঠানিক ভাবে কার্যকরী বলা হয়েছে, তবুও তার সংজ্ঞা সাধারণ দ্বিপাক্ষিক অনুষ্ঠানের বাইরেই হয়েছে. এই প্রসঙ্গে আমাদের সমীক্ষক ভ্লাদিমির সাঝিন মন্তব্য করেছেন.

রবিবারে আরাকে আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থার পর্যবেক্ষকরা ইরানের আমন্ত্রণে নির্মীয়মাণ ভারী জলের রিয়্যাক্টর দেখেতে যাচ্ছেন. “এই সফর ইরানের পক্ষ থেকে সদিচ্ছা ও ইরানের পারমাণবিক পরিকল্পনার শান্তিপূর্ণ চরিত্রকেই ব্যাখ্যা করে”, সংস্থার পক্ষ থেকে করা এক ঘোষণায় এই কথা বলা হয়েছে.

 

ইরানের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের সম্ভাবনা বিশেষজ্ঞদের খনিজ তেলের বাজারে একেবারেই নানা রকমের ভবিষ্যত সম্ভাবনা ব্যক্ত করতে আগ্রহী করেছে. বিশ্বের বাজারে বৃহত্ পরিমানে ইরানের খনিজ জেল উপস্থিত হলে তা এই কালো সোনার দামের ক্ষেত্রে অনেকটাই প্রভাব ফেলতে পারে.

২০১২ সাল পর্যন্ত তেহরান ওপেক সংস্থার সদস্য দেশগুলোর মধ্যে উত্পাদনের বিষয়ে দ্বিতীয় স্থানে ছিল. প্রতিদিনে তারা ৩৫ লক্ষ ব্যারেল খনিজ তেল উত্পাদন করত, যা ২৩টি দেশে সরবরাহ করত. পশ্চিমের দেশগুলো থেকে নিষেধাজ্ঞা বহালের পরে বিশ্বের বাজারে তেহরানের জায়গা ভাগ করে নিয়েছিল ওপেক সংস্থার অন্যান্য অংশীদার দেশরা, প্রাথমিক ভাবে ইরাক. বিগত সময়ে ইরান দিনে মাত্র সাত লক্ষ ব্যারেল তেল উত্পাদন করত, যা চিনে যেত, আর তারই সঙ্গে তাইওয়ান, ভারত, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও তুরস্কে যেত.

সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র ভূমিতে নষ্ট করা নিয়ে সহমতে আসা সম্ভব হচ্ছে না. রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ সংস্থার বিশেষজ্ঞরা এবারে তা সমুদ্রে নষ্ট করার সম্ভাবনা খতিয়ে দেখছেন. নিরপেক্ষ জলসীমা কতখানি বিষাক্ত দ্রব্য নষ্ট করার জন্য উপযুক্ত জায়গা, তা নিয়ে আলোচনা করেছেন “রেডিও রাশিয়ার” বিশেষজ্ঞরা.

“এটা একটা রাজনৈতিক হত্যা” – এই রকমই মন্তব্য করেছেন ইয়াসর আরাফাতের বিধবা স্ত্রী, যখন জানতে পারা গিয়েছে যে, তাঁর স্বামী ও প্যালেস্তিনীয় প্রশাসনের প্রাক্তন প্রধান ও পিএলও দলের নেতাকে পোলোনিয়াম প্রয়োগ করে হত্যা করা হয়েছে. সুইজারল্যান্ডের লজানের রেডিও ফিজিক্স ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞদের করা পরীক্ষার ফলাফল এই বিষ দিয়ে হত্যার ধারণাকেই সমর্থন করেছে.

“জেনেভা-২” সম্মেলনের প্রস্তুতির পথে নতুন সমস্যা উদ্ভব হয়েছে. সিরিয়ার ছড়িয়ে থাকা বিরোধী পক্ষের নেতারা কোন ভাবেই একটা সর্বজন সম্মত অবস্থান নিতে পারছে না, যা এই সম্মেলনে অংশ নেওয়ার জন্য দরকার. আর ওয়াশিংটন থেকে ঘোষণা করা হয়েছে যে, তারা এদের উপরে প্রভাব ফেলতে অশক্ত – যদিও আশা করছে যে, বিরোধী পক্ষের লোকরা বুঝবে: রাজনৈতিক আলোচনার কোন বিকল্পই নেই.

কিন্তু মনে রাখতে হবে যে, বিরোধীরা তাও সঠিক সিদ্ধান্তই নেবে. হোয়াইট হাউস থেকে ইতিমধ্যেই স্পষ্ট করে বুঝতে দেওয়া হয়েছে যে, বাশার আসাদের প্রশাসনকে উল্টে দেওয়া নিয়ে তারা এবারে মত পাল্টে ফেলেছে. আর আমেরিকার সমর্থন ছাড়া তুরস্ক ও আরব রাজতন্ত্রগুলো সামরিক অনুপ্রবেশের পথে কোন দিনও যাবে না.

রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী, নিকট প্রাচ্য সংক্রান্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির বিশেষ প্রতিনিধি মিখাইল বগদানোভ এবং মস্কোয় প্যালেস্টাইনের রাষ্ট্রদূত ফায়েদ মুস্তাফা নিকট প্রাচ্য মীমাংসার পরিস্থিতি আলোচনা করেছেন, বলা হয়েছে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও মুদ্রণ বিভাগের খবরে.

রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান সের্গেই লাভরভ ও জন কেরি রবিবারে টেলিফোনে সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্রের উপরে আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে দ্বিপাক্ষিক সমঝোতা বাস্তবায়নের কাজকর্ম নিয়ে আলোচনা করেছেন. একই ধরনের কথাবার্তা মন্ত্রীদের মধ্যে এক সপ্তাহ আগেও হয়েছে. কিন্তু বিগত সময়ের মধ্যে বোঝা গিয়েছে যে, মস্কো ও ওয়াশিংটনের সিরিয়াতে কেন নিরস্ত্রীকরণের প্রয়োজন, তা নিয়ে ধারণা আলাদা.

ইরাকের পার্লামেন্ট এক চিঠি তৈরী করছে নিজেদের দেশের পররাষ্ট্র দপ্তরের নামে, যাতে এই দপ্তরকে আহ্বান করা হয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছে সৌদী আরবের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা জারী করার দাবী জানানোর. এই বিষয়ে ইরাকের পার্লামেন্টের ক্ষমতাসীন জোটের প্রতিনিধি কাজীম আশ-শামরি জানিয়েছেন.

১৩ই সেপ্টেম্বর বিশকেকে সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার (সাসস) রাষ্ট্র নেতাদের শীর্ষ সম্মেলন হতে চলেছে. এই বিশকেক শীর্ষ সম্মেলনের আলোচ্য তালিকায় যেমন এই সংস্থার বিকাশ নিয়ে ভিত্তি সংক্রান্ত বিষয় রয়েছে, তেমনই রয়েছে বর্তমানের আন্তর্জাতিক পরিস্থিতি নিয়ে বিষয়ও, প্রাথমিক ভাবে সিরিয়ার সঙ্কটের তীক্ষ্ণ হওয়া, এই রকমই মনে করেছেন রুশ বিজ্ঞান একাডেমীর সুদূর প্রাচ্য ইনস্টিটিউটের ডিরেক্টর সের্গেই লুজিয়ানিন.

সিরিয়াতে আমেরিকার তরফ থেকে আঘাত হানা হলে ইরান এই সব আগ্রাসকদের আর তাদের এই এলাকার সহচরদের খুবই কঠোর প্রত্যুত্তর দেবে, কারণ তারা বাশার আসাদের প্রশাসনের সবচেয়ে কাছের সহকর্মী দেশ. তেহরান নিজেদের রকেট বাহিনী তৈরী করছে নিজেদের তৈরী থাকা ও বিষয়ের প্রতি খুব গুরুত্ব দেওয়াকে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্যেই. আসাদকে প্রতিরক্ষা করার জন্য এই দেশে বর্তমানে স্বেচ্ছায় যুদ্ধে যোগ দেওয়ার জন্য লোকদের নিয়ে বাহিনী তৈরী করা হচ্ছে. ইরানের স্বপক্ষে থাকা “হেজবোল্লা” দল ঘোষণা করেছে যে, তারা পশ্চিমের দেশগুলোর অন্যদেশের রাষ্ট্রদূতাবাস, কনস্যুলেট ও অন্যান্য ভবনগুলোর উপরে আঘাত করতে পারে.

সিরিয়ার সঙ্কটে সম্ভবতঃ একটা মোড় ঘোরার লক্ষণ দেখতে পাওয়া যাচ্ছে. দামাস্কাসের প্রশাসনের করায়ত্ত্বে থাকা রাসায়নিক অস্ত্রের উপরে আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রণ স্থাপন করা নিয়ে মস্কোর উদ্যোগ ওয়াশিংটনকে হয়ত সিরিয়ার উপরে আঘাত হানা থেকে স্থগিত হতে অথবা হয়তো একেবারেই নিরস্ত হতে বাধ্য করতে পারে. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামার জন্য এটা পরিস্থিতি থেকে বের হওয়ার জন্য সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য পথ হতে পারে, এই সম্বন্ধে রাজনীতিবিদ ও বিশেষজ্ঞরা সকলেই একমত হতে পেরেছেন.

আরব লীগের প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক আমর মুসা রবিবারে ঠিক হয়েছে যে, ইজিপ্টের পঞ্চাশ জনের পরিষদের সভাপতিত্ব করবেন, যেটি দেশের সংবিধানের নতুন বয়ান তৈরী করবে. তেসরা জুলাই সামরিক বাহিনীর পক্ষ থেকে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি মুহাম্মেদ মুর্সিকে সরিয়ে দেওয়ার পরে এর আগের সংবিধানকে স্থগিত রাখা হয়েছে. এই পঞ্চাশ জনের দলে দেশের প্রধান রাজনৈতিক দলের লোকরা রয়েছেন, তাছাড়া নাগরিক সমাজ, ধর্ম নিরপেক্ষ বিরোধী পক্ষ ও ধর্মীয় সমাজের লোকরা ছাড়া, ট্রেড ইউনিয়ন, ছাত্র সমাজ ও নারী আন্দোলনের প্রতিনিধিদেরও রাখা হয়েছে.

জি২০ শীর্ষ সম্মেলনে মস্কো সিরিয়াকে ঘিরে তীক্ষ্ণ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করার প্রস্তাব করেছে. এই বিষয়ে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষণা করেছেন. সেন্ট পিটার্সবার্গে এই শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে ৫-৬ সেপ্টেম্বর. পুতিন আরও একবার আহ্বান করেছেন রাষ্ট্রসঙ্ঘের বিশেষজ্ঞদের কাজের ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করার জন্য, যাঁরা ২১শে আগষ্ট দামাস্কাসের উপকণ্ঠে সম্ভাব্য রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করার জায়গা থেকে নমুনা সংগ্রহ করেছেন. রাশিয়ার অবস্থানের নীতিগত বিষয়কেই আবার করে রুশ রাষ্ট্রপতি বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন, আর তা হল যে, যেই গণহত্যার অস্ত্র ব্যবহার করুক না কেন, - এটা অপরাধ.

এবারে মস্কোর ছাব্বিশতম আন্তর্জাতিক বই মেলায় প্রায় দুই লক্ষ নানা রকমের বই পৃথিবীর প্রায় পঞ্চাশেরও বেশীটি ভাষায় উপস্থিত করা হতে চলেছে. রাশিয়ার রাজধানীতে এই মেলা উদ্বোধন করা হতে চলেছে ৪ঠা সেপ্টেম্বর.

পশ্চিম সিরিয়ার প্রশাসনকে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের জন্য দোষ দিচ্ছে. আবার দোষ দিচ্ছে স্পষ্টই কপটতা করে – কারণ খুব সম্ভবতঃ, এই অস্ত্রব্যবহার করেছে জঙ্গীরাই. কিন্তু যে কোন ক্ষেত্রেই এটা বাশার আসাদের প্রশাসনের প্রতি অভিযোগের স্রেফ মোড়ক. পশ্চিমের তরফ থেকে সিরিয়ার প্রতি প্রথম অভিযোগ – সেই বিষয়ে যে, সেখানে নাকি স্বৈরতান্ত্রিক প্রশাসন আর গণতন্ত্র নেই.

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রকেট লক্ষ্য করায় বিশ্বের খনিজ তেলের বাজার খুবই স্পর্শকাতর ভাবে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে. শুধু সিরিয়াতে বোমা পড়ার ভয়েই গত চার মাসের মধ্যে তেলের দামের বিষয়ে সবচেয়ে বেশী হয়েছে. খনিজ তেল দু’দিনে শতকরা পাঁচ শতাংশ বেড়ে ব্যারেল পিছু ১১৭ ডলার হয়েছে. এটা বিশ্বের বাজারকে দেওয়া খুবই শক্তিশালী সাবধান বার্তা – আগামী দিনগুলোতে খনিজ তেলের দামে খুবই দ্রুত ওঠানামা আসতে পারে.

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের জোট সঙ্গী হারাচ্ছে. ওয়াশিংটনের মুখ্য সামরিক সহচর – লন্ডন – সিরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক অপারেশনের সহযোগিতায় অস্বীকার করেছে. এর পরেই আরও এক গুচ্ছ ন্যাটোর দেশ বাশার আসাদের প্রশাসনের উপরে সামরিক চিত্রনাট্য অনুযায়ী কাজ করার বিষয়ে ধারণাকে বাতিল করেছে. ওয়াশিংটন বর্তমানে অন্য সহযোগী খুঁজছে, কিন্তু ঘোষণা করেছে যে, নিজেরাই একলা আঘাত হানতে পারে.

আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
অক্টোবর 2017
ঘটনার সূচী
অক্টোবর 2017
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28
29
30
31