×
South Asian Languages:
লিবিয়া ও আরব বিশ্ব, নভেম্বর 2011
লিবিয়ার নতুন ক্ষমতায় আসা লোকেরা, যারা কিনা মুহম্মর গাদ্দাফিকে খুন করেছে স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের জন্য, তাদেরকেই এখন মানবাধিকার রক্ষার বিষয়ে অসদাচরণের জন্য কড়া সমালোচনায় পড়তে হয়েছে. রাষ্ট্রসঙ্ঘের মহাসচিব বান কী মুন অন্তর্বর্তী কালীণ জাতীয় পরিষদকে দেশের যে কোন প্রজাতির মানুষের অধিকার খর্ব করা বন্ধ করতে আহ্বান করেছেন. আর নির্দিষ্ট করে বলতে হলে- দেশের কালো চামড়ার মানুষদের ও অভিবাসিত শ্রমিকদের অধিকার.
সিরিয়া আরব দেশ গুলির লীগের পর্যবেক্ষক দলকে দেশে আসতে অনুমতি দিয়েছে, যাদের মধ্যে থাকছে মানবাধিকার রক্ষা পরিষদের কর্মী প্রতিনিধিরা, সামরিক বাহিনীর লোকেরা আর সাংবাদিকেরা. এই প্রসঙ্গে দামাস্কাসের বিরুদ্ধে আরব লীগের পক্ষ থেকে নিষেধাজ্ঞার হুমকি আগের মতোই দেওয়া হচ্ছে.
তহরির চকে জন সমাবেশ করে সরকার বদল ও সামরিক বাহিনীকে শাসন ভার নিজেদের হাতে নেওয়া থেকে বিরত করতে পেরেছে. মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কায়রো শহরের কেন্দ্রে পঞ্চাশ হাজার সমবেত লোক ইসাম শারাফের মন্ত্রীসভার পদত্যাগকে অভিনন্দন জানিয়েছে. তারা দাবী করেছে সামরিক বাহিনীর কাছ থেকে দেশের সীমান্ত রক্ষার, দেশ চালানোর নয়. সামরিক বাহিনী দেশের বেসরকারী নেতাদের হাতে শাসন দ্রুত তুলে দেওয়ার বিষয়ে অঙ্গীকার করেছে.
নিকট প্রাচ্যে বরফ গলতে শুরু করেছে, এই ভাবেই রুশ বিশেষজ্ঞরা আঞ্চলিক ভাবে পারমানবিক অস্ত্র শূণ্য হওয়ার জন্য প্রথম সম্মেলনের মূল্যায়ণ করেছেন. ২১- ২২ নভেম্বর এই সম্মেলন হচ্ছে আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থার সদর দপ্তর ভিয়েনা শহরে, উদ্যোক্তা সংস্থার প্রধান ইউকিও আমানো. এই ধরনের সম্মেলনের সিদ্ধান্ত এখন থেকে ১১ বছর আগে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারন সভা.
জার্মানী, ফ্রান্স ও গ্রেট ব্রিটেন রাষ্ট্রসঙ্ঘে সিরিয়া নিয়ে নতুন সিদ্ধান্তের প্রকল্প পেশ করেছে. তারা প্রস্তাব করেছে যে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারন সভা যেন এই দেশে মানবাধিকার ভঙ্গের সমালোচনা করে. এই দলিলের সহ লেখক হিসাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, মরক্কো, জর্ডন, সৌদি আরব, লিবিয়া ও কাতার তৈরী হয়েছে বক্তৃতা দিতে. এখন পশ্চিম ঠিক করেছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারন সভার ব্যবস্থাকে ব্যবহার করার.
ফরাসী সরকারের প্রোটোকল দপ্তরের ভুল কান শহরে অর্থনৈতিক ভাবে বড় কুড়ি দেশের শীর্ষ সম্মেলনের সময়ে এক আন্তর্জাতিক স্ক্যাণ্ডালের ভূমিকা করেছে. ফ্রান্স ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেতাদের আলোচনা, যা হচ্ছিল রুদ্ধদ্বার বৈঠকের সময়ে, সাংবাদিকদের কাছে প্রকাশ হয়েছে. যেমন পরে বোঝা গিয়েছে, সারকোজি ও ওবামা, এর মধ্যেই যথেষ্ট পরিমানে ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নাথানিয়াখুর বিষয়ে ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন.
প্যালেস্টাইন ইউনেস্কো সংস্থার সম্পূর্ণ সদস্য পদ পেয়েছে. এই প্রস্তাবের সমর্থনে সংস্থার প্যারিস শহরের সাধারন সভায় বেশীর ভাগ সদস্যই সমর্থন করেছেন. বিপক্ষে বক্তব্য রেখেছেন ১৪টি দেশ, তার মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইজরায়েল.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
নভেম্বর 2011
ঘটনার সূচী
নভেম্বর 2011
2
3
4
5
6
7
8
10
11
12
13
14
15
16
17
19
20
22
24
26
27
28
30