×
South Asian Languages:
গণ অভ্যুত্থান, 17 অক্টোবর 2011
       পৃথিবীর ৮০টিরও বেশি দেশের কর্তৃপক্ষ প্রতিবাদ আন্দোলনের খতিয়ান টানছে, যা এই ছুটির দিনগুলিতে বড় বড় শহরে ছড়িয়ে পড়েছিল. গোড়ায় নিছক আমেরিকান উদ্যোগ “ওয়াল স্ট্রীট দখল” বিশ্বব্যাপী চরিত্র ধারণ করে. কর্তৃপক্ষের আর্থিক নীতি এবং ব্যাঙ্ক মালিকদের প্রাধান্য দানের জন্য বিক্ষোভ এখন সমস্ত মহাদেশেই ধ্বনিত হচ্ছে. বিশেষজ্ঞরা ইতিমধ্যে সমাজতান্ত্রিক ধারণার পুনরুজ্জীবন সম্বন্ধে বলতে শুরু করেছেন.
‘ওয়াল-স্ট্রীট দখল করো’ নামক আন্দোলন সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে. ধনকুবের, যাদের বিরূদ্ধে আর্থিক সংকট সৃস্টি করার প্রতিবাদে নিউ-ইয়র্কে  আন্দোলন চলছে, তা লন্ডন, রোম ও বার্লিন পর্যন্ত গিয়ে পৌঁছেছে. আর তারপরে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে. ৮০টিরও বেশি দেশ এই সংক্রামণে আক্রান্ত হয়েছে. নিজেদের কার্যকলাপের সমন্বয় করার জন্য সক্রিয় আন্দোলনকারীরা নিজেদের ইন্টারনেট সাইট তৈরি করেছে.
 বি.বি.সি. জানিয়েছে, যে লিবিয়ায় জাতীয় পরিষদের যোদ্ধারা আজ বানি-ওয়ালিদ শহরে লড়াই করছে. লড়াই চলছে শহরের মধ্যেই. জাতীয় পরিষদ স্বীকার করছে, যে মুয়াম্মার গদ্দাফির অনুগামীরা আমরণ প্রতিরক্ষার সংকল্প নিয়েছে. জাতীয় পরিষদের যোদ্ধারা নাকি ঐ শহরের কেন্দ্রে পৌঁছেছে, তবে বি.বি.সি.উল্লেখ করেছে, এ ঘটনার প্রমাণ পাওয়া যায়নি. বানি-ওয়ালিদ – গদ্দাফির অন্যতম শেষ ঘাঁটি.
লিবিয়ার প্রাক্তণ রাষ্ট্রপ্রধান গদ্দাফির অন্যতম পুত্র, হামিস অন্তর্বর্তীকালীন জাতীয় পরিষদের সাথে সংঘর্ষে সত্যিই মারা গেছে. এই খবর দিয়েছে আজ  ‘আররাই’ দূরদর্শন চ্যানেল, যারা লিবিয়ার ভূতপূর্ব নেতৃবৃন্দের সাথে যোগাযোগ রাখে. দূরদর্শন চ্যানেলটির ভাষ্য অনুযায়ী, হামিস অগাস্টের শেষদিকে ত্রিপোলির ৯০ কিলোমিটার দূরত্বে সংঘর্ষে নিহত হন. ‘আররাই’ সেইসঙ্গেই প্রাক্তণ গুপ্তচর বাহিনীর প্রধান আবদুল্লা আস-সেনুসির নিহত হওয়ার খবরও দিয়েছে.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
অক্টোবর 2011
ঘটনার সূচী
অক্টোবর 2011
1
2
7
8
9
16
19
25
27
28