×
South Asian Languages:
ইন্টারনেট

বছরের শেষে লন্ডন ও ওয়াশিংটনের জন্য বেশী করেই খারাপ খবর উদয় হচ্ছে, যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের থেকে পালিয়ে আসা জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেনের ফাঁস করে দেওয়া ফাইলের সঙ্গেই যুক্ত.

রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার রক্ষা ও সন্ত্রাসবাদ সংক্রান্ত বিশেষ প্রবন্ধকার বেন এম্মেরসন ঘোষণা করেছেন যে, এই নিয়ে স্ক্যান্ডাল মোটেও নিভে আসবে না, বরং নতুন সমস্ত বর্ণনা দিয়ে আরও বেশী করেই জ্বলে উঠবে. এম্মেরসন ঠিক করেছেন সারা বিশ্বের ৩৫টা দেশের নাগরিক ও দেশ নেতাদের উপরে নজরদারি করতে গিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও গ্রেট ব্রিটেন রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিয়ম কানুন কতটা ভঙ্গ করেছে, তা উল্লেখ করার. এম্মেরসন আবার তাঁর আগে করা নানা রকমের প্রবন্ধ, যা তিনি সিআইএ সংস্থার ইউরোপের গোপন জেল নিয়ে, পেন্টাগনের গুয়ান্তানামো বন্দী শিবির নিয়ে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরফ থেকে বেআইনি ভাবে ড্রোন বিমান ব্যবহার নিয়ে ও তা দিয়ে নিরীহ জনগনকে হত্যা করা নিয়ে লিখেছেন তার জন্যই বিখ্যাত.

কানাডার একটি খনিজ উত্পাদন কোম্পানী অ্যালিক্স রিসোর্সেস সিদ্ধান্ত নিয়েছে নিজেদের খনিজ অনুসন্ধান সংক্রান্ত সহকর্মী কোম্পানীকে তাদের কাজের জন্য বৈদ্যুতিন মুদ্রা “বিটকয়েন” ব্যবহার করে মূল্য দেওয়ার. বিশ্বের বৃহত্তম দেশগুলোর অর্থনৈতিক প্রশাসকরা কিন্তু এই রকমের ঘটনার পরম্পরা ভাল চোখে দেখছেন না. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনেট যেমন মনে করে যে, অর্থনীতির বাস্তব ক্ষেত্রে ভার্চুয়াল অর্থ দেশের জন্যই বিপজ্জনক হয়ে দাঁড়াতে পারে.

অবশেষে জানা গিয়েছে যে, আমেরিকার সাংবাদিক, ব্লগার ও আইনজীবী গ্লেন গ্রীনওয়াল্ড কোথায় কাজ করতে যাবেন. তিনিই প্রথম বিশ্বকে জানিয়েছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার প্রাক্তন পলাতক কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেনের ফাঁস করে দেওয়া খবরের কথা. গ্রীনওয়াল্ড সাংবাদিকদের তদন্ত করার এক নতুন সাইটের একজন প্রধান হতে চলেছেন.

বৈদ্যুতিন গুপ্তচর বৃত্তির জন্য সারা বিশ্ব জোড়া স্ক্যান্ডালের পাত্র ও অনন্য ক্রীড়নক ওয়াশিংটন এবারে ঠিক করেছে রাষ্ট্রসঙ্ঘে গুপ্তচর বিরোধী সিদ্ধান্তের আলোচনাতে অংশ নেবে. এই খবর পররাষ্ট্র দপ্তর থেকে সমর্থন করা হয়েছে. এই দলিল, যা ইলেকট্রনিক উপায়ে নজরদারি করা শেষ করার জন্য আনা হচ্ছে, তা কয়েকদিন আগে রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছে প্রস্তাব করেছে ব্রাজিল ও জার্মানী. রাশিয়াতে মনে করা হয়েছে যে, এই সিদ্ধান্তকে কার্যকরী করা সম্ভব. রাষ্ট্রসঙ্ঘের দলিল কি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সারা বিশ্বের উপরে গোয়েন্দাগিরি করার অভ্যাস থেকে নিরস্ত করতে পারবে?

গুপ্তচর বিভাগের কাজকর্ম নিয়ে মার্কিন সেনেটের কমিটিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার সংস্কারের আইনের খসড়া প্রকল্প গৃহীত হয়েছে. সেখানে গণ হারে টেলিফোনে আড়িপাতা ও ইন্টারনেটের লেখালেখি গুলোর উপরে নজরদারি করা নিয়ে নিষেধের কথা বলা হয়েছে. সেই সমস্ত যোগাযোগের থেকে খবর যোগাড় করা যেতে পারে শুধু নির্দিষ্ট শর্ত সাপেক্ষেই. এখানে মোদ্দা কথা হল “নির্দিষ্ট শর্ত সাপেক্ষে”, যা আবারও ঠিক করবে সেই সমস্ত গুপ্তচর বিভাগ গুলো. এই আইনের যারা বিরুদ্ধে তারা সেনেটে নিজেদের বিল তৈরী করছেন, যাতে তথ্যগুলোকে গণ হারে নেওয়া যাবে না ও তা করা যেতে পারবে শুধু আলাদা ক্ষেত্রেই ও খুবই ওজনদার আইন সম্মত ভিত্তি থাকলে তবেই.

আমেরিকার বিশেষ জাতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর প্রাক্তন কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেন, যে রাশিয়াতে সাময়িক ভাবে আশ্রয় পেয়েছে, ১লা নভেম্বর থেকে কাজে যোগ দিয়েছে. সে আপাততঃ দেশের এক বৃহত্তম ইন্টারনেট রিসোর্সেস কোম্পানীর হয়ে কাজ করবে.

আমেরিকার বিশেষ বাহিনীর খবর ফাঁস করে দেওয়া কর্মী যেখানে কাজ শুরু করল সেই কোম্পানীর নাম ও তার নতুন পদের বিষয়টা গোপনই রাখা হয়েছে. এটাও ঠিক জানা নেই যে, আমেরিকার এই লোক কি অফিসে বসে কাজ করবে, নাকি দূর থেকে ইন্টারনেটে কাজ করবে. রাশিয়াতে এডওয়ার্ড স্নোডেনের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট কাজের দেখাশোনা করা অ্যাডভোকেট আনাতোলি কুচেরেনা বলেছেন যে, এই রকমের গোপনীয়তা রক্ষার প্রয়োজন রয়েছে এই “পালিয়ে আসা” ব্যক্তির নিরাপত্তার খাতিরেই.

হোয়াইট হাউসের তরফ থেকে জোর করে ঘোষণা যে, রাষ্ট্রপতি জানতেন না বিশ্বের নেতাদের উপরে আড়িপাতা হচ্ছে, তা অবশেষে সেই জায়গাতেই এসে পৌঁছেছে, যেখানে আগে হোক বা পরেই হোক পৌঁছান হতই. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গুপ্তচরদের সমাজ এবারে একদম সহ্যের শেষ সীমা অবধি বিরক্ত হয়েছে যে, বিশ্বজোড়া গুপ্তচর বৃত্তির দায়ভার চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে যারা এই কাজ করেছে তাদের উপরেই, কিন্তু যারা তার জন্য “আসলে বরাত দিয়েছে”, তাদের উপরে নয়. আর এবারে বারাক ওবামা নিজের বাড়ীতেই “দ্বিতীয় যুদ্ধের ফ্রন্ট” পেয়েছেন, যা ইউরোপের পক্ষ থেকে অসন্তুষ্টির সঙ্গেই যোগ হয়েছে. যদি আমেরিকার খবরের কাগজগুলোকে বিশ্বাস করা হয়, তবে এই ফ্রন্ট দেশের সমস্ত গুপ্তচর সমাজকেই জুড়ে তৈরী হয়েছে.

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরফ থেকে তাদের সবচেয়ে কাছের সহযোগী দেশের রাষ্ট্রপ্রধান অ্যাঞ্জেলা মেরকেল ও ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ফ্রান্সুয়া অল্যান্দের বিরুদ্ধে গুপ্তচর বৃত্তি করা নিয়ে স্ক্যান্ডাল নতুন সমস্ত খুঁটিনাটি যোগ হয়ে আরও পাহাড় প্রমাণ হয়ে উঠছে. এই সপ্তাহের শুরুতে দেখা গেল যে, আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা দপ্তর সেই ২০০২ সাল থেকেই জার্মানীর চ্যানসেলারের টেলিফোনে কথাবার্তার উপরে আড়ি পেতে চলেছে, আর তা এই বছরের গরমেও হয়েছে. তার ওপরে আবার জার্মানীর সংবাদ মাধ্যম থেকে যা খবর দেওয়া হয়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে যে, ওবামা এই সম্বন্ধে খুব ভাল করেই জানতেন. হোয়াইট হাউসের তরফ থেকে এটা অস্বীকার করা হয়েছে. আর তাহলে দেখা যাচ্ছে যে, রাষ্ট্রপতি জানেন না, তাঁর গুপ্তচররা কি করছে.

আমেরিকার সামরিক বাহিনীর সৈনিক ও উইকিলিক্স সাইটের তথ্য সরবরাহকারী ব্র্যাডলি ম্যানিংয়ের রায় নিয়ে সামাজিক নেতাকর্মী, সাংবাদিকরা, রাজনীতিবিদ ও মানবাধিকার রক্ষা কর্মীরা তুমুল আলোচনায় ব্যস্ত রয়েছেন. উইকিলিক্স সাইটের তথ্য সরবরাহকারীকে আদালত ৩৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে. এই বিষয়ে ঘোষণা করেছেন এই সৈনিকের পরিবার পরিজনরা, তাঁর অ্যাডভোকেটরা, উইকিলিক্স সাইটের নেতা জুলিয়ান আসাঞ্জ ও বিশেষজ্ঞরা. আর প্রায় সকলেই সমস্বরে বলছেন যে, এই রায় ন্যায্য হয় নি.

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্বময় বৈদ্যুতিন গুপ্তচর বৃত্তির একাংশ মস্কো শহরেই রয়েছে. এই রকমের চাঞ্চল্যকর এক তথ্য সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছে প্রাক্তন মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেন, যে সাময়িক ভাবে রাজনৈতিক আশ্রয় পেয়েছে রাশিয়াতেই. সে আরও মনে করে যে, আমেরিকার XKeycore নামের অনুসরণ করার সিস্টেমের একটি সার্ভার রাশিয়াতে আমেরিকার দূতাবাসের মধ্যেই রয়েছে. কিন্তু সমস্ত বিশেষজ্ঞরাই এই চাঞ্চল্যকর খবরকে গুরুত্ব দিতে চান নি. তাঁদের সন্দেহ নিয়ে তাঁরা রেডিও রাশিয়ার সঙ্গে কথা বলেছেন.

এডওয়ার্ড স্নোডেনের জন্য মস্কো বিমান বন্দরের ট্রানজিট এলাকায় থাকার মেয়াদ অনির্দিষ্ট কালের জন্য বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে. সমস্ত রকমের পূর্বাভাস স্বত্ত্বেও রাষ্ট্রীয় অভিবাসন দপ্তর ২৪শে জুলাই তার সাময়িক আশ্রয়ের অনুরোধ মেনে নেয় নি. স্নোডেনের পরামর্শদাতা, রাশিয়ার অ্যাডভোকেট আনাতোলি কুচেরেনা, কোন রকমের সঠিক পূর্বাভাস দিতে অস্বীকার করেছেন.
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরফ থেকে সর্বব্যাপী অনুসরণের কেলেঙ্কারি রবিবারে (৩০শে জুন) একটা নতুন, ইউরোপীয় মোড় নিয়েছে আর তা হোয়াইট হাউসের জন্য খুবই অপ্রিয় পরিণামের দিকে গড়াচ্ছে. ব্রাসেলস ওয়াশিংটনের তরফ থেকে ইউরোপে সর্বব্যাপী গুপ্তচর বৃত্তির নবতম তথ্য সংযোজনের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদের এবারে সম্মুখ সমরে আহ্বান করতে চলেছে.
আজ তিরিশে জুন রবিবারে এক সপ্তাহ হতে চলল, যখন থেকে মস্কোর শেরেমেতিয়েভো বিমান বন্দরের ট্রানজিট এলাকায় বসতি করে রয়েছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিআইএ ও জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেন. সংবাদ মাধ্যমে আমেরিকার পক্ষ থেকে বিশ্বজোড়া গুপ্তচর বৃত্তির খবর ফাঁস করে দেওয়ার পরে সে হংকংয়ে পালিয়ে ছিল, তার পরে ২৩শে জুন উড়ে এসেছে মস্কোয়.
সিআইএ সংস্থার প্রাক্তন কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেনকে ঘিরে পরিস্থিতি আমাদের চোখের সামনেই একটা গুপ্তচর কেলেঙ্কারি থেকে একেবারে টেলিভিশনের লাইভ শোতে পরিণত হয়েছে, বলে লিখেছে রাশিয়ার সংবাদপত্র “ত্রুদ” (শ্রম). একজন ব্যক্তি রয়েছেন, যিনি মস্কো উড়ে এসেছেন, কিন্তু রাশিয়ার সীমান্ত পার হন নি. তার ওপরে আবার একটা বিমানবন্দর রয়েছে, যার ভেতরের এলাকা খুবই সীমিত.
রাশিয়ার মানবাধিকার কর্মীরা সিআইএ সংস্থার প্রাক্তন কর্মীকে মুক্তিযোদ্ধা বলে মেনে নিয়ে, তাকে রক্ষা করতে বলেছে. বুধবারে জানা গিয়েছে যে, রাশিয়ার মানবাধিকার রক্ষা সভার সদস্যরা দেশের নেতৃত্বের কাছে স্নোডেনকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেওয়ার জন্য উদ্যোগ নিয়েছে. আমেরিকার বিশেষ বাহিনীর ২৯ বছরের তথ্য ফাঁস করে দেওয়া এডওয়ার্ড স্নোডেন ইতিমধ্যেই চার দিন হল মস্কোর শেরেমেতিয়েভো বিমান বন্দরের ট্রানজিট এলাকায় রয়েছে.
মানসিক ভাবে ভারসাম্য হারিয়েছে, বিশ্বাসঘাতক, নাকি স্রেফ ঠগ? পশ্চিমের মুখ্য সংবাদ মাধ্যম গুলি একসঙ্গেই আমেরিকার বিশেষ বাহিনীর বিরুদ্ধে এডওয়ার্ড স্নোডেনের দেওয়া এক সারি সন্দেহ করার মতো খবর ছেপে, তার পরে আবার সকলে মিলে তার কাদের অসাধু উদ্দেশ্য ও গোপন কারণ নিয়ে প্রামাণ্য উদ্ধারের কাজে.
সিআইএ সংস্থার প্রাক্তন কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেন কোথায় আছে কেউ জানে না. এর আগে জানানো হয়েছিল যে, স্নোডেন হংকং থেকে উড়ে গিয়েছে ও ট্রানজিটে মস্কোতে রয়েছে. সেখানে সে সর্বত্র উপস্থিত বিশ্ব সংবাদ মাধ্যমের নজর থেকে হারিয়ে গিয়েছে. তার চলাফেরার খবর খুবই পরস্পর বিরোধী. একটাই, যা প্রমাণিত হয়েছে – ইকোয়েডর এডওয়ার্ড স্নোডেন যে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়েছে, সেই বিষয়ে ইতিবাচক উত্তর দিয়েছে.
ইন্টারনেটে এক আন্তর্জাতিক প্রকল্প শুরু হয়েছে – নাম দশ হাজার লেখকের মতে সুখ. এই সাইট ভেবে বার করেছে মস্কোর দুই ছাত্র. তারা সমস্ত ইচ্ছুক লোকদের বলছে ছোট করে একটা প্রবচন লিখতে, যে সুখ মানে কি. দেখা গেল যে, এই প্রোজেক্ট খুব দ্রুতই জনপ্রিয় হয়েছে – এর মধ্যেই এর অংশীদার হয়েছে হাজার দুয়েক লোক.
রাশিয়ার সরকারি রেডিও কোম্পানী “রেডিও রাশিয়া” চিনের সংবাদ মাধ্যমে বের হয়েছে. চিনের সংবাদ সংস্থার সঙ্গে একই সাথে দুটি সহযোগিতার চুক্তি দ্বিপাক্ষিক দলিল সমষ্টির মধ্যে রাখা হয়েছে, যা রাশিয়াতে গণ প্রজাতন্ত্রী চিনের সভাপতি শী জিনপিনের সফর উপলক্ষে স্বাক্ষরিত হয়েছে. “রেডিও রাশিয়ার” সহকর্মীদের আলাদা করে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার প্রয়োজন নেই.
পারস্পরিক ভাবে সাইবার আক্রমণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চিনের এত বড় মাপের ক্ষতি হচ্ছে যে, এবারে তারা একে অপরকে সাইবার শান্তির প্রস্তাব দেওয়ার কথা ভাবছে. বিশ্লেষক ওলেগ দেমিদভের মতে, এই প্রসঙ্গে প্রমাণ স্বরূপ হতে পারে মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামার ঘোষণা ও হ্যাকার আক্রমণের জন্য আমেরিকার অভিযোগ নিয়ে চিনের প্রতিক্রিয়া.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
অক্টোবর 2017
ঘটনার সূচী
অক্টোবর 2017
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28
29
30
31