×
South Asian Languages:
আফগানিস্তানের সমস্যা ও রাশিয়ার অবস্থান, জুন 2013
    রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে. যে তালিবদের সাথে আলাপ-আলোচনা ফলপ্রসূ হতে পারে শুধুমাত্র আফগান সরকারের মুখ্য ভূমিকায় এবং আপোষ করার মুলনীতিগুলো মেনে চললে.     ইতিপূর্বে পশ্চিমী সংবাদ মাধ্যমগুলি জানিয়েছে, যে আমেরিকা থেকে দোহায় একটি প্রতিনিধিদল এসে পৌঁছেছে, যেখানে তালিবরা সদ্য তাদের রাজনৈতিক ব্যুরো খুলেছে. তালিবরা এই খবরের সত্যতা অস্বীকার করেনি, কিন্তু মার্কিনী বিদেশ দফতর করেছে.
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তালিবান আন্দোলনের মধ্যে সরাসরি আলোচনা বাকী রাখা হয়েছে. এই পিছিয়ে দেওয়ার কারণ হয়েছে আফগানিস্তানের সরকারি পক্ষের উল্টো পথে চলার জন্য, যারা শান্তি প্রক্রিয়াতে নাম ভূমিকায় থাকতে চেয়েছে. আফগানিস্তানের শান্তি প্রক্রিয়াতে আরও একটি তৃতীয় পক্ষ রয়েছে, যারা নিজেদের এইখানে প্রচার না করা ভূমিকাকেই মনে করে থাকে মুখ্য বলে. তা হল পাকিস্তান.
পশ্চিমের রাজনীতিবিদরা ও আফগান সরকার খুবই আশাবাদী আফগানিস্তান থেকে আসন্ন বিদেশী সৈন্য প্রত্যাহার নিয়ে. এঁরা আর ওঁরা নিজেদের পক্ষ থেকে সবচেয়ে আনন্দময় পূর্বাভাস দিচ্ছেন, যা স্থানীয় শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর হাতে দেশের নিরাপত্তার ভার তুলে দেওয়া নিয়ে ন্যাটো জোটের নেতৃত্ব ও আফগানিস্তানের রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করেছেন ১৮ই জুন. কিন্তু পরিস্থিতি কি এতই মেঘ শূণ্য?
     আফগানিস্তানের শেষ প্রদেশ ও এলাকাগুলিতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করার ভার দেশের জাতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে অর্পণ করাকে গোটা প্রক্রিয়ায় গুরুত্বপূর্ণ এক পর্ব, বলে অভিহিত করেছেন ন্যাটো জোটের সাধারণ সম্পাদক অ্যান্ডার্স ফগ রাসমুসেন. "এই মুহুর্তটি খুবই তাত্পর্য্যবাহী, যখন আফগানি সশস্ত্র শক্তি দেশের সর্বত্র নিরাপত্তা সুরক্ষা করার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেবে" - উল্লেখ করেছেন ফগ রাসমুসেন.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
জুন 2013
ঘটনার সূচী
জুন 2013
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
20
23
24
25
26
27
28
29
30