×
South Asian Languages:
চিনের ঘটনা ও রাশিয়ার অবস্থান, জানুয়ারী 2012
দুই বছর আগে বেইজিং ও অসলো শহরের এক কূটনৈতিক দূর্ঘটনা হঠাত্ করেই আর্কটিকের স্ক্যাণ্ডাল হয়ে বেড়ে উঠেছে. নরওয়ে আর্কটিক সভায় চিনের স্থায়ী পর্যবেক্ষক দেশ হয়ে প্রবেশের পথ বন্ধ করবে বলে ঠিক করেছে. এই সম্বন্ধে নরওয়ের পররাষ্ট্র দপ্তরের উত্স উল্লেখ করে স্থানীয় সংবাদপত্র আফটেনপোস্টেন প্রকাশ করেছে. অসলো বেজিংয়ের কাছে কঠোর দাবী করেছে.
চিনের বিজ্ঞানীরা মানুষের মগজ পরীক্ষা করে দেখছেন, যারা ইন্টারনেটের নেশা. পাগল তাদের. তার ফল খুবই শোচনীয়: ইন্টারনেটে নেশা মদ বা তামাকের নেশার মতই মানুষের স্নায়ু বৈকল্যের কারণ.     তার থেকে মগজের সাদা বস্তুর ক্ষতি হয়. বিশেষ করে খুবই বেশী করে সেই সব জায়গা খারাপ হয়ে যায়, যা মাথায় পৌঁছনো তথ্যের আবেগ জনিত পরিশোধন করে থাকে.
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চিনকে অর্থনৈতিক ভাবে বেঁধে রাখার জন্য রাজনীতি কঠোর করছে. রাষ্ট্রপতি ওবামার নির্দেশ অনুযায়ী প্রশাসনের ভিতরে কার্যকরী পরিষদ তৈরী করা হবে চিনের পক্ষ থেকে বাণিজ্য ও অন্য যো কোন ধরনের নিয়ম ভঙ্গের বিষয়ে নিয়ন্ত্রণ ও রোধ করার জন্য, যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়িক স্বার্থহাণী করতে সক্ষম.
চিন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রকাশ্যে ইরানের জন্য ঝগড়া করে নি, যাতে বিশ্বের বাজারে কোন আতঙ্ক না ছড়ায়. এটা মুখ্য ও সম্ভবতঃ অন্যতম ফল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতির বিশেষ প্রতিনিধি টিমোথি হাইটনারের বেইজিং সফরের. আর এর অর্থ হল ইরানের প্রশ্ন পরেও চিন ও আমেরিকার সম্পর্কের তাপমাত্রা বৃদ্ধি করবে.
নিকট প্রাচ্যে বেইজিং ওয়াশিংটনকে শক্তি পরীক্ষার আহ্বান জানিয়েছে. ইরানের জ্বালানী শক্তি শিল্পের বিরুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে প্রকাশ্যে সমালোচনা করেছে চিন, কারণ তারা এই দেশের সবচেয়ে বড় খনিজ তেলের গ্রাহক. চিনের পররাষ্ট্র দপ্তরের সরকারি প্রতিনিধি লিউ ভেনমিন ঘোষণা করেছেন যে, শুধু নিষেধাজ্ঞা জারী করেই ইরানের পারমানবিক পরিকল্পনা নিয়ে সমস্যার সমাধান করা যাবে না.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2012
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2012
1
2
3
4
5
6
7
8
9
11
13
14
15
17
18
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28
29