×
South Asian Languages:
রাশিয়ার ইরানের পারমানবিক পরিকল্পনা সম্বন্ধে অবস্থান, নভেম্বর 2013

জেনেভাতে এই প্রথমবার গত দশকের মধ্যে একটানা ক্লান্ত করে দেওয়া আলোচনার পরে ইরানের পারমাণবিক পরিকল্পনা নিয়ে একটা সহমতে পৌঁছনো সম্ভব হয়েছে. আন্তর্জাতিক মধ্যস্থতাকারী প্রতিনিধিদল, যাদের মধ্যে রাষ্ট্রসঙ্ঘের পাঁচ স্থায়ী সদস্য দেশ ও জার্মানী রয়েছে – তারা একদিকে ও ইরান – অন্যদিকে, এক দলিলে স্বাক্ষর করেছে, যা ঐস্লামিক প্রজাতন্ত্র ইরানের পারমাণবিক পরিকল্পনার ভাগ্য নির্ধারণ করবে.

মনে হচ্ছে যে, একটি সমস্যা যা শেষ পর্যন্ত যুদ্ধে পরিণত হতে পারত, তা সমাধানের কাছে পৌঁছেছে. কিন্তু “সম্মিলিত ভাবে তৈরী করা পরিকল্পনা”, যা দিয়ে এই সমঝোতার নাম দেওয়া হয়েছে, তা নিয়ে কিন্তু সকলেই সন্তুষ্ট নয়. কিন্তু কেন? এই প্রসঙ্গে আমাদের সমীক্ষক ভ্লাদিমির সাঝিন মন্তব্য করেছেন.

ইরানের উপরাষ্ট্রপতি পারমাণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান আলি আকবর সালেখি ১৩ই নভেম্বর ইরানের প্রেস টিভি টেলিভিশনে ঘোষণা করেছেন যে, মস্কো ও তেহরানের মধ্যে স্বাক্ষরিত প্রোটোকল অনুযায়ী ২০১৪ সালের প্রথমার্ধে ইরানের নতুন পারমাণবিক বিদ্যুত প্রকল্পের কাজ রাশিয়ার সহযোগিতায় শুরু হয়ে যাবে.

ইরানের সঙ্গে ছয় মধ্যস্থতাকারী পক্ষের (রাষ্ট্রসঙ্ঘের পাঁচ স্থায়ী নিরাপত্তা পরিষদ সদস্য ও জার্মানী) সেই দেশের পারমাণবিক পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা জেনেভা শহরে শেষ হতে না হতেই তেহরানে আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থার জেনারেল ডিরেক্টর ইউকিও আমানোর সঙ্গে ইরানের পারমাণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান আলি আকবর সালেখির আলোচনা হয়েছে. ফলে ১১ই নভেম্বর ইরান ও আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বাকী থেকে যাওয়া সমস্যা নিয়ে পরবর্তী সময়ে সহযোগিতা করার জন্য এক চুক্তি স্বাক্ষর করেছে.

1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
নভেম্বর 2013
ঘটনার সূচী
নভেম্বর 2013
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
12
13
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
26
27
28
29
30