×
South Asian Languages:
জাপান, ফেব্রুয়ারী 2011
এই বিষয়ে রাশিয়ার জনগনের রেল কোম্পানী "রুশ রেল পথ" এর প্রধান ভ্লাদিমির ইয়াকুনিন তাঁর আজ জাপানে প্রকাশিত "ইওমিউরি" সংবাদপত্রকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে ঘোষণা করেছেন. তিনি বলেছেন – "আমাদের এই নতুন প্রকল্পের জন্য শুধু জাপানের ওয়াগন তৈরী বা রেল পথ নির্মাণ কোম্পানী দেরই আমরা চাই না, চাই যাতে আর্থিক বিনিয়োগ করার জন্যও জাপানের কোম্পানীরা এগিয়ে আসে.
জাপান ও রাশিয়ার দুই কর্পোরেশন সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম বিক্রী করার জন্য কোম্পানী খোলার বিষয়ে আলোচনা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে. ২০০৯ সালের মে মাসে দুই দেশের কোম্পানীর মধ্যে একটি সম্মতি পত্র এই বিষয়ে স্বাক্ষরিত হয়েছিল, যেখানে জাপানে একটি ইউরেনিয়ামের ভান্ডার তৈরী করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল, যা এই দেশের পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র গুলিকে সরবরাহ করবে জ্বালানী দিয়ে.
রাশিয়া কুরিল দ্বীপপূঞ্জে নিজেদের স্ট্র্যাটেজিক উপস্থিতির জন্য সমস্ত রকমের শক্তি প্রয়োগ করবে, কারণ এই অঞ্চল দেশের অন্যতম অঙ্গ. এই ঘোষণা রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী আনাতোলি সেরদ্যুকভ ও আঞ্চলিক উন্নয়ন মন্ত্রী ভিক্তর বাসারগিনের সঙ্গে সাক্ষাত্কারের সময়ে করেছেন. তিনি বলেছেন যে, কুরিল দ্বীপপূঞ্জ রাশিয়ার অংশ ও স্ট্র্যাটেজিক অঞ্চল.
রাশিয়ার সুদূর পূর্ব্বের বন্দর ভ্লাদিভস্তকে "ভারিয়াগ" যুদ্ধ জাহাজ ও "কোরিয়েত্স" কামান দাগা জাহাজের নাবিকদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে এক অনুষ্ঠান করা হয়েছে, এঁরা ১৯০৪ সালে জাপানের যুদ্ধ জাহাজ দলের সঙ্গে অসম যুদ্ধে যোগ দিয়েছিলেন. রাশিয়ার প্রশান্ত মহাসাগরীয় নৌবাহিনী, প্রশাসন, শিশুদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র "ভারিয়াগ" থেকে ও রাশিয়ার ভেটেরান সৈন্যদের তরফ থেকে সকলে এই অনুষ্ঠানে এসেছিলেন বলে "ইন্টারফ্যাক্স" সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে.
খামের মধ্যে পাওয়া গেছে রাইফেলের গুলি আর দাবী লেখা চিঠি. জাপানের পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে, কারণ মনে করা হয়েছে যে, এটা ভয় দেখানোর প্রচেষ্টা, এই সংবাদ স্থানীয় মাধ্যমে জানানো হয়েছে. কে চিঠি পাঠিয়েছে, তা লেখা নেই, টোকিও উপকণ্ঠের শহর কানা গাওয়া এলাকার পোস্ট বক্সে কেউ চিঠিটি ফেলেছিল.
শশকের বা খরগোসের বছর আজ থেকে শুরু হল. বিশাল উত্সব হয়েছে চিনে, ভিয়েতনামে, মঙ্গোলিয়াতে, কোরিয়াতে, হংকং ও তাইওয়ান, সিঙ্গাপুর ও ফিলিপাইন দেশে. রাশিয়ার কিছু অঞ্চলে এই উত্সব পালন করা হয়ে থাকে. এই উপলক্ষে তুভা বুরিয়াতি ও ইরকুতস্ক অঞ্চলে আজ ছুটির দিন. পরিকল্পনা রয়েছে নানা রকমের জলসা, প্রদর্শনী ও উত্সবের.
বাঙ্গালোর শহরে ৯ থেকে ১৩ই ফেব্রুয়ারী শুরু হতে চলা বিশাল আন্তর্জাতিক বিমান- মহাকাশ প্রযুক্তি প্রদর্শনী এরো ইন্ডিয়া – ২০১১ তে তিনটি দেশকে আসতে নিষেধ করা হয়েছে. এই সংবাদ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস সংবাদ পত্রে আজ জানানো হয়েছে. ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব রাজ কুমার সিংহ সাংবাদিকদের কাছে নির্দিষ্ট করে ঘোষণা করেছেন যে, এই প্রদর্শনীতে পাকিস্তান, চিন ও ইরান থাকছে না.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28
ফেব্রুয়ারী 2011
ঘটনার সূচী
ফেব্রুয়ারী 2011
1
4
5
6
7
12
13
14
19
20
21
22
23
24
25
26
27
28