×
South Asian Languages:
আফ্রিকা, নভেম্বর 2011
লিবিয়ার নতুন ক্ষমতায় আসা লোকেরা, যারা কিনা মুহম্মর গাদ্দাফিকে খুন করেছে স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের জন্য, তাদেরকেই এখন মানবাধিকার রক্ষার বিষয়ে অসদাচরণের জন্য কড়া সমালোচনায় পড়তে হয়েছে. রাষ্ট্রসঙ্ঘের মহাসচিব বান কী মুন অন্তর্বর্তী কালীণ জাতীয় পরিষদকে দেশের যে কোন প্রজাতির মানুষের অধিকার খর্ব করা বন্ধ করতে আহ্বান করেছেন. আর নির্দিষ্ট করে বলতে হলে- দেশের কালো চামড়ার মানুষদের ও অভিবাসিত শ্রমিকদের অধিকার.
আমাদের গ্রহের সমগ্র ইতিহাস জুড়েই আবহাওয়ার পরিবর্তন হয়েছে. কিন্তু শুধু গত বিশ বছরে টের পাওয়া গিয়েছে মানুষের প্রভাব. উদ্বেগের কারণ হয়েছে পরিবেশে কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাসের বর্জন. বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে কিয়োটো প্রোটোকল অনুসরণ করে. তারই মধ্যে বিশেষজ্ঞদের মতে সেই দলিলের বিধি নিষেধ এর মধ্যেই পুরনো হয়ে গিয়েছে. প্রয়োজন পড়েছে নতুন করে আন্তর্জাতিক পরিবেশ সংরক্ষণ প্রকল্প নেওয়ার.
সিরিয়া আরব দেশ গুলির লীগের পর্যবেক্ষক দলকে দেশে আসতে অনুমতি দিয়েছে, যাদের মধ্যে থাকছে মানবাধিকার রক্ষা পরিষদের কর্মী প্রতিনিধিরা, সামরিক বাহিনীর লোকেরা আর সাংবাদিকেরা. এই প্রসঙ্গে দামাস্কাসের বিরুদ্ধে আরব লীগের পক্ষ থেকে নিষেধাজ্ঞার হুমকি আগের মতোই দেওয়া হচ্ছে.
আমুর অঞ্চলে চতুর্থ উড়ান মঞ্চ "ভস্তোচনি" মহাকাশ বন্দরে "সইউজ" মহাকাশযান এবারে যাত্রা শুরু প্রস্তুতি নেবে. ২০১৫ সালে এখান থেকে প্রথম পাইলট বিহীণ যান উড়ান শুরু করবে আর ২০১৮ সালে মহাকাশচারী নিয়ে যাত্রার শুরু হবে. সামারা শহরের "কেন্দ্রীয় নির্মাণ ও প্রকল্প ব্যুরো – প্রোগ্রেস", যারা এই ধরনের রকেট উত্পাদন করে থাকে, তাদের কর্মীরা এই প্রকল্পের বাস্তবায়নের কাজে সক্রিয় ভাবে কাজ করছেন.
এই বছর দশম বছর যখন থেকে গোল্ডম্যান স্যাক্স ব্যাঙ্কের অর্থনীতিবিদ জিম ও নিল প্রথম চারটি সবচেয়ে দ্রুত উন্নতিশীল অর্থনীতির দেশের নাম সংক্ষেপ করে ব্রিক (ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত ও চিন) নামে উল্লেখ করে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন যে, একবিংশ শতকের মাঝামাঝি এই দেশ গুলি সম্মিলিত জাতীয় বার্ষিক উত্পাদনের হারে বড় সাত দেশকে ছাপিয়ে যাবে.
অস্বাভাবিক হবে সাধারন: একুশ শতকে প্রাকৃতিক দুর্যোগের সংখ্যা দশ গুণ বেড়ে যেতে পারে. আবহাওয়ার পরিবর্তন নিয়ে গবেষণায় রত আন্তর্প্রশাসনিক বিশেষজ্ঞ দল এই ধরনের সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন. ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে চরম আবহাওয়ার ঘটনা নিয়ে এই দলের রিপোর্ট প্রকাশিত হবে. আপাততঃ প্রকাশ করা হয়েছে আগামী রিপোর্টের এক সংক্ষিপ্ত রূপ.
তহরির চকে জন সমাবেশ করে সরকার বদল ও সামরিক বাহিনীকে শাসন ভার নিজেদের হাতে নেওয়া থেকে বিরত করতে পেরেছে. মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কায়রো শহরের কেন্দ্রে পঞ্চাশ হাজার সমবেত লোক ইসাম শারাফের মন্ত্রীসভার পদত্যাগকে অভিনন্দন জানিয়েছে. তারা দাবী করেছে সামরিক বাহিনীর কাছ থেকে দেশের সীমান্ত রক্ষার, দেশ চালানোর নয়. সামরিক বাহিনী দেশের বেসরকারী নেতাদের হাতে শাসন দ্রুত তুলে দেওয়ার বিষয়ে অঙ্গীকার করেছে.
নিকট প্রাচ্যে বরফ গলতে শুরু করেছে, এই ভাবেই রুশ বিশেষজ্ঞরা আঞ্চলিক ভাবে পারমানবিক অস্ত্র শূণ্য হওয়ার জন্য প্রথম সম্মেলনের মূল্যায়ণ করেছেন. ২১- ২২ নভেম্বর এই সম্মেলন হচ্ছে আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থার সদর দপ্তর ভিয়েনা শহরে, উদ্যোক্তা সংস্থার প্রধান ইউকিও আমানো. এই ধরনের সম্মেলনের সিদ্ধান্ত এখন থেকে ১১ বছর আগে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারন সভা.
জার্মানী, ফ্রান্স ও গ্রেট ব্রিটেন রাষ্ট্রসঙ্ঘে সিরিয়া নিয়ে নতুন সিদ্ধান্তের প্রকল্প পেশ করেছে. তারা প্রস্তাব করেছে যে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারন সভা যেন এই দেশে মানবাধিকার ভঙ্গের সমালোচনা করে. এই দলিলের সহ লেখক হিসাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, মরক্কো, জর্ডন, সৌদি আরব, লিবিয়া ও কাতার তৈরী হয়েছে বক্তৃতা দিতে. এখন পশ্চিম ঠিক করেছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারন সভার ব্যবস্থাকে ব্যবহার করার.
১৭ – ১৮ই নভেম্বর ভিয়েনাতে আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি সংস্থার পরিচালকদের সভা বসছে. এই সভার আলোচ্য বিষয়ে মধ্যে – ইরান থেকে উদ্ভূত পারমানবিক বিপদ সম্পর্কে সংস্থার প্রধান ইউকিও আমানো প্রকাশিত রিপোর্ট, যাতে জোর দিয়ে বলা হয়েছে যে, ইরান গণহত্যার উপযুক্ত অস্ত্র তৈরী করছে.
বুধবারে ইস্তাম্বুলে(তুরস্ক) আফগানিস্তানের প্রতিবেশী দেশ ও আঞ্চলিক রাষ্ট্র গুলি যারা এই দেশের পরিস্থিতির দ্রুত নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে উত্সুক, তাদের এক সম্মেলন হয়েছে. এই সম্মেলনের অংশগ্রহণকারীরা এক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন, যেখানে বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন সমস্ত রকমের শক্তি প্রয়োগ করার, যাতে আফগানিস্তানে শান্তি শৃঙ্খলা স্থাপিত হয় ও সেই দেশের অর্থনীতি স্থিতিশীল ভাবেই উন্নতি করতে পারে.
রাশিয়া বিশ্ব সমাজের কাছে প্রস্তাব করেছে বিশ্ব তথ্য নিরাপত্তা রীতিনীতি গ্রহণ করার. মস্কো নিজের উদ্যোগ সাইবার এলাকা নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলনে প্রস্তাব করতে যাচ্ছে. এই ধরনের প্রথম আলোচনা সভা হতে চলেছে লন্ডনে. বিশ্বের ৬০টি দেশ থেকে গ্রেট ব্রিটেনের রাজধানীতে এসেছেন সাতশোরও বেশী প্রতিনিধি.     এই সম্মেলনের উদ্যোক্তা গ্রেট ব্রিটেনের পররাষ্ট্র দপ্তর.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
নভেম্বর 2011
ঘটনার সূচী
নভেম্বর 2011
1
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
19
20
22
24
26
27
30