×
South Asian Languages:
নববর্ষ, ডিসেম্বর 2010
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ মনে করেন, আগামী বছর রাশিয়ার জন্য সফল হবে এবং তিনি একসঙ্গে মিলে শক্তিশালী, আধুনিক ও উন্মুক্ত দেশ গড়ে তুলতে আহ্বান জানান. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে জনসাধারণের প্রতি তাঁর নববর্ষের সম্ভাষণে. রাষ্ট্রপতি উল্লেখ করেছেন যে, রাশিয়াবাসীদের ইতিহাস সমৃদ্ধ ও প্রাচীন, যার জন্য তারা ন্যায়সঙ্গতভাবে গর্ব অনুভব করতে পারে. আবার একি সঙ্গে রাশিয়া- তরুণ দেশ.
যেমন চলে আসছে, তেমনই ভাবে নতুন বছরের শুরুতে রাশিয়া প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রপতি দেশের নাগরিকদের উদ্দেশ্য করে বক্তৃতা দিয়েছেন. দিমিত্রি মেদভেদেভ শুধু গত বছরের মূল্যায়নই করেন নি, তিনি এই শতকের বিগত প্রথম দশকের মূল্যায়ণ করেছেন.     "খুব শীঘ্রই ক্রেমলিনের মিনারের ঘড়ির ঘন্টার শব্দের সাথে ২০১০ সাল বিদায় নেবে আর তারই সঙ্গে শেষ হয়ে যাবে বর্তমান শতকের প্রথম দশক.
মস্কোর কেন্দ্রাঞ্চলে নববর্ষের মেলায় অংশগ্রহণ করবে অন্ততপক্ষে ১৫ লক্ষ লোক. প্রধান প্রধান স্কোয়ারে – তভেরস্কায়া, তিয়াত্রালনায়া ও লুবিয়ানস্কায়া স্কোয়ারে নান ধরণের কনসার্ট ও অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়েছে. উত্সবের শেষে ভাসিলিয়েভস্কি স্পুস্কে এবং মস্কো নদীর উপরে উত্সবের আতসবাজি পোড়ানো হবে. শেষে “ মস্কো নববর্ষকে সম্বর্ধনা জানাচ্ছে! ” নামে নৃত্যনাট্যের অনুষ্ঠান হবে.
খারাপ নয়. শেষ হতে চলা বছরে রাশিয়ার অর্থনৈতিক উন্নতি সম্বন্ধে যে রকম মূল্যায়ণ করেছেন রাষ্ট্রপতি     দিমিত্রি মেদভেদেভ, তাকে এক কথায় এই রকমই বলা যেতে পারে. মূল বিষয় হল যে, সঙ্কটের পরিণতি অতিক্রম করা সম্ভব হয়েছে ও ভাল সম্ভাবনার দিকে বের হওয়া গিয়েছে, ২০১০ সালের অর্থনৈতিক উন্নতির বিষয় নিয়ে আয়োজিত অধিবেশনে রাষ্ট্রপতি এই ঘোষণা করেছেন.
ভারতীয়রা ভালবাসে উত্সব, আনন্দ আর খুশীর সঙ্গেই তা পালন করে থাকে, যদিও ভারতীয়দের মধ্যে বেশীর ভাগের ধর্ম হিন্দুত্ব, তবুও বড়দিন আর ইংরাজী ক্যালেণ্ডার অনুযায়ী নববর্ষে ভারতের সব জায়গায় অন্য দেশ গুলির মতই উত্সব হয়. রাস্তা ঘাট, দোকান বাজার, ছোট বেচা কেনার জায়গা এই দিন গুলিতে লোকারণ্য হয়ে থাকে.
পশ্চিমের গ্রিগোরিয়ান ক্যালেণ্ডার অনুযায়ী বিশ্বের প্রায় এক হাজার কোটিরও বেশী লোক আজ বড়দিন পালন করছেন. ল্যুথেরান, প্রোটেস্টান্ট ও কিছু অর্থোডক্স গির্জার লোকেরাও এই উত্সবে সামিল হয়েছেন. রুশ, সের্বিয়া, জেরুজালেম ও জর্জিয়ার খ্রীষ্ট ধর্মাবলম্বী লোকেদের অবশ্য এই উত্সব হবে ৭ই জানুয়ারি, জুলিয়ান বা বাইজানটেনিয়ান ক্যালেণ্ডার অনুযায়ী. ক্যাথলিক দুনিয়ার প্রধান উত্সবের কেন্দ্র রোমের ভ্যাটিকান.
রাশিয়ার ভেলিকি উস্তুগ নামের জায়গায় নিজের বাড়ী থেকে এসে রাজধানী মস্কোয় দেশের প্রধান ফার গাছে তুষার দাদু আজ উত্সবের আলো জ্বালাবেন তাঁর যাদু দণ্ডের ছোঁয়া দিয়ে. শীতের এই রূপকথার চরিত্রের দুটি প্রধান কাজ, এক মস্কোর ছোট্ট বাচ্চাদের সঙ্গে দেখা করা আর ফার গাছে আলো জ্বালানো.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
ডিসেম্বর 2010
ঘটনার সূচী
ডিসেম্বর 2010
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
26
27
30