×
South Asian Languages:
ন্যাটো জোট, মে 2012
 উত্তর কোরিয়া দেশের সংবিধানে পরিবর্তন এনেছে ও নিজেদের পারমানবিক শক্তি বলে ঘোষণা করেছে, এই খবর টোকিওর কোরিয়া বিশ্লেষণ কেন্দ্রের উত্স থেকে পাওয়া বলে কিওডো সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে.  পিয়ংইয়ং বহু দিন ধরেই যুদ্ধপোযোগী পারমানবিক অস্ত্রের অধিকারী হতে চেয়েছে, প্রায়ই নিজেদের দক্ষিণ দিকের প্রতিবেশী ও তাদের প্রধান অভিভাবক ও রক্ষা কর্তা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হৃদয় বৈকল্যে দিকে পাঠিয়ে দিয়ে.
 বুধবারে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ সিরিয়া নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছে. গত সপ্তাহে হোমস শহরের কাছে এল- হুলা গ্রামের শতাধিক সিরিয়ার নাগরিকের মারণযজ্ঞ নিয়ে রিপোর্ট শোনা হয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের বিশেষজ্ঞদের কাছে. তার সঙ্ঘে এই তথ্যে জানানো হয়েছে যে, দৈর-এজ-জোর রাজ্যে ১৩ জন সিরিয়ার নাগরিকের মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছে হাত বাঁধা অবস্থায়.  এই বৈঠকের খুঁটিনাটি ও সিদ্ধান্ত নিয়ে কিছু জানানো হয় নি.
 বুধবারে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ সিরিয়াতে সঙ্ঘের তরফ থেকে পাঠানো মিশনের কাজকর্মের রিপোর্ট শুনবে. এই ক্ষেত্রে বাদ দেওয়া যেতে পারে না যে, বেশ কিছু দেশ সিরিয়াতে সামরিক অনুপ্রবেশের প্রশ্ন উত্থাপন করবে. আগামী রুদ্ধদ্বার বৈঠকের আগে পশ্চিমের দেশ গুলি এক যোগে দামাস্কাসের বিরুদ্ধে কূটনৈতিক ব্যবস্থা নিয়েছে.
পেন্টাগন আশা করছে যে, পাকিস্তান নিকট ভবিষ্যতে আফগানিস্তানে ন্যাটো বাহিনীর জন্য মালপত্র পাঠানোর পথ উন্মুক্ত করবে. এ সম্বন্ধে ওয়াশিংটনে এক ব্রিফিংয়ে বলেছেন পেন্টাগনের প্রতিনিধি জর্জ লিটল. তাঁর কথায়, পাকিস্তানের সাথে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আলাপ-আলোচনা চলছে. ইস্লামাবাদ ও ওয়াশিংটনের মাঝে সম্পর্কের তীব্র অবনতি ঘটে গত বছরের ২৬শে নভেম্বর পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমে দুটি প্রহরা-চৌকির উপর ন্যাটো জোটের কয়েকটি সামরিক হেলিকপ্টার থেকে আঘাত হানার পরে.
 কম করে হলেও দুই জন জোট সেনা আফগানিস্তানের পূর্বে এক হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছে বলে সোমবারে ন্যাটো জোটের কম্যুনিকে প্রকাশ করা হয়েছে. জোটে এই খবর অস্বীকার করা হয়েছে যে, এই ঘটনার পেছনে “শত্রু পক্ষের কোন সক্রিয় কাজ” আছে বলে. আপাততঃ স্পষ্ট নয় যে, ন্যাটো জোটের সেনারা কোথায় মারা পড়েছে.
আফগানিস্তানে এ পর্যন্ত ৩ হাজার বিদেশী সৈন্য নিহত হয়েছে. সর্বশেষ নিহতদের তালিকায় মার্কিন সৈন্য রাইন উইলসনের নাম যুক্ত হয়েছে. তিনি বাহরাইনের মার্কিন ঘাঁটি মানামা’র হাসপাতালে মারা যান. আহতবস্থায় তাকে আফগানিস্তান থেকে বাহরাইন নিয়ে যাওয়া হয়. তবে কিভাবে তিনি আহত হয়েছিলেন তা খবরে জানানো হয় নি. উল্লেখ্য, আফগানিস্তানে নিহত বিদেশী সৈন্যদের বেশীর ভাগই হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের.
এক বছরের ওপরে সময় গিয়েছে বিশ্বের “এক নম্বর সন্ত্রাসবাদী” নিধনের পর থেকে, আমেরিকার সামুদ্রিক নৌবাহিনীর বিশেষ “কম্যান্ডো” দল ২০১১ সালের ২রা মে ভোর রাতে তাকে হত্যা করেছে. কিন্তু ওসামা বেন লাদেন এখন যদি বিশ্বের রাজনীতির গতি প্রক্রিয়াতে কোন বড় রকমের প্রভাব বিস্তার না করেও, তাহলেও আমেরিকা- পাকিস্তানের সম্পর্কে করেই চলেছে. – এই কথা ধ্রুব সত্য.
ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ফ্রাঁসুয়া ওল্লান্ড শুক্রবার বলেছেন যে, আফগানিস্তান থেকে তাঁর দেশের সেনাবাহিনীর তাড়াতাড়ি অপসারণের প্রক্রিয়া ন্যাটো জোটে মিত্রদেশগুলির সাথে সুসমন্বিত করতে প্রস্তুত. প্যারিসের প্রচার মাধ্যম জানিয়েছে যে, রাষ্ট্রপতি আশ্বাস দিয়েছেন যে ফ্রান্স সৈন্যবাহিনী অপসারণের পরেও আফগান জনগণকে সাহায্য করে যাবে.
ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ফ্রাঁসুয়া ওলল্যান্ড কোনোরকম ঘোষণা না করেই কাবুল সফর করতে গিয়েছেন. ফ্রান্স প্রেস সংবাদসংস্থা প্রদত্ত খবর অনুযায়ী, তিনি আফগানিস্তানে আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা ফৌজের অন্তর্ভুক্ত ফরাসী সামরিক কর্মীদের সাথে সাক্ষাত করবেন. এর প্রাক্কালে ওলল্যান্ড ঘোষণা করেছেন, যে এই বছর শেষ হওয়ার আগেই তিনি ফরাসী ফৌজকে আফগানিস্তান থেকে প্রত্যাবর্তন করাতে চান. আপাততঃ আফগানিস্তানে মোটামুটি ৩ হাজার ৬০০ ফরাসী সেনা মোতায়েন আছে.
 পাকিস্তানের চিকিত্সক শাকিল আফ্রিদি, যে আমেরিকার গুপ্তচর সংস্থাকে ওসামা বেন লাদেনকে ধরার ব্যাপারে সাহায্য করেছিল, সে এখন কারাবাস করছে. পাকিস্তানের সরকার তাকে দোষী সাব্যস্ত করেছে দেশের প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করেছে বলে. তাকে জরিমানা করেছে প্রায় সাড়ে তিন হাজার ডলারের মতো ও ৩৩ বছরের জন্য হাজতবাস করতে পাঠিয়েছে.
শাংহাই সহযোগিতা সংস্থা এবং ন্যাটো জোটকে সমান করে দেখা উচিত্ নয়, বুধবার বলেছেন চীনের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী চেন গোপিন. বেজিংয়ে ৬-৭ই জুন শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার আসন্ন শীর্ষ সাক্ষাতের প্রতি উত্সর্গীত এক ব্রিফিংয়ে তিনি তাদের ঠিক নয় বলে অভিহিত করেন, যাঁরা শাংহাই সহযোগিতা সংস্থা এবং ন্যাটো জোটকে সমান করে দেখে.
বাগদাদ শহরে নতুন করে “ছয় পক্ষের ” (রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচ স্থায়ী সদস্য দেশ ও জার্মানী) প্রতিনিধিদের ও ইরানের প্রতিনিধিদের মধ্যে ইরানের পারমানবিক সমস্যা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে. “ছয় পক্ষ” চেষ্টা করছে তেহরানকে শতকরা ২০ ভাগ পর্যন্ত ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করা থেকে নিরত করতে.  এই বৈঠকের আগে গুরুত্বপূর্ণ কিছু অগ্রগতি যোগ হয়েছে.
ন্যাটো জোটের দেশগুলির নেতারা চিকাগো শীর্ষ সাক্ষাতে আফগানিস্তানে সামরিক অভিযান বন্ধ করা এবং এ দেশ থেকে সৈন্যবাহিনী অপসারণের সময় নির্ঘন্ট সর্বসম্মত করেছেন, জানানো হয়েছে জোটে. বিশেষ করে, ন্যাটো দেশগুলি ২০১৩ সালের মাঝামাঝি নাগাদ আফগানিস্তানের ভূভাগে সামরিক অভিযানে অংশগ্রহণ সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করতে সম্মত. তাছাড়া, ২০১৪ সাল শেষ হওয়ার আগে আফগানিস্তান থেকে জোটের বাহিনী অপসারণের কর্তব্যও বলবত্ থাকবে.
ন্যাটো দেশগুলির প্রতিনিধিরা চিকাগো শীর্ষ সাক্ষাতে আফগানিস্তানে সামরিক উপস্থিতি হ্রাস এবং কাবুলকে বার্ষিক ৪১০ কোটি ডলারের আর্থিক সাহায্য দেওয়া সম্পর্কে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরিকল্পনা সমর্থন করেছে. এ সম্বন্ধে “ফ্রান্স প্রেস” সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে চিকাগো-তে ন্যাটো জোটের শীর্ষ সাক্ষাতের শেষ ঘোষণাপত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে. একই সঙ্গে, এ সাহায্যের বাজেট  আফগানিস্তানের পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে পুনর্বিবেচিত হবে.
 চিকাগো শহরে ন্যাটো জোটের ২৫তম সম্মেলন শেষ হয়েছে. তার দ্বিতীয় দিন আফগানিস্তানের বিষয় সম্বন্ধে সম্পূর্ণ ভাবে নিবেদিত ছিল, আর তার সঙ্গে জোটের অন্যান্য দেশের সঙ্গেও, যারা এই অপারেশনের জন্য সাহায্য করছে.  উত্তর অতলান্তিক জোটে চিকাগো সম্মেলন সন্তোষ জনক হয়েছে এই কথা গোপন করা হয় নি. জোটের সদস্যরা ইউরোপে প্রথম দফায় রকেট প্রতিরোধ ব্যবস্থা তৈরী হয়েছে বলে ঘোষণা করেছেন.
 ন্যাটো জোটে আশা করা হয়েছে যে, খুব শীঘ্রই পাকিস্তান আফগানিস্তানে মাল সরবরাহের জন্য নিজেদের পরিবহন করিডর আবার খুলে দেবে. এই বিষয়ে জোটের সাধারন সম্পাদক আন্দ্রেস ফগ রাসমুসেন ঘোষণা করেছেন. তাঁর কথামতো, এটা চিকাগো শহরে ন্যাটো জোটের শীর্ষবৈঠকের শেষ হওয়ার আগেই হতে পারত. কিন্তু শীর্ষবৈঠক শেষ হয়েছে, আর পথ আগের মতই খোলা নেই.
 চিকাগো শহরের শীর্ষ সম্মেলনে উত্তর অতলান্তিক সংস্থার সদস্য দেশ গুলির নেতারা সমঝোতায় এসেছেন যে, আফগানিস্তানের শক্তিরাই দেশে ২০১৩ সালের মাঝামাঝি থেকে শান্তি রক্ষার কাজ করতে পারে. এই বিষয়ে সোমবারে ইন্টারফ্যাক্স সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে. এই নেতাদের কথামতো, বিদেশী সামরিক বাহিনীর লোকরা ধীরে ধীরে সামরিক অপারেশন করার থেকে আফগানিস্তানের আইন রক্ষা বাহিনীকে সহায়তা করার কাজে অংশ নেবে.
রাশিয়ার আগের মতোই প্রশ্ন জাগায় ২০১৪ সালের পরে আফগানিস্তানে সামরিক উপস্থিতি বজায় রাখা সম্পর্কে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরিকল্পনা. এ সম্বন্ধে মস্কোয় আফগানিস্তান সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বলেছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দ্বিতীয় এশিয়া বিভাগের আফগান দপ্তরের অধিকর্তা অ্যালবের্ত খোরেভ.
ন্যাটো জোটের দেশগুলির নেতারা চিকাগো শীর্ষ সাক্ষাতে রাজনৈতিক গ্যারান্টি দিয়েছেন যে, ইউরো-রকেটবিরোধী প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা রাশিয়ার বিরুদ্ধে নির্দেশিত নয়. চিকাগো-তে
 চিকাগো শহরে ন্যাটো জোটের শীর্ষবৈঠকের দ্বিতীয় দিনের কাজকর্ম শুরু হয়েছে. তার আলোচ্য আজ সম্পূর্ণভাবেই আফগানিস্তানকে উদ্দেশ্য করে. প্রথম দিনে এই জোটের প্রধান "বুদ্ধিমান প্রতিরক্ষা" প্রকল্পের বাস্তবায়ন নিয়ে ও রাশিয়ার প্রতিবাদ স্বত্ত্বেও রকেট প্রতিরোধ ব্যবস্থা বিকাশ করার ইচ্ছা প্রসঙ্গে ঘোষণা করেছিলেন.  আমেরিকার রাষ্ট্রপতির জন্য নিজের শহর চিকাগোর বাসিন্দারা – বোধহয় খুব শীঘ্রই ন্যাটোর বর্তমান শীর্ষবৈঠকের অভিজ্ঞতা ভুলে যাবেন না.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
মে 2012
ঘটনার সূচী
মে 2012
6
8
10
13
15
19
26
28