×
South Asian Languages:
ন্যাটো জোট, 17 এপ্রিল 2012
কাবুলে এবং আফগানিস্তানের একসারি প্রদেশে তালিবদের ব্যাপক পরিসরের আক্রমণের দরুণ শুধু এই ঘটতে পারে যে, দেশে বিদেশী বাহিনীর উপস্থিতি প্রলম্বিত হতে পারে. এ সম্বন্ধে মঙ্গলবার জঙ্গীদের প্রতি আবেদনে বলেছেন দেশের রাষ্ট্রপতি হামিদ কার্জাই.
    বিশ্বে খুবই প্রসারিত ভাবে আলোচনা করা হচ্ছে ইস্তাম্বুলে ইরান ও “ ছয় পক্ষের ” মধ্যস্থতাকারী দলের (রাশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, গ্রেট ব্রিটেন, ফ্রান্স, চিন ও জার্মানী) প্রতিনিধিদের মধ্যে ইরানের পারমানবিক সমস্যার সমাধান সংক্রান্ত আলোচনার ফলাফল নিয়ে.
ন্যাটো জোটের কিছু বাহিনী ২০১৪ সালের পরেও আফগানিস্তানে থেকে যেতে পারে. এ সম্বন্ধে মঙ্গলবার “ইন্টারফাক্স” সংবাদ এজেন্সিকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে বলেছেন রাশিয়ায় জোটের তথ্য ব্যুরোর প্রদান রবার্ট প্শেল.তিনি উল্লেখকরেন যে, ২০১৪ সালহল সেই সময়, যখন জোট আফগানিস্তানকে দেখতে চায় স্বতন্ত্রভাবে নিজের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে সক্ষম হিসেবে.
তেহরান তৈরী রয়েছে পারমানবিক পরিকল্পনা নিয়ে সমস্ত বিরোধের অবসান করতে, যদি তাদের উপর থেকে আরোপিত সমস্ত নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়, এই প্রসঙ্গে ঘোষণা করেছেন ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী আলি আকবর সালেখি. যদি পশ্চিমের দেশ গুলি চায় পারস্পরিক ভরসার উপরে নির্ভর করে কোন ব্যবস্থা নিতে, তবে তাদের শুরু করতে হবে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার দিয়ে – উল্লেখ করেছেন মন্ত্রী.
     উত্তর অতলান্তিকের জোট ও রুশ প্রজাতন্ত্রের বিভিন্ন সহয়োগিতার ক্ষেত্রে বাস্তবে অগ্রগতি হয়েছে. এই বিষয়ে ঘোষণা করেছেন সোমবারে ন্যাটো জোটের সরকারি প্রতিনিধি ওয়ানা লুঙ্গেস্কু, ব্রাসেলস শহরের এক সাংবাদিক সম্মেলনে. তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, ২০১২ সালে রাশিয়া – ন্যাটো পরিষদের ১০ বছর হতে চলেছে ও রুশ প্রজাতন্ত্র ও ন্যাটো জোটের মধ্যে স্বাক্ষরিত ভিত্তি মূলক চুক্তির ১৫ বছর.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
এপ্রিল 2012
ঘটনার সূচী
এপ্রিল 2012
1
8
15
29
30