×
South Asian Languages:
ন্যাটো জোট, 20 জানুয়ারী 2012
গতকাল খবরে প্রকাশ হয়েছে যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর উপ সহকারী রবার্ট শের. তাঁর কথামতো, ভারতীয় সহকর্মীদের সঙ্গে তাঁরা এখনই রকেট প্রতিরোধের বর্ম তৈরী করতে রাজী. এই ক্ষেত্রে ওয়াশিংটন একই সঙ্গে ভারতীয় উপমহাদেশে অস্ত্রের চালান বাড়াতে চাইছে. এর উদাহরণ হিসাবে শের কিছুদিন আগে সময়ের আগেই ভারতীয় বিমানবাহিনীকে পরিবহনের বিমান সি – ১৩০ জে পাঠানোর কথা উল্লেখ করেছেন.
আওয়েস্ট ফ্রান্স সংবাদপত্রকে প্রদত্ত সাক্ষাত্কারে ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলেন ঝুঁপে বলেছেন, যে সিরিয়ায় আরবীয় সামরিক বাহিনী পাঠানোর জন্যে কাতারের দেওয়া প্রস্তাব কোনো ভাবেই মেনে নেওয়া যায় না. তার বক্তব্য হল – আমরা এরকম চিত্রনাট্য অনুযায়ী এগোবো না, উল্টে আমরা বিরোধী পক্ষের সাথে আলাপ-আলোচনা চালাচ্ছি.
মার্কিনী প্রশাসনের পাক-আফগান সীমান্তবর্তী হাক্কানি গোষ্ঠী সহ অন্যান্য চরমপন্থীদের বিরূদ্ধে পাকিস্তানকে লড়তে বাধ্য করা উচিত নয়. আজ রয়টার সংবাদসংস্থাকে প্রদত্ত সাক্ষাত্কারে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিনা রাব্বানি এই মন্তব্য করেছেন. তিনি আরও উল্লেখ করেছেন, যে ইসলামাবাদ ও ওয়াশিংটনের মধ্যে সম্পর্ক গত ২৬শে নভেম্বর ন্যাটো জোট পাকিস্তানী সামরিক ঘাঁটিতে বোমাবর্ষণ করার পরে ন যযৌ ন তস্থৌ অবস্থায় আছে.
পাকিস্তানের "এক্সপ্রেস ট্রিবিউন" সংবাদ পত্রে প্রকাশ করা হয়েছে যে, তারা আবার আফগানিস্তানের ন্যাটো সেনাদের জন্য রসদ পাঠাতে দেবে, নিজেদের দেশের ভিতর দিয়ে, তবে এবারে তারা মালের উপরে শুল্ক বসাবে. কবে থেকে রাস্তা খুলে দেওয়া হবে, আর কোন রাস্তায় তা করা হবে, এখনও জানানো হয় নি.
টেলিভিশন চ্যানেল বিবিসি পুতিনকে নিয়ে এক ফিল্ম তুলেছে, নাম – "পুতিন, রাশিয়া – পশ্চিম". এই চার সিরিজের ফিল্মে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক্তন রাষ্ট্র সচিব কলিন পাওয়েল ও কন্ডোলিজা রাইস মনে করেছেন পুতিনের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠকের সময়ের অনুভূতির কথা, যেখানে রুশ রাষ্ট্রপতি পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও তালিবান আন্দোলনের দিক থেকে বিপদের সম্ভাবনার কথা বলে সাবধান করে দিয়েছিলেন.
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভারতকে যৌথভাবে রকেট প্রতিরোধ ব্যবস্থা তৈরীর প্রস্তাব করেছে. পি টি আই সংবাদ সংস্থাকে এই ধরনের সহযোগিতার সম্ভাবনা নিয়ে জানিয়েছেন মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর উপ সহকারী রবার্ট শের. তাঁর কথামতো, ভারতীয় সহকর্মীদের সঙ্গে তাঁরা এখনই রকেট প্রতিরোধের বর্ম তৈরী করতে রাজী. এই ক্ষেত্রে ওয়াশিংটন একই সঙ্গে ভারতীয় উপমহাদেশে অস্ত্রের চালান বাড়াতে চাইছে.
মার্ক গ্রসম্যানকে দেশে আসতে বারণ করার পিছনে উদ্দেশ্য নিয়ে নানা কথা বলা হয়েছে. যদি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বলা হচ্ছে যে, কাতার আফগানিস্তান ও পাকিস্তান সফরের যে উদ্দেশ্য নিয়ে গ্রসম্যান আসতে চেয়েছিলেন, সেই বিষয়ে পাক সরকার আগে বিচার করে দেখতে চাইছে ও পাক পার্লামেন্ট দেখতে চাইছে দুই দেশের সম্পর্কের অবস্থা.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2012
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2012
1
2
3
4
5
8
9
11
15
17
22
29