×
South Asian Languages:
দুর্নীতি, সেপ্টেম্বর 2013

ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামার মধ্যে ওয়াশিংটনে সাক্ষাত্কারের অব্যবহিত পূর্বে দুই দেশের সম্পর্কের মধ্যে নতুন স্ক্যান্ডাল ফেটে পড়েছে. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার তথ্য, যা ভারতের সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছে, তাতে দেখা গিয়েছে যে, আমেরিকার গুপ্তচর বাহিনী খুবই সক্রিয়ভাবে ভারতের সরকারি কর্মচারী, বিজ্ঞানী ও রাজনীতিবিদদের উপরে গোয়েন্দাগিরি করেছে. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফাঁদের মধ্যে ভারতবর্ষ রয়েছে এই খবর আরও একটি বিরক্তির কারণ হয়েছে দুই দেশের সম্পর্কের মধ্যে, যা খুবই আর্থ- বাণিজ্যিক বিরোধ ও পররাষ্ট্র রাজনীতির বিরোধের মধ্যে উদ্ভব হয়েছে. এই প্রসঙ্গে সমীক্ষক সের্গেই তোমিন মন্তব্য করে বলেছেন:

চীনের ক্ষমতাসীন দল কমিউনিস্ট পার্টির সাবেক নেতা বো শিলাইকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির একটি আদালত।

বো শিলাইয়ের বিরুদ্ধে র্নীতি, ঘুষ গ্রহণ ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ প্রমান পাওয়া গেছে।

সিরিয়াতে আমেরিকার তরফ থেকে আঘাত হানা হলে ইরান এই সব আগ্রাসকদের আর তাদের এই এলাকার সহচরদের খুবই কঠোর প্রত্যুত্তর দেবে, কারণ তারা বাশার আসাদের প্রশাসনের সবচেয়ে কাছের সহকর্মী দেশ. তেহরান নিজেদের রকেট বাহিনী তৈরী করছে নিজেদের তৈরী থাকা ও বিষয়ের প্রতি খুব গুরুত্ব দেওয়াকে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্যেই. আসাদকে প্রতিরক্ষা করার জন্য এই দেশে বর্তমানে স্বেচ্ছায় যুদ্ধে যোগ দেওয়ার জন্য লোকদের নিয়ে বাহিনী তৈরী করা হচ্ছে. ইরানের স্বপক্ষে থাকা “হেজবোল্লা” দল ঘোষণা করেছে যে, তারা পশ্চিমের দেশগুলোর অন্যদেশের রাষ্ট্রদূতাবাস, কনস্যুলেট ও অন্যান্য ভবনগুলোর উপরে আঘাত করতে পারে.

ওয়াশিংটন ও ইসলামাবাদের মধ্যে সম্পর্ক নতুন করে গুরুতর পরীক্ষার সামনে পড়েছে, যখন আমেরিকার ওয়াশিংটন পোস্ট সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে স্ক্যান্ডাল হওয়া কিছু তথ্য প্রকাশ করেছে যে, আমেরিকার গুপ্তচর বাহিনীর পক্ষ থেকে সেই সমস্ত প্রশাসনের উপরে নজরদারি করা হয়েছে, যারা আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তার হুমকি হয়ে দাঁড়াতে পারে, সেই বিষয়ে.

আমেরিকার টেলিভিশন চ্যানেল সিএনবিসিকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে বাশার আসাদ বলেছেন যে, তিনি আশা করেন যে, যারা সিরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক অপারেশন করবে, তাদের শাস্তি হবে. একই সঙ্গে তিনি বলেছেন যে, সিরিয়ার বিরুদ্ধে আক্রমণের ক্ষেত্রে “এমনকি বলতেও চান না যে, কি ধরনের প্রত্যুত্তর দেওয়া হবে”. সিরিয়ার রাষ্টর্পতি বলেছেন যে, এটা কোন ভাবেই সিরিয়াতে রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগের সঙ্গে জড়িত নয়, কিন্তু “তিনি স্বীকার করেছেন যে, নিজেই কিছু মাত্রায় এই কাণ্ডের জন্য দায়ী”.

রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার সংক্রান্ত হাই কমিশনার নভি পিল্লাই শ্রীলঙ্কায় এক সপ্তাহ ব্যাপী সফর শেষ করেছেন. তার পরিণাম হয়েছে একটি রাজনৈতিক ঘোষণা- যা এই দেশের প্রশাসনের প্রতি খুবই তীক্ষ্ণ সমালোচনা করে করা হয়েছে. আর সেটাও ঠিক যে, শ্রীলঙ্কার প্রশাসনও তাঁদের ঋণ শোধ করতে দেরী করেন নি, তাঁরা এই কর্মকত্রীকে তাঁর ক্ষমতার বেশী বাড়াবাড়ি করার অভিযোগ করেছেন. বাস্তবে এই পরিস্থিতিকে কোন ব্যক্তি বর্গের মধ্যে বিরোধ এমনকি সংস্থাগুলোর মধ্যে বিরোধ বলে বলা যেতে পারে না – রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার হাই কমিশনারের দপ্তর ও কোন একটা আলাদা করে নেওয়া দেশের প্রশাসনের মধ্যেও নয়. এটা বৃহত্ ভূ-রাজনৈতিক খেলার বহু রকমের প্রকাশের একটা, যার কেন্দ্রে এখন শ্রীলঙ্কা রয়েছে.

ভারতবর্ষের জাতীয় অপরাধ নথি সংস্থা (National Crime records bureau) পণ প্রথার সঙ্গে জড়িত অপরাধে কোন না কোন ভাবে নিহত মহিলাদের সংখ্যাতত্ত্ব প্রকাশ করেছে. ২০১২ সালে এই ধরনের মৃত্যুর সংখ্যা হয়েছে ৮২৩৩, অর্থাত্ গড়ে প্রায় প্রতি ঘন্টায় ভারতের কোন না কোন জায়গায় একজন করে মহিলা এই অপরাধের শিকার হচ্ছেন. এই পরিসংখ্যান নিজে থেকেই যথেষ্ট ভয়ঙ্কর – আর তা ভারতীয় সমাজের আত্ম চেতনার গভীরে থাকা এক ধারণার সামগ্রিক প্রতিফলনই করেছে যে, মহিলারা নীচু স্তরের জীব.

রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন রুশ পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষ বা জাতীয় সভার সিরিয়া নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনেট সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করার প্রস্তাবকে সমর্থন করেছেন. তাঁর মস্কো শহরের বাইরের বাসভবনে আজ তিনি জাতীয় সভার স্পীকার ভালেন্তিনা মাতভিয়েঙ্কো ও লোকসভার স্পীকার সের্গেই নারিশকিনের সঙ্গে এক সাক্ষাত্কার করেছেন. বিষয় ছিল – সিরিয়াকে ঘিরে তীক্ষ্ণ হয়ে ওঠা পরিস্থিতি.

পাকিস্তান ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কে আরও একটা নতুন মোড় লক্ষ্য করা গিয়েছে. পাকিস্তানের সরকার ডাক্তার শাকিল আফ্রিদির রায় বাতিল করেছে, যাকে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে ও গুপ্তচর বৃত্তির জন্য গত বছরের মে মাসে ৩৩ বছরের জন্য কারাদণ্ডের শাস্তি দেওয়া হয়েছিল. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যারা মনে করে যে, আফ্রিদি এক বীর, তারা বিগত মাসগুলো ধরে তাকে ছাড়ানোর জন্য খুবই মরিয়া হয়ে উঠেছিল. আবার অন্যদিক থেকে পাকিস্তানের জন্য সিআইএ সংস্থার হয়ে গুপ্তচর বৃত্তি করা ও যার দেওয়া পাস থেকে বিশ্বের এক নম্বর সন্ত্রাসবাদী ওসামা বেন লাদেনকে খতম করা সম্ভব হয়েছিল, সে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দরাদরির জন্যই একটা ট্রাম্প কার্ড হয়েছিল. সব দেখে শুনে মনে হয়েছে যে, পাকিস্তানের নতুন প্রশাসন এবারে এই কার্ড খেলতে চাইছে: আফ্রিদিকে ছেড়ে দেওয়া দিয়ে ইসলামাবাদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সঙ্কেত দিয়েছিল যে এবারে দুই দেশের সম্পর্ক স্বাভাবিক করার সময় এসেছে, এই রকমই মনে করে আমাদের সমীক্ষক সের্গেই তোমিন বলেছেন:

পশ্চিম সিরিয়ার প্রশাসনকে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের জন্য দোষ দিচ্ছে. আবার দোষ দিচ্ছে স্পষ্টই কপটতা করে – কারণ খুব সম্ভবতঃ, এই অস্ত্রব্যবহার করেছে জঙ্গীরাই. কিন্তু যে কোন ক্ষেত্রেই এটা বাশার আসাদের প্রশাসনের প্রতি অভিযোগের স্রেফ মোড়ক. পশ্চিমের তরফ থেকে সিরিয়ার প্রতি প্রথম অভিযোগ – সেই বিষয়ে যে, সেখানে নাকি স্বৈরতান্ত্রিক প্রশাসন আর গণতন্ত্র নেই.

1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
সেপ্টেম্বর 2013
ঘটনার সূচী
সেপ্টেম্বর 2013
1
4
5
6
7
8
11
12
13
14
15
16
17
18
19
20
21
22
23
24
25
27
28
29
30