×
South Asian Languages:
দুর্নীতি, 2013

দুই দেশের ব্যবসায়ী মহলকে চিন্তিত করে তুলেছে ভারত ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের মধ্যে এক শোরগোল তোলা কূটনৈতিক স্ক্যান্ডাল, যা দিয়ে ২০১৩ সাল শেষ হতে চলেছে. কিছু ব্যবসায়ী ইতিমধ্যেই মনমোহন সিংহের প্রশাসনকে আহ্বান করেছেন ঘুমন্ত সিংহকে না জাগাতে ও সাবধান করে দিয়েছেন যে, এভাবে চললে ভারত আমেরিকার ও পশ্চিমের বিনিয়োগকারীদের হারাতে পারে. ফলে আগে ঘোষণা করা ২০১৭ সালে দেশে এক লক্ষ কোটি বিদেশী ডলার বিনিয়োগ টেনে আনার লক্ষ্য অধরাই থেকে যেতে পারে.

প্রথম থেকে শেষ অবধিই অসম্ভব ঠেকেছে নিউইয়র্ক শহরে ভারতের ডেপুটি কনসাল জেনারেল দেবযানী খোবরাগাদে আচমকা গ্রেপ্তার হওয়া আর তারপরে জেলবন্দী থাকার ঘটনা. উচ্চপদস্থ এই কূটনীতিবিদকে অপমানজনক ভাবে খানাতল্লাশী করা হয়েছে ও তারপরে নানারকমের অপরাধী ও মাদকাসক্তদের সাথে একত্রে কারাবাসে বাধ্য করা হয়েছে. এই কাজ দিয়েই খুব নোংরা ভাবে বিদেশে রাষ্ট্রের প্রতিনিধি সংক্রান্ত ১৯৬৩ সালের ভিয়েনা কনভেনশন ভঙ্গ করা হয়েছে, যে দলিলে স্পষ্ট করেই লেখা রয়েছে কূটনীতিবিদদের অনাক্রম্যতা নিয়ে.

পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশে সাংস্কৃতিক উত্সবের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে, যা করা হতে চলেছে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারী মাসে. এই উত্সবের প্রচারের কাজে সবচেয়ে সক্রিয় ও প্রধান উদ্যোক্তা হয়েছে দেশের সবচেয়ে প্রভাবশালী রাজনৈতিক পরিবারের বংশধর বিলাবল ভুট্টো- জারদারি. সব দেখে শুনে মনে হয়েছে যে, সে তাদের দলের এই বছরের মে মাসের নির্বাচনে ভরাডুবি দেখে শিক্ষা নেওয়ার চেষ্টা করছে ও দেশের জনগনের সামনে এক নতুন প্রজন্মের নেতা হিসাবে উপস্থিত হতে চাইছে. কিন্তু প্রতিবেশী ভারতে তার সহকর্মী রাহুল গান্ধীর খুবই দুঃখজনক অভিজ্ঞতা দেখিয়ে দিয়েছে যে, এমনকি সবচেয়ে প্রভাবশালী বংশের লোকদেরও আগে হোক বা পরেই হোক মঞ্চ থেকে নেমে দাঁড়াতে হয়.

সোমবার দিল্লী শহরে ২৩ বছরের ছাত্রীকে ভয়ঙ্কর গণ ধর্ষণের এক বছর পূর্ণ হল, যা মনে হয়েছিল যে, সারা দেশকেই উত্তাল করেছিল প্রতিবাদে. দোষীদের খুঁজে পাওয়া গিয়েছে ও তাদের মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে. কিন্তু এর অর্থ কি ভারতের সামাজিক মানসে মূলগত কোন পরিবর্তন হয়েছে আর এখন কি মহিলারা নিজেদের নিরাপদ বোধ করতে পারবেন? বাস্তব তথ্য কিন্তু বলছে যে, সংবাদ মাধ্যমের প্রবল প্রচার সমাজের বেশীর ভাগ লোকের এই সমস্যা সম্বন্ধে মানসিকতায় খুব কমই পরিবর্তন আনতে সক্ষম হয়েছে.

উত্তর কোরিয়াতে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে দেশের দ্বিতীয় প্রধান ব্যক্তিকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে – কিম চেন ঈনের সম্পর্কে যিনি চাচা হন. দেশের রাজনীতিতে একজন অত্যন্ত প্রভাবশালী লোক বলেই চান সন থেককে মনে করা হয়েছে. তার ওপরে অভিযোগ করা “ভয়ঙ্কর সমস্ত অপরাধের” মধ্যে ছিল রাজিন-সনবন এলাকায় আর্থ-বাণিজ্যিক ভাবে অর্থবহ জমি ৫০ বছরের জন্য এক বিদেশী রাষ্ট্রকে বেচে দেওয়া.

বুধবারে ভারতের সুপ্রীম কোর্ট এক রায় দিয়েছে, যার ফলে সমস্ত সমলিঙ্গ বিবাহ ও সমকামী সম্পর্কের পক্ষপাতী আর যারা এই সমকামী পুরুষদের ভারতে ও ভারতের বাইরেও পছন্দ করেন, তারা একেবারে চরম বিক্ষোভে ফেটে পড়েছেন. সুপ্রীম কোর্ট ২০০৯ সালে অধঃস্তন আদালতের দেওয়া রায়, যেখানে বলা হয়েছিল যে, ভারতীয় ফৌজদারী সংহিতার ৩৭৭ নম্বর ধারা রদ করা হচ্ছে, তা বাতিল করেছে. এই ধারা অনুযায়ী স্বাভাবিকের চেয়ে আলাদা রকমের যৌন আচরণ বলা হয়েছিল অপরাধ ও ধারা অনুযায়ী ভারতের যৌন কারণে সংখ্যালঘুদের সাংবিধানিক অধিকার খর্ব হয়. লিবারেল সমাজের এই বিষয়ে ক্ষোভ বোধগম্য: বিশ্বের সবচেয়ে বেশী জনসংখ্যার গণতান্ত্রিক দেশের সর্ব্বোচ্চ আদালতে রায়ের অর্থ হল যে, এবারে তাদেরই পরাজয় হয়েছে, যারা মানবসমাজের সমস্ত ভিত্তি মূলক মূল্যবোধকেই ধ্বংস করে দিতে চেয়েছে.

গত রবিবার – ৮ই ডিসেম্বর ভারতের সবচেয়ে পুরনো রাজনৈতিক দল ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের জন্য তাদের ইতিহাসের সবচেয়ে “কালো তারিখ” হয়ে রইল. দেশের কয়েকটি মুখ্য রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে এই দলের একেবারে প্রবল ভাবে পরাজয় হয়েছে. বিশেষ করে লজ্জাজনক হয়েছে বর্তমানের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ ও দল নেত্রী সোনিয়া গান্ধীর জন্য দিল্লী শহরে দলের পরাজয়. সেখানে ভারতীয় কংগ্রেস দল এমনকি দ্বিতীয় হয়েও নির্বাচন শেষ করে নি, হয়েছে তৃতীয়, দ্বিতীয় স্থান নতুন এক শক্তিকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছে - দুর্নীতি বিরোধী “আম আদমী দল”. তার ওপরে আবার এই দলের নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিতকে তাঁরই কেন্দ্র থেকে হারিয়ে দিয়েছেন.

রাশিয়া দুর্নীতির বিরুদ্ধে রাজনীতির কাঠামোর বাইরে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা করতে চেয়েছে ও সেই কাজকে বাস্তব ফলে পরিণত করতে চায়. এই বিষয়ে রবিবারে রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তর থেকে রুশ প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রপতির সন্ত্রাসবাদ ও আন্তর্জাতিক অপরাধ সম্পর্কে বিশেষ প্রতিনিধি আলেকজান্ডার জ্মেয়েভস্কির কথা উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে.

বছরের শেষে লন্ডন ও ওয়াশিংটনের জন্য বেশী করেই খারাপ খবর উদয় হচ্ছে, যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের থেকে পালিয়ে আসা জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেনের ফাঁস করে দেওয়া ফাইলের সঙ্গেই যুক্ত.

রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার রক্ষা ও সন্ত্রাসবাদ সংক্রান্ত বিশেষ প্রবন্ধকার বেন এম্মেরসন ঘোষণা করেছেন যে, এই নিয়ে স্ক্যান্ডাল মোটেও নিভে আসবে না, বরং নতুন সমস্ত বর্ণনা দিয়ে আরও বেশী করেই জ্বলে উঠবে. এম্মেরসন ঠিক করেছেন সারা বিশ্বের ৩৫টা দেশের নাগরিক ও দেশ নেতাদের উপরে নজরদারি করতে গিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও গ্রেট ব্রিটেন রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিয়ম কানুন কতটা ভঙ্গ করেছে, তা উল্লেখ করার. এম্মেরসন আবার তাঁর আগে করা নানা রকমের প্রবন্ধ, যা তিনি সিআইএ সংস্থার ইউরোপের গোপন জেল নিয়ে, পেন্টাগনের গুয়ান্তানামো বন্দী শিবির নিয়ে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরফ থেকে বেআইনি ভাবে ড্রোন বিমান ব্যবহার নিয়ে ও তা দিয়ে নিরীহ জনগনকে হত্যা করা নিয়ে লিখেছেন তার জন্যই বিখ্যাত.

ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের উপসভাপতি রাহুল গান্ধী প্রাক্ নির্বাচনী বক্তৃতায় বলেছেন যে, “বিজেপির যেটা কংগ্রেসের চেয়ে ভাল করে করা হয়ে ওঠে, সেটা দুর্নীতি”. নিজের কথার সততা প্রমাণ করার জন্য তিনি সেই সমস্ত রাজ্যের পরিস্থিতির কথা তুলেছেন, যেখানে বিজেপি দল ক্ষমতায় রয়েছে: ছত্তিশগড়, মধ্য প্রদেশ ও অন্যান্য রাজ্যে. বিজেপির নেতাদের রাহুল গান্ধী বলেছেন “দুর্নীতির ওস্তাদ”.

বুধবারে দিল্লীতে বিধানসভা নির্বাচন হতে চলেছে – যা আগামী বছরে সর্বজনীন নির্বাচনের আগে হতে যাওয়া শেষ একটা আঞ্চলিক নির্বাচন. পর্যবেক্ষকরা মনে করেছেন যে, এই নির্বাচনে খুবই শক্তিশালী ভাবে কয়েকদিন আগে মাত্র তৈরী হওয়া দুর্নীতি বিরোধী “আম আদমী পার্টি” ফল দেখাতে পারে. প্রসঙ্গতঃ বলা যেতে পারে যে, এমনকি রাজধানীতে এই দলের খুবই আস্থা ভিত্তিক জয়ও সারা দেশের পরিপ্রেক্ষিতে আবির্ভাব বলতে যাওয়াটা একটু বাড়াবাড়ি হয়ে যাবে.

ইরানের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের সম্ভাবনা বিশেষজ্ঞদের খনিজ তেলের বাজারে একেবারেই নানা রকমের ভবিষ্যত সম্ভাবনা ব্যক্ত করতে আগ্রহী করেছে. বিশ্বের বাজারে বৃহত্ পরিমানে ইরানের খনিজ জেল উপস্থিত হলে তা এই কালো সোনার দামের ক্ষেত্রে অনেকটাই প্রভাব ফেলতে পারে.

২০১২ সাল পর্যন্ত তেহরান ওপেক সংস্থার সদস্য দেশগুলোর মধ্যে উত্পাদনের বিষয়ে দ্বিতীয় স্থানে ছিল. প্রতিদিনে তারা ৩৫ লক্ষ ব্যারেল খনিজ তেল উত্পাদন করত, যা ২৩টি দেশে সরবরাহ করত. পশ্চিমের দেশগুলো থেকে নিষেধাজ্ঞা বহালের পরে বিশ্বের বাজারে তেহরানের জায়গা ভাগ করে নিয়েছিল ওপেক সংস্থার অন্যান্য অংশীদার দেশরা, প্রাথমিক ভাবে ইরাক. বিগত সময়ে ইরান দিনে মাত্র সাত লক্ষ ব্যারেল তেল উত্পাদন করত, যা চিনে যেত, আর তারই সঙ্গে তাইওয়ান, ভারত, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও তুরস্কে যেত.

রাশিয়ার খেলাধূলার জন্য এবারে রাষ্ট্রীয় একচেটিয়া কারবারের সহায়তা পাওয়া বন্ধ হতে পারে. একদল পার্লামেন্ট সদস্য, যাঁদের মধ্যে বিশ্বখ্যাত সোভিয়েত আইস হকি খেলোয়াড় ভিয়াচেস্লাভ ফেতিসভ রয়েছেন, এবারে রাষ্ট্রীয় দ্যুমায় “স্বাভাবিক একচেটিয়া কোম্পানীদের জন্য” আইনে একটা সংশোধন প্রস্তাব করেছেন. এই পরিবর্তন গৃহীত হলে আর এই সমস্ত কোম্পানীগুলি দেশের খেলাধূলার ক্লাব বা সংস্থার জন্য অর্থ খরচ করতে পারবে না. বিশেষজ্ঞদের মধ্যে ও সমাজে এই আইনের সংশোধন এবারে বিতর্কের সূত্রপাত করেছে.

যখন হোয়াইট হাউসের থেকে পাঠানো দূতেরা ও আফগানিস্তানের রাষ্ট্রপতি খুবই কড়া ভাষায় একে অপরের সঙ্গে আফগানিস্তানের প্রতিরক্ষা নিয়ে চুক্তির বিষয়ে সময় ও শর্ত নিয়ে আলোচনায় মত্ত, তখনই বিশেষজ্ঞরা অনুমান করতে বসেছেন যে, কি করে এই দরাদরি আফগানিস্তানের অন্যান্য জীবন যাপনের ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলবে.

কাবুলে কিছু বিশেষজ্ঞ ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছেন যে, আফগানিস্তানের লোকদের এই চুক্তির একেবারেই কোন দরকার নেই, কারণ দেখাই যাচ্ছে যে, আমেরিকার লোকরা আফগানিস্তানকে কিছুই দেয় নি, শুধুমাত্র সেই দেশে মাদক দ্রব্য উত্পাদনের বিষয়ে তুমুল পরিমাণে অগ্রগতি ছাড়া. আরও একদল মনে করেছেন যে, এই চুক্তির আবার কিছু ইতিবাচক দিকও রয়েছে, যা ব্যবহার করা দরকার.

আফগানিস্তানের পার্লামেন্ট জির্গা অধিবেশনে অংশ নেওয়া সদস্যরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সামরিক চুক্তি স্বাক্ষর করার স্বপক্ষে মত দিয়েছেন ও তাঁরা আহ্বান করেছেন রাষ্ট্রপতি হামিদ কারজাইকে ২০১৩ সাল শেষ হওয়ার আগেই এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করার জন্য. কারজাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য নিজের পক্ষ থেকে শর্ত দিয়েছেন. তার মধ্যে রয়েছে ২০১৪ সালের এপ্রিল মাসে দেশে উন্মুক্ত নির্বাচন বাস্তবায়নে সহায়তা করা ও আফগানিস্তানের ঘর বাড়ীতে হানা দেওয়া বন্ধ রেখে, তালিবদের সঙ্গে আলোচনায় অগ্রগতি করা.

ভারত সঙ্কটের দোড়গোড়ায়. আপাততঃ অর্থনীতিবিদরা বিদেশী মূলধন আকর্ষণ করা নিয়ে যখন ব্যস্ত ও রাজনীতিবিদরা এগিয়ে দিচ্ছেন দেশের জন্য খুবই দামী খাদ্য নিরাপত্তা বিল, তখন ভারতের জাতীয় মুদ্রা রুপিয়ার দাম কমে যাওয়ার কারণে খুবই দ্রুত বেড়ে গিয়েছে যেমন জ্বালানী ও শিল্পজাত দ্রব্যের দাম, তেমনই মূল খাদ্যোপোযোগী জিনিষের দামও: আলু, পিঁয়াজ ও নুনের দাম. পরিস্থিতি একেবারে চরমে পৌঁছেছে যখন বিহারে নুনের দাম এক দিনে পনেরো টাকা থেকে দশগুণ বেড়ে দেড়শো টাকা হয়েছিল প্রতি কিলোগ্রামে.

শুক্রবারে শ্রীলঙ্কার বৃহত্তম শহর কলম্বোতে শুরু হয়েছে কমনওয়েলথ প্রশাসন প্রধানদের অধিবেশন (CHOGM). এই বৈঠকে অনুপস্থিত রয়েছেন তিনজন মন্ত্রীসভার প্রধান, তাঁদের মধ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহও রয়েছেন. তাঁর দেশের ভিতরের তামিল গোষ্ঠীদের ও রাজনৈতিক দলগুলোর চাপে পড়ে এই ভাবে পিছিয়ে আসা, মনে তো হয় না যে, শ্রীলঙ্কায় তামিল সংখ্যালঘুদের অবস্থানকে কোন ভাবে ভাল করবে আর তার ওপরে - ভারতের সঙ্গে সেই দেশের সম্পর্কে বেশী করেই জটিলতা সৃষ্টি হবে, যারা বর্তমানে ভারত মহাসাগরের রাজনীতিতে বেশী করেই ভূমিকা পালন করতে শুরু করেছে বলে “রেডিও রাশিয়াকে” জানিয়েছেন রাশিয়ার স্ট্র্যাটেজিক গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞ বরিস ভলখোনস্কি.

অবশেষে জানা গিয়েছে যে, আমেরিকার সাংবাদিক, ব্লগার ও আইনজীবী গ্লেন গ্রীনওয়াল্ড কোথায় কাজ করতে যাবেন. তিনিই প্রথম বিশ্বকে জানিয়েছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার প্রাক্তন পলাতক কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেনের ফাঁস করে দেওয়া খবরের কথা. গ্রীনওয়াল্ড সাংবাদিকদের তদন্ত করার এক নতুন সাইটের একজন প্রধান হতে চলেছেন.

অক্টোবর মাসে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের ওয়াশিংটন সফরের অব্যবহিত পরেই মার্কিন ড্রোন বিমানের আঘাত হানা হয়েছে পাকিস্তানে, যার পরিণতিতে মৃত্যু হয়েছে “তেহরিক-এ-তালিবান পাকিস্তান” দলের নেতা হাকিমুল্লা মেহসুদ ও তাঁর চার দলের লোকের. ওবামার সঙ্গে আলোচনার সময়ে নওয়াজ শরীফের একটি প্রধান আলোচ্য বিষয় ছিল ইসলামাবাদের জন্যই সবচেয়ে বেদনাদায়ক আচমকা পাইলট বিহীণ বিমান থেকে আঘাত, যা পাকিস্তানের প্রশাসনের কাছ থেকে কোন রকমের অনুমতির অপেক্ষা না রেখেই করা হয়েছে আফগানিস্তানের সঙ্গে সীমান্তের কাছের এলাকায় সন্ত্রাস বিরোধী অপারেশনের অংশ হিসাবে.

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি পদে পুনর্নির্বাচিত হওয়ার পরে ৬ই নভেম্বর বারাক ওবামার আরও একটি শাসনের বছর শেষ হতে চলেছে. এই সময় মার্কিন রাষ্ট্রপতির পক্ষে মোটেও মেঘমুক্ত ছিল না. একসারি বিফল হওয়া ও নিজের দেশের ভিতরে ও দেশের বাইরে নানা রাজনৈতিক স্ক্যান্ডালে জড়িয়ে পড়ে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী রাষ্ট্রের রাষ্ট্রপ্রধান তাঁর প্রভাব ও আন্তর্জাতিক ভাবে মর্যাদার অনেকটাই খুইয়েছেন.

আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2013
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2013
1
4
5
6
8
13
14
20
25
26