×
South Asian Languages:
স্বাধীন রাষ্ট্র সমূহ, জুন 2012
ভারতের বিমান বাহিনী রাশিয়া- ভারতের যৌথ উদ্যোগে নির্মিত শব্দাতীত রকেট ব্রামোস ২০১৪ সালে নিজেদের অস্ত্র সম্ভারে যোগ করবে. এই বিষয়ে জানিয়েছেন মস্কো উপকণ্ঠের ঝুকোভস্কি শহরে আয়োজিত “যন্ত্র নির্মাণে প্রযুক্তি – ২০১২” ফোরামে ব্রামোস কোম্পানীর জেনারেল ডিরেক্টর শিবথানু পিল্লাই.
২২শে জুন ১৯৪১ ফ্যাসিস্ট জার্মানীর সেনা বাহিনী সোভিয়েত দেশের ভিতরে অনুপ্রবেশ করেছিল. তাদের লক্ষ্য ছিল হিটলারের ভাষায় রাশিয়ার জীবনী শক্তিকে সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করে দেওয়া, সমস্ত এলাকা দখল করে নেওয়া ও দেশের জনগনকে দাসত্বে বাধ্য করা. কিন্তু ফ্যুরের হিটলারের আকাঙ্খা, যার সেনাবাহিনী তার আগের দুই বছর ধরে সারা ইউরোপের বুকে হাল্কা পায়ে হেঁটে বেড়িয়েছে, পূরণ হয় নি.
রাশিয়া, চিন ও মধ্য এশিয়ার দেশ গুলি (কাজাখস্থান, কিরগিজিয়া, তাজিকিস্তান) পাহাড়ী জায়গায় সম্মিলিত ভাবে সামরিক অপারেশনের কৌশল তৈরী করেছে. সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার "শান্তি মিশন – ২০১২" নামের প্রশিক্ষণ (৮ থেকে ১৪ই জুন) তাজিকিস্তানে শেষ হয়েছে. এর সক্রিয় কাজ কর্মের সময়ে যোগ দিয়েছে দুই হাজারেরও বেশী সামরিক কর্মী ও ৫০০ টি যুদ্ধের গাড়ী.
সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষবৈঠকে, যা কয়েকদিন আগে বেজিং শহরে হয়েছে, সেখানে ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতে এসেছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী সোমানাহল্লি কৃষ্ণ, প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ নয়. এটা বোঝাই গিয়েছিল আপাততঃ যখন ভারতের অবস্থান এই সংস্থায় পর্যবেক্ষকের থেকে সদস্য করা হয় নি, তখন ভারত থেকে তো মনে হয় না শীর্ষবৈঠকে সর্বোচ্চ পর্যায়ের কাউকে পাঠানো হবে.
 নিউইয়র্কে সিরিয়া নিয়ে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার বৈঠক হয়েছে. রাষ্ট্রসঙ্ঘ ও আরব লীগের বিশেষ প্রতিনিধি কোফি আন্নান ঘোষণা করেছেন যে, তাঁর শান্তি পরিকল্পনা সম্পূর্ণভাবে পালন করা হচ্ছে না. রাশিয়ার কূটনীতিবিদেরা প্রস্তাব করেছেন যত দ্রুত সম্ভব সিরিয়া নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করা হোক.
 বেজিংয়ে সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষবৈঠক কাজাখস্থান, চিন, কিরগিজিয়া, রাশিয়া, তাজিকিস্থান ও উজবেকিস্তানের দেশ নেতাদের উপস্থিতিতে এক গুচ্ছ দলিল গ্রহণ করে বৃহস্পতিবারে শেষ হয়েছে, এই দলিল গুলিতে সংস্থার স্ট্র্যাটেজি ও তার প্রসারের প্রবণতা নিয়ে বলা হয়েছে.
 বেজিংয়ে সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষবৈঠক কাজাখস্থান, চিন, কিরগিজিয়া, রাশিয়া, তাজিকিস্থান ও উজবেকিস্তানের দেশ নেতাদের উপস্থিতিতে এক গুচ্ছ দলিল গ্রহণ করে বৃহস্পতিবারে শেষ হয়েছে, এই দলিল গুলিতে সংস্থার স্ট্র্যাটেজি ও তার প্রসারের প্রবণতা নিয়ে বলা হয়েছে.  এই শীর্ষবৈঠকে আঞ্চলিক ভাবে বহু দিনের জন্য শান্তি ও সমৃদ্ধি বর্ধনের ঘোষণা স্বাক্ষরিত হয়েছে.
 আঞ্চলিক নিরাপত্তা বজায় রাখা – বেজিংয়ে সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষবৈঠকের প্রধান আলোচ্য বিষয়. এই সমস্যা ৬ই জুন রাশিয়া, চিন ও চারটি মধ্য এশিয়ার দেশের প্রধানরা তাঁদের নিজস্ব অধিবেশনে আলাদা করে আলোচনা করেছেন. বৃহস্পতিবারে এই আলোচনায় যোগ দিতে চলেছেন পর্যবেক্ষক দেশ গুলির নেতারা – মঙ্গোলিয়া, ভারত, পাকিস্তান ও ইরানের থেকে.
     রাশিয়া ও চিনের স্ট্র্যাটেজিক ভাবে সহকর্মী হিসাবে কাজ একটি অভূতপূর্ব উচ্চতায় পৌঁছেছে, আর দুই দেশের সম্পর্ক সমস্ত ক্ষেত্রেই তৈরী করা হচ্ছে এক পারস্পরিক ভাবে লাভজনক ভিত্তিতে ও সেই ক্ষেত্রে খুবই উচ্চ পর্যায়ের ভরসা ও খোলামেলা ভাব রয়েছে, বেজিং সফরে গিয়ে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন এই কথা বলেছেন.
 চিন সফর ও বেজিংয়ে সাংহাই সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষবৈঠকে যোগদান করার আগে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন সরাসরি ভাবে বিশ্বের একটি প্রভাবশালী সংবাদপত্র “ঝেনমিন ঝিবাও” এর বহু কোটি পাঠকদের কাছে তাঁর বক্তব্য পেশ করেছেন. তিনি আমাদের দুই দেশের সহযোগিতা নিয়ে নিজের মূল্যায়ণ ও বর্তমানের বিশ্বে রুশ- চিন সম্পর্কের ভূমিকা নিয়ে মত প্রকাশ করেছেন.
 “আরব বসন্তের” ঘটনা, আফগান সমস্যার জটিলতা বৃদ্ধি, কোরিয়া উপদ্বীপ এলাকায় কঠিন পরিস্থিতি প্রাথমিক ক্ষেত্রে ইউরো- এশিয়া অঞ্চলের নিরাপত্তা সংক্রান্ত প্রশ্নকে সামনে এগিয়ে দিয়েছে. সাংহাই সহযোগিতা সংস্থা, তার বর্তমানের অবস্থানে, যেখানে সামরিক জোট তৈরী করা বাদ দেওয়া হয়েছে, তখন ক্রমবর্ধমান আশঙ্কা গুলির প্রতি সফল ভাবে প্রতিক্রিয়া করতে পারে কি?
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
জুন 2012
ঘটনার সূচী
জুন 2012
1
2
3
10
11
12
13
14
16
17
18
19
20
21
23
24
25
26
27
29
30