×
South Asian Languages:
ইউরোপীয় সংঘ, 24 জানুয়ারী 2012
ওয়াশিংটনের ইরান বিরোধী রাজনীতি, যার প্রয়োগে সম্ভব হয়েছে ইরানের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক ও বিনিয়োগ সংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞা গ্রহণ করা, তা এই দেশ ও তার খনিজ তেলের গ্রাহক দেশ গুলিকে এড়িয়ে যাওয়ার পথ খুঁজতে বাধ্য হতে. বিশদ করে লিখেছেন আমাদের সমীক্ষক গিওর্গি ভানেত্সভ.     ইরান বর্তমানে ২৫ লক্ষ ব্যারেলের বেশী খনিজ তেল রপ্তানী করে.
গতকাল বিশ্বের সর্বত্র পেট্রোলের দাম বেড়েছে. ইউরোপীয় সংঘ ইরান থেকে খনিজতেল আমদানীর উপর নিষেধাজ্ঞা জারী করার পরিপ্রেক্ষিতেই এটা ঘটেছে. নিউ-ইয়র্কের স্টক এক্সচেঞ্জে আমেরিকার ডব্লু.টি.আই মার্কা পেট্রোলের ফিউচার্সের দাম বেড়ে ব্যারেল প্রতি ৯৯,৫৮ ডলারে গিয়ে পৌঁছেছে.
ইরানের উপর চাপ বাড়ানোর উদ্দেশ্যে ওয়াশিংটন ইরানের বিরূদ্ধে বিধিনিষেধ আরও কড়া করতে দৃঢ়সংকল্প. গতকাল মার্কিনী রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা এই উক্তি করেছেন. তিনি ইউরোপীয় সংঘ কতৃক জারী করা ইরানের বিরূদ্ধে নতুন নিষেধাজ্ঞাবলীকেও স্বাগত জানিয়েছেন. ওবামা উল্লেখ করেছেন, যে সোমবারে ইউরোপীয় সংঘ কতৃক আরোপীত ইরানের বিরূদ্ধে নতুন নিষেধাজ্ঞাবলী আন্তর্জাতিক জনসমাজের ইরানের পারমানবিক প্রকল্পের বিপজ্জনক ধারার বিরূদ্ধে যথাযুক্ত প্রত্যুত্তর দেওয়ার সংকল্পের প্রমাণ দেয়.
মস্কোয় আক্ষেপ ও আশংকার সঙ্গে ইরানের বিরূদ্ধে ইউরোপীয় সংঘের নতুন করে একপাক্ষিক নিষেধাজ্ঞা জারীকে গ্রহণ করা হয়েছে. সোমবার সন্ধ্যায় রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রক থেকে এই মন্তব্য করা হয়েছে. ইউরোপীয় সংঘ কতৃক আরোপিত নতুন নিষেধাজ্ঞা ইরানের অর্থনীতির বহু দিকের দমবন্ধ করে দেবার প্রয়াস বলে মন্ত্রণালয় উল্লেখ করেছে.
৪জন নিহত ও ২০ জন আহত হয়েছে লিবিয়ার পশ্চিমে বানি ওয়ালিদ শহরে নিহত মুহম্মর গাদ্দাফির সমর্থক বাহিনী ও বর্তমানের প্রশাসক বাহিনীর মধ্যে যুদ্ধে. ফ্রান্স প্রেস সংস্থা সোমবারে এই খবর দিয়েছে. আগে জানানো হয়েছিল য়ে, প্রাক্তন নেতার অনুগামীরা আগের জঙ্গী ও বর্তমানে প্রশাসক দলের লোকেদের সামরিক ঘাঁটিতে হানা দিয়েছিল ও তা সম্পূর্ণ ভাবে ঘিরে ফেলেছিল. সেখানে প্রবল গুলি চালনা হয়েছে.
দেশের বিশেষ সামরিক বাহিনী, যারা বাশার আসাদের প্রশাসনকে সমর্থন করেছে ও জঙ্গী বিদ্রোহীদের সংঘর্ষ বেড়েই চলেছে. ইদলিব, হোমস্ ও হামা প্রদেশে যুদ্ধ চলছে বলে সানা সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে. সিরিয়া লেবানন সীমান্তের কাছে এল- কুসেইর শহরে সামরিক চৌকীতে জঙ্গীরা হানা দিয়েছে. তিনজন সৈন্য নিহত ও ১৪ জন আহত.
পররাষ্ট্র নীতি সংক্রান্ত ইউরোপীয় সঙ্ঘের পরিষদ সোমবার সিরিয়ার প্রতি নিষেধাজ্ঞা আরও কঠোর করেছে. ইউরোপীয় সঙ্ঘের তথ্য সম্প্রচার দপ্তর জানিয়েছে যে, বর্তমানে সিরিয়ার সেই সমস্ত কোম্পানীর সংখ্যা যাদের হোল্ডিং ইউরোপে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে, এখন থেকে ৩৮টিরও বেশী, আর প্রশাসনের প্রতিনিধি, যাদের "কালো তালিকা" ভুক্ত করা হয়েছে – তাদের সংখ্যা ১০৮.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2012
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2012
1
3
4
8
9
11
29