×
South Asian Languages:
মহাকাশ, এপ্রিল 2013
সোচী শহরে ২০১৪ সালের শীত অলিম্পিকের আগের মশাল দৌড়ের মশাল আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে নিয়ে যাওয়া হবে, তার সঙ্গে এটা আবার উন্মুক্ত মহাকাশেও বের করা হবে. তা একে অপরকে আনুষ্ঠানিক ভাবেই হস্তান্তর করবেন দুই রুশ মহাকাশচারী ওলেগ কোতভ ও সের্গেই রিয়াজানস্কি, যাঁরা সেপ্টেম্বর মাস থেকে এই স্টেশনের অভিযাত্রীদের মধ্যে থাকবেন.
মালবাহী মহাকাশযান “প্রোগ্রেস এম-১৯এম” বাহক-রকেট “সোয়ুজ-পঞ্চম”-এর তৃতীয় ধাপ থেকে পৃথক হয়ে এখন কক্ষপথে রয়েছে. আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের সাথে এই মালবাহী মহাকাশযানের সংযোগ সাধিত হবে ২৬শে এপ্রিল, বুধবার জানিয়েছেন রসকসমস-এর প্রতিনিধি. বাহক-রকেটের তৃতীয় ধাপ থেকে মালবাহী মহাকাশযানকে পৃথক করা হয় পূর্বনির্ধারিত সময়ে.
মঙ্গলগ্রহে পাইলট চালিত মহাকাশ যানে করে যাওয়ার জন্য আবেদন পত্র জমা নেওয়া শুরু হওয়ার কথা শুধু আগামী বছর থেকেই. কিন্তু এখনই যেতে ইচ্ছুক লোকের সংখ্যা একেবারে উপচে পড়ছে. এই রকমই প্রথম মহাকাশ পর্যটক ডেনিস টিটোর নেতৃত্বে এই মিশনের আয়োজকরা জোর গলায় বলছেন. এই অভিযান শুরু হবে ২০১৮ সালের ৫ই জানুয়ারী থেকে.
রাষ্ট্রীয় মহাকাশ সংস্থা রসকসমস মহাকাশ ও বড় ধরনের বিপর্যয় সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সনদপত্রে স্বাক্ষর করছে. সেই সমস্ত দেশ, যারা এই সনদে সামিল হয়েছে, তারা বিপর্যয় ক্লিষ্ট দেশ গুলিকে ত্রাণের কার্যে সহায়তা দিয়ে থাকে. অংশতঃ, তাদের কাছে মহাকাশ থেকে পৃথিবীকে দেখার তথ্য দেয়, যা বিপর্যস্ত অঞ্চলে দেখতে পাওয়া যায়.
সেই দিনের পর থেকে, যখন সারা বিশ্ব জেনেছিল যে, রাশিয়ার বিমান চালক ইউরি গাগারিন মহাকাশে উড়ে গিয়েছেন, বাহান্ন বছর কেটে গিয়েছে. আর শুধু এখন রাশিয়াতে একটি চলচ্চিত্র তোলা হয়েছে, গাগারিনের জীবনের উপরে ভিত্তি করে. আজ ১২ই এপ্রিল – মহাকাশ বিজ্ঞান দিবস – মস্কো শহরে “গাগারিন. মহাকাশে প্রথম” নামের চলচ্চিত্র আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রথম দেখানো হয়েছে.
ভ্লাদিমির পুতিন মহাকাশযাত্রা বিদ্যা দিবসে আমুর প্রদেশে “ভস্তোচনি” কসমোড্রোম পরিদর্শন করেন. সেখানে তিনি ভিডিও-যোগাযোগের মাধ্যমে আন্ত৪জাতিক মহাকাশ স্টেশনের মহাকাশচারীদের সাথে কথা বলেন, উত্সব উপলক্ষে তাঁদের অভিনন্দন জানান এবং তাছাড়া সেখানে তিনি মহাকাশ ক্ষেত্রের বিকাশ সংক্রান্ত একসারি প্রশ্ন আলোচনা করেন. রাষ্ট্রপতি বলেন যে, মহাকাশের আত্তীকরণে নিজের ভূমিকায় দেশ গর্ব অনুভব করতে পারে.
রাশিয়ার আকাশ ও মহাকাশ প্রতিরক্ষা বাহিনী উত্তর কোরিয়ার সম্ভাব্য রকেট ক্ষেপণকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতির প্রতি লক্ষ্য রাখছে, শুক্রবার বলেছেন উপ-প্রধানমন্ত্রী দমিত্রি রগোজিন.
ভারতের মুম্বাইয়ের স্কুল-শিক্ষার্থীরা, মুম্বাইয়ে রাশিয়ার কনস্যুল জেনারেলের দপ্তরের কর্মীরা এবং মুম্বাইয়ের জনসমাজের প্রতিনিধিরা শুক্রবার পৃথিবীর প্রথম মহাকাশচারী ইউরি গাগারিনের স্মৃতি মূর্তিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেছে, জানিয়েছে “ইতার-তাস” সংবাদ এজেন্সি. আজ রাশিয়ায় এবং পৃথিবীর অন্য একসারি দেশে মহাকাশযাত্রা বিদ্যা দিবস পালিত হচ্ছে, ১৯৬১ সালের ১২ই এপ্রিল গাগারিনের মহাকাশযাত্রার স্মৃতিতে.
ভারত রাশিয়ার অভিজ্ঞতা ও প্রযুক্তি ব্যবহার করবে জাতীয় সঙ্কট পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা বিকাশের জন্য. এই লক্ষ্য নিয়ে রাশিয়াতে বর্তমানে ভারতের এক প্রতিনিধি দল এসেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী সুশীল কুমার শিন্ডের নেতৃত্বে. মন্ত্রী রাশিয়ার রাজধানীতে রাষ্ট্রীয় বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ দপ্তরে গিয়েছিলেন.
রসকসমস ২০১৫ সাল থেকে মহাজাগতিক বৈজ্ঞানিক যন্ত্রপাতি পাঠানো শুরু করবে চাঁদের ঠিকানায়, তারপরে সেখানে শিবির ও মানমন্দির স্থাপণ করা হবে. শুক্রবার ‘রাশিয়া-২৪’ টেলিচ্যানেল থেকে এই কথা জানিয়েছেন সংস্থার প্রধান ভ্লাদিমির পপোবকিন. বিজ্ঞানীরা অনুমান করছেন, যে চাঁদের উত্তর ও দক্ষিণ মেরু অঞ্চলে জল আছে, তা যাচাই করে দেখা দরকার. ২০১৫-২০১৬ সাল থেকে রাশিয়া চাঁদে উড়ান শুরু করবে.
রাশিয়ার মহাকাশ বিদ্যার সামনে মূলনীতিগত নতুন নতুন মহাকাশ সরঞ্জাম এবং পৃথিবীতে আধুনিক পরিকাঠামো সৃষ্টির উচ্চাকাঙ্ক্ষাপূর্ণ কর্তব্য রয়েছে. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে মহাকাশযাত্রা বিদ্যা দিবস উপলক্ষে রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দমিত্রি মেদভেদেভের অভিনন্দনী তার-বার্তায়, এ দিবস পালিত হচ্ছে শুক্রবার. প্রধানমন্ত্রী মনে করেন বুনিয়াদী ও ফলিত বিজ্ঞানের বিকাশের প্রতি এবং কর্মী প্রস্তুত ব্যবস্থার উন্নতির প্রতি অতি গুরুতর মনোযোগ দেওয়া প্রয়োজন.
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন যে, রাশিয়ার রকেট-মহাকাশ শিল্পে বৈজ্ঞানিক কর্মীদের পেশাগত ও গুণগত মানের প্রতি মনোযোগ দেওয়া উচিত্. তাছাড়া, মহাকাশ ক্ষেত্রে প্রতিভাশালী যুব জনকে আকর্ষণ করা উচিত্, বলেন তিনি শুক্রবার ব্লাগোভেশ্যেনস্কে মহাকাশ ক্ষেত্রের বিকাশ সংক্রান্ত বৈঠকে. তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, এজন্য পেশাগত বিকাশের জন্য পরিবেশ সৃষ্টি করা, উপযুক্ত বেতন এবং সামাজিক পরিবেশ সুনিশ্চিত করা প্রয়োজন.
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন শুক্রবার আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের মহাকাশচারীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন তাদের উত্সব উপলক্ষে – মহাকাশযাত্রা বিদ্যা দিবস উপলক্ষে. রাশিয়ায় এ উত্সব পালিত হয় ১২ই এপ্রিল মানুষের প্রথম মহাকাশযাত্রার স্মৃতিতে. ১৯৬১ সালের ১২ই এপ্রিল এ মহাকাশযাত্রা করেছিলেন সোভিয়েত মহাকাশচারী ইউরি গাগারিন. আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের কর্মীদের সাথে পুতিনের ভিডিও-যোগাযোগ স্থাপিত হয়েছিল শুক্রবার রাশিয়ার আমুর প্রদেশের “ভস্তোচনি” কসমোড্রোমে.
রকেট পরিবাহক ‘আর-৭’ অর্ধশতাব্দীরও বেশিকাল ধরে রাশিয়ার মহাকাশশিল্পের সেবায় নিয়োজিত. ঐগুলো ১৯৫৭ সালে পৃথিবীর প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহকে মহাকাশে পৌঁছে দিয়েছিল এবং প্রথম মহাকাশচারী ইউরি গাগারিনকেও. প্রথমে ‘আর-৭’ নির্মাণ করা হয়েছিল ব্যালিস্টিক হিসাবে, যা পৃথিবীর যেকোনো বিন্দুতে পারমানবিক আঘাত হানতে সক্ষম ছিল.
উত্তর কোরিয়ার প্রশাসন আবারও বিদেশীদের খুবই জোর দিয়ে অনুরোধ করেছে পিয়ংইয়ং ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য. সানকেই সিমবুন নামের সংবাদপত্রের তথ্য অনুযায়ী, রাষ্ট্রদূতদের ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে যে, ১০ই এপ্রিলের পরে জন গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র কোরিয়া ঠিক করেছে রকেট উড়ান করার, যা সম্ভবতঃ জাপান হয়ে উড়ে যাবে.
দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এই খবর দেওয়া হয়েছে. মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী সবচেয়ে বেশী বাজেট থেকে ব্যয় করা হয়েছে গত বছরে আর তা দেশের সমগ্র গড় বার্ষিক উত্পাদনের শতকরা ২, ৫৯ ভাগ. গত বছরে উত্তর কোরিয়ার তরফ থেকে রকেট ও পারমানবিক বিপদ বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে সিওল ব্যয় করেছিল প্রায় ২ হাজার ৯৭০ কোটি ডলারের সমান অর্থ.
২০১৫ সালের মধ্যে চিন পরিকল্পনা করেছে আন্টার্কটিকা এলাকায় নিজেদের বৈজ্ঞানিক স্টেশনের সংখ্যা তিন থেকে পাঁচ করার. বিশেষজ্ঞদের মতে আন্টার্কটিকায় নিজেদের উপস্থিতি প্রসারিত করে ও আর্কটিক এলাকাতেও নিজেদের গবেষণা বৃদ্ধি করে বেজিং নিজেদের বিশ্বজোড়া প্রভাবকেই শক্তিশালী করতে চাইছে. আন্টার্কটিকা এলাকায় গবেষণা করার আগ্রহ চিনের বৈজ্ঞানিকরা তুলনামূলক ভাবে অল্পদিন হল শুরু করেছে.
আপনারা শুনছেন বা পড়ছেন আমাদের নিয়মিত অনুষ্ঠানঃ “রাশিয়া-ভারতীয় উপ-মহাদেশঃ ঘটনাবলী-মানুষবর্গ-স্মরণীয় তারিখগুলি”. আমাদের আজকের সম্প্রচারের বিষয় – এপ্রিলের স্মরণীয় তারিখগুলি. আমাদের এই মাসিক অনুষ্ঠানে আমরা সেইসব তারিখ ও ব্যক্তিদের কথা স্মরণ করি, যেগুলি ও যারা রাশিয়া ও ভারতীয় উপমহাদেশের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়নের ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা রেখেছে বা রেখেছেন. বহুবছর ধরে রাশিয়া ও ভারত যৌথভাবে মহাকাশ প্রান্তর অধ্যয়ন করে.
উত্তর কোরিয়ার পূর্ব উপকূলে মাঝারি পাল্লার রকেট “মুসুদান”বসানোর খবর, যা আমেরিকা ও দক্ষিণ কোরিয়ার উত্স থেকে দেওয়া হয়েছে, তা কোরিয়া উপদ্বীপ এলাকা জুড়ে এক নতুন উত্তেজনার অধ্যায়ের সূচনা করেছে.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
এপ্রিল 2013
ঘটনার সূচী
এপ্রিল 2013
1
3
6
7
10
13
14
15
16
17
18
20
21
23
25
26
27
28
29