×
South Asian Languages:
মহাকাশ, জানুয়ারী 2012
প্রতিযোগিতায় সফল শিল্প সমূহের, যা নতুন প্রযুক্তির ভিত্তিতে কাজ করে সেই রকমের নতুন অর্থনীতি রাশিয়ার প্রয়োজন. এই বিষয়ে সোমবার ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতি পদ প্রার্থী ভ্লাদিমির পুতিন ভেদোমস্তি সংবাদ পত্রের পাতায়. সামনে রাখা লক্ষ্য সাধনে প্রধানমন্ত্রী বেশ কয়েকটি সমাধানও প্রস্তাব করেছেন. প্রথম বিষয়, যা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলছেন, তা হল দেশের প্রযুক্তিগত ভাবে পেছিয়ে থাকাকে অতিক্রমের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে.
মানব সভ্যতার শেষ জাগতিক ভান্ডার বলে মনে করা হয় আন্টার্কটিকা বা দক্ষিণ মেরু অঞ্চলকে. এই খানের জমি আবিষ্কার করা হয়েছিল আজ থেকে প্রায় ২০০ বছর আগে. রুশ সমুদ্র অভিযাত্রী লাজারেভ ও বেল্লিনসহাউজেন এই কাজ করেছিলেন. ১৯৫৬ সালে সেখানে প্রথম সোভিয়েত মেরু স্টেশন "মিরনী" খোলা হয়েছিল.
    এক সারি মাইক্রো উপগ্রহ, যা রাশিয়া থেকে পাঠানো হচ্ছে, তা আবহাওয়ার উষ্ণায়নের কারণ নির্ণয়ে সাহায্য করবে. এই বিষয়ে "ইন্টারফ্যাক্স" সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন রুশ বিজ্ঞান একাডেমীর মহাকাশ গবেষণা ইনস্টিটিউটের ডিরেক্টর লেভ জিলিওনী. প্রথম এই জাতের উপগ্রহ "চিবিস – এম" বুধবারে খুব ভোরে "প্রোগ্রেস – এম ১৩ এম" রকেটের থেকে ছাড়া হয়েছে.
“ইন্টারফ্যাক্স – আভেএন” সংস্থাকে প্রযুক্তি ও স্ট্র্যাটেজি বিশ্লেষণ সংস্থার বৈজ্ঞানিক সহকর্মী ভাসিলি কাশিন এই কথা বলেছেন. “এর আগে পর্যন্ত পরিকল্পনা রয়েছে তিনটি মুখ্য দিক নিয়ে কাজ করার. এটা প্রাথমিক ভাবে মহাকাশের কক্ষপথে জোড়া লাগার প্রযুক্তি ও “থিয়ানগুন” কক্ষপথের মডিউল ব্যবহার করে মহাকাশ স্টেশনের প্রধান ব্যবস্থা তৈরী করা.
রাশিয়ার বিজ্ঞানীরা চাঁদে যাবেন, সেখানে শীঘ্রই থাকার মতো স্টেশন তৈরী হবে. এর জন্য ২০২০ সালের মধ্যে চাঁদের উদ্দেশ্যে দুটি চাঁদের পিঠে নামার মতো “লুনা – রিসোর্স” ও “লুনা- গ্লোব” নামে মহাকাশযান পাঠানোর কথা হয়েছে. খবর জানিয়েছেন রসকসমস সংস্থার প্রধান ভ্লাদিমির পাপোভকিন. আজ থেকে বছর কুড়ি বাদেই মানুষ চাঁদে ছুটি কাটাতে যেতে পারবেন বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেছেন.
গতকাল খবরে প্রকাশ হয়েছে যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর উপ সহকারী রবার্ট শের. তাঁর কথামতো, ভারতীয় সহকর্মীদের সঙ্গে তাঁরা এখনই রকেট প্রতিরোধের বর্ম তৈরী করতে রাজী. এই ক্ষেত্রে ওয়াশিংটন একই সঙ্গে ভারতীয় উপমহাদেশে অস্ত্রের চালান বাড়াতে চাইছে. এর উদাহরণ হিসাবে শের কিছুদিন আগে সময়ের আগেই ভারতীয় বিমানবাহিনীকে পরিবহনের বিমান সি – ১৩০ জে পাঠানোর কথা উল্লেখ করেছেন.
রাশিয়ার আন্তর্গ্রহ মহাকাশ স্টেশন "ফোবোস- গ্রুন্তের" মিশন শুরু না হয়েই প্রশান্ত মহাসাগরের জলের গভীরে শেষ হয়েছে. মঙ্গল গ্রহের দিকে পাঠানো মহাকাশ যান প্রয়োজনীয় আবক্র পথে বের হতে না পেরে পৃথিবীর কাছের কক্ষপথে দুমাসের বেশী সময় ধরে পাক খেয়েছে, যতদিন না শেষ অবধি পৃথিবীর উপরেই ভেঙে না পড়েছে.
ইউরোপে নির্মীয়মান রকেট প্রতিরোধ ব্যবস্থা যে রাশিয়ার বিরুদ্ধে নয়, এই বিষয়ে মস্কো ওয়াশিংটনের কাছ থেকে আইনসঙ্গত গ্যারান্টি পাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে. এই প্রসঙ্গে ঘোষণা করেছেন উপ প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি রগোজিন ব্রাসেলস শহরে সাংবাদিক সম্মেলনে তাঁর চার বছর ধরে ন্যাটো জোটে রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি হিসাবে কাজ শেষ হওয়ার পরে.
রাশিয়ার জাতীয় মহাকাশ সংস্থা রসকসমস পরিকল্পনা করেছে ২০১৩ সালে সম্পূর্ণ ভাবে পুনঃ সঞ্চারণের ব্যবস্থা তৈরী করতে চায়, যা রাশিয়ার মহাকাশে পাঠানো কৃত্রিম উপগ্রহ গুলির কাজ বাস্তব সময়ে নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করবে. এই বিষয়ে ঘোষণা করেছেন রসকসমস সংস্থার প্রধান ভ্লাদিমির পাপোভকিন.     মহাকাশ সংক্রান্ত দপ্তরের প্রধান ফোবোস- গ্রুন্ত মিশনের অসফল হওয়া প্রসঙ্গে এই প্রশ্ন উত্থাপন করেছেন.
আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে রাশিয়ার মহাকাশের বাগান "লাদা" নতুন করে জীবন পেতে চলেছে. বিশেষজ্ঞরা এই "মহাকাশের" বাগানের একেবারে "হৃদি মাঝারে" আলোর উত্স পাল্টে দেবেন. পুরনো হয়ে যাওয়া টিউব লাইটের আলোর জায়গায় লাগানো হতে চলেছে আধুনিক শক্তি সংরক্ষণে উপযুক্ত আলো বিচ্ছুরক ডায়োড, যাতে বিপজ্জনক ধাতু পারদ মহাকাশ থেকে সরিয়ে ফেলা সম্ভব হয়.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
জানুয়ারী 2012
ঘটনার সূচী
জানুয়ারী 2012
1
2
3
4
5
7
8
9
10
12
13
15
16
18
19
21
24
25
27
29
31