×
South Asian Languages:
কোরিয়া, 11 এপ্রিল 2013
জাপানের প্রধানমন্ত্রী সিন্দজো আবে মনে করেন যে, উত্তর কোরিয়ার প্ররোচনামূলক ক্রিয়াকলাপ “অমার্জনীয়” মানে পৌঁছেছে, জানিয়েছে জাপানের “এন.এইচ.কে” টেলি-চ্যানেল. এ সম্বন্ধে তিনি বলেন জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে. তাছাড়া, আবে আশু সমস্যাবলি সম্পর্কে সুসমন্বিত নীতি প্রণয়নের জন্য কূটনৈতিক ও সৈন্য সম্বলিত বিভাগগুলির নিয়মিত সাক্ষাত্ আয়োজনের প্রয়োজনীয়তার কথা জোর দিয়ে বলেছেন.
বৃহস্পতিবার সকালে দক্ষিণ কোরিয়া পরিস্থিতির যথেষ্ট কোনো পরিবর্তন নথিভুক্ত করতে পারে নি, যা অতি আসন্ন সময়ে রকেট ক্ষেপণে পিয়ংইয়ংয়ের প্রস্তুতির প্রমাণ দিতে পারে. এ সম্বন্ধে জানিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রচার মাধ্যম সরকারী প্রতিনিধিদের উদ্ধৃতি দিয়ে. বিশেষ করে, উল্লেখ করা হয়েছে উত্তর কোরিয়ার পূর্ব উপকূলে বসানো মোবাইল রকেট সরঞ্জামের স্থান পরিবর্তনের.
রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র উত্তর কোরিয়ার কাছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ঘোষণাপত্র মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছে. লন্ডনে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ এবং মার্কিনী বিদেশ সচিব জন কেরির সাক্ষাত্কারে মুখ্য আলোচ্য বিষয়ই ছিল কোরিয় উপদ্বীপে উদ্ভূত উত্তপ্ত পরিস্থিতি. লাভরোভ কেরিকে বলেছেন, যে উত্তর কোরিয়াকে ঘিরে পরিস্থিতি শান্ত হওয়ার সম্ভাবনা এখনো আছে. জি-৮এর সদস্য দেশগুলির পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাক্ষাত্কারের মঞ্চে তাদের বৈঠক হয়েছে.
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী চার্লস হেগেল মনে করেন যে, উত্তর কোরিয়া “বিপদ-রেখার খুব কাছে পৌঁছেছে”, উত্তর কোরিয়ার তরফ থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতি হুমকির ইঙ্গিত দিয়ে তিনি বলেন. পেন্টাগনে এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন যে, আগ্রাসনী বুলি এবং শেষ ক্রিয়াকলাপ কোরিয়া উপদ্বীপে পরিস্থিতি লাঘব করায় সাহায্য করে না, জানিয়েছে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ এজেন্সি.
ন্যাটোর মহাসচিব অ্যান্ডার্স ফগ রাসমুসেন আজ বৃহস্পতিবার দক্ষিণ কোরিয়া সফর করবেন। ব্রাসলসে অবস্থিত ন্যাটোর সদর দপ্তর থেকে প্রকাশিত এক
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
এপ্রিল 2013
ঘটনার সূচী
এপ্রিল 2013
21
22
25
26
27
28