×
South Asian Languages:
পারমানবিক, 5 এপ্রিল 2013
আলমা-আতায় আলোচনা প্রক্রিয়ায় ইরান আন্তরিকতা ও নমনীয়তা প্রদর্শন করতে বাধ্য এবং প্রমাণ করতে বাধ্য, যে তার পারমানবিক প্রকল্পের লক্ষ্যগুলি শান্তিপূর্ণ. বৃহস্পতিবার মাদ্রিদে বান কি মুন এই কথা বলেছেন. তিনি এই আশাপ্রকাশ করেছেন, যে ইরানের সাথে আন্তর্জাতিক মধ্যস্থতাকারী ছয় দেশের নতুন পর্বে আলোচনা সদর্থক ফল দেবে. সাধারণ সম্পাদকের কথায়, এটা জাতিসংঘের জন্য অন্যতম প্রধান আন্তর্জাতিক সমস্যা.
উত্তর কোরিয়ার পূর্ব উপকূলে মাঝারি পাল্লার রকেট “মুসুদান”বসানোর খবর, যা আমেরিকা ও দক্ষিণ কোরিয়ার উত্স থেকে দেওয়া হয়েছে, তা কোরিয়া উপদ্বীপ এলাকা জুড়ে এক নতুন উত্তেজনার অধ্যায়ের সূচনা করেছে.
আন্তর্জাতিক মধ্যস্থ “ছয় দেশ” ইরানের শান্তিপূর্ণ পরমাণুর অধিকারকে স্বীকৃতি দিতে প্রস্তুত, যদি তেহেরান আন্তর্জাতিক জনসমাজের কাছে তার শান্তিপূর্ণ চরিত্র প্রমাণ করতে পারে. এ সম্বন্ধে আলমা-আতা আলাপ-আলোচনায় বলেছেন ইউরোপীয় কূটনীতির প্রধান ক্যাথ্রিন অ্যাশটনের প্রতিনিধি মাইকেল মান. তাছাড়া, তিনি বলেন যে, মধ্যস্থরা ইরানের কাছ থেকে তাকে আগে দেওয়া প্রস্তাবে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়ার অপেক্ষা করছে.
আগামী গ্রীস্মকালে ইরানে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনের প্রাক্কালে দেশের আভ্যন্তরীন পরিস্থিতির প্রভাব পড়া উচিত নয় ইরানের পারমানবিক প্রকল্প বিষয়ে আন্তর্জাতিক মধ্যস্থতাকারী ছয়দেশের সঙ্গে আলোচনায়. শুক্রবারে আলোচনাকালে এই ঘোষনা করেছেন ইউরো সংঘের কূটনীতি দপ্তরের প্রধান ক্যাথরিন এ্যাশটনের নিজস্ব প্রতিনিধি মাইকেন মান.
জাপান সরকার একপাক্ষিকভাবে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে বাধানিষেধ দুই বছর বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে. ঐ বাধানিষেধের মেয়াদ শেষ হতে চলেছিল ১৩ই এপ্রিল. ২০০৬ সালে আরোপিত ঐ বাধানিষেধের আওতায় উত্তর কোরিয়া থেকে যে কোনোরকম পণ্য আমদানী নিষিদ্ধ এবং উত্তর কোরিয়ায় পণ্য রপ্তানীর উপরও কঠোর নিয়ন্ত্রণ জারি করা আছে.
জাতিসংঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুন উত্তর কোরিয়ার প্রতি পারমানবিক হুমকি ও যুদ্ধোন্মাদ কথাবার্তা থেকে বিরত হওয়ার আহ্বাণ জানিয়েছেন এবং জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ঘোষনাপত্র মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন. বান কি মুন কোরিয় উপদ্বীপে উত্তেজনার চরম বৃদ্ধিতে উদ্বিগ্নতা প্রকাশ করেছেন. এর প্রধান কারণ হচ্ছে উত্তর কোরিয়ার তরফ থেকে যুদ্ধোন্মাদ কথাবার্তা.
এই বিষয়ে বৃহস্পতিবারে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র আলেকজান্ডার লুকাশেভিচ. একই সময়ে ছয় পক্ষের সঙ্গে আলোচনার সময়ে পেশাদার ও গভীর আলোচনাই চলছে বলে কূটনীতিবিদ জানিয়েছেন. তিনি আশা প্রকাশ করেছেন যে, এই আলোচনার পরবর্তী রাউন্ডে, যা ৫-৬ এপ্রিল আলমা-আতা শহরে হতে চলেছে, তাতে সমঝোতায় আসার মতো কোনও সিদ্ধান্তের দিকে অগ্রসর হওয়া যাবে.
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
এপ্রিল 2013
ঘটনার সূচী
এপ্রিল 2013
19
20
21
22
25
26
27
28
29
30