×
South Asian Languages:
পারমানবিক, জুন 2012
তেহরানের সঙ্গে খনিজ তেলের বিষয়ে চুক্তিবদ্ধ দেশ গুলির রাষ্ট্রীয় ব্যাঙ্ক গুলির বিরুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা জারী করেছে. এর আগে ব্যক্তিগত মালিকানায় চলা অর্থনৈতিক সংস্থা গুলির উপরে নিষেধাজ্ঞা জারী করা হয়েছিল, যারা সেই ঐস্লামিক প্রজাতন্ত্রের সঙ্গে কর্ম সূত্রে আবদ্ধ ছিল. আর ১লা জুলাই থেকে ইউরোপীয় সঙ্ঘ ইরানের বিরুদ্ধে খনিজ তেলের বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা বহাল করতে চলেছে.
পাকিস্তানের “চাশমা” পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্রে বর্তমানে কার্যকরী দুটি রিয়্যাক্টরের সঙ্গে চিন আরও পরিকল্পনা নিয়েছে দুটি রিয়্যাক্টর বসানোর, আর এই ঘটনা বিশ্ব সমাজের উদ্বেগের কারণ হয়েছে. ভারতের টাইমস অফ ইন্ডিয়া সংবাদপত্র এই প্রসঙ্গে বৃহস্পতিবারে একটি বড় প্রবন্ধ প্রকাশ করেছে. প্রবন্ধে বলা হয়েছে এই সমস্যার রাজনৈতিক দিকটি নিয়ে কিন্তু প্রযুক্তিগত দিকটি প্রবন্ধের বাইরে থেকে গিয়েছে.
ইরানের পারমানবিক পরিকল্পনা বিশ্ব সমাজকে শান্তি দিচ্ছে না. পশ্চিম জোর দিচ্ছে যে, তেহরান পারমানবিক যুদ্ধ শুরু করতে পারে, যেই তাদের হাতে পারমানবিক অস্ত্র উপস্থিত হবে, তক্ষুনি. কিন্তু সেই ধরনের ঘটনা চক্র এমনকি ওয়াশিংটনেও বা ব্রুসেলসে খুব কম লোকই বিশ্বাস করে.
রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা পাকিস্তানকে আলাদা করেছেন জাতীয় নিরাপত্তার প্রশ্নে “সবচেয়ে সংজ্ঞাবহ উদ্বেগের কারণ” বলে আর বিশেষ করে আশঙ্কা করেছেন যে, পাকিস্তান এখন ধ্বংসের মুখে রয়েছে, আর তাদের পারমানবিক অস্ত্র সন্ত্রাসবাদীদের হাতে পড়তে পারে.
ইরানের সাথে তার পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে আলাপ-আলোচনা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সীমিত রাখা উচিত্, মনে করেন সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাজকুমার সৌদ আল-ফৈজল. তাঁর কথায়, এর-রিয়াদ এ বিষয়ে একমত যে, রাজনৈতিক মীমাংসা অর্জনের জন্য ইরানের সাথে আলাপ-আলোচনা গুরুত্বপূর্ণ.তবে, আগের অভিজ্ঞতা দেখিয়েছে যে, ইরানের জন্য আলাপ-আলোচনা – এ হল অতিরিক্ত সময় পাওয়ার উপায়, ফল পাওয়ার উপায় নয়.
রাশিয়ার জাতীয় স্বার্থে নিকট প্রাচ্যে ও ইস্রায়েলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখা প্রয়োজন. ইস্রায়েলের রাষ্ট্রপতি শিমোন পেরেসের সাথে সাক্ষাত্কারকালে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন এই কথা বলেছেন. তারা ইরানের পারমানবিক সমস্যা নিয়েও আলোচনা করেছেন. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি উল্লেখ করেছেন, যে নিকট প্রাচ্যে সবপক্ষের পারস্পরিক কর্মকান্ডের এমন রূপ দরকার, যাতে ঐ অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় থাকে.
অনেকেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাক- মার্কিন সম্পর্কের ভবিষ্যত নিয়ে এক রকমের উচাটন অবস্থার কথা বলছেন, আর ওয়াশিংটনের রাজনৈতিক মহলের কিছু লোক সরাসরিই বলছেন যে, তাঁরা “এবারে একেবারেই সেই পরিস্থিতির কাছে পৌঁছে গিয়েছেন, যাতে পাকিস্তানে বোমা হামলা করা হয়”. এই স্বীকারোক্তি প্রকাশ করা হয়েছে আমেরিকার খুবই প্রভাবশালী জার্নাল পররাষ্ট্র নীতি (ফরেন পলিসি)তে.
সেন্ট-পিটার্সবার্গে অর্থনৈতিক ফোরামে ভারত ও রাশিয়ার গোল টেবিল বৈঠক হয়েছে, যেখানে অর্থনৈতিক ও বিজ্ঞান-প্রযুক্তিগত পারস্পরিক সহযোগিতার নতুন নতুন সব অভিমুখ নিয়ে আলোচনা হয়েছে. রাশিয়ার অন্যতম উপ-প্রধানমন্ত্রী দমিত্রি রগোজিন বলেছেন, যে সহযোগিতার ক্ষেত্র হবে ইনফরমেশন প্রযুক্তি, টেলি কম্যুনিকেশন, ফার্মাসিউটিকালস, ও অন্যান্য বড় সব প্রকল্প, যা পরিকাঠামোর সাথে যুক্ত.
ইরানের রাষ্ট্রপতি মাহমুদ আহমাদনেজাদ বৃহস্পতিবার রিও-দে-জেনেরোয় বিশ্বের নেতাদের ইরানের পারমানবিক প্রকল্প সম্পর্কে আইনানুগ পথে ফিরে আসার আহ্বাণ জানিয়েছেন. আহমাদনেজাদের ভাষায়, মস্কোয় অনুষ্ঠিত আলোচনায় “ইরান আইনানুগ, গঠনমুলক, ন্যায্য ও মৈত্রীমুলক প্রস্তাব দিয়েছে”. ইরান আবার বলছে, যে তার পারমানবিক অস্ত্র পাওয়ার কোনো অভিপ্রায় নেই. ইরানে ইউরেনিয়ামের সমৃদ্ধিকরন করা হচ্ছে চিকিত্সার জন্য.
জাপানের পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র “ফুকুসিমা” বিপর্যয়ের পরে হতাশা বাদী লোকদের পূর্বাভাস মেলে নি. বিশ্বে পারমানবিক শক্তি থেকে নিরত হওয়ার ঘটনা ঘটে নি. বরং উল্টো হয়েছে, অনেক দেশের সংখ্যা বেড়েছে, যেখানে নতুন করে পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র গড়তে চাওয়া হয়েছে.
ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে মস্কোয় ১৮-১৯শে জুন অনুষ্ঠিত ছয় দেশের আলাপ-আলোচনার তৃতীয় রাউন্ডের অংশগ্রহণকারীরা সংলাপ চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সমঝোতায় এসেছেন. ৩রা জুলাই ইস্তাম্বুলে বিশেষজ্ঞদের পর্যায়ে আলোচনা বৈঠক হবে, আর তারপর ইরানের সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সহকারী সচিব আলি বাগারি এবং ইউরোসঙ্ঘের বৈদেশিক ব্যাপার সংক্রান্ত সহকারী হাই-কমিশনার হেলগা শ্মিড্ট-এর সাক্ষাত্ হওয়ার কথা.
ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে আন্তর্জাতিক মধ্যস্থ “ছয় দেশের” সাথে তেহেরানের প্রতিনিধিদলের আলাপ-আলোচনা মস্কোয় মঙ্গলবার শুরু হয়েছে. এ সম্বন্ধে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন আলাপ-আলোচনায় রাশিয়ার প্রতিনিধিদলের প্রধান, রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকোভ. তিনি আলাপ-আলোচনার গতিতে অতিরিক্ত কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছেন, জানিয়েছে “ইতার-তাস” সংবাদ এজেন্সি.
ইরানের পারমাণবিক সমস্যা নিয়ে মধ্যস্থ “ছয় দেশের” সাথে আলাপ-আলোচনার নতুন রাউন্ড পরিচালনার প্রশ্ন এখনও আলোচিত হয় নি, মঙ্গলবার বলেছেন মস্কো আলাপ-আলোচনায় ইরানী প্রতিনিধিদলের একজন সদস্য. সেই সঙ্গে তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, নতুন সাক্ষাত্ আয়োজনের স্থান নির্বাচন নির্ভর করবে যেখানে আলাপ-আলোচনা সম্ভব সেই দেশের সাথে তেহেরানের সম্পর্ক কি রকম তার উপর.
ইস্রাইল ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক বল প্রয়োগের হুমকি দিয়েছে, যদি মস্কোয় ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে ছয় দেশের সাথে আলাপ-আলোচনায় গুরুতর অগ্রগতি না ঘটে. এ সম্বন্ধে সোমবার লিখেছে ইস্রাইলের "জেরুসেলাম পোস্ট" পত্রিকা. পত্রিকাটির তথ্য অনুযায়ী, ইস্রাইলী নেতৃবৃন্দ চায়, আলাপ-আলোচনার অংশগ্রহণকারীরা যেন নিজেদের দাবি স্পষ্ট করে জানায় এবং তা বাস্তবায়নের সঠিক সময় নির্ঘন্ট নির্ধারণ করে.
ইরানের পারমাণবিক সমস্যা নিয়ে মধ্যস্থ “ছয় দেশের” সাথে আলাপ-আলোচনার পরবর্তী রাউন্ড সোমবার মস্কোয় শুরু হচ্ছে এবং তা দু দিন চলবে. ইউরোসঙ্ঘের বৈদেশিক ব্যাপার এবং নিরাপত্তার নীতি সংক্রান্ত হাই কমিশনার ক্যাথ্রিন এশটন, ইরানের সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সচিব সইদ জালিলি, এবং ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি সম্পর্কে আন্তর্জাতিক মধ্যস্থ “ছয় দেশের” প্রতিনিধিদলের নেতারা এ আলাপ-আলোচনায় অংশগ্রহণ করছেন.
গত সপ্তাহে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই ল্যাভরোভ সংক্ষিপ্ত সফরে ইরান ও আফগানিস্তান গিয়েছিলেন. তেহরানে ইরানি কর্তৃপক্ষের সাথে অনুষ্ঠিত বৈঠকে দুটি আন্তর্জাতিক ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেছেন. মস্কোতে আসন্ন ছয় জাতি বৈঠক আয়োজনের প্রস্তুতি ও সিরিয়া সংক্রান্ত একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে ইরানের অংশগ্রহণ. উল্লেখ্য, মস্কো এ সম্মেলন আয়োজনের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে. আঞ্চলিক সম্মেলনের অংশ হিসেবে সেরগেই ল্যাভরোভ আফগানিস্তান সফর করেছেন.
জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিকো নোদা আজ শনিবার সে দেশের বন্ধ রাখা 'ওই' পারমানবিক বিদ্যুতকেন্দ্র পুনরায় চালু করার অনুমতি দিয়েছেন. জাপানে চলতি বছরের মে মাসে দেশের সবকটি পারমানবিক বিদ্যুতকেন্দ্রের রিয়াক্টর বন্ধ করে দেওয়ার পর 'ওই' হল প্রথম পারমানবিক বিদ্যুতকেন্দ্র যা পুনরায় চালু হতে যাচ্ছে. এ কেন্দ্রটি টোকিও থেকে পশ্চিমাঞ্চলীয় ফুকুই এলাকায় অবস্থিত.
এই সপ্তাহে ওয়াশিংটনে তৃতীয় বাত্সরিক ভারত – মার্কিন স্ট্র্যাটেজিক আলোচনা স্পষ্ট করেই দেখিয়ে দিয়েছে যেমন আংশিক ভাবে দুই দেশের স্বার্থের বিষয়ে সম্মতি, তেমনই অবস্থানের বিষয়ে দুই দেশের যথেষ্ট পার্থক্য, এই কথা মনে করে রাশিয়ার স্ট্র্যাটেজিক গবেষণা কেন্দ্রের বিশেষজ্ঞ বরিস ভলখোনস্কি তাঁর মত ব্যক্ত করেছেন. অর্থনৈতিক দিকে দুই পক্ষেরই প্রশংসনীয় সাফল্য রয়েছে বলে রুশ বিশেষজ্ঞ উল্লেখ করেছেন.
রাশিয়া ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি সম্পর্কে “ছয় দেশের” সাক্ষাতের জন্য বুনিয়াদী প্রস্তুতি চালিয়েছে, যা ১৮-১৯শে জুন মস্কোয় অনুষ্ঠিত হবে. এ সম্বন্ধে মস্কোয় এক ব্রিফিংয়ে জানিয়েছেন রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকোভ. তাঁর কথায়, এ অনুমানের ভিত্তি আছে যে, রাশিয়ার রাজধানীতে ইরানের পারমাণবিক সমস্যা মীমাংসার দিকে পথে পরবর্তী পদক্ষেপ করা হবে.
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া উত্তর কোরিয়ার কাছে গৃহীত আন্তর্জাতিক বাধ্যবাধকতা পালন করার এবং অঞ্চলে পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করা প্ররোচনা ত্যাগ করার দাবি করেছে. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত দু দেশের কূটনৈতিক ও প্রতিরক্ষা বিভাগের প্রধানদের সাক্ষাতের ফলাফল সংক্রান্ত যৌথ বিবৃতিতে.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30
জুন 2012
ঘটনার সূচী
জুন 2012
2
3
8
9
10
23
24
28
30