×
South Asian Languages:
সমাজ জীবন 3 এপ্রিল 2011
১১ মার্চের ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্থ জাপানের পারমানবিক বিদ্যুতকেন্দ্র ‘ফুকুসিমা-১’ এর সামগ্রিক অবস্থা অবনতির দিকে অগ্রসর হওয়া অব্যহত রয়েছে.আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের দেওয়া বিভিন্ন মতামতে এমন চিত্রই ফুটে উঠেছে.কেন্দ্রের চুল্লিগুলোর শীতলকরন কোনভাবেই সম্ভব হচ্ছে না.একই সাথে পুরো দেশে ভূমিকম্পের বিবর্ন স্মৃতি কাটিয়ে উঠে জীবনযাত্রা স্বাভাবিক হচ্ছে.জাপানীরা দ্রুত ঐ কালো অধ্যায় ভুলতে চাইছেন.
৩০০ জন রুশি পর্যটক ২ এপ্রিল মিসরের স্বাস্থ্যকর স্থান হুরগাদা ও শারম-এল-শেখে ফিরেছে.আগামী কয়েকদিনের জন্য মিসরগামী সব বিমান টিকেট ইতিমধ্যে বিক্রি হয়েছে.রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রনালয় ও রসটু্রিজম মিসরের লোহিত সাগরের তীরবর্তী স্বাস্থ্যকর স্থানগুলোতে ভ্রমনের নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে.যদিও রুশিদের একই সাথে ভ্রমনে প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বনসহ মিসরের অন্যান্য শহরে না যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়.মিসেরর স্বাস্থ্যকর স্থানগুলো রুশিদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়.
জাপানে ভূমিকম্পে  নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১২ হাজারে উন্নীত হয়েছে.এছাড়া ১৫ হাজারেরও বেশি মানুষ নিখোঁজ রয়েছে.সরকারি তথ্য অনুযায়ি,প্রাকৃতিক দূর্যোগে সম্পূর্ণ অথবা আংশিকভাবে ১ লাখ ৫০ হাজার স্থাপনা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে.উল্লেখ্য,গত ১১ মার্চ জাপানে রিখটার স্কেলে ৯ তীব্রতার ভূমিকম্প আঘাত হানে এবং যা পরবর্তিতে সুনামি আকারে সমুদ্রের পানি ১০ মিটার উচ্চতায় প্লাবনের সূত্রপাত ঘটায়.
এপ্রিল 2011
ঘটনার সূচী
এপ্রিল 2011