×
South Asian Languages:
রাশিয়ার মুখ, মার্চ 2013
রাশিয়ার রাজতন্ত্রের ইতিহাসে কম রহস্য লুকিয়ে ছিল না. প্রজাদের কোনো ধারনাই ছিল না, যে বর্ণাঢ্য প্রাসাদগুলির প্রাচীরের অন্তরালে কত মর্মন্তুদ ঘটনা ঘটতো. কিন্তু ১৯১৭ সালের বিপ্লবের পরে জারের পরিবারের মহাফেজখানা জনগণের জন্য খুলে দেওয়া হয়, তাদের ডায়েরী, চিঠিপত্র পড়ার সুযোগ হয়. সেখান থেকেই আমরা জানতে পারি, যে জারের পরিবারে হৃদয়াবেগ কিরকম তোলপাড় করতো.
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন রাশিয়ায় আবার নতুন করে ‘শ্রমের নায়কে’র সম্মান দান করার জন্য আদেশনামা স্বাক্ষর করেছেন. ঐ সম্মানের আবির্ভাব হয়েছিল ১৯২১ সালে এবং বহুবছরের কাজের অভিজ্ঞতাশীল অগ্রণী কর্মীদের শিল্পপ্রতিষ্ঠান ঐ সম্মানসম্বলিত সার্টিফিকেট দিত.
সারা রাশিয়া গণ ফ্রন্ট (ওএনএফ) এক সামাজিক আন্দোলনে পুনর্গঠিত হওয়া উচিত হবে. এই রকমের ঘোষণা দিয়ে বক্তৃতা দিয়েছেন রুশ রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন, তিনি দন-তীরের-রস্তভ শহরে সারা রাশিয়া গণ ফ্রন্টের প্রথম সম্মেলন, যেটির নাম দেওয়া হয়েছে “ন্যায়বিচার নির্মাণ”, তাতে অংশ নিয়েছেন.
জার প্রথম পাভেলের গোটা জীবনটা ছিল গোলকধাঁধা. এমনকি তার জন্মও রহস্যে মোড়া. রাজসভায় কানাঘুষো করা হতো, যে তিনি নাকি জার তৃতীয় পিটারের সন্তান ছিলেন না, তাঁর জন্ম নাকি হয়েছিল সম্রাজ্ঞী দ্বিতীয় একাতেরিনার প্রেমিক কাউন্ট সালতিকোভের ঔরসে. জার পাভেল এই গুজব সম্পর্কে ওয়াকিবহাল ছিলেন এবং সারাজীবন এতে তাঁর হৃদয় বিদারিত হয়েছে. পাভেল সিংহাসনে আসীন ছিলেন ১৭৯৬ সাল থেকে ১৮০১ সাল পর্যন্ত.
নতুন অভিযাত্রী দল নিয়ে শুক্রবার রাশিয়ার মহাকাশযান বৈকানুর মহাকাশযান বন্দর থেকে রওনা দিয়ে মাত্র ৬ ঘন্টা পরেই আন্তর্জাতিক মহাজাগতিক স্টেশনের সাথে সংযুক্ত হয়েছে. আগে এর পেছনে পুরো দুটো দিন ব্যয় হোত. মহাকাশযান সয়ুজ টিএমএ-০৮এমের প্রাক্তন কম্যান্ডার পাভেল ভিনোগ্রাদভ বলেছেন, যে সংক্ষিপ্ত স্কিমের সুবিধা হল এই, যে মহাকাশযাত্রীরা ভরহীনতা অনুভব করতে পারে না তত্ক্ষণাত.
সাতাশতম বিশ্ব গ্রীষ্ম ইউনিভার্সিয়াড শুরু হতে একশ দিন বাকী রয়েছে, ছাত্র ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আগুন এবারে ইয়াকুত্সক শহরে এসে পৌঁছেছে. সেখানে রাশিয়া জুড়ে এই আগুন বয়ে নিয়ে যাওয়ার তৃতীয় অধ্যায় চলছে. শুরু হয়েছিল ভ্লাদিভস্তকে, আর শেষ হবে জুলাই মাসের শুরুতে ইউনিভার্সিয়াডের রাজধানী কাজান শহরে.
ПРИВЕТ! ЗДРАВСТВУЙТЕ, ДРУЗЬЯ! Здравствуйте! আমাদের রুশীভাষা শিক্ষার ক্লাসে ষষ্ট পাঠ শুরু করছি. যদি এখন আপনি প্রথমবার এই পাঠ শোনেন, তবে আমরা আপনাকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি আমাদের ভাষা শিক্ষার ক্লাসে যোগ দিতে, যেখানে আপনি শুধুমাত্র রুশীভাষায় কথাবার্তা বলতেই শিখবেন না, আরও পরিচিত হবেন রুশী সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের সাথে.
সুদূর মধ্যযুগে লেওনার্দো দ্য ভিঞ্চি সগর্বে নিজেকে ইঞ্জিনীয়ার বলে অভিহিত করতেন, যদিও তিনি ছিলেন একাধারে বিশ্ববন্দিত চিত্রশিল্পী, ভাস্কর ও বিজ্ঞানী. ইঞ্জিনীয়ারের পেশার চাহিদা চিরকালের. অধিকাংশ ক্ষেত্রেই পুরুষরাই এই পেশা গ্রহণ করে, কারণ ধরে নেওয়া হয়, যে মানবজাতির শক্তিশালী অর্ধাংশের প্রযুক্তিগত চিন্তাধারা অধিকতর উন্নত. এ সম্পর্কে সন্দেহ প্রকাশ করতে হয়েছে ‘রেডিও রাশিয়া’র সংবাদদাত্রী ইলেনা গাইদুককে.
ক্রেমলিন শাসন ব্যবস্থার সর্বস্তরে পারিবারিক যোগসাজসের সাথে সংগ্রাম করার জন্য দৃঢ়প্রতিজ্ঞ. এই প্রশ্ন আলোড়ন তুলেছে মরদোভিয়া প্রজাতন্ত্রের প্রাক্তন গভর্ণর ও বর্তমানে সামারা জেলার গভর্ণর নিকোলাই মের্কুশকিনের পুত্রকে মরদোভিয়ার ভাইস-গভর্ণরের পদে নিয়োদ করা হওয়ায়.
আজ মস্কোয় এই প্রথম থিয়েটারে রাত অনুষ্ঠিত হবে. প্রতি বছর ২৭শে মার্চ সারাবিশ্ব থিয়েটার দিবস পালিত হয়. এখানে ১৭টি শিল্পীগোষ্ঠী এই উত্সবে অংশ নেবে. আজ সারারাত ধরে রাজধানীর মঞ্চগুলিতে নাটক, জলসা, প্রদর্শনী ও প্রকাশ্য মহড়া উপস্থাপণ করা হবে. উপরন্তু আজ রাতে দর্শকরা রহস্যমোড়া পর্দার অন্তরালের জগত অবলোকন করে নির্দেশক, নাট্যকার ও কলাকুশলীদের সাথে আলাপ-পরিচয় করতে পারবে.
রেডিও রাশিয়া!শুরু করছি আমাদের নিয়মিত অনুষ্ঠান – ‘রাশিয়ার আদ্যোপান্ত’. এই অনুষ্ঠানটি সংকলন করেছেন নিনা রুকাভিশনিকভা এবং স্টুডিওয় ভাষ্যকার ল্যুদমিলা পাতাকি ও কৌশিক দাস. এই অনুষ্ঠানে আপনাদের পাঠানো প্রশ্নাবলীর ওপর ভিত্তি করে আমরা রাশিয়া সম্পর্কে পাঠক ও শ্রোতাদের অবহিত করি. তাই ভারত, বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও মরিশাসে আমাদের শ্রোতাদের কাছে অনুরোধ যত বেশি সম্ভব প্রশ্ন পাঠানোর রাশিয়া সম্পর্কে.
স্মরণাতীত কাল থেকে সব দেশের মানুষ জুয়ো খেলার বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেছে. কঠোর নিষেধাজ্ঞা সবসময় কাজ দেয়নি. খেলুড়েরা পাশ কাটিয়ে যেত, খেলার জন্য গোপন সব জায়গায় জড়ো হয়ে. রাশিয়ায় তাসের আবির্ভাব হয়েছিল ষোড়শ শতাব্দীতে ইভান দ্য টেরিবলের রাজত্বকালে এবং এতটাই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল, যে চাষীরা এমনকি গীর্জার পাশেও খেলতো. ধর্মপ্রচারকদের উদ্যোগে তাস দিয়ে জুয়ো খেলা নিষিদ্ধ করা হয়েছিল.
ক্ষমতাসীন প্রত্যেক ব্যক্তি – সে তিনি রাষ্ট্রপতিই হোন, রাজা বা জার – সারাক্ষণ জনসমক্ষে. তাদের দিকে হাজার হাজার চোখের দৃষ্টিনিবদ্ধ. তাদের যে কোনো অপ্রিয় কাজ বা অসতর্ক মন্তব্য সাথেসাথে প্রচার হয়ে যায় সমাজে. জনতার অহর্নিশ মনোযোগ থেকে ক্ষমতাসীন ব্যক্তিরা চেষ্টা করেন অন্ততঃ তাদের ব্যক্তিগত জীবনকে আড়াল করার, কিন্তু তা সবসময় সফল হয় না.
সারা বিশ্বে বরাবর চিকিত্সকের পেশা ছিল সম্মানজনক. আর তাই রুশী গণমৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় ফ্যাকাল্টি হচ্ছে – মেডিক্যাল. ‘রেডিও রাশিয়া’র সংবাদদাতা ইলেনা গাইদুক কয়েকজন ভাবী চিকিত্সকের সাথে আলাপ করেছেন, যাদের মধ্যে কেউ কেউ হয়তো ভবিষ্যতে চিকিত্সাবিদ্যার পন্ডিতে পরিণত হবে. শুধু রাশিয়ায় নয়, সারা বিশ্বেই রুশী গণমৈত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকদের সমাদর করা হয়.
আজ রাশিয়ায় ডুবুরি নাবিকদের দিবস উদযাপন করা হচ্ছে, ১০৭ বছর আগে, ১৯০৬ সালের ১৯শে মার্চ জার দ্বিতীয় নিকোলাইয়ের আদেশানুক্রমে সাবমেরিনগুলিকে স্বয়ংসম্পূর্ণ শ্রেণীর বলে ঘোষনা করা হয়েছিল. ডলফিন নামের প্রথম সাবমেরিনটি নির্মাণ করা হয়েছিল ১৯০৪ সালে বাল্টিকের কারখানায়. বর্তমানে সাবমেরিনগুলি রাশিয়ার সামরিক স্ট্র্যাটেজিক পারমানবিক শক্তির নিউক্লিয়াস.
আপনারা শুনছেন ‘বেতারে রুশী ভাষা শিক্ষা’ নামক অনুষ্ঠান. প্রিয় শ্রোতারা, আপনাদের আমন্ত্রণ জানাচ্ছি রুশী ভাষা শিক্ষার ক্লাসে. আমাদের আজকের পাঠ পুরোপুরি উত্সর্গ করবো আমরা ইতিমধ্যেই শেখা জিনিসের পুণরাবৃত্তিতে. তার মানে, আজকে আমরা শুধু রুশী ভাষায় কথা বলবো? অন্ততঃ, সেরকম চেষ্টা করবো. শুরু করছি – আপনি রাস্তা দিয়ে যাচ্ছেন ও পরিচিত একজনের সাথে দেখা হল. আপনি তাকে কি বলবেন?
চিরকাল সব জাতির মানুষের মধ্যে যে কোনো মূল্যে ক্ষমতায় আসীন হতে উত্গ্রীব লোক কম ছিল না. অনুগামীদের আকৃষ্ট করে এই সব লোক সিংহাসনের ন্যায্য উত্তরাধিকার বলে দাবী জানাতো. অধিকাংশ নাম ভাড়ানো মিথ্যুকরা ধরা পড়েছে, তবে কেউ কেউ সিংহাসনে আসীন হতে পেরেছে. সপ্তদশ শতকের সূচনাকে রাশিয়ায় মাত্স্যন্যায় বলে অভিহিত করা হয়ে থাকে.
লন্ডনের গ্রীনিচ পাড়ায়, জিরো মেরিডিয়ানের পাশে রয়াল অবজারভেটারিতে পৃথিবীর প্রথম মহাকাশযাত্রী ইউরি গাগারিনের স্মৃতিমূর্তি উন্মোচন করা হয়েছে. “রয়াল অবজারভেটারি, যা জিরো মেরিডিয়ানের বাস্তুভুমি এবং যেখানে উত্তর ও দক্ষিণ গোলার্ধ পরস্পরের সঙ্গে মিশেছে – সেটাই ইউরি গাগারিনের স্মৃতিমূর্তির জন্য আদর্শ জায়গা”, - বলেছেন গ্রীনিচে অবস্থিত রয়াল অবজারভেটারির প্রধান জোতির্বিদ মারেক কুকুলা.
যে কোনো সভ্যতার ইতিহাস বহু রহস্য দিয়ে বোনা, রাশিয়া – তার ব্যতিক্রম নয়. রুশদেশের ইতিহাস যেন জটিল এক শব্দজব্দ. তার এক অংশ মোটামুটি তথ্যভিত্তিক উত্সের মাধ্যমে ভরা, দ্বিতীয়াংশ শব্দজব্দের ফাঁকা ঘর. তবে ভরা ঘরগুলোর মধ্যেও কম ধাঁধা লুকিয়ে নেই, কারণ সেগুলিকে পূর্ণ করেছে নিস্পৃহ লোকেরা নয়. একই ঘটনাকে বিভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করা হয়, তাই উত্তরপুরুষদের মধ্যেও মতভেদের সৃষ্টি হয়.
রাশিয়ায় বেশ ভালোমাত্রায় জন্মের হার বাড়তে শুরু করেছে. সোভিয়েতোত্তর আমলে প্রথম ২০১২ সালে দেশের ৪০টি অঞ্চলে জনসংখ্যা বেড়েছে. জনসংখ্যা বৃদ্ধিতে সাহায্য করেছে রাষ্ট্রীয় প্রকল্পগুলি, যার সুবাদে চিকিত্সাক্ষেত্রে উন্নয়ন ঘটেছে ও পারিবারিক প্রতিষ্ঠানকে সরকারী মদতদান কাজে লেগেছে. গোটা সোভিয়েতোত্তর আমলে রাশিয়ায় জনসংখ্যার সংকট চলছিল. বাসিন্দাদের গড় বয়স ক্রমশ্ঃ বাড়ছিল, শিশুদের জন্ম হচ্ছিল ক্রমশঃই কম হারে.
আগের
1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 22 23 24 25 26 27 28 29 30 31
মার্চ 2013
ঘটনার সূচী
মার্চ 2013
3
9
10
11
17
18
21
24
25
27
31