×
South Asian Languages:
রাশিয়া, 24 এপ্রিল 2012
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ, যাঁর রাষ্ট্রপতি হিসাবে দায়িত্বভার শেষ হতে আর দুই সপ্তাহ বাকী রয়েছে, তিনি ক্রেমলিনে আয়োজিত এক প্রসারিত জাতীয় সভায় ভাষণ দিয়েছেন. এক ঘন্টার এই ভাষণে তিনি নিজের রাষ্ট্রপতিত্বের চার বছর সময়ের একটি মূল্যায়ন করেছেন ও একই সঙ্গে ভবিষ্যতের কাজ সম্বন্ধে দিক নির্দেশ করেছেন.
২৪শে এপ্রিল থেকে ‘সামুদ্রিক পারস্পরিক সহযোগিতা-২০১২’ নামক রুশী-চীনা সামরিক প্রশিক্ষণের সক্রিয় পর্যায় শুরু হল. তিনদিন ধরে দুইদেশের সামরিক নাবিকরা পীতসাগরে রকেটবিরোধী, নৌবিরোধী প্রতিরক্ষা, সামুদ্রিক সরবরাহ ও সামুদ্রিক পরিবহন যান প্রহরা দিয়ে নিয়ে যাওয়ার মহড়া দেবে সম্মিলিতভাবে. লক্ষ্য – সন্ত্রাসবাদী ও বিপজ্জনক সামুদ্রিক এলাকায় জলদস্যুদের সাথে সংগ্রাম.
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ দেশে অর্থনৈতিক ও নাগরিক স্বাধীনতা বিকাশকে নিজের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কর্তব্য বলে মনে করেন. তিনি সোমবার ক্রেমলিনে রাষ্ট্রনেতার পদে তাঁর অবস্থানের ফলাফল সংক্রান্ত রাষ্ট্রীয় পরিষদের পরিবর্ধিত বৈঠকে বক্তৃতা দেন.
রাশিয়ার উচ্চ শিক্ষালয়গুলিতে নতুন বিভাগ চালু হতে চলেছে, যার সাথে বিশ্বে চিকিত্সাবিজ্ঞানের বিবর্তনের নতুন পর্যায় জড়িত – চিকিত্সাবিজ্ঞানের পদার্থবিদ্যা. রোগনির্ণয় ও জটিল যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে চিকিত্সা করার জন্য পদার্থবিদ্যার বিশেষ জ্ঞান থাকা দরকার.      আলট্রাসনিক রে, এক্স-রে ও টমোগ্রামির সাথে আজকের দিনে সকলেই পরিচিত. ঐ সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা সহজ, সেইজন্যে চিকিত্সকদের চিকিত্সাবিদ্যার জ্ঞান থাকলেই চলে.
রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন রুশ বিজ্ঞানীদের সঙ্গে দেখা করেছেন, যাঁরা প্রায় চার কিলোমিটার পুরু বরফের নীচে দক্ষিণ মেরুর পূর্ব নামের হ্রদের জল অবধি পৌঁছতে সক্ষম হয়েছেন. গবেষকরা তাঁদের কাজ সম্বন্ধে ব্যাখ্যা করেছেন, আর নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি আশ্বাস দিয়েছেন যে, পরবর্তী কালেও দক্ষিণ মেরুতে অনুসন্ধানের কাজে সমর্থন করা হবে.
প্যারিসে ইউনেস্কোর সদর দপ্তরে আজ বৈকাল হৃদের প্রতি উত্সর্গীকৃত বিজ্ঞানীদের সম্মেলন ও প্রদর্শনী শুরু হচ্ছে. উক্ত সম্মেলনে সবিষদে বিবরনী দেওয়া হবে ঐ অনন্য হৃদ, যেখানে পৃথিবীর পানীয় জলের এক-পঞ্চমাংশ মজুত আছে, তাকে প্রাকৃতিক দূষণের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য কোন সব প্রকল্প গৃহীত হয়েছে. প্রদর্শনীতে বৈকাল হৃদ ও পারিপার্শিক পটভূমির ফোটো সাজানো হয়েছে.
    সাইবেরিয়ার অধিবাসীদের কাছে এবারে এসেছেন তিব্বত থেকে বৌদ্ধ সন্ন্যাসীরা, তাঁরা এসেছেন ভারতের কর্নাটক রাজ্যের দ্রেপুঙ্গ মনাস্টেরি থেকে. অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে ক্ষেত্র পবিত্র করার মধ্য দিয়ে ও বালির মন্ডল তৈরী দিয়ে – যা এই প্রার্থনা অনুষ্ঠানে ব্যবহার করা হয়.
    আজ থেকে শুরু হয়েছে এই প্রচারাভিযান, যা মহান পিতৃভূমি রক্ষার যুদ্ধে ফ্যাসিজমের বিরুদ্ধে বিজয় উপলক্ষে কমলা- কালো রঙের ফিতা বাঁধা দিয়ে শুরু হয়েছে. প্রথমে এই কাজ করা হয়েছে সাখালিন এলাকায়. এই বছরে বিশ্বের ৯২টি দেশে এই ফিতা বাঁধবেন মানুষে. ৯ই মে পর্যন্ত এই গুলি দেওয়া হবে সর্বত্র.
এপ্রিল 2012
ঘটনার সূচী
এপ্রিল 2012
9