×
South Asian Languages:
রাশিয়া, 17 মে 2011
বিশ্বে প্রথম নক্ষত্র উদ্যান খোলা হতে চলেছে ২০১৩ সালে ইউনিভার্সিয়াডের সময়ে রাশিয়ার কাজান শহরের উপকণ্ঠে. এই উদ্যান এখানের মহাকাশ নক্ষত্র অবস্থান নিরুপণ কেন্দ্রের অংশ হিসাবে তৈরী হতে চলেছে. এই কেন্দ্রের নাম ভি. পি. এঙ্গেলগার্ডট মহাকাশ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র.     তাতারস্থান রাজধানীর কাছেই বহুমুখী কেন্দ্র স্থাপিত হচ্ছে.
ইঙ্গুশেতিয়ার বৃহত্তম শহর নাজরানের উপকন্ঠে এ প্রজাতন্ত্রের প্রথম চিড়িয়াখানা খুলেছে. শিগগিরই সেখানে বাঘ-সিংহ ইত্যাদি বড় বড় জন্তু আনা হবে. এখানে জীবজন্তুদের রাখা এবং দেখাশোনার কাজে বিপুল সাহায্য করেছে স্তাভ্রোপোল, উত্তর ওসেতিয়া ও কাবার্দিনো-বালকারিয়ার বিশেষজ্ঞরা. এই চিড়িয়াখানার প্রথম দর্শকদের মধ্যে ছিল শিশু স্বাস্থ্যোদ্ধার কেন্দ্রের ছোট্ট রোগীরা, এবং তাছাড়া স্বল্পস্বচ্ছল পরিবারের শিশুরা. তাদের জন্য পরিদর্শনের ব্যবস্থা করা হয় বিনা খরচে.
রাশিয়ার প্রশান্ত মহাসাগরীয় নৌবাহিনীর অন্তর্গত যুদ্ধ জাহাজ বিধ্বংসী বিশাল জাহাজ "অ্যাডমিরাল পানতেলেয়েভ" ও ত্রাণের গাধা বোট "ফোতি ক্রীলভ" বহু দিনের এক টহলের জন্য রওয়ানা হয়েছে.     এই টহলের মধ্যেই সামরিক নাবিকেরা ১৮ই মে থেকে শুরু হওয়া সিঙ্গাপুরের আন্তর্জাতিক সামরিক প্রযুক্তি ও অস্ত্র প্রদর্শনী "ইমডেক্স – ২০১১" এ অংশ নেবেন. রাশিয়া ঐতিহ্য মেনেই এই প্রদর্শনীতে অংশ নিয়ে থাকে.
দূর প্রাচ্য ফেডারেল অঞ্চলে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির প্রতিনিধি ভিক্তর ইশায়েভ রাষ্ট্রপতির মোবাইল অভ্যর্থনাকক্ষের কাজের প্রথা অনুমোদন করেছেন, যা গঠিত হয়েছে নাগরিকদের আবেদনে তত্পর প্রতিক্রিয়ার জন্য. তা দূর প্রাচ্যের বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে নাগরিকদের আবেদন সংগ্রহ করবে, সেই সঙ্গে পদাধিকারী আমলাদের নিষ্ক্রয়তা সংক্রান্ত নালিশও.
রাশিয়া এ নিশ্চয়োক্তিকে “কালোচিত নয় ও ভিত্তিহীন” বলে মনে করে যে, তালিব এবং “আল-কাইদার” মাঝে সম্পর্ক দুর্বল হয়ে উঠছে এবং “নমনীয়” বাধানিষেধ আপোষহীন তালিব অথবা “আল-কাইদার” পক্ষ-সমর্থকদের পৃথক করার সুযোগ দেবে, বলেছেন রাষ্ট্রসঙ্ঘে রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি ভিতালি চুরকিন সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম সংক্রান্ত রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের সহায়ক কমিটিগুলির নেতাদের মিলিত ব্রিফিংয়ে.
রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ রাষ্ট্রীয় দুমার অনুমোদনের জন্য শুল্ক-সঙ্ঘের দেশগুলির সর্বসম্মত ম্যাক্রো-ইকোনোমিক নীতি সংক্রান্ত চুক্তি পেশ করেছেন. এ দলিলটি মস্কোয় স্বাক্ষরিত হয়েছিল ২০১০ সালের ৯ই ডিসেম্বর. তাতে ম্যাক্রো-ইকোনোমিক নীতির লক্ষ্য, মূলনীতি এবং প্রধান প্রধান ধারা নিরূপণ করা হয়েছে.
দক্ষিণ কুরিল দ্বীপপুঞ্জের উপর রাশিয়ার সার্বভৌমত্বের বিতর্কাতীত আন্তর্জাতিক বিধানিক ভিত্তি আছে, ঘোষণা করা হয়েছে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে. মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত
১৭ই থেকে ২০শে মে মস্কোয় “সমাহারিক নিরাপত্তা-২০১১” নামে যে আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী হচ্ছে তাতে “রসআবারোনএক্সপোর্ত” সামরিক প্রযুক্তির শ্রেষ্ঠ সব নমুনা প্রদর্শন করছে. বিশেষ করে, কারখানার প্রদর্শনীতে ম্যাকেটের রূপে দেখানো হবে বুলেট-প্রুফ মোটরগাড়ি. হেলিকপ্টার প্রযুক্তির মাঝে রয়েছে – “মি-১৭১ইয়ে” মার্কা পরিবহণ হেলিকপ্টার, সামরিক ও বিশেষ কর্তব্য সাধনের জন্য “মি-১৭১শে” মার্কা সামরিক পরিবহণ হেলিকপ্টার.
মে 2011
ঘটনার সূচী
মে 2011
21