×
South Asian Languages:
রাজনীতি 16 জুলাই 2010
কথায় আছে পথ চলতে পারে শুধু যে পথিক. কিন্তু প্রথম কদম সব সময়েই কঠিন হয়ে থাকে. ২০০৮ সালে মুম্বাই হামলার পর ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী সোমানাহল্লি মালাইয়া কৃষ্ণ ও তাঁর পাকিস্থানী সহকর্মী শাহ মেহমুদ কুরেশীর পক্ষে ইসলামাবাদে পুনরায় দ্বিপাক্ষিক আলোচনা সম্পূর্ণ ভাবে শুরু করাটা খুব সহজ কাজ হয় নি. দুই পক্ষই একে অপরের দিকে এগিয়েছে.
আফগানিস্থানের খনি ও পাহাড় শিল্প মন্ত্রণালয় আগামী বছরে কুন্দুজ রাজ্যে তৈল খনি খননের জন্য এক টেন্ডার আহ্বান করবে বলে ঠিক করেছে. গেলমেন্দ ও অন্যান্য কিছু রাজ্যেও অনুসন্ধানের কাজ শুরু করা হবে. এই বছরের আগষ্ট   - সেপ্টেম্বর মাসে অন্যান্য কিছু ব্যবহার যোগ্য খনিজ পদার্থের বিষয়েও পরিমান নির্ণয় করা হবে.
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র একসারি ধারায় রাশিয়ার সাথে সহযোগিতার উচ্চ মূল্যায়ন করছে, সেইসঙ্গে আফগানিস্তানে পরিস্থিতি স্থিতিশীলকরণে. এ সম্বন্ধে বৃহস্পতিবার দুশানবে-তে তাজিকিস্তানের রাষ্ট্রপতি এমোমালি রাহমোনের সাথে আলাপ-আলোচনার পরে সাংবাদিকদের সাথে আলাপে বলেছেন মার্কিনী রাষ্ট্রপতির   সহকারী মাইকেল ম্যাকফল. তাঁর কথায়, “ আফগানিস্তানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্র্যাটেজিক পরিকল্পনা পুরণে রাশিয়া গুরুত্বপূর্ণ শরিক থাকছে, বিশেষ করে এ দেশে ট্রানজিট মালপত্র পাঠানোর ক্ষেত্রে.
ভারত ও পাকিস্তান তাদের মাঝে বিদ্যমান সমস্যাবলি সত্ত্বেও দ্বিপাক্ষিক সংলাপ চালিয়ে যেতে প্রস্তুত. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে বৃহস্পতিবার ইস্লামাবাদে দুই রাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের মিলিত সাংবাদিক সম্মেলনে, যা উভয় দেশের টেলি-চ্যানেলগুলি প্রচার করেছিল. পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মহমুদ কুরেশি বৃহস্পতিবার আলাপ-আলোচনা চালান ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শ্রী এস.এম.কৃষ্ণের সাথে.
পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের পর্যায়ে রাশিয়া-ন্যাটো পরিষদের আগামী বৈঠক সেপ্টেম্বরেই হতে পারে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ অ্যাসেম্বলির কাঠামোতেই. এ সম্বন্ধে জানিয়েছেন ন্যাটো জোটে রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি দমিত্রি রগোজিন. তাঁর কথায়, আজ ব্রাসেলসে অনুষ্ঠিত হবে ছুটির মরশুম শুরু হওয়ার আগে রাষ্ট্রদূতদের পর্যায়ে রাশিয়া-ন্যাটো পরিষদের শেষ বৈঠক, যাতে আলোচিত হবে ইউরোপীয় নিরাপত্তা সংক্রান্ত নতুন চুক্তি বিষয়ে রাশিয়ার উদ্যোগে জোটের প্রতিক্রিয়া, আর তাছাড়া রকেটবিরোধী প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত সমস্যাবলি.
জুলাই 2010
ঘটনার সূচী
জুলাই 2010
3