১. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ মেট্রোওয়াগনমাশ নামের ওয়াগন তৈরীর কারখানার কাজ পর্যবেক্ষণ করতে গিয়েছিলেন, যেখানে নতুন রকমের মেট্রো রেল দেখেছেন ও নিজে চালকের আসনে বলে পরীক্ষা করে দেখেছেন.

২. দেশের নেতার জন্য মেট্রো রেল ও রেল পথে চলা ওয়াগন তৈরীর কারখানা পরিদর্শনের কাজে সঙ্গে ছিলেন কারখানার জেনেরাল ডিরেক্টর আন্দ্রেই আন্দ্রেয়েভ.

৩. রাষ্ট্রপতি মেট্রোর ওয়াগন গুলি ঘুরে দেখেছেন, যা এই কারখানা মস্কো ও কাজানের মেট্রোর জন্য তৈরী করেছে, তাছাড়া বুলগারিয়া, কাজাখস্থান, লিথুয়ানিয়া, হাঙ্গেরী, চেখিয়া ও ইউক্রেনে ওয়াগন পাঠানো হয়ে থাকে.

৪. দেশের নেতা অংশতঃ আধুনিক ডিজেল চালিত রেল গাড়ী দেখেছেন, যা বহু দূর পাল্লার যাত্রার জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে.

৫. মেদভেদেভকে তিন ধরনের ওয়াগন দেখানো হয়েছে, যার মধ্যে দুই ধরনের ইতিমধ্যেই মস্কো মেট্রোতে চলছে, আর তৃতীয় ধরনের ওয়াগন – নতুন প্রযুক্তির, যা রাজধানীর মেট্রোতে এই বছরের শেষের আগেই এসে যাবে.

৬. মেদভেদেভ এই কারখানার উত্পন্ন জিনিস দেখা ছাড়াও নিজে চালকের আসনে বসে পরীক্ষা করে দেখেছেন. কেবিনে বসে ব্রেক কসার ব্যবস্থা পরীক্ষা করেছেন, আর বিশেষ মনিটরে প্যাসেঞ্জার দের দেখতে পেয়েছেন, যাদের ভূমিকায় এখানে সাংবাদিকেরা ছিলেন.

৭.""কাশিরস্কায়া স্টেশন". মাননীয় যাত্রীরা, ট্রেন থেকে বেরোনোর সময়ে নিজেদের জিনিস নিতে ভুলবেন না", - যাত্রীরা শুনতে পেয়েছেন.

৮. নতুন মেট্রো রেলের ওয়াগনের ধরন অনুযায়ী দরজা স্বয়ংক্রিয় ভাবে চালকের হস্তক্ষেপ ছাড়াই খুলবে. প্রতি স্টেশনেই যাঁরা নামতে চাইবেন, তাঁরা দরজায় সেই কাজের জন্য বোতাম টিপলেই দরজা খুলে যাবে.