১. বর্তমানে বিশ্বে এক হাজারেরও বেশী সংরক্ষিত জাতীয় অরণ্য রয়েছে. রাশিয়াতে ১০১ টি সংরক্ষিত জাতীয় অরণ্য ও ৩৫টি জাতীয় উদ্যান আছে, যার সম্মিলিত এলাকা চার কোটি হেক্টর জমি, দেশের সর্বমোট এলাকার শতকরা দুই শতাংশ. এই এলাকা গুলির প্রধান লক্ষ্য হল – উদ্ভিদ ও প্রাণী জগতের অধ্যয়ন ও সংরক্ষণ.

২. রাশিয়া ও ইউরো এশিয়া অঞ্চলের সবচেয়ে বড় সংরক্ষিত অরণ্য – "বৃহত্ আর্কটিক অঞ্চলের অরণ্য". উত্তরের হিম মহাসাগরের অংশ কারা সাগরের দ্বীপপূঞ্জে ও সংলগ্ন তাইমীর উপদ্বীপে এই জাতীয় অরণ্য রয়েছে. এই সংরক্ষিত অঞ্চলের প্রায় একের চতুর্থাংশ জায়গাই সামুদ্রিক. এখানে ১২৪ ধরনের পাখী, বহু রকমের মাছ ও তৃণভোজী প্রাণী রয়েছে.

৩. "সুদূর পূর্বের সামুদ্রিক সংরক্ষিত অরণ্য" প্রিমোরস্ক অঞ্চলে অবস্থিত. এখানে সবচেয়ে বড় দ্রষ্টব্য হল মহান পিওতরের নামাঙ্কিত উপসাগরের জলতলের সৌন্দর্য্য – সেখানে সমুদ্রের জলের নীচে থাকা প্রাণীদের সবচেয়ে বেশী বিভিন্ন ধরনের উদাহরণ দেখতে পাওয়া যায়.

৪. বৈকালের অপর পারের জাতীয় উদ্যান, যা বুরিয়াতি রাজ্যে অবস্থিত, তাকে রাশিয়ার খুবই স্বল্প সংখ্যক জাতীয় উদ্যানের একটি বলে মনে করা হয়, যেখানে ইউনেস্কোর দেওয়া সমস্ত পরামর্শই কার্যকর করা সম্ভব হয়েছে. পার্কের অঙ্গ হিসাবে বৈকাল হ্রদের কিছু অংশ রয়েছে. "জাবাইকালস্কি" পার্ক উদ্ভিদ ও প্রাণী জগতের বিভিন্ন উদাহরণে সমৃদ্ধ, আর এখানের বহু বাসিন্দাই বর্তমানে রাশিয়ার রেড বুক উল্লিখিত বিলুপ্ত প্রায় উদ্ভিদ ও জীবের বিরল উদাহরণ.

৫. আস্ত্রাখান অঞ্চলের ভোলগা নদীর মোহনায় ১৯১৯ সালে নথিভুক্ত "আস্ত্রাখান" অঞ্চলের সংরক্ষিত অরণ্য রয়েছে. এখানে থাকা ২৫৬ রকমের পাখীর মধ্য ৭২ রকমের পাখীকে বিরল প্রজাতির পাখী বলে মানা হয়, আর এখানে পরিযায়ী পাখীদের মধ্যে আসা সাদা সাইবেরিয়ার সারস পাখীকে বিশ্বের একটি অন্যতম বিরল পাখী বলে মনে করা হয়ে থাকে.

৬. "তাগানাই" – জাতীয় উদ্যান রয়েছে দক্ষিণ উরালে. এই উদ্যানে পাহাড়ী তুন্দ্রা ও হ্রদ এবং বহু যুগ ধরে সংরক্ষিত অরণ্য রয়েছে. তাগানাই নামটি বাশকির ভাষায় অর্থ করা হয় চাঁদকে ধরে থাকার স্তম্ভ হিসাবে.

৭. রাশিয়ার পূর্ব দিকে কুনাশির ও কুরিল দ্বীপপূঞ্জের অন্যান্য দ্বীপে "কুরিলস্কি" সংরক্ষিত অরণ্য রয়েছে, এই অরণ্যের মধ্যে সংরক্ষিত প্রাকৃতিক শোভা বিশ্বে বিরলতম ও অন্যতম বলে মনে করা হয়ে থাকে. রাশিয়ার রেড বুকে এখানের বাসিন্দা পাখীদের মধ্যে ৮৪ রকমের পাখী রয়েছে.

৮. রাশিয়া ও ফিনল্যান্ডের সীমান্তের কাছে উত্তর মেরুর আবর্তে কারেলিয়া রাজ্যে রয়েছে জাতীয় উদ্যান "পান্যার্ভি". পান্যার্ভি জাতীয় উদ্যানের দ্রষ্টব্য গুলির মধ্যে নুয়োরুনেন পাহাড় – এই পাহাড় কারেলিয়া রাজ্যের সবচেয়ে উঁচু পাহাড় – উচ্চতা – ৫৭৬, ৭ মিটার. এখানে পান্যার্ভি নামে হ্রদও রয়েছে, যাকে বিশ্বের সবচেয়ে গভীর ছোট হ্রদ বলে মনে করা হয়.

৯. ককেশাস পর্ব্বতমালার উত্তরের ঢালে উঁচু পাহাড়ী "তেবেরদিনস্কি" সংরক্ষিত অরণ্যের এলাকায় ১৫১ টি হ্রদ রয়েছে, যা তাদের পরিশ্রুত জল ও সৌন্দর্য্যের জন্য বিখ্যাত. এখানে প্রচুর পাহাড়ী ঝর্না, জলপ্রপাত ও নদী রয়েছে.

১০. দক্ষিণ উরালের "ইলমেনস্কি" সংরক্ষিত অরণ্য রাশিয়ার অন্যান্য সংরক্ষিত অরণ্যগুলির মধ্যে এলাকার মাপে মাত্র ৩৪ নম্বর জায়গায় রয়েছে, কিন্তু প্রাকৃতিক ঐশ্বর্য অনুযায়ী বিশ্বে প্রথম স্থানে রয়েছে. ১৯৩০ সাল থেকেই এখানে ধাতুর যাদুঘর রয়েছে, যাতে প্রায় ২০০ ধরনেরও বেশী ধাতু উত্স প্রদর্শনী রয়েছে.

১১. সাইবেরিয়ার সংরক্ষিত অরণ্য "স্তলবী" নামের জায়গার প্রধান দ্রষ্টব্য বিষয় হল পাহাড়ের খাদ. ১৯২৫ সালে এটিকে সংরক্ষিত অরণ্যের স্বীকৃতি দেওয়া হয় ক্রাসনোইয়ারস্ক শহরের বাসিন্দাদের আগ্রহে ও এখনও অবধি দেশের সমস্ত অঞ্চলের পর্যটকদের ও এখানের সমস্ত লোকেদের কাছে অনাবিল জনপ্রিয়তা পেয়ে চলেছে. ইউনেস্কো প্রকাশিত বিশ্বের পরম্পরা অনুযায়ী পাওয়া সম্পদ তহবিলে এই অরণ্যের উল্লেখ রয়েছে.

১২. ককেশাস পর্ব্বতমালার সবচেয়ে বড় সংরক্ষিত অঞ্চল ও ইউরোপে দ্বিতীয় বড় সংরক্ষিত অরণ্য "ককেশাস" সবচেয়ে বেশী সংখ্যক বিরল প্রাণী ও উদ্ভিদের বাসস্থান. রাশিয়ার রেড বুকে ককেশাস সংরক্ষিত অরণ্যের ৫৫টি উদ্ভিদের উল্লেখ রয়েছে.