প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন ইয়াকুতিয়ার টিসকি জনপদে পৌঁছেই হেলিকপ্টারে চড়ে সামোইলোভস্কি দ্বীপে গিয়েছিলেন, সেখানে রাশিয়া ও জার্মানীর "লেনা – ২০১০" অভিযানের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেছেন.    প্রধানমন্ত্রী এই অভিযানের সদস্য বিশেষজ্ঞদের বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধান কাজের সঙ্গে পরিচিত হয়েছেন.    পুতিন এই অভিযানের বৈজ্ঞানিক কাজকর্মের বিশেষ গুরুত্বের কথা উল্লেখ করেছেন. "আমরা পূর্ব্ব সাইবেরিয়ার দিকে শিল্প বিকাশ ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন করতে চাই, আপনাদের কাজ এখানে সবচেয়ে স্বাভাবিক উন্নয়নের পথ দেখাবে".    উদাহরণ হিসাবে প্রধানমন্ত্রী হীরক খনির ভূ তাত্ত্বিক অনুসন্ধানের কথা উল্লেখ করেন ও অন্যান্য খনিজ আহরণের কথাও বলেন.    ভ্লাদিমির পুতিন বৈজ্ঞানিকদের আশ্বাস দিয়েছেন যে, তিনি তাঁদের সহায়তা করবেন, "এটা একটা জীবন্ত প্রকল্প, আর কাজ হচ্ছে খুবই দরকারি দিকে".    পুতিন মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, রাশিয়ার এই দিকে নতুন মহাকাশ যান উড়ান কেন্দ্র "ভস্তোচনি" তৈরী হচ্ছে. "২০১২ সালে এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশ গুলির শীর্ষ বৈঠকের জন্য এক বিশাল কমপ্লেক্স তৈরী হচ্ছে, যা সম্মেলনের পর নূতন গঠিত পূর্ব্বের বিশ্ববিদ্যালয়কে দিয়ে দেওয়া হবে. বিশ্ববিদ্যালয় একটা দারুণ ভাল স্থাবর সম্পত্তি পাবে" – বলেছেন প্রধান মন্ত্রী.